একজন মন্তব্যকারী হিসেবে মন্তব্যের আগে যেসব বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখা জরুরী

7
330
একজন মন্তব্যকারী হিসেবে মন্তব্যের আগে যেসব বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখা জরুরী

a.r.bhuyan

আমি আনিসুর রহমান । অনলাইনে সময় কাটানোর পাশাপাশি ওয়েবসাইট নির্মাণ এবং ব্লগিং করতে ও পড়তে ভালবাসি । আমার ঠিকানা anisbd.com
একজন মন্তব্যকারী হিসেবে মন্তব্যের আগে যেসব বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখা জরুরী

আসসালামু আলাইকুম বন্ধুগণ । কেমন আছেন আপনারা সবাই । শীতের এই মিষ্টি সকালের হিম-শীতল ঠাণ্ডা বাতাস কষ্টদায়ক হলেও উপভোগ্যও বটে কি বলেন ? সবাইকে এই মিষ্টি সকালের শুভেচ্ছা জানিয়ে আমার আজকের লেখা শুরু করছি ।

আমাদের দেশে ব্লগ ক্রমশই জনপ্রিয় একটি ভাব প্রকাশের মাধ্যম হয়ে উঠছে । বর্তমানে ফেসবুক এর তুলনায় মানুষ ব্লগেই বেশি সময় কাটাতে পছন্দ করেন । তাই ব্লগকে একধরনের সামাজিক সংগঠন বলেই আমি মনে করি ।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

আর এই সমাজে ছোট বড় পরিচিত অপরিচিত সকলে মিলেই আমরা চলাফেরা করি । তাই সমাজের সকল মন মানসিকতাঁর মানুষের সাথে আমরা মেলামেশার সুযোগ পাই । এবং অন্যান্য সমাজের ন্যায় ব্লগেও আলোচক/সমালোচক বিদ্যমান । এতে আসলে আমাদের সকলেরই মঙ্গল কারণ সকলের মন্তব্যের মাঝেই সেই বিষয়টি সম্পর্কে ধারনা সুস্পষ্ট হয়ে উঠে । তেমনি এই ব্লগ এ ও আমরা তা দেখতে পাই । অনেকে ব্লগ পড়তে ভালবাসেন এবং লেখার চেয়ে মন্তব্য করতেই বেশি পছন্দ করেন । কেউ কেউ আবার মন্তব্য আকারে কারও সমালোচনাও করেন । সেটা হয়ত অনেক লেখকের খারাপ লাগে কিন্তু গঠনমূলক সমালোচনা সকল লেখকগন আশা করে । এমনকি এ বিষয়ে কবি ও বলেছেন “নিন্দুকেরে বাসি আমি সবার চেয়ে ভালো” । লক্ষ্য করলে দেখবেন একথার একটা গুরুগম্ভীর ভাব আছে, যেমন আমার বন্ধু যদি আমাকে কোন বাজে মন্তব্য করে বলে যে “দোস্ত তোর লেখাটা একদমই ভালো হয়নি , তোর মাঝে আমি কোন সম্ভাবনা ই দেখতে পাচ্ছিনা “। একথাটা আপনি এ কান দিয়ে ঢুকিয়ে অন্য কান দিয়ে বের করে দেবেন বা হেসেই উড়িয়ে দেবেন কেননা আপনার বন্ধু মানুষ দুষ্টুমি করতেই পারে ।

একজন মন্তব্যকারী হিসেবে মন্তব্যের আগে যেসব বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখা জরুরী

কিন্তু একই কথা যদি অন্য কেউ বলে তাহলে আপনার মন যে কি পরিমান খারাপ হবে তা বলে বোঝানো যাবেনা । অনেকে আছেন শুধু এ ধরনের কমেন্টের কারণে ব্লগে লিখতে ভয় পান আবার অনেকে মন্তব্যের কারণে লেখাই ছেড়ে দেন ( অনেক লেখক আবার পাল্টা মন্তব্য করে বসেন যা ২ জনের মাঝে ব্যবধান সৃষ্টি করে এমনটি আমাদের কারও কাম্য নয় ) ।

এখন যদি সেই মন্তব্যকারী একটু গুছিয়ে কথাটুকু বলেন বা লেখকের ভুলটুকু ধরিয়ে কিছু উপদেশ দেন তবে লেখক তাঁর ভুলটুকু বুঝতে পারে এবং পরবর্তীতে সেকথা মনে রেখেই লেখার চেষ্টা করে । এতে ফলাফল ও ভালো হয় এবং একজন ভালো মানের একজন ব্লগার এর সৃষ্টি হয় ।

একজন মন্তব্যকারী হিসেবে মন্তব্যের আগে যেসব বিষয়ের উপর লক্ষ্য রাখা জরুরী

কারও পোস্টে মন্তব্য করার আগে একবার নিজেকে লেখক হিসেবে ভেবে দেখবেন তাহলে আপনা থেকেই ভালো মন্তব্যের সৃষ্টি হবে ।

এবার একটু অন্য বিষয়ে আসি , আমরা প্রায় সকলেই অনলাইন থেকে উপার্জন করতে চাই । তাই অনেকেই লিঙ্কশেয়ার করে উপার্জন করতে চান এবং নতুন হিসেবে এটাই সবচেয়ে সহজ কাজ । তাই অনেকে কোন ডাউনলোড বা রিভিউ লিখে ডাউনলোড লিঙ্ক হিসেবে শেয়ার করা লিঙ্ক ব্যবহার করে থাকেন (এখানে একটা কথা জেনে রাখা ভালো লিঙ্ক শেয়ার থেকে উপার্জন করতে অনেক সময় এবং ক্লিক লাগে কখনও ভাববেন না আপনার একটা ক্লিক এ কেউ কোটিপতি হয়ে যাবে) এবং সেই লিঙ্ক এর কারণে অনেক লেখককেই কটু কথা শুনতে হয় (বাংলা ব্লগে এ ঘটনা ঘটে অন্য দেশের লোকেরা কখনই লিঙ্কশেয়ার নিয়ে কোন কথা বলেননা বরঞ্চ গুরুত্বপূর্ণ কিছু আপনার লেখাতে পেলে উল্টা ধন্যবাদ জানান) কিন্তু মন্তব্যটি করার আগে একটি বার কি ভেবে দেখেছেন কি যে লেখক এত কষ্ট করে লেখাটি লিখল আর একটি লিঙ্ক এর কারণে তাঁর সকল সাফল্য আপনি মাটি করে দিলেন !

আমি বলছিনা আপনি সমালোচনা করবেন না , তবে মন্তব্যটি যাতে গঠনমূলক বা সচেতনতামুলক হয় সেদিকে খেয়াল রাখবেন । অর্থাৎ আপনার মন্তব্য যাতে এমন না হয় “আজাইরা টিউন”, “ফালতু হইছে” , “ভাই এটা কি বিজ্ঞাপনের বাজার নাকি !”, “উপারজনের ভালো পদ্ধতি”, “এমন করে আর কয়দিন ভাই” ইত্যাদি । যা কেউ আশা করেনা এমনকি আর একজন মন্তব্যকারী ও আপনার মন্তব্য পছন্দ করবেনা ।

আপনার মন্তব্যটি হতে পারত অন্যরকম যেমন যদি আপনি শিওর থাকেন যে ওটা একটা স্ক্যাম তবে বলতে পারতেন “আপনি এত কস্ট করে যে লিঙ্ক শেয়ার করছেন সেটা একটা স্ক্যাম সাইট আপনি অন্য একটা সাইট (লিঙ্ক) ব্যবহার করে দেখতে পারেন”। এ টাইপের মন্তবের কারণে অন্যরাও জানতে পারবে যে সাইটটা একটা স্ক্যাম তারাও সাবধান হবেন ।

মনে রাখবেন একটি মন্তব্য করে আপনিও হয়ে যেতে পারেন হট ফেবারিট, অনেকেই আপনার মন্তব্যের জন্য অপেক্ষা করবে এবং আপনার মন্তব্য পেলে খুশি হবে । এখানে এমন অনেক ব্লগার ভাই আছেন যাদের মন্তব্য পেলে আমি নিজেকে ধন্য মনে করি ।

এবার আরেকটি দিকে যাওয়া যাক কি বলেন ?

আমরা দেখি অনেকে মন্তব্য করেন পোস্ট এর শিরোনাম দেখে যা খুবই হাস্যকর কেননা হয়ত দেখা যাবে আপনি শিরোনাম দেখে মন্তব্য দিয়েছেন কিন্তু বিষয়বস্তুর সাথে যার কোন মিলই থাকবেনা তাই বিষয়টি ভালমত বুঝে মন্তব্য করা ভালো । তাহলে অনেক লজ্জাস্কর পরিস্থিতিতে পরা থেকেও বাচা যায় । আবার অনেকে আছেন একটা দায়সারা মন্তব্য দিয়ে একটা লিঙ্ক দিয়ে দেন এতে আসলে সেই মন্তব্যকারির ইমেজ ই নষ্ট হয় কাজের কাজ কিছু হয়না এবং নতুনরা ও আপনাকে দেখে ভুল শিক্ষাটুকু গ্রহন করতে পারে । তবে প্রয়োজনে অবশ্যই লিঙ্ক শেয়ার করা উচিত । (মনে মনে ভাবছেন “এত উপদেশ দিয়া যাও তুমি চান্দু কতটা ভালো তোমার লিঙ্ক ও আমি কিছু পোস্টের মন্তব্যে পাইছি”) কিন্তু আপনার জানা দরকার আমি যখন নতুন ছিলাম তখন আপনাদের দেখেই শিখেছিলাম এখন অবশ্য এই বদ-অভ্যাস টাকে বিদায় করে দিয়েছি :D ।

যাই হোক আমার লেখা পড়ে এতক্ষনে নিশ্চয়ই বহু পাবলিক খেপে গেছেন (আমি আবার উপদেশ দিতে পছন্দ করি কিনা :p) । আর বেশী লিখলে আমাকে হয়ত খুজে বের করে পিটাইতে আসবেন :) এই ভয়ে আর কিছু লিখতে পারলাম না :) তবে এতক্ষন যা লিখলাম তা কাউকে উদ্দেশ্য করে নয় বরং ব্লগিং এ ব্লগার এবং কমেন্টারের মাঝে একটি সু-সম্পক বজায় রাখার জন্য একটি সচেতনতামুলক পোস্ট । কেউ যদি উপকৃত হন তাতেই আমার লেখা সার্থক তবে কেউ যদি মনে করেন লেখাটা নিতান্তই উপকারী তাহলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করেন (একলা একলা খাইলে পেটে অসুখ করব তো :D ) তবে এই ফালতু লেখা কেউ প্রিয় তে রাখবেন বলে আমার মনে হয়না :D

সবাই ভালো থাকবেন আমার ভুল হলে নিজগুনে ক্ষমা করবেন । কমেন্ট এর ব্যবস্থাও আছে এখানে তাই মনে দ্বিধা না রেখে শেয়ার করাই ভালো কি বলেন :) আপনার মূল্যবান সময় নষ্ট করে লেখাটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ – এ.আর.ভূঁইয়া

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

7 মন্তব্য

  1. হুম কথাগুল সত্য। আমিও কমেন্টের জন্য লেখা ছেড়ে দিছিলাম। টিপিতে না অন্য একটা বিখ্যাত ব্লগে। যাই হক। একজন লেখকের উচিত সাইটের নিতিমালা ভালভাবে পড়ে সাইটের সাথে পরিচিত হয়ে টিউন করা উচিত। বাঘা বাঘা টিউনারদের লেখা দেখলে নিজেরো লিখতে ইচ্ছা করে। যা জানি তা সেয়ার করতে ইচ্ছা করে। কিন্তু তার আগে সব কিছুর সাথে পরিচিত হয়ে টিউন করা ভাল। হুজুগের মাথায় যদি কেউ টিউন তাহলেত খারাপ হলে একটু আকটু বকা খাবেই। যেমনটা আমি খেয়েছিলাম।

    তবে মন্তব্বে ‘ফালতু টিউন’ টাইপ মন্তব্ব দেখলে আমার মেজাজ গরম হয়। আরে ভাই কেন আপনার ফালতু লাগল সেইটাত বলে জাবেন। আজব। এইরকম একটাই মন্তব্ব লেখকের মন ভেঙ্গে দিতে যথেষ্ট।
    ‘ব্যাবহারে বংশের পরিচয়’ টিপির ভাইদের ব্যাবহারের জন্যই আমি তাদের ছাড়া থাকতে পারি না। love u TP.
    আমি আবার গঠনমুলক সমালচনা করতে ভালবাসি। হে হে
    আপনার টিউনটা সুন্দর হইছে। আর কিছু বলারা নেই
    ধন্যবাদ ।

  2. প্রিয়তে রাখলাম। কথাগুলা আমাদের আরও আগে বলা দরকার ছিল। সত্যি আপনার মত এমন করে কখনো ভেবে দেখিনি। ধন্যবাদ আপনাকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

10 − four =