তথ্য সংরক্ষণ করবে হলোগ্রাফিক স্টোরেজ

4
301

অনেকেই হয়তো সাই-ফাই ছবিতে দেখানো বা কল্পনার রাজ্যের হলোগ্রাফিক স্টোরেজ শিগগির বাস্তবের দুনিয়ায় আনছেন গবেষকেরা। যুক্তরাষ্ট্রের এইচভল্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠান ক্লাউড সার্ভিসনির্ভর হলোগ্রাফিক তথ্য সংরক্ষণ ব্যবস্থা তৈরি করছে। এক খবরে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট ম্যাশেবল জানিয়েছে, চলতি বছরই গবেষকেরা এ সার্ভিস উন্মুক্ত করবেন।
হলোগ্রাফিক স্টোরেজ হচ্ছে ডাটা আর্কাইভের এমন একটি প্রযুক্তি, যাতে তথ্য একবার সংরক্ষণ করার পর দীর্ঘদিন সে তথ্য ব্যবহার করা সম্ভব হয়। বর্তমানে প্রচলিত তথ্য সংরক্ষণ ব্যবস্থার চেয়ে এ পদ্ধতি আলাদা। এ পদ্ধতিতে তথ্য সংরক্ষণে ফটোসেনসেটিভ মিডিয়াম ব্যবহার করা হয়, যা ফিল্মে থ্রিডি ছবি সংরক্ষণ করার প্রযুক্তির মতো। এতে তথ্য লেখা ও পড়ার জন্য রেফারেন্স বিম ও সিগন্যাল বিম নামে দুটি লেজার বিম ব্যবহার করা হয়। সিগন্যাল বিম তথ্য লেখার পদ্ধতি নিয়ন্ত্রণ করে আর রেফারেন্স বিম তথ্য লেখার স্থানটি চিহ্নিত করে রাখে। তথ্য পড়ার সময় রেফারেন্স বিম তথ্যের সঠিক স্থানটি দেখায় ও তথ্যের হলোগ্রাম তৈরি করে; যা ক্যামেরার মতো যেকোনো সেন্সর দিয়ে পড়া যাবে।
হলোগ্রাফিক স্টোরেজ প্রযুক্তি ২০০৫ সালে ন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব ব্রডকাস্টার্সে দেখিয়েছিল ইনফেজ টেকনোলজিস নামের একটি প্রতিষ্ঠান। কিন্তু অর্থাভাবে এ প্রতিষ্ঠানটি তাদের গবেষণা কাজ পাঁচ বছরের বেশি চালিয়ে যেতে পারেনি। পরে ইনফেজ নামের এই প্রতিষ্ঠানটিকে কিনে নেয় এইচভল্ট। গবেষকেরা জানিয়েছেন, হলোগ্রাফিক স্টোরেজে তথ্য সংরক্ষণ করার সুবিধা হচ্ছে ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে তথ্যের মানের কোনো পরিবর্তন ঘটে না। কিন্তু সিডি বা ডিভিডিতে তথ্য সংরক্ষণ করা হলে দুই থেকে পাঁচ বছরের মধ্যেই তথ্যের মান নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এইচভল্টের গবেষকেরা জানিয়েছেন, হলোগ্রাফিক প্রযুক্তিতে অধিক পরিমাণ ডেটা বা তথ্য সংরক্ষণ করে রাখা যায়। পাশাপাশি বিদ্যুত্, ধুলা, তাপমাত্রা বা অন্য কোনো কারণে তথ্য হারানোর আশঙ্কা থাকে না।তথ্য সংরক্ষণ করবে হলোগ্রাফিক স্টোরেজ

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

4 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

one × 5 =