কে কে আগামিকাল প্রতীকি মূর্তির সামনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন??

10
567
খলীফা ওমর (রাঃ)-এর সময় তাকে সংবাদ দেয়া হল যে, কতিপয় মানুষ ঐ বৃক্ষের উদ্দেশ্যে যাতায়াত করে যে বৃক্ষের নীচে ছাহাবীগণ নবী করীম (ছাঃ)-এর হাতে বায়‘আত করেছিলেন। অতঃপর তিনি [ওমর (রাঃ)] ঐ বৃক্ষকে কেটে ফেলার নির্দেশ দিলেন (ফাৎহুল বারী ৭/৪৪৮)।
কিন্তু বর্তমানে আমরা সংস্কৃতির নামে, আধুনিকতার নামে অহরহ শিরক করে চলেছি। স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস ও শহীদ দিবস আসলে আমরা শহীদ মিনারে ও স্মৃতিসৌধে গিয়ে ফুলের স্তবক দেই, নীরবে দাঁড়িয়ে থাকি, শ্রদ্ধা ও সম্মান জানাই। প্রতিটি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ মিনার তৈরী করে দেশে ভবিষ্যৎ কর্ণধার কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদেরকে শিরক শিক্ষা দেয়া হচ্ছে।

 

অথচ সবচেয়ে বড় গুনাহ ও শিরক থেকে বেঁচে থাকার যথার্থ শিক্ষা দেয়াই উচিৎ ছিল এ দেশের তরুণ প্রজন্মকে। আবার অতি আধুনিকতার দোহাই পেড়ে খোদ ইসলাম প্রতিষ্ঠায় সংগ্রামকারী ব্যক্তিবর্গও ইট-পাথর-বালু-সিমেন্টের তৈরী খাম্বা বা পিলারকে সামনে রেখে মাথা নত করে সম্মান প্রদর্শন করে, এক মিনিট নীরবতা পালন করে, পুষ্পস্তবক অর্পণ করে, নানা কায়দায় সম্মান প্রদর্শন করে। এসব কিছুর মধ্যে মূলতঃ মৌলিক কোন পার্থক্য নেই। বরং পর্যায়ক্রমে শেষেরটা বেশী হাস্যকর। শীতকালে প্রচন্ড শৈত্যপ্রবাহ কুয়াশাচ্ছন্ন দিনে সকাল, দুপুর, বিকাল তথা সারাদিনই একই রকম থাকে। সারাদিনই সূর্যের আলোর মুখ দেখা যায় না। ঠিক মূর্তিপূজা, কবর বা মাজার পূজা ও শহীদ মিনার পূজা একই সূত্রে গাঁথা। স্রেফ কিছু নিয়ম-নীতির পার্থক্য মাত্র।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

ভাস্কর্যের নামে শিক্ষাঙ্গন ও রাস্তার মোড়ে মোড়ে মূর্তি স্থাপন করা ও তাকে সম্মান দেখানো, শিখা অনির্বাণ ও শিখা চিরন্তন বানিয়ে নীরবে সম্মান প্রদর্শন করা মূর্তিপূজার শামিল। যা শিরক।

 

ইসলামের বিস্ময়!

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

10 মন্তব্য

  1. via right kotha bolecen. Asob jodi anno kaw k bola hoy tahole 100% sure thaken apnake sibir/jamat bolbe. But atai true amra asob korteci. Ato kotha bolar kono dorkar nei jodi kew Apnar 1st 3 ta line bujte pare. Allah amder k sokol kobira gunah theke hefazot korun. Ameen………….

  2. যেই টাকা দিয়ে ফুল কিনে শহীদ মিনার বা স্মৃতিসৌধে দিন ঐ টাকা শহীদদের নামে আল্লার রাস্তায় (মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিমখানা) দান করুন । শহীদরাও উপকৃত হবে, যারা দিবে তারাও উপকৃত হবে।

  3. কুকুরের লেজ নেভার সোজা হই
    যারা হেদায়াত পাই তারাই সেখানে যাই না

  4. ভাষার মাসে পোস্টটি পড়ে মন কিছুটা খারাপ হয়ে গেলো। হায় রে! আমাদের দেশে এখনও এমন অনেক ধরমান্ধ লোক আছে যারা পূজা এবং শ্রদ্ধা মধ্যে পার্থক্য করতে পারে না।আমরা শহীদ মিনারে যাই তাঁদের পূজা করার জন্য নয় বরং শ্রদ্ধা জানানোর জন্য। আর কাউকে শ্রদ্ধা জানানো কিভাবে শিরক করা হয় তা আমি বুঝি না। শিরক মানে হল আল্লাহ্‌ সাথে কাউকে শরীক করা বা আল্লাহ্‌ সাথে তুলনা করা বা সৃষ্টিকর্তা মনে করে তাঁর কাছে কিছু প্রার্থনা করা। এর কোনটাই আমরা শহীদ মিনারে করি বলে আমার মনে হয় না। তাহলে এটা শিরক হল কি করে। আমারা তো তাঁদের কে আল্লাহ্‌ মনে করি না বা তাঁদের কাছে কিছু চাইতেও যাই না। আমারা যাই শুধু ভাষার জন্য তাঁদের এই মহান ত্যাগকে শ্রদ্ধা জানানোর জন্য এবং নতুন প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করার জন্য, তাহলে এটা শিরক করা হয় কিভাবে? আমি যদি আমার শিক্ষকে শ্রদ্ধা করি তাহলে এটাও শিরক করা হবে? আশা করি বিষয়টা একটু ভেবে দেখবেন । ধন্যবাদ।

    • আচ্ছা ভাই বুঝলাম আপনি এত কষ্ট করে খালি পায়ে হেটে শহীদ মিনারে গিয়ে শ্রদ্ধা জানান . যাদের জন্য এত শ্রদ্ধা এত ভালবাসা তাদের জন্য কখনো ২ রাকাত নামাজ পড়ে দোয়া করেছেন কি?

  5. ভাষা দিবস মানে এই নয়, যে সকালে প্রতিক মূর্তি অর্থাৎ শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে পূজা করতে হবে। যখনই এই কথা বলব অনেকেই আমাকে রাজাকার বলবে হয়ত। কিন্তু একজন মুসলমান হিসেবে কখনই আমি পূজা করতে পারিনা। আমি আমার দেশকে, ভাষাকে অনেক ভালবাসি এবং শ্রদ্ধা জানাই সকল ভাষা শহীদদের প্রতি। আল্লাহ্‌ তাদের জান্নাতুল ফেরদৌস নসিব করুন।

  6. আল্লাহ আপনাকে আজ ৮৬০০০ সেকেন্ড উপহার দিয়েছেন।
    আপনি কি তার ১ টি সেকেন্ড মন থেকে ‘আলহামদুলিল্লাহ’ বলে ব্যবহার করেছেন? এখনই বলে ফেলুন!!

  7. ভাই এটা টেকনোলজি বিষয়ক ব্লগ।এখানে এই ধরনের বিষয় নিয়ে আলোচনা যুক্তিসংগত নয়।
    আশা করি ব্লগ এডমিন এই বিষয়ে খেয়াল রাখবেন।

মন্তব্য দিন আপনার