মঙ্গলের বিশাল অংশ ‘বাসযোগ্য’

9
472

জনসংখ্যা বৃদ্ধি ও নানা প্রাকৃতিক
দুর্যোগে সুন্দর এ পৃথিবী একসময়
মানুষের বসবাসের অযোগ্য
হয়ে উঠবে বা ধ্বংস
হয়ে যাবে বলে বিজ্ঞানীরা আশঙ্কা করছেন।
তাই আগেভাগেই বাসযোগ্য নতুন গ্রহের
সন্ধানে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন
তাঁরা। মঙ্গলকে টার্গেট করেই তাঁদের
যত গবেষণা।
সে ক্ষেত্রে অনেকটা সাফল্যের
দাবি করেছেন অস্ট্রেলিয়ার একদল
বিজ্ঞানী। মঙ্গল গ্রহের বিশাল
একটা অংশ একসময় মানুষসহ পৃথিবীর
অন্যান্য প্রাণের বাসযোগ্য
হবে বলে তাঁরা দাবি করেছেন।
অস্ট্রেলিয়ার জাতীয়
বিশ্ববিদ্যালয়ের
বিজ্ঞানী চার্লি লাইনওয়েভারের
নেতৃত্বে একটি দল মঙ্গল গ্রহের
কতটা অংশ বাসযোগ্য, তা নিরূপণে এ
গবেষণা চালায়। বিজ্ঞানীরা পৃথিবীর
তাপমাত্রা ও চাপের সঙ্গে মঙ্গলের
তাপ ও চাপের তুলনামূলক বিশ্লেষণ
করেন। তাঁরা বলেন, পৃথিবীর ভূগর্ভ
থেকে উপরিভাগের মোট আয়তনের
যেখানে মাত্র ১ শতাংশ বাসযোগ্য,
সেখানে মঙ্গলের ৩ শতাংশ বাসযোগ্য।
তবে মঙ্গলের বাসযোগ্য বিশাল ওই
অংশের বেশির ভাগই ভূপৃষ্ঠের নিচে।
মহাকাশ
জীববিজ্ঞানী চার্লি লাইনওয়েভার
বলেন, ”আমরা যে কাজটি করেছি,
তা খুব একটা কঠিন কিছু নয়।
আমরা মঙ্গলের সব তথ্য
জড়ো করে দেখার
চেষ্টা করেছি যে সেখানে প্রাণের
বাসযোগ্য পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ার
মতো বিশাল কোনো চিত্র
ফুটে ওঠে কি না। এ ক্ষেত্রে আমরা সহজ
উত্তর পেয়েছি, ‘হ্যাঁ’। অর্থাৎ মঙ্গলের
বিশাল অংশ
পৃথিবীতে বসবাসকারী প্রাণীর জন্য
বসবাসযোগ্য।” মঙ্গল সম্পর্কে এটিই এ
ধরনের প্রথম মডেল
বলে তিনি দাবি করেন।
সম্প্রতি বিজ্ঞানবিষয়ক
সাময়িকী ‘অ্যাস্ট্রোবায়োলজি’-তে এ
গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ
করা হয়েছে। তাই বন্ধুরা ভেবে নাও কে কে মঙ্গলে যাবে…….
তথ্যসূত্র: দৈনিক কালের কণ্ঠ।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

9 মন্তব্য

  1. হে হে …আমি চান্দে থাকি ,,অথচ আমার থেকে একবারও ব্যপারটা কেউ জিজ্ঞাস করলো না…….আপচুচ..

  2. তাতে কি হয়েছে? আপনি আমি অন্তত সেই সুবিধা পাচ্ছি না।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

1 × 1 =