আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যান করতে না চাইলে অবশ্যই এদিকে দেখুন

0
409

আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তার অধিকারী ফেসবুক ব্যবহার করছেন প্রতিদিন। শত শত বন্ধুর সাথে যোগাযোগ করে চলেছেন প্রতিনিয়ত। একদিন ফেসবুকে না ঢুকলে ভালো লাগে না। তবে আশংকার বিষয় হলো ফেসবুক যেকোন সময় বিনা নোটিশে আপনার এই সখের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিতে পারে।

আর তাই আমাদের সবারই সতর্ক থাকা উচিত এবং জানা থাকা উচিত যে সকল কারনে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যান হতে পারে। এই পোস্টে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যান হওয়ার অন্যতম কিছু কারন নিয়ে লিখছি।

পর্ণগ্রাফিঃ
এটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যান হওয়ার একটি অন্যতম প্রধান কারন। আপনার ফেসবুক প্রোফাইল বা অন্য কোথাও আপনি যদি এই ধরনের কোন ছবি বা ভিডিও ব্যবহার করেন, তাহলে ফেসবুক আপনার অ্যাকাউন্ট ব্যান করবে কোন আগাম রিপোর্ট অথবা নোটিশ ছাড়া।

ভাষার অপব্যবহারঃ

স্টাটাস আপডেট অথবা ম্যাসেজ আদান-প্রদান এর সময় আপনার ভাষার প্রতি খেয়াল রাখতে হবে। বাজে ভাষা ব্যবহার করলে আপনার ফ্রেন্ড লিস্টে থাকা কেউ আপনার নামে রিপোর্ট করতে পারে এবং ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

ভূয়া প্রোফাইলঃ
আপনি যদি আপনার নিজের নামের বদলে কোন সেলিব্রেটি অথবা অন্য কারও নাম ব্যবহার করেন, তাহলে আপনার অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা হবে খুব তাড়াতাড়ি।

হুমকি দেয়াঃ
কাউকে হুমকি দেয়ার জন্য কখনোই আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করবেন না। এমনকি মজা করার জন্য হলেও না। ফেসবুক এই বিষয়টি খুব গুরুত্বের সাথে নেয় এবং খুব দ্রুত অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড করে দেয়।

স্প্যামিং করাঃ

শুধু ফেসবুক না, পুরা ইন্টারনেট জগত এটিকে ঘৃনা করে। আপনার পন্য বা ওয়েবসাইট প্রোমোট করার জন্য ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার না করাই ভালো। তবে একটি নির্দিস্ট সীমা পর্যন্ত এটি করা যেতে পারে যেটি স্প্যামিং এর পর্যায়ে পড়ে না।

অতিরিক্ত বন্ধু রিকোয়েস্টঃ

প্রতিদিন ২০টির বেশি ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাবেন না। যত কম হয় ততই ভালো। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ হবার এটি আরেকটি অন্যতম কারন।

অনেক গ্রুপে জয়েন করাঃ
খুব বেশি গ্রুপে জয়েন না করাই ভালো। ফেসবুক এটি ভাল চোখে দেখে না। আর গ্রুপগুলো থেকে ম্যাসেজ এসে আপনার ইনবক্স ভর্তি হয়ে যাবে প্রতিদিন।

অতিরিক্ত ম্যাসেজঃ
আপনি যদি আপনার বন্ধুদের ওয়াল অথবা ইনবক্সে প্রতিদিন অনেক বেশি ম্যাসেজ পোস্ট করেন, তাহলে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যেতে পারে। আর একই ম্যাসেজ বার বার দিতে চাইলে সেখানে কিছুটা পরিবর্তন করে দিন। নাহলে ফেসবুক এটি স্প্যাম হিসেবে ধরবে।

মূলত ফেসবুক ব্যবহারের সময় এই বিষয়গুলোর দিকে একটু খেয়াল রাখলে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যান হওয়ার তেমন আশংকা থাকবে না। তবে এগুলো ছাড়াও আরও কিছু কারনে ফেসবুক আপনার অ্যাকাউন্ট ব্যান করতে পারে।

ভালো লাগলে নিজের ওয়ালে শেয়ার করুন।

লিখেছেনঃ খুরশীদ সিহাব

একটি উত্তর ত্যাগ