ব্যাকলিংক বাড়াতে অন্যের ব্লগে করা কমেন্টস এপ্রুভ করার কিছু টিপস

7
321
ব্যাকলিংক বাড়াতে অন্যের ব্লগে করা কমেন্টস এপ্রুভ করার কিছু টিপস

রিকন

আমি একজন ফ্রিল্যান্সার। নিজেকে প্রতিদিন আরো নতুন ভাবে আবিষ্কার করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। বাংলাদেশ ফ্রিল্যান্সিং বাজারে একদিন সবার উপরে থাকবে সেই সপ্ন নিয়ে সামনে এগিয়ে যাচ্ছি। ব্লগ লিখতে পছন্দ করি এবং শিখাতে ভালবাসি নতুন ফ্রিল্যান্সারদের।
ব্যাকলিংক বাড়াতে অন্যের ব্লগে করা কমেন্টস এপ্রুভ করার কিছু টিপস
ব্যাকলিংক বাড়াতে অন্যের ব্লগে করা কমেন্টস এপ্রুভ করার কিছু টিপস
সার্চ ইঞ্জিনে আপনার সাইটকে প্রথমে আনতে ব্যাকলিংকের গুরুত্ব অনেক। আর ব্যাকলিংক পাওয়ার যতগুলো মাধ্যম রয়েছে তার মধ্যে ব্লগ কমেন্ট অন্যতম। হাই পি.আর. ব্লগে কমেন্ট করে আপনি এক দিকে ব্যাকলিংকতো পেলেনই পাশাপাশি আপনি যে পেজে মন্তব্যটা করবেন সে পেজ থেকেও কিছু ভিজিটরস্‌ পেতে পারেন। তবে অনেকেই ব্লগে কমেন্ট করেন কিন্তু তাদের কমেন্টটা এপ্রুভ হয় না। আজ আমি আপনাদেরকে ব্লগ কমেন্ট এপ্রুভ হওয়ার কিছু টিপস্ দিব।

 

১। রিলেটেড ব্লগ:

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

ব্লগ কমেন্ট শুরু করার আগে আপনি আপনার ব্লগের সিমিলার কিছু ব্লগের লিংক কালেক্ট করুন। তাহলে, আপনি যেখানে মন্তব্য করবেন সেখান থেকেও কিছু ভিজিটরস্‌ পেতে পারেন।

২। জনপ্রিয় সাইটে মন্তব্য করুন:

সাইট সংগ্রহের পর ঐখান থেকে জনপ্রিয় সাইটগুলোতে মন্তব্য করুন। সাইটগুলো যদি নো-ফলো হয় তার পরেও অনেক ভাল হবে।

৩। পোষ্টের সাথে মিল রেখে মন্তব্য করুন:

আপনি যে পোষ্টে মন্তব্য করবেন অবশ্যই সেই পোষ্টের সাথে মিল রেখে মন্তব্যটা করবেন। আপনি যা ইচ্ছে তা লিখে দিলে চলবে না।

৪। ডুফলো সাইটে মন্তব্য করার চেষ্টা করুন:

আপনি যখন মন্তব্য করেন, তখন মন্তব্যটা ডুফলো সাইটে করার চেষ্টা করুন। কারণ ডুফলো লিংকগুলোকে সার্চ ইঞ্জিন বেশী গুরুত্ব দিয়ে থাকে। তাই আপনি যখনই কোন ব্লগে মন্তব্য করেন, দেখবেন- ব্লগটা ডুফলো নাকি নো-ফলো। নো-ফলো হলেও মন্তব্য করতে পারেন। তবুও ডুফলো সাইটের গুরুত্ব অনেক বেশী।

৫। আপনার সাইটের প্রধান লিংক এবং ইনডিভিজুয়্যাল লিংক:

আপনি যে সব সময় আপনার সাইটের প্রধান লিংক দিয়েই আপনার মন্তব্যগুলো করবেন এমন না। আপনি প্রধান লিংকগুলোর পাশাপাশি আপনার ব্লগের অন্যান্য পেজের লিংক দিয়েও মন্তব্য করতে পারেন।

৬। প্রশ্ন-উত্তর:

ব্লগ কমেন্ট এপ্রুভ হওয়ার জন্য এটা অনেক বড় একটা উপায়। আপনি যদি দেখেন কোন ব্লগে কেউ প্রশ্ন করছে বা ব্লগ রিলেটেড কিছু জানতে চাইছে তাহলে তার ঐ প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেন। এতে ব্লগার আপনার মন্তব্যটাকে ঐ প্রশ্নকারীরর উত্তর হিসেবে এপ্রুভ করবেন। এছারা, পোষ্ট রিলেটেড প্রশ্ন করতে পারেন।

৭। মন্তব্যকে ফরমেট করুন:

আপনি সাধারন লেখায় মন্তব্য না করে, মন্তব্যের বিভিন্ন অংশকে বিভিন্ন স্টাইলে লিখুন। যেমন: বোল্ড, ইতালিক ইত্যাদি।

৮। আপনার মন্তব্যটাকে আকর্ষণীয় করে তুলুন:

আপনি যে মন্তব্য করেন সেটাকে একটু আকর্ষণীয় করে তুলার চেষ্টা করুন। আপনার মন্তব্যটাকে টপিকের সাথে মিল রেখে একটা কোয়ালিটি মন্তব্যে পরিণত করুন।

৯। আপনার মন্তব্যটাকে পোষ্টের প্রথম দিকে রাখার চেষ্টা করুন:

আপনি যখন মন্তব্য করেন তখন আপনার মন্তব্যটাকে পোষ্টের প্রথম দিকে অর্থাৎ ১,২ বা ৩ এই পজিশনে রাখার চেষ্টা করুন। আর যদি তা সম্ভব না হয়, তাহলে প্রথম দিকের একটা মন্তব্যের রিপ্লাই করুন। এতেও আপনার মন্তব্য উপরের দিকে আনা সম্ভব।

১০। মন্তব্যে ব্লগারের নাম উচ্চারণ করুন:

আপনা মন্তব্য/কমেন্টস এপ্রুভে এটা অনেক ভূমিকা রাখতে পারে। আপনি যখন মন্তব্য করবেন তখন যে ব্লগার পোষ্টটা করেছেন তার নামটা আপনার মন্তব্যে উল্লেখ করুন। তাহলে ব্লগার মনে করবে যে এটা কোন স্প্যাম কমেন্টস না। এবং সে এটা এপ্রুভ করবে।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

7 মন্তব্য

  1. বহুত কাজ এর কথা জানায়চ্র্ন. নতুন দের কাজ এ লাগবে.

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × 2 =