মহামূল্যবান সোনার গাড়ি

By | 31/03/2016

১৯৮৮ সালে লিঙ্কন শহরের লিমোউসিন সড়কে গাড়িটি প্রথম চলেছিল। প্রকৃত পক্ষে এটি ছিল আসল সোনার প্রলেপের অর্থাৎ গোল্ড প্লেটের উপর নির্মিত একটি গাড়ি। সম্ভভত এটিই ছিল পৃথিবীর প্রথম সোনায় মোড়া গাড়ি। গাড়িটির প্রতিটি অংশ ছিল সোনার কয়েনে আচ্ছাদিত।
এই গাড়িটির ব্রিক তৈরি করা হয় নায়াগ্রা জলপ্রপাতের কেন বারকিটের । আমারা যখন বলি গাড়িটি আচ্ছাদিত করা তখন বুঝে নিতে হবে যে সেখানে অর্থাৎ গাড়ির শরীরের একটি একক ইঞ্চি পর্যন্ত আচ্ছাদিত। মানে গাড়িটির প্রতিটি ইঞ্চি সোনর কয়েন বা পাতে আচ্ছাদিত ছিল।

e5bf912ff4beab640f01cc1154ca8fce-700x495

তৈরির পর অবশেষে গাড়িতে কিছু পরিষ্কার ও চকচকে কয়েন দিয়ে সিল দিয়ে দে্ওয়া হয়, যাতে দূর থেকেও এর অরোম্ভর বুঝতে পারা যায়।
বর্তমানে গাড়িটি মেক্সিকোতে রিপ্লির সংগ্রহের অংশ হিসেবে জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে। এই সময়ে এসে গাড়িটি একটি অমূল্য মূল্য ধারণ করেছে। রিপ্লির জাদুঘর কর্তৃপক্ষ বলেন, ‘আমরা শুধু গাড়ীটিকে পানামা সিটি বিচ অডিটোরিয়াম থেকে এনে নিজেদের মত করে সংরক্ষণ করছি ও সাধারণ মানুষকে গাড়ির সৌন্দর্য উপভোগের ব্যবস্থা করে দিয়েছি, ও এর ওজন ও মুল্য সম্পর্কে ধারণা দিচ্ছি’।
আমি চিন্তা করি এমন একটি গাড়ি যদি এ দেশের হাইওয়েতে চলে তবে এ দেশের মানুষজন কি চিন্তা করবে। এই মহামূল্যবান দৈত্যকায় গাড়ি আরো তৈরি করা উচিত বলে আপনি মনে করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *