ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

0
398

সিস্টেমে ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)যারা নতুন নতুন কম্পিউটার কিনেছেন তাদের কাজে আসবে।  হিডেন ফাইল অথবা ফোল্ডারগুলো মূলত সাধারণ ফাইল এবং ফোল্ডারই, শুধু মাত্র এগুলোতে একটি বাড়তি ‘হিডেন’ অপশন সেট ব্যবহার করা হয়। খুব সহজেই আপনি অপারেটিং সিস্টেমের ডিফল্ট সুবিধা ব্যবহার করেই আপনার কম্পিউটারের ফাইল অথবা ফোল্ডার হাইড করতে পারবেন অন্যের কাছ থেকে। চলুন, বিভিন্ন (জনপ্রিয়) অপারেটিং সিস্টেম গুলোতে কীভাবে এই ফাইল এবং ফোল্ডার গুলো হিডেন করা যায় তা দেখে নেই।

 উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের ক্ষেত্রেঃ

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

আমাদের দেশে সম্ভবত সবচাইতে বেশি জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেমের নামের তালিকায় প্রথমেই এই অপারেটিং সিস্টেমটি থাকবে। সিম্পল এবং সহজ ইউজার ইন্টারফেসের কারণে খুব সহজেই ব্যবহারকারী উইন্ডোজের ব্যবহার শিখে নিতে পারেন, এটিই এর জনপ্রিয়তার মূল কারণ। যাই হোক, কম বেশি সবাই প্রায় আমরা উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের জন্য ফাইল অথবা ফোল্ডার হিডেন করার উপায় জানি, তবুও যেহেতু আমি সব অপারেটিং সিস্টেমের গুলো বলব বলেই শুরু করেছি তাই চলুন দেখে নেই পদ্ধতিটি।

উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে একটি ফাইল বা ফোল্ডার হাইড করার জন্য আপনাকে প্রথমেই উইন্ডোজ এক্সপ্লোরার খুলতে হবে। এবং এরপর এক্সপ্লোরার থেকে আপনি আপনার সেই নির্দিষ্ট ফাইল বা ফোল্ডারটি লোকেট করুন। ফাইল/ফোল্ডারের উপর মাউসের রাইট ক্লিক করলে কন্টেক্সট মেন্যুর শেষে দেখবেন একটি ‘Propertise’ অপশন রয়েছে। ক্লিক করুন।  

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

প্রোপার্টিজে ক্লিক করার পর সেই ফাইল বা ফোল্ডারটির একটি নতুন প্রোপার্টিজ উইন্ডো খুলবে যার নিচের দিকে Attributes এ একটি Hidden নামক অপশন দেখতে পাবেন। হিডেন এর পাশের বক্সে টিক চিহ্ন দিয়ে OK দিয়ে বের হয়ে আসলেই আপনার সেই ফাইল অথবা ফোল্ডারটি হিডেন হয়ে যাবে।

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

 

ফাইল বা ফোল্ডার তো হাইড করলেন, এখন পুনরায় দেখবেন কীভাবে? বলছি।

উইন্ডোজ ৮ এবং ৮.১ এর ক্ষেত্রেঃ

আপনার হাইড করা ফাইল বা ফোল্ডার বা আপনার কম্পিউটারের হিডেন ফাইল দেখার জন্য আপনাকে প্রথমে এক্সপ্লোরারের উপরের থাকা রিবনের View ট্যাবে ক্লিক করতে হবে। দেখবেন, Hidden Items নামক একটি অপশন রয়েছে এবং এর পাশে থাকা চেক বক্সট ফাঁকা। চেক বক্সে টিক চিহ্ন দিলেই আপনি আপনার হিডেন ফাইল গুলো দেখতে পারবেন।

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

উইন্ডোজ ৭ এর ক্ষেত্রেঃ

এক্সপ্লোরারের উপরে দেখুন ‘Organize’ নামের একটি অপশন আছে, এখানে ক্লিক করলে কন্টেক্সট মেন্যুতে Folder and search options নামের একটি অপশন দেখতে পারবেন, ক্লিক করুন।

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

নতুন একটি ফোল্ডার অপশন খুলে গেলে সেখান থেকে View ট্যাবে ক্লিক করুন। Advance Settings এর মধ্যে বেশ কিছু অপশন দেখতে পাবেন। এর মধ্যে Hidden files and folders এর আন্ডারে থাকা Show hidden folders, and drives অপশনটি সিলেক্ট করে Ok চেপে বের হয়ে আসুন। ব্যাস, হয়ে গেল কাজ!!

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

 

লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম সমূহের ক্ষেত্রেঃ

লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেমের ক্ষেত্রে ফোল্ডার বা ফাইল হাইড করা একদমই সহজ। আপনি যে ফাইল বা ফোল্ডারটি হাইড করতে চান সেটির নামের আগে একটি period (.) ব্যবহার করলেই ফাইল অথবা ফোল্ডারটি হাইড হয়ে যাবে। ধরুন, আপনার একটি ফোল্ডার রয়েছে Secret , এখন আপনি যদি এই Secret নামের ফোল্ডারটী হাইড করতে চান তবে এর নাম রিনেম করে শুধু .Secret লিখুন, ব্যাস ! ফোল্ডারটি গায়েব হয়ে যাবে।

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

যেভাবে পুনরায় হিডেন ফাইল দেখবেনঃ

প্রথমে ফাইল ম্যানেজারে যান। View অপশন সিলেক্ট করলে নিচের দিকে Show Hidden Files নামের একটি অপশন দেখতে পাবেন। ক্লিক করুন। 

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

এরপর আপনি period দিয়ে শুরু এরকম সব ফাইল অথবা ফোল্ডার গুলো দেখতে পারবেন।

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

এছাড়াও, ওপেন এবং সেভ ডায়লগের মাধ্যমেও আপনি আপনার হিডেন ফাইল গুলো দেখতে পারবেন।

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

 

ম্যাক অপারেটিং সিস্টেমের ক্ষেত্রেঃ

লিনাক্সের মত ম্যাকেও ফাইল বা ফোল্ডার হাইড করার জন্য period ব্যবহার করতে হয়। তবে ম্যাকে ফাইল হাইড করা কিছুটা কঠিন, কেননা আপনি যদি কোন ফাইলের নাম রিনেম করে এর পূর্বে period ব্যবহার করতে চান তবে ফাইন্ডার আপনাকে জানাবে, ‘these named are reserved for the system.’

তবে আপনি দ্রুত ফাইল হাইড করার জন্য টার্মিনালে chflags কমান্ডের ব্যবহার করতে পারেন। এর জন্য প্রথমে Command + Space  চেপে টার্মিনাল ওপেন করুন ।

এরপর নিচের কোডটি লিখুনঃ

Chflags hidden

মনে রাখবেন, কোডটি লিখেই এন্টার করবেন না এবং অবশ্যই hidden লেখার পর একটি স্পেস রাখবেন।

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

এরপর, আপনি যে ফাইল অথবা ফোল্ডারটি হাইড করতে চান তা লোকেট করুন এবং সেটি ড্র্যাগ করে এনে টার্মিনালে ড্রপ করুন। এর ফলে ফাইল অথবা ফোল্ডারটির মূল পাথ টার্মিনালে দেখাবে। এবার, এই কমান্ডটি রান করার জন্য এন্টার চাপুন। ব্যাস, ফাইল হাইড হয়ে গেল।

ফোল্ডার হাইড করার পদ্ধতি (সকল প্রকার অপারেটিং সিস্টেমের কৌশল)

আর আন-হাইড করার জন্য শুধু টার্মিনালে chflags hidden এর স্থানে chflags nohidden লিখুন।

 

শেষ কথাঃ

আমরা মূলত ফাইল বা ফোল্ডার হাইড করে থাকি যেন অন্য কেউ আমাদের প্রয়োজনীয় বা গোপনীয় ফোল্ডার গুলো এক্সেস করতে না পারে। আপনি যদি এর চাইতেও ভালো সুবিধা চান যাতে করে কেউ আপনার ফাইল বা ফোল্ডার এক্সেস করতে না পারে তবে আপনি হাইড এর পরিবর্তে encrypt করতে পারেন সেই ফাইল অথবা ফোল্ডারটি।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 + 11 =