এন্ড্রয়েড ফোনের সবচেয়ে জনপ্রিয় ১৫ টি এপ্লিকেশন

By | 22/04/2016

স্মার্টফোনের দুনিয়ায় একক ভাবে আধিপত্য বিস্তার করে আছে এন্ড্রয়েড ফোন।এর জনপ্রিয়তার অন্যতম কারণ হল এর বিভিন্ন জনপ্রিয় এপ্স।এন্ড্রয়েডের জন্য প্লে স্টোরে প্রচুর এপ্লিকেশন রয়েছে।সেখানে ১৩০০০ এর ওপরে এপ্লিকেশন রয়েছে যেগুলো মোট ১ মিলিয়নের বেশি ডাউনলোড হয়েছে।তবে এখানে প্লে স্টোর থেকে ১ বিলিয়নের বেশি ডাউনলোড হওয়া ১৫ টি এপ্স এর তালিকা তুলে ধরা হল:

 

১/জিমেইল

→জিমেইল এন্ড্রয়েড ফোনে গুগলের মেইল পরিচালনার কাজে ব্যাবহার করা হয়।বর্তমানে প্রায় মোবাইলেই এটি সিস্টেম এপ্লিকেশন হিসাবে দেওয়া থাকে।

 

২/গুগল ম্যাপস

→মোবাইলেই পুরো বিশ্বের মানচিত্র,রাস্তাঘাট,দোকানপাট ও বিভিন্ন স্থান মোবাইলে দেখার জন্য গুগল ম্যাপস একটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার।এটি গুগল ডেভেলপ করেছে। এটি দিয়ে যে কোনো জায়গার ভৌগলিক অবস্থা খুব সহজেই জানা যায়।

৩/ইউটিউব

→ইউটিউব অনলাইনে ভিডিও দেখা ও শেয়ার করার জন্য সবচাইতে জনপ্রিয় মাধ্যম।এটিও গুগলের তৈরি।

৪/ফেসবুক

→ফেসবুক পৃথীবির সবচেয়ে বড় যোগাযোগ মাধ্যম।এটির মোবাইল এপটি দিয়ে খুব সহজেই অনেক দ্রুত বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করা যায়।

৫/গুগল হ্যাংআউটস

→গুগল হ্যাংআউটস হল গুগলের ইন্সট্যান্ট ম্যাসেজিং ও কলিং সফটওয়্যার।

৬/গুগল সার্চ

→মোবাইলে যে কোনো তথ্য গুগলে সার্চ করে দ্রুত ফলাফল পেতে গুগল সার্চ এপ্সের কোনো বিকল্প নেই।

৭/গুগল +

→গুগল প্লাস সফটওয়্যারটি জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম Google+ এর মোবাইল এপ্স।

৮/হোয়াটস এপ মেসেঞ্জার

→হোয়াটসএপ বিশ্বের জিনপ্রিয় ইন্সট্যান্ট মেসেজিং, কলিং ও ফাইল শেয়ারিং এপ।এটি দিয়ে মেসেজিং করা এতই নিরাপদ যে,প্রেরণকারী ও গ্রহণকারী ছাড়া সরকার এমনকি হোয়াটসএপ কতৃপক্ষও কোনো মেসেজ দেখতে পারবে না।ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর ফেসবুক একে কিনে নেয়।

৯/গুগল টেক্সট টু স্পিচ

→গুগল টেক্সট টু স্পিচ যে কোনো লেখাকে ভয়েসে পরিনত করে থাকে।

১০/গুগল বুকস

→অনলানে বা অফলাইনে বই পরার জনপ্রিয় মাধ্যম গুগল বুকস।

১১/ফেসবুক মেসেঞ্জার

→ফেসবুকে খুব দ্রুত এবং সহজে মেসেজিং করার জন্য মেসেঞ্জার ব্যাবহার করা হয়।তাছারা এতে ভয়েস কল,ভিডিও কল সহ নানান আকর্ষণীয় ফিচার রয়েছে।

১২/গুগল ক্রোম

→গুগল ক্রোম মোবাইলে দ্রুত ইন্টারনেট ব্রাউজ করার জন্য জনপ্রিয় একটি ব্রাউজার।

১৩/গুগল প্লে গেমস

→মোবাইলে ভালো গেম খেলতে এবং গেমের বিভিন্ন ডাটা অনলাইনে সংরক্ষিত রাখতে গুগল প্লে গেমস ব্যাবহার করা হয়।

১৪/গুগল প্লে মিউজিক

→মোবাইলে গান শোনার জন্য গুগল প্লে মিউজিক ব্যাবহার করা হয়।

১৫/গুগল ড্রাইভ

→অনলাইনে বিভিন্ন ফাইল সংরক্ষিত রাখতে ও শেয়ার করতে গুগল ড্রাইভ ব্যাবহার করা হয়।

 

ওপরে দেখা গেল ১৫ টির মধ্যে ১২ টি এপ্স ই গুগলের।কারন এন্ড্রয়েড সিস্টেম গুগল তৈরি করেছে।আবার যেখান থেকে এপ ডাউনলোড করা হয় সেই প্লে স্টোর টিও গুগলের।তাই এন্ড্রয়েডে গুগলের এপ্স ডাউনলোডের জন্য বেশি প্রচার করা হয়।এমনকি প্রায় মোবাইলেই গুগলের এপ্স মোবাইল কেনার আগে থেকে ইন্সটল করা থাকে।

আমি একটি সংবাদপত্রের ওয়েবসাইট তৈরি করেছি।পারলে একটু ঘুরে আসবেন।

→→NEWSZONEBD.COM←←

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *