অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

0
256

আজকের টিউটোরিয়ালের মাধ্যমে আমরা জানতে পারব কীভাবে swap এবং init.d সাপোর্টের মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম বিশিষ্ট স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করা যায়।

এই পদ্ধতিটি মূলত একটি .sh স্ক্রিপ্টের মাধ্যমে কাজ করে থাকে যা swap কে কাজে লাগায়। এর মাধ্যমে sd কার্ডের একটি নির্দিষ্ট অংশ স্মার্টফোন র‍্যাম হিসেবে ব্যবহার করতে সক্ষম হয়।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

তবে এই পদ্ধতি অনুসরণ করার জন্য আপনার স্মার্টফোনটিকে অবশ্যই রুটেড হতে হবে এবং ভালো মানের sd কার্ড ব্যবহার করতে হবে (ভালো ফলাফলের জন্য ক্লাস ৮ অথবা ক্লাস ১০ এর কার্ড ব্যবহার করা উচিৎ)।  এছাড়াও init.d স্ক্রিপটও এনাবল করতে হবে। চলুন, শুরু করা যাক তাহলে।

শুরু করার আগে একটি কথা বলছিঃ এই পদ্ধতিটি অ্যাডভান্স লেভেলের ব্যবহারকারীদের জন্য উপযোগী। তবে, প্রতিটি ধাপ ভালো ভাবে অনুসরণ করলে আশা করি মোটামুটি পর্যায়ের ব্যবহারকারীরও খুব একটা সমস্যা হবার কথা নয়। তবে, এই পদ্ধতি যেহেতু রুট ফোল্ডার সম্পর্কিত এবং মাইক্রো এসডি কার্ডেও কিছু কাজ করে নিতে হয় তাই এই পদ্ধতি অনুসরণের সময় ডিভাইস নষ্ট হলে বা এসডি কার্ডের ক্ষতি হলে আমি বা প্রিয় টেক কেউই দায়ী থাকবে না। তবুও আমি এটুকু বলতে পারি, এই পদ্ধতিতে ডিভাইসের ক্ষতি হবার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে তবে এই পদ্ধতিতে এসডি কার্ডের লাইফটাইম কিছুটা কমে যেতে পারে।

index47 অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

ধাপঃ ১

আপনার ডিভাইসটি রুটেড কি না পরীক্ষা করুন, রুটেড না হয়ে থাকলে রুট করুন।

ধাপঃ ২

আপনার sd কার্ডে একটি swap পার্টিশন তৈরী করুন। কীভাবে করতে হয় জানেন না? সমস্যা নেই, বলছি।

মেমরী কার্ড পার্টিশন এবং Swap স্পেস তৈরী করার প্রক্রিয়াঃ

যা লাগবেঃ
১। MiniTool Partition Wizard
২। USB SD Card reader

মেমরী কার্ড পার্টিশন করার জন্য এই লিংক থেকে ‘MiniTool Partition Wizard Home Edition’ সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করুন। এটি উইন্ডোজ ২০০০/এক্সপি/ ভিসতা/ ৭ এবং ৮ সমর্থন করে।

সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করে কম্পিউটারে ইন্সটল করুন। এবার sd কার্ডটি কার্ড রিডারে ইনসার্ট করে কম্পিউটারে সংযুক্ত করুন। আপনার, sd কার্ডটি কম্পিউটারে দেখানোর পর MiniTool সফটওয়্যারটি রান করুন।

প্রথমে আপনাকে আপনার মেমরী কার্ডটির পুরাতন পার্টিশনটি মুছে দিতে হবে। এর জন্য যদি মেমরী কার্ডের মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় কোন ডকুমেন্ট থেকে থাকে তবে প্রথমে ব্যাকআপ করে নিন। এবার, সফটওয়্যারটির ড্রাইভ লিস্ট থেকে আপনার মেমরী ড্রাইভটি খুঁজে বের করে এর উপর মাউসের রাইট বাটন ক্লিক করলে কন্টেক্সট মেন্যুতে Delete অপশন দেখতে পারবেন। ক্লিক করুন।

মনে রাখবেন, এই পার্টিশন ম্যানেজারটি অপারেশন queue-তে রেখে দেয়। তাই আপনি একটি অ্যাকশন সম্পন্ন করার পর যতক্ষন না পর্যন্ত ‘Apply’ করছেন ততক্ষন সেই অ্যাকশনটি সম্পুর্ন হবেনা। তাই, মেমরীর পুরাতন পার্টিশনটি ডিলেট করার পর ‘Apply’ এ ক্লিক করে প্রসেসটি সম্পুর্ন করুন।

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

এরপর নতুন সাধারণ পার্টিশন তৈরী করতে হবে প্রথমে। এর জন্যে ডিলেট করা মেমরী পার্টিশনের উপর মাউসের রাইট ক্লিক করে কনটেক্সট মেন্যু থেকে ‘Create’ চাপুন। নতুন একটি উইন্ডোতে কিছু অপশন দেয়া হবে আপনাকে।

Partition Lebel: ফাঁকা রাখলেও সমস্যা নেই; আপাতত ফাঁকাই রাখছি।
Create As: Primary
File System: এই ক্ষেত্রে আপনার মেমরী কার্ডটি যদি ২ গিগাবাইট অথবা এর চাইতে কম ক্ষমতার হয়ে থাকে তবে FAT দিন, আর যদি ৪ গিগাবাইট বা এর বেশি হয়ে থাকে তবে সেক্ষেত্রে FAT 32 ব্যবহার করুন।

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

এবার, আপনি ইচ্ছে করলে আমাদের দরকারী swap ফাইল তৈরী করে এই প্রোসেসটি সম্পন্ন করতে পারেন অথবা এর সাথে App2SD ব্যবহারের জন্য একটি ext2 অথবা ext3 পার্টিশনও তৈরী করতে পারেন।

আমি এখানে App2SD তৈরী না করে শুধু মাত্র swap তৈরী করার প্রক্রিয়াই আপনাদের দেখাচ্ছি। swap তৈরী করতে চাইলে উপরের মতই কাজ করবেন শুধু File System এর ক্ষেত্রে Fat বা Fat32 এর বদলে swap সিলেক্ট করবেন।

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

উপরের চিত্রে Ext2 দেয়া আছে, তবে swap এর ক্ষেত্রে এর নিচের Linux Swap ফাইল সিস্টেমটিই আপনাকে সিলেক্ট করতে হবে। সিকেল্ট করে ‘ok’ চাপুন এবং সবশেষে ‘Apply’ চেপে প্রোসেসটি শেষ করুন।

আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে, ‘ঠিক কতটা জায়গা swap মেমরীর জন্য রাখা উচিৎ’! আপনি ইচ্ছে করলে ৫০ মেগাবাইট বা ১০০ মেগাবাইট জায়গা swap এর জন্য বরাদ্দ করতে পারেন তবে এটি কিছুটা কমই হয়ে যায়। তাই অন্তত পক্ষে ৫১২ মেগাবাইট swap space রাখুন। আপনি চাইলে ১ গিগাবাইট বা এর বেশিও রাখতে পারেন তবে আমার মতে ৫১২ মেগাবাইটই যথেষ্ট।

ব্যাস আমাদের swap পার্টিশনও ক্রিয়েট করা হয়ে গেল। এখন চলুন, মেইন টিউটোরিয়ালের পরবর্তী ধাপে যাই।

ধাপঃ ৩

যে কোন রুট এক্সপ্লোরারের সাহায্যে দেখুন আপনার ডিভাইসের /system/etc/ লোকেশনে init.d নামের কোন ফোল্ডার রয়েছে কি না। যদি থেকে থাকে তবে ধাপ ৪-এ চলে যান। আর যদি না থেকে থাকে তবে আপনাকে অবশ্যই প্রথমে init.d সাপোর্ট অ্যাকটিভ করতে হবে।

init.d সাপোর্ট অ্যাকটিভ করার প্রক্রিয়াঃ

init.d স্ক্রিপট অ্যাকটিভেট করতে আপনার যা যা লাগবেঃ

1. Stock Kernel
2. Root (আশা করছি আপনার ডিভাইসটি রুটেড)
3. Busybox (প্লে স্টোরেই পাবেন)
4. CMW Recovery for Stock Kernel (আশা করি আছে, না থাকলে ইন্টারনেট থেকে একটু কষ্ট করে খুঁজে নিন)
5. Root Explorer (ES-File Manager বা অনান্য সিমিলার অ্যাপলিকেশন দিয়েও কাজ হবে)

যা করতে হবেঃ

প্রথমে এখান থেকে ফাইলটি নামিয়ে আপনার মেমরী কার্ডে রাখুন।

Root Explorer এর সাহায্যে system/etc/ লোকেশনে যান। দেখুন সেখানে install-recovery.sh নামের ফাইল আছে কি না।

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

যদি না থাকে তবে মেন্যুতে প্রেস করে একটি নিউ ফাইল ক্রিয়েট করুন এবং install-recovery.sh নামে রিনেম করুন। এরপর এর উপর লং প্রেস করে টেক্সট এডিটরের সাহায্যে ওপেন করুন। এরপর, নিচের কোডগুলো লিখুনঃ

#!/system/bin/sh
# init.d support
busybox run-parts /system/etc/init.d/

লেখার পর ফাইলটি সেভ করুন এবং রুট এক্সপ্লোরারের দ্বারা কোন .bak ফাইল তৈরী হলে তা মুছে দিন। এরপর ফাইলটির প্রোপার্টিসে গিয়ে নিচের ছবিটির মত পারমিশন নির্ধারন করে দিন।

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

আর যদি আগে থেকেই install-recovery.sh নামের কোন ফাইল /system/etc/ লোকেশনে থেকে থাকে তবে এটিকে লং প্রেসের মাধ্যমে কোন টেক্সট এডিটরে খুলুন এবং নিচের কোডটি পেস্ট বা লিখে দিনঃ

# init.d support
busybox run-parts /system/etc/init.d/

মনে রাখবেনঃ দুটি ক্ষেত্রেই কোডের শেষ লাইনের পর একটি খালি লাইন রাখতে হবে

এরপর আপনার স্মার্টফোনটি রিকভারীতে বুট করুন এবং রিকভারী থেকে আপনার মেমরী কার্ডে রাখা init.d-autorunner-stock.zip ফাইলটি ইন্সটল করুন।

এখন আপনার মোবাইলটি রিবুট করুন এবং রিবুট হবার পর রুট এক্সপ্লোরারের সাহায্যে /data/local/tmp/ লোকেশনে যান। এখানে ‘init.d_log_test.txt’ নামের একটি ফাইল পাওয়ার কথা যেটি ওপেন করলে আপনি একটি লেখা দেখতে পাবেন, ‘done’।

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

ব্যাস, আশা করি আপনার init.d স্ক্রিপ্টটি অ্যাকটিভ হয়ে গিয়েছে।

ধাপঃ ৪

এবার মেমরী কার্ডে একটি নতুন ফাইল ক্রিয়েট করুন এবং ফাইলটির মধ্যে নিচের কোডটি লিখুনঃ

if [ -n /dev/block/mmcblk0p2 ]; 
  then mkswap /dev/block/mmcblk0p2; 
fi;

if [ -e /dev/block/mmcblk0p2 ];
  then echo 60 > /proc/sys/vm/swappiness; 
  swapon /dev/block/mmcblk0p2; 
fi;

এবার, এটি সেভ করুন 00userinit নামে। এখন 00userinit নামের ফাইলটি রুট এক্সপ্লোরারের সাহায্যে /system/etc/init.d লোকেশনে কপি করুন এবং ফাইলটির প্রোপার্টিস থেকে এর পারমিশন সেট করুনঃ rwxr-xr-x সিরিয়ালে।

ডিভাইসটি রিবুট করুন।

এবার এই স্ক্রিপ্টটি কাজ করছে কি না তা পরীক্ষা করে দেখার পালা। এটি পরীক্ষা করার জন্য Terminal Emulator ডাউনলোড করুন এবং টাইপ করুন, free । ভালো করে বোঝার জন্য নিচের স্ক্রিন শটটি লক্ষ্য করুন।

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের র‍্যাম বৃদ্ধি করার পদ্ধতি (রুটেড)

যদি swap এর লাইনে কোন ‘0’ না থেকে থাকে তবে বুঝতে হবে যে আপনি সফল হয়েছেন।

এই টিউটোরিয়ালের মাধ্যমে আপনি আপনার স্মার্টফোনে পার্মানেন্টলি সোয়াপিং অ্যাকটিভ করতে সক্ষম হবেন, অন্তত ততদিন পর্যন্ত যতদিন না আপনি আপনার স্ক্রিপ্টটি পরিবর্তন করেন অথবা রম পরিবর্তন করেন। যাই হোক, আশা করি আপনাদের কাজে লাগবে পদ্ধতিটি। আগামীতে নতুন কিছু নিয়ে আসব এই আশায় শেষ করছি আজকের টিউটোরিয়ালটি। ভালো থাকবেন সবাই।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen + 18 =