চলন্ত অবস্থায় তরুণেরা বেশি ইন্টারনেট ব্যবহার করে!

14
392

তরুণদের মধ্যে বড় একটি অংশ ইন্টারনেট ব্যবহার করে চলন্ত অবস্থায়। অর্থাৎ গাড়ি চালানো কিংবা কোনো যানবাহনে চলন্ত অবস্থায় ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেশি। সম্প্রতি এ বিষয়ে একটি গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। বিপুলসংখ্যক এই তরুণ কম্পিউটার, ল্যাপটপের চেয়ে স্মার্টফোনেই ইন্টারনেট ব্যবহারে বেশি আগ্রহী। স্মার্টফোনে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের এ সংখ্যা ২০০৯ সালের চেয়ে ২০১১ সালে বেড়ে দাঁড়িয়েছে এক কোটি ৭৬ লাখ; যা প্রায় ১০৭ শতাংশ বেশি! এ তথ্য থেকে জানা যায়, বর্তমানে ৪৫ শতাংশ তরুণ ব্যবহারকারীই ইন্টারনেট ব্যবহার করে নিজের স্মার্টফোন থেকে। ১৭ থেকে ২৪ বছর বয়সী বিশাল এ তরুণ গোষ্ঠী স্মার্টফোনের সাহায্যেই ই-মেইল, সামাজিক যোগাযোগের সাইট ব্যবহারের কাজটি বেশি করে চলন্ত অবস্থায়। ইনস্টিটিউট অব অ্যাডভান্সড মটোরিস্টের (আইএএম) জ্যেষ্ঠ মানবীয়করণ-বিষয়ক গবেষক নিক রেড জানান, ভয়ংকর তথ্য হচ্ছে, গাড়িতে চলন্ত অবস্থায় যে তরুণেরা স্মার্টফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার করে, তাদের শতকরা ৬০ ভাগই রাস্তার চেয়ে স্মার্টফোনে বেশি নজর রাখে। এর ফলে ভয়ংকর সব দুর্ঘটনার মুখোমুখি হওয়ার আশঙ্কা বেশি! আর তাই এ গবেষণায় ড্রাইভিং কিংবা চলন্ত অবস্থায় বিরক্ত না করার একটি বৈশিষ্ট্য যোগের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
নিয়মিতভাবে গাড়ি দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ হিসেবে সামাজিক যোগাযোগের সাইট ফেসবুককে দায়ী করা হয়েছে প্রতিবেদনে। দেখা গেছে, চলন্ত অবস্থায় ফেসবুকে চ্যাট কিংবা ছবি, স্ট্যাটাস দেখার পেছনে সময় বেশি ব্যয় করে তরুণেরা। এ সময় রাস্তার চেয়ে মনোযোগও বেশি থাকে ফেসবুকের দিকে। তবে সামাজিক যোগাযোগের টুলসকে পুরোপুরি দায়ী মানছেন না অনেকেই। তাঁদের মতে, গাড়ি চালানো অবস্থায় মুঠোফোনে কথা বলাও ভয়ংকর ব্যাপার, সেখানে সে অবস্থায় ফেসবুক ব্যবহার তো আরও বড় ভয়ংকর ব্যাপার। তাই চলন্ত অবস্থায় স্মার্টফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার না করার পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের।চলন্ত অবস্থায় তরুণেরা বেশি ইন্টারনেট ব্যবহার করে!

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

14 মন্তব্য

  1. একদম সত্যি কথা
    আমার সামনে কাল গাড়িতে আমার ফ্রেন্ড ফেসবুক চালাইসে

  2. সৌদি তো এই ব্যাপারে জতেস্থ সচেতন হয়েছে । তবু চেকপোস্ট পার হয়েই শুরু করে দেই ……………………।

    স্বেচ্ছায় ফেজবুক ব্যবহার করার দায়ে দুর্ঘটনার জন্য ফেজ বুক বা টুলস গুলো দায়ী নয় । দায়ী তারা নিজেয় ।

মন্তব্য দিন আপনার