শক্তপোক্ত পাসওয়ার্ড বানানো এবং মনে রাখার কৌশল

0
191

মধ্যযুগে যখন একেকটা শহর বা দূর্গ পাঁচিল দিয়ে ঘেরা থাকতো তখন শত্রুর গুপ্তচর বা উটকো আগুন্তকদের দূর্গে প্রবেশ থেকে আটকাতে বিশেষ পাসওয়ার্ডের ব্যবস্থা থাকতো। সাধারনের প্রবেশ সময় পার হয়ে গেলে অসময়ে যারা আসতো তাদের কেবলমাত্র পাসওয়ার্ড বলতে পারলেই ঢুকতে দেওয়া হতো। Pass বা যাতায়াতের অনুমতি পাওয়ার জন্য নির্দিষ্ট শব্দ Word থেকেই Password।

মধ্যযুগে এটি ছিলো নিরাপত্তা ব্যবস্থার একটি অংশ। এই নতুন তথ্যপ্রযুক্তির যুগে পাসওয়ার্ড বললেই আমরা বুঝে উঠি কম্পিউটারে ঢোকা বা ওয়েবসাইটের পাসওয়ার্ড। আজকাল এত বেশি কাজে পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হয় এবং ব্যাপারটি নিরাপত্তা ঝুঁকিও তৈরী করে। বুদ্ধিমানের মতো পাসওয়ার্ড না দিলে কম্পিউটারের তথ্য যেমন হ্যাক হতে পারে, তেমনি ফেসবুকের একাউন্ট, ব্যাংকের ক্রেডিট / ডেবিট কার্ড, ইমেইল ইত্যাদি অনেক কিছুই দখলে যেতে পারে বেদখলকারী হ্যাকারের। এ থেকে বাঁচার জন্য কঠিন ও শক্ত দেখে পাসওয়ার্ড দেওয়া জরুরী কেননা এখন হ্যাকাররাও ব্যবহার করে নানান টুলস এবং বুদ্ধি। পুরো ডিকসনারীর শব্দ একটার পর একটা বসিয়ে আপনার পাসওয়ার্ড ব্রেক করতে পারে এরকম টুলসও রয়েছে এখন যার কারনে ডিকশনারীর শব্দ বা সহজে অনুমান করা যায় এরকম কিছু পাসওয়ার্ড দিতে নেই। আসুন দেখা যাক এরকম আরো কিছু দরকারী টিপস জেনে নেওয়া যাক।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

images11 শক্তপোক্ত পাসওয়ার্ড বানানো এবং মনে রাখার কৌশল

সব জায়গায় একটি পাসওয়ার্ড ব্যবহার করবেন না। যেমন একই পাসওয়ার্ড আপনার ইয়াহু, জিমেইল, স্কাইপ এবং অনলাইন ব্যাংকের হয়ে থাকলে সেটি খুব বিপজ্জনক। কারটি খুব সহজ। আপনার একটি সাইটের সিকিউরিটি কম্প্রোমাইজ হওয়া মানে তখন সবগুলো সাইটেই হ্যাকিং হতে পারে।

পাসওয়ার্ড অর্ন্তবাসের মতো। অনেকে বলেন যে যেরকম আন্ডারওয়্যার বা অর্ন্তবাস নিয়মিত পরিবর্তন করা উচিত, ঠিক তেমনি পাসওয়ার্ডও নিয়মিত করা উচিত। অর্ন্তবাসটি যেমনটি আরেকজনের সাথে আমরা শেয়ার করি না, পাসওয়ার্ডও করা উচিত নয়। অন্যদের চোখের সামনেও মেলে রাখবে না, স্টিকি নোটেতো নয়ই। এবং পাসওয়ার্ডকে হতে হবে রহস্যময় যাতে অন্যকেউ সহজে এটিকে আন্দাজ করতে না পারে।

কমন পাসওয়ার্ড দিয়ে বসবেন না। যদি আপনার পাসওয়ার্ডটি এমন হয় যে সেটি ডিকশনারীর একটি অক্ষর সরাসরি তবে সেটি ভালো নয় কখনোই। আবার আপনার নিজের নাম, বাবা-মা, সন্তানের নাম দিয়ে সরাসরি পাসওয়ার্ড দেওয়াও ঠিক নয়। জন্মদিন, বিবাহবার্ষিকী যা পাবলিক নলেজ তা দিয়েও পাসওয়ার্ড তৈরী করা থেকে দূরে থাকুন। এগুলো যেকোন হ্যাকারের ট্রাই করার তালিকায় সবার আগেই থাকে।

শক্তিশালী পাসওয়ার্ড গড়তে:
ভালো পাসওয়ার্ড এ একগুচ্ছ শব্দের সাথে সাথে নাম্বার, কিছু সংকেত এবং শব্দগুলো যেন স্বাভাবিক ডিকশনারী ওয়ার্ড না হয়ে অন্য কিছু হয় তেমনটিই কাম্য।
ক্যারেক্টারগুলোকে র‌্যান্ডম হওয়া চাই, কীবোর্ডের এক ধারার অক্ষর যেমন: qwerty বা asdf ইত্যাদি যেন না হয়। শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরীর জন্য কতগুলো টিপস:
এক) শব্দকে উল্টো করে লিখুন। Khulna যেমন anluhk ।
দুই) কিছু কিছু অক্ষরকে নম্বরে বদলে দিন। anluhke কে an1uhk3 লিখুন। লক্ষ্য করুন যেন এল অক্ষর 1 এবং ই অক্ষর 3 করা হয়েছে।
তিন) র‌্যান্ডমলি যেকোন অক্ষরকে ক্যাপিটাল করুন, কেবল প্রথম অক্ষরকেই নয়।
an1uhk3 না হয়ে হতে পারে, an1uHk3
চার) স্পেশাল ক্যারেক্টার থাকতে পারে একটি দুটি।
an1uHk3 হতে পারে @n1uHk3
খেয়াল করুন আমরা শুরু করেছিলাম খুলনা শব্দটি থেকে কিন্তু এখন এটি খুব শক্ত একটি পাসওয়ার্ড। পরিচিত শব্দকে ভেঙ্গে চুড়ে এভাবে নিজের পাসওয়ার্ড করে নিয়ে যে সুবিধাটি হবে যে কোন কারনে ভুলে গেলেও আপনি একটু মনে করে আপনার পাসওয়ার্ডটি মাথার ভিতরেই তৈরী করে নিতে পারবেন, কোথাও লিখে রাখতে হবে না। পাসওয়ার্ড লিখে রাখা খুবই অবিবেচকের মধ্য কাজ হবে, তা আপনি যেখানেই লিখুন না কেন।

আরেকভাবে শক্ত পাসওয়ার্ড তৈরীর উপায় হলো একটি লম্বা বাক্য তৈরী করে সেটির প্রথম অক্ষর নিয়ে পাসওয়ার্ড তৈরী করা।
যেমন: Bangladeshi became independent in seventy one from Pakistan থেকে তৈরী পাসওয়ার্ডটি হতে পারে: bbiisofp এবং সেটিকে উপরে উল্লেখিত কিছু ট্রিক্স ব্যবহার করে আরো জটিল করে নিতে পারেন, যেমন: Bb1i7!fP

আপনাকে শক্ত পাসওয়ার্ড তৈরী করে দেবে এরকম টুলস রয়েছে যার সাহায্য নিতে পারেন। এরকম একটি টুলস হলো: পিসিটুল সিকিউর পাসওয়ার্ড জেনারেটর (http://www.pctools.com/guides/password/)। এখানে আপনি কতবড় পাসওয়ার্ড চান, কি ধরনের মিক্স থাকবে, ইত্যাদি সব বলে দিলে আপনাকে পাসওয়ার্ড জেনারেট করে দিবে। মন্ত্রের মতো মনে রাখার সুরও আপনাকে তৈরী করে দেয় এই সাইটটি। যেমন: MA7ApUp#
পাসওয়ার্ডটির মন্ত্রসুর হলো:
MIKE – ALPHA – seven – ALPHA – papa – UNIFORM – papa – hash
আপনার পাসওয়ার্ড কতখানি শক্ত ও সুরক্ষিত তা জানতে ব্যবহার করতে পারেন: হাউ সিকিউরড ইজ মাই পাসওয়ার্ড সাইটটি। http://howsecureismypassword.net

বিভিন্ন সাইটের জন্য কিভাবে পাসওয়ার্ড দেবেন:
যেহেতু সব সাইটে একই পাসওয়ার্ড দেওয়া ঠিক নয়, আপনার সব সাইটের জন্য জটিল জটিল পাসওয়ার্ড দিলে সেটা মনে রাখাও একটা যন্ত্রনা, তাই একটা সহজ ট্রিক ব্যবহার করতে পারেন তা হলো প্রতি সাইটের জন্য সেই সাইটের প্রথম কয়েকটি অক্ষর ব্যবহার করে বিভিন্ন পাসওয়ার্ড ঠিক করা।
যেমন ধরে নেই আপনার পাসওয়ার্ড হলো:
an1uhk
Amazon এর জন্য পাসওয়ার্ডটি করে নিন:
an1uhkAMA
Facebook এর জন্য:
an1uhkFAC
GMAIL এর জন্য
an1uhkGMA

সুতরাং এবার থেকে আপনার নাম আর জন্ম তারিখ দিয়ে পাসওয়ার্ড দেওয়া থেকে বিরত থাকবেন বলে আশা করি এবং আপনার কম্পিউটারে বা ইন্টারনেট সাইটে বুদ্ধিমানের মতো শক্ত পাসওয়ার্ড ব্যবহার করবেন যা সহজে মনেও রাখতে পারবেন।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

fifteen − two =