****গ্রাফিক ডিজাইন শেখায় দ্রুত উন্নতি করার পদ্ধতি****

6
1655

কম্পিউটারের যে কোন প্রোগ্রাম শেখার সময় সেই সফটঅয়্যারের কাজ করার পদ্ধতি শিখবেন সেটাই নিয়ম। গ্রাফিক  ডিজাইনের জন্য ফটোশপ-ইলাষ্ট্রেটরেও ব্যতিক্রম নেই। কোন কাজ কিভাবে করে সেটা শিখবেন এবং নিজে প্রাকটিস করবেন।
গ্রাফিক ডিজাইন এর সাথে সৃষ্টিশীলতা জড়িত। সেইসাথে যখন টাকার বিনিময়ে কাজ করার বিষয় থাকে তখন যার কাজ তার পছন্দ অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ন। কাজ পছন্দ হলে তবেই তিনি অর্থ দেবেন। কাজেই আপনার লক্ষ্য একদিকে ক্লায়েন্টকে খুশি রাখা অন্যদিকে সৃষ্টিশীল কাজ করে প্রশংসা পাওয়া।
নিজে প্রাকটিস করে সত্যিকার দক্ষতা অর্জন করা কঠিন। কাজ করার সময় আপনি হাতের কাছে যে ছবি বা ডিজাইন আছে সেটা ব্যবহার করবেন, বিশেষ উদ্দেশ্য ছাড়াই কিছু করতে চেষ্টা করবেন। সঠিক ফল পেয়েছেন কি-না যাচাই করার সুযোগ নেই। অথচ অল্প কিছু পদ্ধতিতে আপনি সেটা করতে পারেন।
এখানে এধরনের কয়েকটি পদ্ধতি উল্লেখ করা হচ্ছে;
.          স্থানীয় কারো কাজ করে দিন
আপনার পরিচিত কারো কি গ্রাফিক ডিজাইন কাজ প্রয়োজন ? কিংবা কারো উঠানো ছবিগুলি পোষ্ট-প্রসেসিং করা প্রয়োজন। খোজ করে এধরনের কাজ বের করুন এবং সেগুলি করুন। যার কাজ তিনি আপনাকে বলে দেবেন কাজটি ঠিকমত হয়েছে কি-না, আর কি করা প্রয়োজন। হয়ত দেখা যাবে আপনার এমন কিছু জানা প্রয়োজন যা আপনার দৃষ্টি এড়িয়ে গেছে। সাথেসাথে সেটা শিখে নিন।
.          অনলাইন প্রতিযোগিতায় অংশ নিন
freelancer, scriptlance, thePerfectDesign ইত্যাদি সাইটে প্রতিযোগিতার মাধ্যমে গ্রাফিক ডিজাইন কাজ করানো হয়। এর সুবিধে হচ্ছে অন্যান্য কাজের মত বিড করতে হয় না। তাদের বর্ননা দেখে কাজ করে জমা দিতে পারেন।
যারা নিয়মিত একাজ করেন তারা বহু বছর ধরে পেশাদার কাজ করছেন এটা ধরে নেয়াই ভাল। তাদের সাথে প্রতিযোগিতায় আপনি হয়ত পুরস্কার পাবেন না। কিন্তু আপনার লক্ষ্য যেখানে দক্ষতা বাড়ানো সেখানে এধরনের প্রতিযোগিতা খুব কার্যকর।
কাজের বর্ননা ভালভাবে পড়ে বোঝার চেষ্টা করুন তিনি ঠিক কি চেয়েছেন। অন্য যারা কাজ জমা দিয়েছেন তাদের কাজ দেখে বোঝার চেষ্টা করুন তারা কিভাবে তাকে কাজে পরিনত করছে। পুরস্কার পাওয়া ডিজাইন দেখে জানতে চেষ্টা করুন আপনার কাজে কোথায় ঘাটতি আছে। সেটা পুরন করুন।
.          ফ্রিল্যান্সিং কাজের জন্য চেষ্টা শুরু করুন
কোন ফ্রিল্যান্সিং সাইটের সদস্য হয়ে সেখানে সহজ কাজের জন্য বিড শুরু করুন। আবারও, শুরুতেই সফল হবেন এটা ধরে না নেয়াই ভাল। ক্লায়েন্ট কি চান সেটা বোঝা, আপনি তাকে কাজে পরিনত করতে পারেন কি-না যাচাই করাই আপনার উদ্দেশ্য। ব্যর্থতা সাফল্যের চাবিকাঠি এই নিয়মে নিজের ব্যর্থতাগুলি খুজে বের করুন। কয়েকমাসের মধ্যেই একদিকে গ্রাফিক ডিজাইনে যেমন দক্ষতা অর্জন করবেন অন্যদিকে ফ্রিল্যান্সিং কাজের অভিজ্ঞতা লাভ করে ফ্রিল্যান্সিং কাজের দিকে আরেকধাপ এগিয়ে যাবেন।
.          অন্যকে শেখান
আপনার পরিচিত কেউ কি গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে আগ্রহি। তাকে শেখাতে শুরু করুন। কোন বিষয় যদি আপনার বাদ পড়ে থাকে সেটা সহজে ধরা যাবে। সেইসাথে বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দেখার কারনে দক্ষতা বাড়বে খুব দ্রুত।
ক্লায়েন্টে কাজ করার সময় কিছু বিষয়ে দৃষ্টি রাখা প্রয়োজন। আপনি কাজটি ঠিকভাবে সময়মত করে দিতে পারবেন এটা নিশ্চিত না হয়ে কাজ শুরু না করাই ভাল। আপনাকে কাজ দিয়ে কেউ বিপদে পড়ুক সেটা নিশ্চয়ই আপনি চানন না। সেটা দুজনের জন্যই ক্ষতিকর।
ক্লায়েন্ট কি চান সেটা ভালভাবে বুঝুন। উদাহরন হিসেবে, তিনি যদি ইলাষ্ট্রেটর কিংবা ফ্লাশ ফরম্যাট চান এবং আপনার শুধুমাত্র ফটোশপ জানা থাকে তাহলে আপনি সেকাজ করতে পারেন না। বরং এমন কাজ বেছে নিন যা ফটোশপে করা যায়।
টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

6 মন্তব্য

  1. সত্যিই আপনার পোস্ট গুলা আগের মতই ভাল সুন্দর , চালাই জান আমরা আছি………

  2. ঠিক বলেছেন ভাই মানুষকে শিখানোর মানসিকতা না থাকলে নিজে কখনো শেখা যাবে না.

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

5 × 4 =