(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

0
426
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

R!zwan B!n Sula!man

আমি সেই ছোট কাল থেকেই প্রযুক্তিকে ভালোবাসি। তাই আমি সব সময় প্রজুক্তির সাথে থাকি। নিজে খুবই সামান্য যা জানি তাই শেয়ার করি, এবং কিছু শেখার চেষ্টা করি।
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম !

আমি আবারও হাজির হলাম আমার আগের টিউনের দ্বিতীয় পার্ট নিয়ে ! আমার ইচ্ছা ছিল না এই টিউনটা করার ! আমি যে টিউন করব, তা লেখার টাইম আমার আসলে নাই ! যারা বিদেশে থাকেন তারা টাইম মেনেজমেন্ট কিভাবে করতে হয় তা ভাল করে জানেন ! তাও আবার UK এর মত দেশে ! এখানে সবাই এত ব্যাস্ত যে, কেউ কাউকে টাইম দিতে পারে না ! আমার গত টিউন লিখতে কত টাইম নস্ট হয়েছে সেটা আমি যানি ! প্রতিদিন একটু একটু করে লিখে লিখে ঐ টিউনটা দাঁড় করেছিলাম ! এত কস্ট করে লিখা টিউনটা যখন টেক্টিউন্সের এডমিনরা ডিলিট করে দেন, তখন আমার একটু দুঃখ হলেও, পরের মুহুর্তে এই ভেবে দীর্ঘ নিঃশ্বাস ফেলি “আমি কিছুটা হলেও সফল”।
যিনি ল্যামার তিনি আপনাদের পরিচিত, তাই আমারটা ডিলিট করে তাঁরটা রেখে দিলেন।
ল্যামারদের টিউন স্পন্সর টিউন লিস্টে থাকে, স্পন্সরশিপের টাকা পাবেন না ভেবে কি এমন করেন ? 
আমার কিছু যায় আসে না !
আমার কিছু যায় আসে না, কারন “আমি কিছুটা হলেও সফল”।
আমার সফলতার একটা কারন, আমার  টিউনটা মাত্র ৬ ঘন্টার ব্যাবধানে ৭৫০০+বার ভিসিট করা হয়েছিল! আমার ভাল লাগে এই ভেবে যে আমি তো অন্তত ৭৫০০ জনের কাছে এই বার্তাটা পৌছেদিয়েছি ! “ল্যামিং কি ? ল্যামার কারা? হ্যাকিং কি ? হ্যাকার কারা ?”
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এডমিন ভাইদেরকে বলি আপনি আমার টিউন পেন্ডিং করে রেখে দিতে পারেন কিন্তু আমার কিবোর্ড পেন্ডিং করে দিতে পারনে না।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

আমার আগের টিউন না পড়ে কেউ এই টিউনটা পড়তে যাবেন না ! Sorry !  আগের টিউন এখানে । এবং অন্তত ১ ঘন্টা টাইম হাতে না থাকলে পড়বেন না ! বুকমার্ক করে রেখেদেন ! পরে পড়ে নিয়েন।
৬ ঘন্টায় এই সাত হাজার ভিসিটর-এর কৃতিত্ব একা আমার না ! আপনাদের !
আমার সফলতার দ্বিতীয় কারন,  আমি তাঞ্জিম ভাইকে ভয় দেখিয়ে দিয়েছি ! তিনি এখন আর অটলাইক ইউয করেন না ! নিচের পিকচারটা দেখেন !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

১৪ ঘন্টায় মাত্র ৫১৪ লাইক আর  উপরের স্টেটাসে ১৩ ঘন্টায় ১৯৭ লাইক ! (স্ক্রিনশট নেওয়ার টাইম পর্যন্ত)।যেখানে আগে ১৩-১৪ ঘন্টায় ১৫০০ লাইক হইত। কই, এখন লাইকগুলা গেল কই ! অহ, শুনেছি এখন নাকি তিনি লোকাল লাইক ইউয করেন !  আমি একটা ভিডিও করেছিলাম ! ঐটাও দেখে নিতে পারেন। এখানে।
তাঞ্জিম ভাই আমাকে চেলেঞ্জ করেছিলেন আমি পারলে তার সব লাইক দেওয়া ব্যক্তিদের মেসেজ করে করে জিজ্ঞাস করব ! আর হা আমি সেই চেলেঞ্জ এক্সেপ্ট করে অনেকের কাছেই মেসেজ করি। অনেকে উত্তর দিয়েছে এবং অনেকেই এই মুহুর্ত পর্যন্ত কিছু বলেনি ! তবে যে তত্ত পেয়েছি তাতেই উনার অটোলাইক ব্যবহার প্রমান হয় ! এক মিনিটের এই Video দেখে নিন। 

আমার সফলতার তৃতীয় কারন, আমার প্রথম টিউনের দিন আমার কাছে প্রায় ২০০+ মেসেজ এসেছিল ! কেউ Thnx দিতে, কেউ Just ফ্রেন্ড হতে ! এদের মধ্যে ৪০-৪৫ জন ফ্রেন্ড এমন ছিল যারা তাঞ্জিম ভাইকে হ্যাকার ভাবতো, কিন্তু আমার টিউন পড়ে এখন বুঝে গেছে তিনি কে ?
নিচে আমি কয়েকটা স্ক্রিনশট দিলাম !
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এই মেসেজটা আরও অনেক কিছু বলে দেবে আপনাকে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এই মেসেজে তিনি কি বলছেন একটু খেয়াল করেন !
আর নাহ ! অনেক গুলা ভাব মারাইন্না স্ক্রিনশট দিলাম ! আর বেশি দিলে বিরক্ত হবেন ! আর থাক !

আমার সফলতার চতুর্থ  কারন, তিনি আমাকে চেলেঞ্জ দিয়েছিলেন ! আমি সাধারন এক ছেলে যাকে তিনি চেলেঞ্জ দেন, এটাই খারাপ কি ! তিনি তো একটা গ্রুপের এডমিন আর আমি একটা গ্রুপের সাধারন ক্রিউ ! তিনি আমাকে কেন চেলেঞ্জ দিলেন। নিচের পিকচারটা তারিই টিউন থেকে নেওয়া !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

তানভির আহমেদ বলছেন “আপনি যদি উচ্চ মানের হ্যাকারই হন তাহলে সাধারন sulaiman এর কাছে ধরা খাইলেন কেমনে…? Spam করবেন না please.. এই টিউন কইরা তো নিজেই নিজেরে….”
উনার কথাটা আমার খুব ভাল লেগেছে !  সাধারন আমার কাছে তিনি ধরা খাইলেন। কিন্তু তিনি বিপরিতে কোন প্রমান উপস্থাপন করতে পারেন নাই।
একটা গ্রুপের এডমিন হয়ে আমার মত সাধারন এক ক্রিউ (BBHH এর ক্রিউ) এর হাতে ধরা খেয়ে যার কিনা টিটিতে আকাউন্টিই ছিলনা তিনি একাউন্ট খুলে টিউন করলেন ! তিনি তো টক্কর দিবেন উনার মত কোন এডমিনের সাথে, সাধারন ক্রিউ এর সাথে কেন ? তাইলে কি আমি মনে করব sweeper 71-এর এডমিন ইয ইকুয়েল টু BBHH এর ক্রিউ ! আমার তো লজ্জা লাগছে ! crew কিভাবে এডমিনের সাথে ঠেক্কা দেয় !
{ আরেকটা জিনিস উল্লেখ করা দরকার, তিনি তাঁর টিউনে অনেকগুলা টিউনমেন্ট ডিলিট করেছেন ! ঐখানে গিয়ে দেখেন আমার কোন উত্তর দিতে হয় নাই, আমার পক্ষ থেকে অনেকেই উত্তর দিয়ে দিয়েছেন, আমি তাদের  কাছে কৃতজ্ঞ, ঐ ডিলিট কৃত টিউমেন্ট দেখতে ঐ টিউনের লিঙ্কের শুরুতে “https://webcache.googleusercontent.com/search?q=cache:” (এখানে ঐ টিউনের লিঙ্ক হবে) এটা দিয়ে দেখে নিয়েন কি কি ডিলিট করা হয়েছে ! [webcache কি দেখার জন্য এখানে একবার ভিসিট করে দেখেন ]  }
আর থাক এখন আসল কথায় আসেন !
আজকের টিউন হবে দুই ভাগে বিভক্ত !
১. প্রথম টিউনের জবাবের জবাব ! (জবাবটা আমি দিতাম না, কিন্তু দিতে হচ্ছে ! আমি বাধ্য)
২. প্রথম টিউনের দ্বিতীয় অংশ ! (দ্বিতীয় অংশ লেখার ইচ্ছা আমার ছিল না, কিন্তু তাদের লাফালাফির কারনে আরও কিছু ধরায় দিলাম)

১. প্রথম টিউনের জবাবের “জবাব” ! 

point number one:

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এখানে আমার কিছু কথা আছে !  নিচের লাইনটা খেয়াল করেন।
যার প্রমান হিসেবে প্রথম এবং একমাত্র সিকিউরিটি স্পেশালিষ্ট গ্রুপ হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছে এই “সাইবার ৭১”। লিঙ্কঃ যুগান্তর… মানব কণ্ঠ, টেকশহর। +++

মনোনয়ন পাওয়ার প্রমান হিসাবে তিনি আমাকে তিনটা নিউযের লিঙ্ক ধরায় দিলেন ! এই তিনটা লিঙ্ক কি প্রমান করে যে তিনি মনোনয়ন পেয়েছেন ? কোন খবরের কাগজের লিঙ্ক কখনিই আপনার মনোনয়ন পাওয়ার প্রমান বহন করে না ! আমাদের সরকার এত গরিব হয় নাই যে আপনাকে শুধু ডেকে এনে বলেছে যে “তোমাদের আমি মনোনয়ন দিলাম” আর আপনাদের কোন মনোনয়নপত্র দেয়নাই ! আমারা আম পাব্লিক আই মিন মেংগো পিপালস নিড টু সি দি সার্টিফিকেট ! যে আপনি ফেইসওয়াস দিয়ে মুখ ধুয়ে এসে ফেইসবুকে পিকচার আপলোড করেন সেই আপনি কেন সার্টিফিকেট দেখাইতে পারছেন না ! আপনি সার্টিফিকেট দেখান, আপনি প্রমান দেখান, আমি কুল হয়ে যাব। আমি চুপ হয়ে যাব। আপনি আমাকে / আমাদেরকে যুগান্তর কিবা অন্য থার্ড ক্লাস নিউয পেপারের লিঙ্ক দিবেন না পিলিয ! কোন নিউয পেপারের লিঙ্ক  মনোনয়ন পাওয়ার প্রমান বহন করে না !
“ডিবি পুলিশ, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেষ্টিগেশন (পিবিআই) সহ এদের ও অনলাইন ভিত্তিক কেস গুলোর সহায়তা করে “সাইবার ৭১”… “
এখানে তিনি যা বলছেন, এগুলা শুধুই নিজে নিজের মুখে বলছেন এর কোন রিলেয়েবেল সোউর্স আজও দিতে পারেন নাই ! আরেকটা কথা ! তিনি পোলোক সারের রিভিউ টা বার বার টেনে আনেন ! এর মানে কি ! উনার রিভিউ কি প্রমান করে যে তারাই সেরা, কিবা তারা সরকারের মনোনয়ন পেয়েছেন ? এখানে আমার কিচু কথা আছে ! এই কথাগুলা বলতে ভয় হয় ! তবুও ভয়ে ভয়ে চুপে চুপে একটা কথা বলি ! আচ্ছা আমার আসল কথা বলার আগে একটা জিনিস মাথায় রাখা ভাল !

ধরেন কোন ডাক্তার ভাল বা খারাপ এটা কে বিচার করবে ? কোন ইঞ্জিনিয়ার ?

অথবা কোন ইঞ্জিনিয়ার ভাল বা খারাপ এটা কে বিচার করবে ? কোন ডাক্তার ?

আচ্ছা বিষয়টা যদি এমন হয় যে বাংলাদেশের সেরা কোন ইঞ্জিনিয়ার বলছেন এই ডাক্তার ভাল, তাহলে কি ডাক্তার মহলে তিনি ভাল হয়ে গেলেন ? যে ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তারির কিছুই যানেন না,তিনি যত বড় ইঞ্জিনিয়ারিই হন না কেন, তাঁর কথায় ডাক্তার মহলে কোন ডাক্তার সেরা বা ভাল হওয়ার স্বীকৃতি বহন করে না ! vice versa   “the other way around” .

ঠিক তেমনি ভাবে কোন এম্পি/মন্ত্রি যিনি হ্যাকিং এর কিছুই যানেন না তিনি দেশের যত বড় মন্ত্রিই হন না কেন, তাঁর কথায়(রিভিউতে) হ্যাকার মহলে কোন হ্যাকার (আসলে হবে ল্যামার) সেরা বা ‘মনোয়ন পেয়েছেন’ এটার স্বীকৃতি বহন করে না !
with due respect, I repeat again with due respect Zunaid Ahmed Palak Sir’s Review is not the pillar to value you, or to measure the work you are doing !
আপনি বলতে পারেন, আমি কিভাবে বুঝলাম,  যে পলক সার হ্যাকিং এর কিছুই পারেন না ! তাই না ! নিচের পিকচারটা দেখেন ! (পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

প্রথম কথা হল তাঁর এডুকেশনাল বেকগ্রাইন্ডে টেকনোলজির কোন সম্পর্ক নাই ! তিনি ২০০৮ এ এম পি হোন ! আমাদের দেশে হ্যাকিং এর কনসেপ্ট আসে ২০১০ এর দিকে ! আর একেবারে ঘরে ঘরে হ্যাকার হওয়া স্টার্ট হয় ২০১৪ এর পর ! যে এম পি ২০০৮ এ এম পি হলেন আর বাংলদেশে হ্যাকিং এর কনসেপ্ট এল ২০১০-এ তাহলে তিনি তো হ্যাকিং নিয়ে স্টাডি করার টাইমিই পেলেন না ! কারন ২০১০-এ তিনি এম পি ছিলেন ! এক জন এম পি কত ব্যাস্ত থাকেন বুঝতেই পারছেন, এত ব্যাস্ত থাকার পর হ্যাকিং নিয়ে স্টাডি করবেন কেমনে !
এই তিনি, যার হ্যাকিং নলেজ ০, তিনি যদি কাউকে বলেন  ” তরুনেরা গড়বে নতুন দেশ, ডিজিটাল হবে বাংলাদেশ ” এর মানে এই না যে তাঁর এই রিভিউ ল্যামারকে হ্যাকার বানিয়ে দিচ্ছে !
উল্লেখ্য যে ২০১০ এ গ্রামিন ফোনের কল্যানে ব্যপক ভাবে বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহার শুরু হয়

আসল কথা হল টেকনোলজি বুঝবে টেকনোলজি এর মানুষেরা, কলেজ ইউনিভার্সিটিতে ফিজিক্স পড়ায় ফিজিক্সের টিচাররা, বাংলা বা কলার টিচাররা না ! পলক সার হচ্ছেন পলিটিশিয়ান ! উনি পলিটিক্স বুঝবেন, যেটা আমি বুঝব না, তেমনি উনি ICT মিনিস্টার হলেও IT সম্পর্কে উনার নোলেজ অবশ্যই সীমাবধ্য। একজন ব্যবসায়ী power and energy Minister হলেই ইলিক্ট্রিকাল ইঞ্জিনিয়ার হয়ে যান না, তেমনি কেউ ICT Minister হলেই কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হয়ে যান না ! সিমপ্লাল উদাহারন ! পলক সার কাউকে ভাল বললেই সে গ্রামীণ ফোনের টেলিকম ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে নিয়োগ পাবেনা ! তাকে অবশ্যই অদের মিনিমাম  requirement ফিলাপ করে তারপর join করতে পারবে। এখানে পলক সারের সার্টিফিকেট কোন কাজেই দেবে না ! এখানে দেখা হবে তার ইউনিভার্সিটি আর একাডেমিক ডিগ্রী অসার্টিফিকেট।
ঠিক তেমনি এইখানে কেউ একজনকে পলক সার, ভাল হ্যাকার বলল
 আর
শাহি মির্জা ভাই (Pioneer of white hat hacking) কেউ একজনকে, ভাল হ্যাকার বলল।
এই যে দুইজনের অবসার্ভেশন ! কারটা গ্রহনযগ্যতা পাবে ! পলক সারেরটা নাকি মির্জা ভাই এরটা !
কেউ যদি মির্জা ভাইকে চিনেন না ! তাহলে একটু গুগোল ঘাটাঘাটি কইরেন !
শাহি মির্জা ভাই তাঞ্জু ভাই এর মত লাফায় না যে সবাই চিনবে ! কিন্তু তিনি বাংলাদেশের এক্ষান চিয ! তারেক সিদ্দিকি, ফাইসাল আহমেদ এরাও কিন্তু কম না ! মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।


Point number Two ! :


নিচের পিকচারটা তার টিউন থেকে নেওয়া ! তিনি আমার মেসেজ এর স্ক্রিনশটের যে Caption দিলেন তা কতটুকু সত্য ! একটু বিশ্লেষণ করি, এর আগে তারিখটা  দেখেন ! ২৪/০৯/২০১৩ ! তখন আমি HSC এর ফল হাতে পেয়েগেছি ! আমার রিসাল্ট ‘সেই’ লেভেলের না হলেও মোটামুটি ! অর্থাৎ আমার Point ছিল এমন যে আমি  মেডিকেল বা ইঞ্জিনিয়ারিং বা ইউনিভার্সিটি যে কোনটাতে ভর্তি হতে পারব। তখনিই আমার দ্বিধায় পড়ে গেলাম। আব্বু-আম্মু চায় আমি মেডিকেলে পড়ি ! আব্বু-আম্মুর কথা হল প্রাইভেট মেডিকেলে হলেও মেডিকেলে পড়ব। তখন ইউক্রেইনের এক ফ্রেন্ড বলল ইউক্রেইনে মেডিকেল অনেক চিপ ! আব্বুকে প্রস্তাব দিলে আব্বু রাজি হয়! কিন্তু আমার খুব ইচ্ছা কম্পিউটার নিয়ে পড়া ! ঐ টাইমে আমি আমার ফেমিলেকে খুব করে বুঝিয়ে রাজি করালাম যে আমি মেডিকেলে না, কম্পিউটার নিয়ে পড়ব ! 
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !
আব্বু বল্লেনঃ অকে, তুমার লাইফ তুমি দেখো !
এরপর স্টার্ট করলাম ইউনিভার্সিটি কোচিং ! এর মধ্যেই আমার এক ভাই আব্বুকে বললেন ‘তারে বাইরে কথাও পড়ান’। ব্যাস, আমি IELTS (যেহেতু বাইরে স্টাডি করার জন্য IELTS important) করা শুরু করলাম ! একি সাথে IELTS+ইউনিভার্সিটি কোচিং। তার সাথে সাথে USA,UK,CANADA এর প্রায় অনেকগুলা ইউনিভার্সিটিতে এপ্লাই করা শুরু করে দিলাম  ! এই টাইমে আমি তাকে উপরের এই মেসেজটা দিয়েছিলাম! যেহেতু আমি হ্যাকিং এ আগ্রহী এবং আমার বাইরে পড়ার সম্বাবনা আছে তো কোন এক্সপার্টের কাছ থেকে জেনেনিলে খারাপ কি, কোন কোর্সটায় হ্যাকিং শিখতে সাহায্য হবে আবার গ্রাজুয়েশনও হবে ! (আমি তখন তাঞ্জিম ভাই এর খুব বড় ফেন, কারন আমি তার এই ল্যামিং এর কিছুই বুঝতাম না)। এই মেসেজটা আমি শুধু তারে দিয়েছি ! নো মেন !
কাজি মিনহার উদ্দিন (BGHH এর এডমিন), আহমেদ সাজিদ (expire cyber army এর এডমিন), মুহাম্মাদ আকাশ সহ আর কয়েকজনকে দিয়েছিলাম ! নিচের পিকটা দেখেন !
 
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !
এই মেসেজের দ্বারা কি এটা বুঝা যায় যে তিনি কি কোর্স করান তা আমি জানতে চাচ্ছি ?
Lol !
For a time being আর আমি যদি  জানতে চাইও, এটা তো আর ল্যামিং না ! কিন্তু আপনার ল্যামিং এর কোন সীমা নাই ! মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।

Point Number Three:

নেক্সট পিকচারটা দেখেন ! (পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আগে তারিখটা দেখেন ! ২১/১১/২০১৩। আমি শিখতে চাইছি এটা ১০০% সত্য ! শিখতে চাওয়া তো আর দোষের কিছু না ! এখনও আমি কিছু পারিনা, আমি কোন দ্বিধা ছাড়াই  বলি ভাই এটা আমি পারিনা ! ভাব মারার মত লোক আমি না ! আমি যদি কিছু পারিনা না আমি ডাইরেক্ট বলি ‘No idea’। So কারও কাছে শিখতে যাওয়াকে ল্যামিং এর পর্যায় নিবেন না ভাইয়া ! এখন এই স্ক্রিনশটের আগের মেসেজটা দেখাই !  (পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

বুঝেন, তিনি আমার কাছে ২০ হাজার টাকা চেয়েছিলেন। হা, টাকা চাইতে পারে ! এটা দোষের কিছু মনে করি না! কন্তু আমার কথা হল তিনি কেন আগের মেসেজটা না দেখিয়ে আমার হ্যাকিং শিখার মেসেজটা পাব্লিক করলেন ! আর নিচের দিকে দেখেন ! ”আমাদের কাছে হাই এমাউন্ট নিয়ে পোলাপাইন আইসা পইড়া থাকে… শিখাই না… বিকোয যাকে ভাল লাগে তাকেই শিখাই” ভাব মারার একটা ভাব দেখেন !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

হা হা ! SQl,xss, symlink আর সার্ভার রুটিং শিখায়া তিনি আমাকে ফুল হ্যাকার বানাইবো !হ্যাকার না আসলে হোকার ! আল্লাহ বাচাইছে, আমি ভুল পথে পাড়া দেই নাই !

অকে তিন নাম্বার মেসেজের বিষয়ে কিছু আর লেখার নাই ! হা, আমি কোল করেছিলাম হ্যাকিং শিখার জন্য ! ২০১৩ তে আমি একেবারে নিউবি, হা আমি এখনও নিউবি ! তবে এখন এইটুকু বুঝি ল্যামিং কি আর হ্যাকিং কি ?
So আমি শিখতে চেয়ে মেসেজ কিবা ফোন দেওয়াটা দোষের কিনা সেটা আপনাদের বিবেচনার বিষয় ! অন্তত আমি বলতে পারব এটা ল্যামিং না ! মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।

Point number Four:

আমি তখনও তাদের ল্যামিং ধরতে পারিনি ! বা বুঝতাম না ! তারা কেমনে কি করত ! ২০১৪ এর মে ! তারা নায়লা নাইমের সাইট হ্যাক করেছে দাবি করে ! তারা যে সাইট হ্যাক করেছে সেটা আসলে ডমেইন কিনে করেছিল ! (ডমেইন কিনে হ্যাক করেছিল এটার প্রমান আমার হাতে এখন নাই, কিন্তু কিনেই করেছিল এটা ঐ টাইমে অনেকে প্রমান করেছিলেন আমার হাতে এখন ঐ স্ক্রিনশটটা না থাকার কারনে দেখাইতে পারছিনা) পরে নায়লা নাইম বলে তার কোন সাইটই নাই ! কিবা যেটা হ্যাক করা হয়েছে সেটা তার না ! লিঙ্ক এখানে ! 
যার সাইট সেই কইতে পারে না যে তার সাইট আছে কিনা আর তারা বানায় ফেলতেছে যে সেটা তার ! এর পর নাইলা নাইমের সাইট দাবি করে আরেকটা সাইট হ্যাক করে। ঐটাও নাইলা নাইমের না ! একবার nailanayem.com আরেক বার nailaneyembd.com। এই দুইটা ডমেইনিই নাইলা নাইয়েমের না ! কিন্তু তারা এই দুইটা ডমেইন কিনে হ্যাক করেছিল এবং আমাদের মত সাধারন মেংগো পিপালকে emotionally blackmail করছিল ! যার বিয়ে তার খরব নাই, পাড়া প্রতিবেশীর ঘুম নাই ! বিষয়টা এমন হয়ে গেল না ! নায়েলা বলছে তার ফেইসবুক ছাড়া কোন কিছুতে তার একাউন্ট নাই ! কিবা তার কোন সাইট নাই ! আর তারা বলে আমরা হ্যাক করেছি তোমার সাইট ! লোল ! এই আকাম কুকামগুলা নিউয পেপারে আসার পর তিনি স্টেটাস দিয়েছিলেন। এখানে দেখেন।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আমি তো আর এইগুলা বুঝতাম না ! আমি ভাবতাম ! ওয়াহ ! আমার দেশ রত্ন তাঞ্জিম ভাই !

তখন তারে এইটাইপের মেসেজ দিয়েছিলাম ! So ! আমি জানতে চাচ্ছিলাম কিভাবে টার্গেট সাইট হ্যাক করতে হয়, এটা তো আর ল্যামিং না ! এর মানে এই না যে আমি তার কাছে শিখতে চেয়ে তিনি শিখান নাই এই কারনে আমি উনার বিরুদ্ধে লিখছি ! নাহ ! এটা কিন্তু না ! এইটাই যদি হইত, তাহলে আমি আরও আগে এই টিউনগুলা করতাম ! আমি ২ বছর পর এসে লিখার দরকার ছিলনা ! আমি লিখছি যাতে আমার পরবর্তি প্রজম্ন একটা সুন্দর, সুস্ত চাইবার স্পেইস পায় ! ল্যামিং মুক্ত চাইবার স্পেইস ! মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।

Point number Five:

এই স্ক্রিনশটের তারিখ দেখেন ! আর টাইম দেখেন !  ২৬/০৫/২০১৫ আর টাইম ১৭.৫৫। তিনি নাকি আমাকে আনফ্রেন্ড করেছেন মেসেজে বিরক্ত করার কারনে ! কিন্তু আসলে বিহাইন্ড দা সিন কি সেটা বলেন নি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

নিচের এই স্ক্রিনশটটা উনার দেওয়া স্ক্রিনশটের আগের মেসেজ ! দেখেন। ডেইট টাইম খেয়াল রাইখেন ! টাইম ১২.১৫ !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

তারে এই মেসেজগুলা দিয়েছিলাম ! তাই তিনি আমারে আনফ্রেন্ড করলেন ! আর তিনি মিত্যা একটা কথা বলে ফেললেন যে আমি নাকি তাকে হ্যাকিং শিখার জন্য খালি মেসেজ দিচ্ছি আর এই জন্য তিনি আনফ্রেন্ড করেছেন !পরের মেসেজগুলা দেখেন।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

যেই পোলা ইংলিশ পারে না ! সে নাকি DU তে পড়াবে ! আমি বলার পর সে প্রেসিডেন্ট এর বানান  ঠিক করেছিল তার প্রফাইলে ! পিকটা দেখেন ! 

এত বড় ভুল আমি ধরায় দিছিলাম ! এরপরও আমাকে থ্যাংকটুকু দেন নাই ! ভাব মেরে কি উত্তর দেয় দেখেন !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।

Point number Six:

তিনি live.com.bd এর মাইন সাইট হ্যাক করার কথা বললেন !এবং মিরিরও দেখিয়েছেন।  আমি এই বিষয়ে কোন কথা বলিনাই ! আমি যে বিষয়ে কথা বলেছি সেটা হল, তারা সাবডমেইন নিজে নিজে বানায় মিরর বাড়ায়। এই জন্য তারা .TK এর মত সাইট মারার রেকর্ডও প্রমান করেছিলাম। আমি যা পরমান করেছি সেটা মিত্যা প্রমান আপনি করবেন ! তাইলে সেটা হবে আমার বিপরিতে জবাব ! কিন্তু আমার টিউনে তো এইটা প্রমান করে যে, আপনি এই সাইটের সাবডমেইন বানায় বানায় মিরর বাড়াইতেছেন ! আমি এইটাই প্রমান করতে চেয়েছি ! আপনারা পারেন না এটা প্রমান করা উদ্দেশ্য ছিল না ! আমি আমার টিউনের কথাও বলি নাই যে আপনি কিছুই পারেন না ! আপনি হ্যাকিং পারেন কিন্তু ল্যামিংটা হ্যাকিং এর চেয়ে এক চামচ বেশি পারেন !(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এইখানে যে তাঞ্জিম নিজেই স্বীকার করতেছে যে সেটা সাবডমেইন ছিল, এই নিয়া উনি কি বলবে ?

মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।

Point number seven:

তিনি এক টিউমেন্টে বললেন তারা নাকি এক্সপাইর এর সাইট (Host edit করে)  হ্যাক করে নাই !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এটা আমি প্রমান করে দেব যে তিনি এটা করেছেন ! তিনি বললেন আমরা নিজেরা এই রকম করে নিজেরাই আপ্লোড করে তার বিরুদ্ধে মিত্যাচার করছি ! আসেন একটু প্রমান দেখে যান !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এর কিছু দিন পরিই এটা আপ্লোড করা হয় তার এসিড খান একাউন্ট থেকে! নাকি এখন এসিড খান একাউন্ট অস্বিকার করবে  ?(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

Point Number eight !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

ওকে ! এখানে প্রথম লাল অংশে তিনি দাবি করলেন তিনি এথিকেল হ্যাকার ! কিন্তু তিনি নিজেই দাবি করেন তিনি ব্ল্যাক হেট ! এটাকে ফটোসব বলবে আমি জানি, এই কারনে আমি vedio শট নিয়ে রেখেছি ! কারও দেখার ইচ্ছা থাকলে বইলেন ! লিঙ্ক দিয়ে দেব।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

2013 তে তিনি ৫ হাজার টাকায় আমাকে ফার্স্ট টু লাস্ট হ্যাকিং শিখিয়ে দিবেন ! প্রথম অংশে তিনি নিজেই বলতেছেন তিনি ব্ল্যাক হেট হ্যাকার ! এখন আবার বলেন তিনি ইথিকেল হ্যাকার ! একি মুখে দুই কথা বলেন ! এদের মুখ কি মুখ নাকি অন্য কিছু !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এথিকেল হ্যাকার নাকি তিনি  ! আবার তিনি ডাচ বাংলা ব্যাংকের এডমিন এক্সেস ভিক্ষা করছেন আরেক জনের কাছ থেকে ! এডমিন এক্সেস ভিক্ষা করে কোটিপতি হওয়ার স্বপ্ন দেখেন ! তিনি নাকি এথিকেল হ্যালার (এথিকেল হ্যাকারের সংজ্ঞা সে কতটুকু বুঝে সেটা নিয়ে আসছে  )

এরও কিছু জিনিস এইখানে বলে রাখা দরকার ! তিনি বলেন “আমি হ্যাকিংকে ব্যবহার করি সম্পুর্ন দেশের স্বার্থে” তাইলে নিচের কিছু স্ক্রিনশট দেখেন ! “আমি হ্যাকিংকে ব্যবহার করি সম্পুর্ন দেশের স্বার্থে” এই যে দেশের স্বার্থে এইটা কতটুকু সত্য। এর আগে একটা বিষয়ে ক্লিয়ার হওয়া দরকার ! নিচের স্ক্রিনশটে এক ভাই তার লাফানির কারনে দেখাইল যে তারা বিডি সাইট হ্যাক করে, এর পর সে বলে “এই বার দেখান এটা কোথায় স্বীকার করা হয়েছে যে আমরা হ্যাক করেছি ” এর পরে কিছু লাফানির পর তিনি বলেন “যদি প্রমান দেখাতে পারেন সাইবার স্পেস ছেড়ে দিবো ” এখন আমি যদি প্রমান করে দিতে পারি তাহলে কি তিনি সাইবার স্পেইস ছেড়ে দিবেন ? ছেড়ে দিতে বাধ্য তিনি !
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !এই দেখেন ! তিনি ইনকিলাব হ্যাক করে

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এইটা তাদের কমান্ডার পেনেলের পিকচার ! কেউ একজন লিক করেছে ! দেশের স্বার্থে হলে দেশের সাইট মারে কেমনে ! আর এথিকেল হ্যাকার হইলে সাইট হ্যাক করে কেন ? রিপর্ট করে না কেন ? সাইট ডিফেইস দিয়ে, ডিফেইস পেইজে লিখলেন “সিকুউরিটি ওয়ার্নিং !”। মানুষকে আর কত বোকা বানাবেন ! আরও পিক দিচ্ছি দাঁড়ান।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

হা হা ! ভি আই পি কথা বার্তা ! দেখেন তারা কি বলে ! একজন বলতেছে “always shobaike amon part e thakte bolben je ora e world class top hackers, bairer polapainke dam dite mana korben… always part e thakte bolben”
বুঝেন কি ধরনের পার্টে থাকবে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এই পিকচারের নিচের অংশে দেখেন কি লেখা ! “রিমুভ করে দেই … জাস্ট মিরর এর জন্য নিছিলাম” এর মানে দেশি সাইটের এমনিতেও খুব বেশি vulnerable এই সুযোগে তিনি মিররের জন্য দেশের সাইট হ্যাক করলেন ! তিনি আবার বলেন তিনি দেশের স্বার্থে কাজ করেন ! ওয়াও ! কি সুন্দর বুলি রেহ !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এই হল তাদের দেশের জন্য কাজ করার নমুনা আর এথিকেল হ্যাকিং এর এথিকক্স ! এখানে আমার মত মেঙ্গো পিপালদের একটা কথা বলে রাখা ভাল !  কেউ যদি সত্যিই সাইটের এডমিনকে সাইটের দুর্বলতা দেখানর জন্য সাইটে বাগ (bug কি ? না বুজলে গুগোল করে নিয়নে) বের করে তাইলে সে  ঐ সাইটের ঐ বাগ এক্সপলইট করবে না ! যাস্ট এডমিন কে মেইল করে বলবে যে আপনার এই দুর্বলতা আছে ! এখন কেউ যদি সাইটের বাগ বের করে এক্সপ্লইট করে তাইলে সে কিভাবে এথিকেল হ্যকার হয় ! শাহি মির্জা ভাই  (ফেইসবুক লিঙ্ক দিলাম না ইচ্ছা করেই) এর নাম Facebook,paypal,ebay,sony,google etc এর হল অফ ফেইমে আছে ! উনার তো কোন মিরর নেই ! উনি তো কারও সাইট ডিফেইস দিয়ে বলছেন না যে তুমার সাইট দুর্বল ! এগুলা আপনাদেকে ধকা দিয়ে বোকা বানানর নতুন পন্থা ! বি কেয়ারফুল।
পৃথিবির প্রথম হোকার যিনি  ফোনে কল দিয়া ওয়েবসাইট {দৈনিক ইনকিলাবের } এডমিন কে জানাইয়্যা দেয় যে তার সাইটে ঝামেলা আছে।
আমি বলি ভাই তোগো কি খায়দায় কাম নাই যে মানুষের সাইটের সিকিউরিটি আজাইরা চেক করবি? কাজ থাকলে কাজ কর। কি দরকার মানুষের সাইটে বাগ বের কইরা রিপোর্ট করে তাকে জানানোর? তুই যদি আসলেই ঐ পাবলিকের ভালোর জন্যে এইসব করতি তাহলে কখনোই ঐ সাইটের হোম ডিফেস দিতি না।
এইডা তো তোর একটা অজুহাত মাত্র,ঐ যে বাংলাদেশি হ্যাকার হয়ে বাংলাদেশি সাইট হ্যাক করা তো শরমের ব্যাপার (আমি আজও কোন বাংলাদেশি সাইটের হোম পেইজে হাত দেই নাই)। তাই একটা আজাইরা কারণ দেখাইয়্যা হ্যাক কইরা দিলো এই সাইট। হ্যাক কইরাই মিরর কইরা দিল ! মিরর করলে মিরর বাড়বে !
এইডা নতুন কথা না, আগেও এইভাবে ফকিন্নির পুত হকার সমাজের পাবলিকরা সিকিউরিটি’র কথা কইয়্যা বাংলদেশী সাইট হ্যাক কইরা জোন এইচের ইউনিক আইপি বাড়াইসে।  আমি কই ভাই তোর যা ইচ্ছে হ্যাক কর সমস্যা নাই,তবে আজাইরা অজুহাত দেখাইস না।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আরও কি প্রমান লাগবে  ?

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

” কিছু বিডি সাইট হ্যাক করা দরকার… ” তিনি নিজেই বিডি সাইট হ্যাক করার জন্য নিজেদের ক্রিউদের বছেন !  একজন হ্যাকারের ভাষা এত খারাপ হতে পারে না ! “বহুত চু*ছি আজ বিডি সাইট” কি তার ভাষা ! এরা নাকি আবার We hack to protect Bangladesh স্লগান দেয় !

আরও কিছু দেখেন !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

 মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।

Point Number Nine:

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

উপরের অংশে “পয়েন্ট দুই এবং তিনে তিনি টাইগার ম্যাটকে আর আমাকে প্রতিদন্ধী হিসেবে তুলে ধরেন এবং কে সেরা সেটা প্রমান করার চেষ্টা করেন।
আমি নিজেও টাইগার ম্যাটের স্কিলড নিয়ে কখনোই কোন প্রশ্ন তুলি নি এবং তিনি বিশ্ব সেরাদের লেভেলে একজন। কিন্তু উক্ত মানসিক প্রতিবন্ধী বালক টাইগার ম্যাট এর সাথে আমার প্রতিদন্ধীতা কোন হিসেবে সেটাই বোধগম্য নয়”

নিচে দুইটা পিকচার দিচ্ছি দুইটা একটু ভাল করে দেখে মিলায় নিয়েন, নিজেই বুঝবেন কে কাকে প্রতিদ্ধন্দি হিসাবে নিতে চাইছেইল, তাঞ্জিম ভাছে টাইগার ম্যাট তারে প্রতিদ্বন্দ্বী ভাবছে ! লল

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

তাহলে তিনি এই Status টা কোন উদ্দেশ্যে দিইয়েছিলেন !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

যারা জানেন না তাদের অবগতির জন্য একটা কথা বলি ! টাইগার মেট হ্যাকিং এর সাথে জড়িত সেই ২০০৭ থেকে। যখন আমাদের তাঞ্জিমের ‘বিচি’ এখনও উঠে নাই ! :-P  । তিনি তার ডিফেইস পেইজে নিজেকে “বাংলার নবাব” বলতেন। প্রায়ই তার ডিফেস পেইজে লিখা থাকত “বাংলার নাবাব ইজ বেক” এই ডায়ালগটা !  টাইগার মেট যখন অফ লাইনে ছিলেন (প্রায় ২ বছর) এই টাইমটায় আমাদের তাঞ্জিম, টাইগার মেটের এই নিক নেইমটা চুরি করেন, মানে তিনিও ব্যবহার করা শুরু করেন। যেই মিয়ার বিচি গজাইল সেই ২০১৩ তে এসে সেই মিয়া কিভাবে “বাংলার নবাব” নিকটা তার দাবি করে ! তিন নাম্বার পেরায় দেখেন তিনি লিখেছেন “অকপটেই আজীবন স্বীকার করবো, একমাত্র একজনই আছে যে কিনা “বাংলার নবাব” উপাধিতে ভাগ বসাতে পারে। সে হচ্ছে টাইগার ম্যাট… এমনকি তিনি চাইলে আমি নিজ থেকেই এখান থেকে সরে আসতাম” এখানে কি তিনি নিজেই নিজেকে টাইগার ম্যাটের প্রতিদ্বন্দ্বী বানিয়ে নিচ্ছেন না ! ?
তাঞ্জিমের স্ট্যাটাসে পর আমজনতা অরে পচানি শুরু করে ! এরপর পচানি সইতে না পেরে বলতেছে টাইগার ম্যাট নাকি তার সাথে মেইলে যোগাযোগ করেছে ! এরপর তাদের দুইজনের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝিটার সমাধান হয় ! টাইগার ম্যাটের খাইয়া কাম নাই ল্যামারদের সাথে যোগাযোগ করবে ! আর যোগাযোগ যদি হয়েও থাকে তাইলে ঐ মেইলের স্ক্রিনশট দেখাক ! টাইগার ম্যাট এক শটে ৭ লক্ষ সাইটে হ্যাকের পর জাস্ট একটা পত্রিকার সাথে সাক্ষাৎকার দিয়েছিল, সে লোক, এই ল্যামারের সাথে কথা বলবে !  বুঝেন ! ল্যামিং আর কত করবেন ভাই ! মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।

Point Number Ten:

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এখানে তিনি বললেন আমি নাকি ফোটশপ দিয়ে এই কাজ করেছি ! আচ্ছা নিচের পিকচারটা দেখে আপনারা  পাঠকরাই বলেন এটা ফটোশপড কিনা !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আচ্ছা, উনি যে ফটোশপ ইউয করে সার্টিফিকেট বানাইতে চায় সেটা দেখে নেই। লিঙ্ক এখানে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আরও একটা দেখেন !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এখন বুঝলেন ! চুরের মনে পুলিশ পুলিশ ! নিজেরা সার্টিফিকেট বানাইত চাই ফটশপিং করে আবার আমাদেরকে ফটশপের দহাই দেয় ! আরে বাবা,  মনে রাখবেন  “ইউ ক্যান ফুল অল দ্যা পিপল সাম অফ দ্যা টাইম, আন্ড সাম অফ দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম, বাট ইউ ক্যান নট ফুল অল দ্যা পিপল অল দ্যা টাইম !”।

Point Number 11:

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

ও আল্লাহ ! তিনি কি কি ডিগ্রী ধারি টিচার যিনি DU+BUET এর মত প্রতিষ্ঠানে পড়াই যান ! আল্লাহ আমারে উপরে নিয়া যাও ! এ বিষয়ে আমি আর কিছুই বল্লাম না ! এরা যে কি ধরেনের মিত্যা বলে তা আমি একটু পরে আরও প্রমান দিচ্ছি !

Point Number   12:

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আচ্ছা ফর আ টাইম বিং ধরে নিলান তিনি চেকিউরিটি স্পেচালিস্ট (সেকিউরিটি স্পেসিয়ালিস্ট না কিন্তু)। পৃথিবীর কোন চেকিউরিটি স্পেচালিস্ট এরাম পিকচার ফেইসবুকে আপ্লোড দেয় ! নিচে দেখেন।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আচ্ছা একজন চেকিউরিটি স্পেচালিস্ট এখানে ফেইসওয়াশ (বা ক্রিম) দেখিয়ে কিবুঝাইতে চায় !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আমাদের অন্য কোন ধরনের পিকচার আপ্লোডে কোন মাথা ব্যাথা নাই ! এই পিকচার গুলার দিয়ে তিনি কি দেখান, নিজের দাত নাকি ক্রিমের এডভার্টাইজ করেন ! অরা কি উনারে টাকা দেয় ! ভাইয়া আপনার আয় কত এই মডেলেলিং করে ? অহ ! উনার বেতন তো আবার এক লক্ষ টাকা ! এই নিয়ে আমি পরে লিখছি ! ওয়াইট !

Point no 13: এই ধরণের আরও অনেকের টিউমেন্ট ডিলিট করল কেন ?

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

২. প্রথম টিউনের দ্বিতীয় অংশ !

ল্যামিং নাম্বার সিক্সটিনঃ

Sweeper 71 যে খালি চিল্লায় তারা বাংলাদশি সাইট রিকোভার করে, এরা কি আসলেই রিকভার করে ? নাকি রিকভারের নামে আমাদেরকে ইমোশনাল্লি ব্লেকমেইল করে !দেশের প্রতি আমাদের যে মায়া আছে, সেটা তাঞ্জিম ভাই খুব ভাল করে যানে, তাই তিনি একটা সিস্টেম বের করেছেন ! বাংলাদেশি সাইট হ্যাক করে, সেটাকে আর “হ্যাকড বায় সুইপার-৭১” না বলে, বলে “রিকভারড বায় সুপার ৭১”। এতে আমার মত মেংগো মেন মনে করে ! উহু ! এরা তো অনেক ভাল, তারা হ্যাকড সাইট রিকভার করে দেয় ! কিন্তু এই কাহিনির পিছনে কি, তা অনেকেই বুঝে না ! অনেকেই বুঝেনা কারন অনেকেরিই হ্যাকিং নিয়ে ধারনা কম !  কিন্তু ঐ যে ! You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !  আমি সেটা প্রমান করার ট্রাই করেছি ! জাস্ট একটা বাংলাদেশি সাইট দিয়ে ! Video লিঙ্ক এখানে।

ল্যামিং নাম্বার সেভেন্টিনঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

 

 

 

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এই দুইটা পিকচার একটু ভাল করে দেখেন ! তিনি টেটো ব্যবহার করতে চান কিন্তু টাকা দিয়ে লাগাইতে পারেন নাই কিন্ত ফেইসবুকে তো ভাব মারাইতে হবে তাই ফটোশপ এ এডিট করে তিনি টেটো লাগাইলেন ! কিন্তু এটাকে একটু রিয়ালিস্টিক করতে পারতেন। একটু অপাসিটি কমিয়ে ! :-P

You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

ল্যামিং নাম্বার এইট্টিনঃ

এই পইন্টটা বুঝার জন্য আপনাকে সাইবার স্পেসে একটু পুরনো হতে হবে !  নাহ ! পুরনো না হলেও চলবে, আমি একেবারে স্ক্রিনশট দেখিয়ে দেব, So no tention !(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এখানে অনেক কথা বলার আছে ! প্রথম কথা হলো তাদের ঘোষনা অনুযায়ী ২৭ এপ্রিল তারা তাদের Android এর বিটা ভার্শন বের করেছে ! (যদিও এটা পাব্লিক ছিল না) কিন্তু আজ প্রায় ৩ মাসেও সেই এপ্সটার ফুল ভার্শন বের হল না ! একজন জাভা প্রোগ্রামার বলতে পারবে এই টাইপের (যেসব ফিচার তিনি উল্ল্যেখ করলেন) এপ্স এর কতটা টাইম লাগে ! আমি জানি তাঞ্জিম ভাই প্রোগ্রামার না, কিন্তু as a java প্রোগ্রামার। আমি জানি এই টাইপের এপ্স তৈরি করতে এক সপ্তাহ বা এর চেয়ে কম সময়ে তৈরি করা সম্ভব আর আরও এক্সপার্ট প্রোগ্রামার তো ৩/৪ দিনেই করে ফেলতে পারে ! কন্তু তাদের এই এপ্সটা এখনও বের হল না কেন ? মানুষকে তারা শুধু এভাবেই ধোকা দিচ্ছে না ! So remember,  You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time ! তারা আরও অনেক কিছুই বলেছে যে আমরা এই করছি, সেই করছি কিন্তু কিছুই হয় না ! কিছু উদাহরন দেই !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

সেই অফিসিয়াল স্বারক এবং পরিচয়পত্রের কিছুই আমরা এখনও দেখিনি।আচ্ছা, পরিচয়পত্র মানে কিসের পরিচয়পত্র ! ল্যামিং এর ? লাগবেনা রে ভাই ! আমরা এম্নিতেই বুঝতেছি কি ধরনের ল্যামার আপনি ! So remember,  You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এখানে দুইটা পিকচার ! প্রথম পিকচারে তিনি একটা নাটকের স্ক্রিপ্ট তৈরি করেছেন, কিন্তু সেই নাটক আজও কথাও আমি দেখিনি (৫ মিনিটের সর্ট ফিল্মের কথা আমি বলছিনা) দ্বিতীয় পিকচারে তিনি বললেন ৮ তারিখ তিনি ড্যাফোডিলে ক্লাস নিবেন ! ৮ তারিখ তো পার হয়ে গেল !

আচ্ছা, তাহলে ১ম august এর অপেক্ষায় থাকি ! দেখি উনি DU তে কি পড়ান !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

সেই কোন ব্যাংকের সিকিউরিটি পার্টনার হয়েছেন তা আজও ক্লিয়ার করা হয় নাই !  You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এই টিউনটা সেই ২০ ডিসেম্বার ২০১৩ সালের ! আজ ২০১৫ ! প্রায় দেড় বছরের ব্যবধানে তারা আজও কোন টেলিফিল্ম দেখাতে পারেন নাই ! So remember,  You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !  হ্যা ! একটা ৫ মিনিটের শর্ট ফিল্ম দেখেছি যেটা তাঞ্জু ভাই এর স্ক্রিপ্ট ছিল বাট সেটা টেলিফিল্ম কন্তু না ! সর্ট ফিল্ম আর টেলিফিল্ম কিন্তু এক না ! এটা মাথায় রাইখেন !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আরও কিছু !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

হা হা ! নিজেদের সাইট হ্যাক হবে এই ভয়ে ২০১৩ সালে নিজদের ফরাম আপ করবে বলেও সেই সাহস হয় নাই ! আবার তারা নাকি হোকার ! So remember,  You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

হা হা ! সেই ২০১৩ থেকে আজ ২০১৫ সালের শেষ প্রান্ত ! আজও আমি তাদের Bulk SMS server বিনা মুল্যে জন সাধারনের সামনে উম্মুক্ত করা হয় নাই ! কেন ? remember,  You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

কই “হ্যাকার” নামক কোন নাটক তো আমি আজও দেখি নাই ! আপনারা কি দেখেছেন ? ভাইয়া ! You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

ল্যামিং নাম্বার ২০ঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

চটি পাঠক আমাদের তাঞ্জিম ! তিনি রেগুলার চটি পড়েন ! ভাইয়া ! You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

ল্যামিং নাম্বার ২১ঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

দেখেন !নিজেদেরকে যোগ্য প্রমানের জন্য তারা Zone-h এ মিরর শুরু করেছে ! কিন্তু তারা আজও নিজদেরকে zone-h এ নিজেদের অবস্থান করে নিতে পারেনি !  ২ বছরেও যখন নিজদেরকে যোগ্য প্রমান করতে ব্যার্থ তখন তারা বলে, থার্ড ক্লাস সাইট হ্যাক করে মিরর করে না তারা ! তাহলে তখন ফাপড় মারছিলা কেন ?

ল্যামিং নাম্বার ২২ঃ

নিচের পিকচার দুইটা দেখেন ! আমি আর কিছু নাই বললাম!

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

ভাইয়া ! You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

ল্যামিং নাম্বার ২৩ঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

মজার বিষয় হল ! এটা আমাদের তাঞ্জু ভাই এর সাইট ! তিনি তার সাইট হ্যাক হয়ে যাওয়ার ভয়ে নিজে কোড করে বানাননি (কোডিং পারলে তো করবে)। ফ্রী থিম কিনে যে তিনি এডিট করবেন সেটাও তিনি পারেন না ! এই কারনে তার সাইটে দেখবেন “ব্লগটি এডিট করেছেনঃ আশিকুর রাহমান” ব্লগটা এডিট করার জন্য যে ছেলে আরেক জনের হেল্প নেয়, সে কোন লেভেলের হ্যাকার, তাও ফ্রী থিম ! এবং ব্লগারের সাইট ! ব্লগারে সাইট খোলার কারন আমি নিচের ল্যামিং এ বলছি ! ভাইয়া ! You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

ল্যামিং নাম্বার ২৪ঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

তিনি তার ব্লগারের সাইটটা হ্যাক করতে বলছে ! তিনি এই সাহসটা কথায় পেলেন যানেন ? কারন সার সাইটের সিকিউরিটি নিজে দিতে হচ্ছে না ! গুগোল দিচ্ছে ! অনেকেই ভাব্বে! যারা জানেন না তারা ভাববে “এত পারো তাইলে তাঞ্জিম ভাইয়ের সাইটটা খেয়ে দেখাও না !” কিন্তু তারা তো জানেন না তাঞ্জিম ভাই এই সাহস কই পায় !  এখন বলি ! ব্লগার হল গুগোলের ফ্রি সার্ভিস ! Blogger.com এ যে সাইটগুলা হোস্ট করা থাকে সেগুলা হ্যাক করা  প্রায় Impossible ! আমি কিন্তু বলেছি “প্রায়” কারন আমি যানি কোন সিস্টেমিই সেকিউরড না ! যাই হোক ! ব্লগার হ্যাক করা পসিবাল না কারনঃ
(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

১. ব্লগারে Php ফাইল আপলোড করা যায় না, তাই সেল আপলোড করা যায় না।
২. ব্লগার কোন সেলফহোস্টেড স্ক্রিপ্ট না, সো এটার সেকিউরিটির দেওয়ার responsibility উযারের না, প্লাটফর্ম সিকিউরিটি টুটাল্লি গুগোলের হাতে। গুগোল যেখানে সেকিউরিটির দায়ভার নিয়েছে সেখানে ইউযারের কোন চিন্তা নেই।
৩. শুধু মাত্র ইউযারের ইমেইল একাউন্ট হ্যাক করা গেলেই ব্লগারে থাকা সাইট কন্ট্রোলে নেওয়া বা হ্যাক করা Possible বাট ইমেইল একাউন্ট এর security ব্যাবস্থা যেহেতু গুগোলেই দেয় সো কেউ যদি ইমেইল এ 2 way authentication system চালু করে রাখে অর্থাৎ ইমেইল একাউন্ট সেকিউর রাখে তবে ব্লগার এর সাইট হ্যাক করা প্রায় Impossible. বুকের এত পাঠা থাকলে আমার এই সাইট হ্যাক করেন ! আমার টাও কিন্তু ব্লগারে করা www.greenweb.com.bd  । দিলাম চ্যালেঞ্জ ! আরে বাবা সেকিউরিটির responsiblity তো আমার না, গুগোল মামার ! :-P, যে নিজেই নিজের সাইট এডিট করতে পারেনা সে আবার ব্লগারের সাইট হ্যাক করার চ্যালেঞ্জ দেয় ! হা হা  You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

ল্যামিং নাম্বার ২৫ঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এই টিউনে তিনি ফাপড় মারলেন যে তার আয় লক্ষাদিক ! এখন আসেন তার একটু আগের দিনের টিউনটা দেখি ! যেই ছেলে রাস্তায় ১০০ টাকা কুড়িয়ে  পেয়ে মহা খুশি সেই ছেলে নাকি ২০১০ এ ১০ হাজার টাকা বেতনে চাকরি করত ! এখন নাকি সে এক লক্ষ টাকা ইনকাম করে ! সেটা না হয় বাদিই দিলাম !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

ভাইয়া  You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !

ল্যামিং নাম্বার ২৬ঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

আচ্ছা ! ১৬ হাজার টাকায় তিনি হ্যাকিং শিখাবেন। ভাল ! কন্তু তিনি কিভাবে বলেন যে ”এই কোর্স করতে কম্পিউটার প্রোগ্রামিং সংক্রান্ত কিছু জানতে হবে না” প্রোগ্রামিং ছাড়া একজন কিভাবে হ্যাকিং শিখবে ! হ্যাকিং প্রথম কাজ হল কোডিং বুঝা এবং জানা ! তিনি একমাত্র ল্যামিং শিখাতে পারবেন আমি গেরান্টি দিতে পারি বাট হ্যাকিং ! No way !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

উপরের দুইটা পিকচার আর নিচের পিকচার মিলান ! কোন মিল পান কিনা ? উপরের তিনটা পিকচারে কৌর্সের দাম তিনটা ! ১৬০০০,১৪৪০০, ৭৯৯৯। মানে তারা কোন ভাবে কি পোলাপাইনরে attract  করা যায় সেই চিন্তায় আছে ! এই মিয়াই আবার বলে তারা নাকি ব্যাবসাইক উদ্দেশ্যে করেছে না !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এখানে দেখেন সে কি বলছে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

যেখানে লাল কালিতে এক লেখা এখানে দেখেন ! সে বলছে এটা আমাদের কোন বানিজ্যিক লক্ষ নিয়ে তৈরি করা হয় নি ! বানিজ্যিক না হলে টাকা এর প্রশ্ন আসে কেন ? you know that ” You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !”

ল্যামিং নাম্বার ২৭ঃ

১৫ মার্চ ২০১৫ তে বাংলাদেশ vs ইন্ডিয়ার ক্রিকেট খেলায় ICC-এর অনিয়মের প্রতিবাদে বাংলাদেশের সবগুলা গ্রুপ এক হয় ! Expire Cyber Army, BBHH,BGHH,UBH,Black Smith,BSKH (আরও যারা আক হয়ে কাজ করেছে এই মুহুর্তে আমার মাথায় আসছে না) সবাই এক হয়ে “Rise of Tigers” নামে ইন্ডিয়ান সাইবার স্পেসে আকরমন শুরু করে। তখন তাকে আমি জিজ্ঞেস করেছিলাম ভাই আপনি কি এই ওয়ারে জইন করছেন ? তিনি কি উত্তর দিয়েছিলেন দেখেন।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

তার উত্তর ছিল “এসব ইউযলেস মেটারের ওয়ারে সাইবার ৭১ যাবেনা, অন্যরা ওয়ারে যে ইন্ডিয়ান সাইট মারে আমাদের পোপলা পাইন ডেইলি প্রেক্টিসেই এর বেশি মারে”। তাহলে এবার দেখে আসি তারা কত বেশি মারে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

২৩ মার্চ সময় টিভি প্রকাশ করে যে সুইপার ৭১ নাকি ২৩০০ সাইট হ্যাক করেফেলেছে ! কেন ? তারা আবার হ্যাক করল কেন ? তারা না বলল তারা এই ওয়ারে আমাদের সাথে অংশগ্রহন করবে না ! তারা আমাদের সাথে অংশগ্রহন না করেই একা একা অনেক পারে এইটা দেখাইতে গিয়ে কত মিত্যা বলেছে দেখেন ! বুঝার সুবিধার জন্য যারা মিরর কি তা যানেন না তারা একটু এখান থেকে ঘুরে আসেন।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এই মুহুর্তে (যখন লিখছি) তাদের Total মিরর ৭০৯৫ ! তাইলে ৭০৯৫-৪৫০০=২৫৯৫। হিসাবটা বুঝেছেন ? একটু বুঝিয়ে বলি ! তর্কের খাতিরে যদি এই মিত্যা ইনফরমাশন কে সত্য ধরি তাহলে ১৫ মার্চ থেকে ২৩ মার্চের ব্যবধানে ৪৫০০  (যদিও ৪৫০০+ বলেছে তারা) সাইট হ্যাক করেছে ! এখন তাদের  টোটাল মিরর যদি ৭০৯৫ হয় আর ঐ ৮ দিনের ব্যাবধানে  (১৫ মার্চ থেকে ২৩ মার্চ) ৪৫০০ সাইট হ্যাক করে তাহলে ৯ মার্চ ২০১২ (তাদের পয়দা দিবস) থেকে ২৩ মার্চ ২০১৫ (যে তারিখে নিউযটা পাব্লিশ হয়) পর্যন্ত এই তিন বছরের বেশি সময় ধরে কি তাহলে মাত্র ২৫৯৫ টা সাইট হ্যাক করল ? আমার হিসাব বুঝে থাকলে বলেন তো যেই গ্রুপ ৩ বছরে ২৫৯৫টা হ্যাক করল তারা কিভাবে মাত্র ৮ দিনে ৪৫০০+ সাইট হ্যাকায় ! আর যদি করেও ফেলে ঐ সাইটগুলার লিস্ট কথায়, কিবা মিরর লিস্ট কথায় ! তারা তো সেটা দেখাতে পারে নাই ! Remember bro  ” You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !”

ল্যামিং নাম্বার ২৮ঃ

আরেক জনের কাছে নিজে এক্সেস ভিক্ষা করতেছে ! 

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

অন্যকে যা বলছে, তার সবিই তার মাঝে আছে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

নিচে দাগ দেওয়া অংশ দেখেন ! এই ছেলে তাঞ্জিমকে সাইটের শেল দিয়েছে সাইট পেচ করার জন্য নাকি, কিন্তু তারাই এই সাইট আবার মারে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

” You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !”

ল্যামিং নাম্বার ২৯ঃ ছবি কথা বলে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

ল্যামিং নাম্বার ৩০ঃ ছবি কথা বলে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

ল্যামিং নাম্বার ৩১ঃ ছবি কথা বলে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

ল্যামিং নাম্বার ৩২ঃছবি কথা বলে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

ল্যামিং নাম্বার ৩৩ঃ

তিনি বলেছিলেন তার লাইক নাকি সবিই ১০০% রিয়েল ! এইটা প্রমান করার চেলেঞ্জ ও দিছিলেন ! আমাকে হেল্প করেছেন প্রত্যয় প্রত্যয় নামে এক ফেন ! এখানে ভিডিও দেখে নিন।

ল্যামিং নাম্বার ৩৪ঃ

২০১৩ তে hack-mirror এ বাংলাদেশের সব গ্রুপকে বিট করার চেলেঞ্জ দিলেও আজও তাদের কোন নাম গন্ধ পর্যন্ত নাই হ্যাক মিররে ! এখানে প্রমান দেখেন ! 

ল্যামিং নাম্বার ৩৫ঃ

BCA কে চেলেঞ্জ দিয়ে আজও হাতে চুড়ি পরে বসে আছে ! তিন বছরের বেশি টাইমেও BCA এর পায়ের কাছেও আসতে পারে নাই ! এখানে প্রমান দেখেন।

ল্যামিং নাম্বার ৩৬ঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

প্রথমেই বলে রাখি আমি বাংলায় খুব কাঁচা ! এই লেখাটাও অনেক বানান ভুলের মধ্যে দিয়ে লিখছি ! এখানে হেডিং টা দেখেন ! একজন ব্যক্তিকে আপনি “সাইবার সেকিউরিটি স্পেসিয়ালিস্ট” বলতে পারেন, “সাইবার সেকিউরিটি স্পেসিয়ালিস্ট” (এই ওয়ার্ডটা) কোন টার্ম না যে আপনি শিখবেন ! বলতে পারেন “সাইবার সেকিউরিটি স্পেসিয়ালাইযেশন- কেন করবেন” বা “সাইবার সেকিউরিটি স্পেসিয়ালিস্ট – কেন হবেন”। ওকে বাদ দেন ! এখান আসেন তিনি এথিকেল হ্যাকিং এর যে উদাহন দিলেন তা কতটুকু ঠিক ! এথিকেল হ্যাকং কাকে বলে সংক্ষেপে বললে বলা যায়, যার বা যাদের নেটওয়ার্ক বা সাইট এর দুর্বলতা বের করতেছেন তার অনুমতি নিয়ে করাকে এথিকেল হ্যাকিং বলে। আরও বিস্তারিত যানার জন্য Google এ গিয়ে লিখেন What is ethical hacking তাহলে গুগোল আপনাকে অনেক তত্ত দেবে !

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

যে নিজেই এথিকেল হ্যাকিং এর অর্থই যানে না ! সে কেমনে এথিকেল হ্যাকিং  শিখায় ? Remember bro  ” You can fool some of the people all the time, and all the people some of the time, but not all the people all the time !”

ল্যামিং নাম্বার ৩৭ঃ

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

এখন এক্ষান রাজনৈতিক কথা বার্তা হবে ! তাই আগেই বলে রাখি আমি আওমিলিগের সাপর্টার না, বি এন পি এরও না ! জামাত কে তো ঘৃনা করি ! বাংলাদেশের কোন দলকেই আমি সাপর্ট করি না ! কিন্ত আমি বঙ্গ বন্ধু মুজিবকে তার অবদানের জন্য অনে রেস্পেকট করি ! জিয়াউর রাহমানকে তার অবদানের জন্য অনেক শ্রদ্ধা করি ! সবাইকে যার যার স্থান থেকে আমি শ্রদ্ধা করি ! তুই কে রে যে মুজিবের মত একজন জাতিয় নেতার নামে এই রকম কথা বলিস ! আবার সেই আওমিলিগ সরকার নাকি তারে স্বিকৃতি দেয় ! এখানে ভিডিও লিঙ্ক।

Sorry ! আমি আর লিখতে পারছি না ! অনেক হয়েছে ! (আরও অনেক কিছুই আমার কাছে আছে, কিন্তু আমি আর পারছি না  )

আমি আমার কাজ করেছি ! এখন আপনাদের কাজ আপনাদের করার পালা ! যে খানেই তাদের ল্যামিং দেখবেন ! তাদের হাতে আমার এই এটার লিঙ্ক আর আগের টার লিঙ্ক ধরায় দিবেন।

আমি জানি আমার লেখা টেক্টিউন্স ডিলিট করে দেবে ! তাই যারাই এটা পড়বেন তারা এইটা কপি করে রেখে দিবেন ! নিজের ওয়ালে, নিজের ব্লগে,নিজের টিটি একাউন্টে কপি পেস্ট করার অনুমতি দিলাম !

লুলাইত পিকচারসঃ(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(২)

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(৩)

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(৪)

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(৫)

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

{এরকম আরও অনেক পিকচার আছে ! এই টাইপের পিকচার দেখে কি বুঝলেন ! উনার মুখের ভাষা এবং তার ক্যারেক্টার কেমন ? }

last একটা কথা বলি ! প্রতিটা মানুষের ভিন্ন ভিন্ন স্বত্বা থাকে ! আমি আমার কথা বলি ! আমি যখন ছাত্র তখন আমার ছাত্রত্বের একটা স্বত্বা আছে। আমি যখন হ্যাকার তখন আমার হ্যাকিং
এর স্বত্বা আছে ! (আমি এখনও নিজেকে হ্যাকার বলতে লজ্জা লাগে, আমি হ্যাকার না, জাস্ট ফর আ টাইম বিং  ) আমি যখন টিচার তখন আমার শিক্ষকতার স্বত্বা আছে ! এই যে, আমি ব্যক্তি একজন, কিন্তু বিভিন্ন সময় আমার বিভিন্ন স্বত্বা ! এইটুকু বুঝা লাগেবে ! আমি হ্যাকার তাঞ্জিমের বিরুদ্ধে কিছুই বলিনাই ! তিনি হ্যাকিং পারেন কিনা তা আমি জানিনা, কারন আমি তার সাথে থাকিও না ! কিন্তু আমি তাঞ্জিমের এর ল্যামিং স্বত্বার বিরুদ্ধে লিখেছি ! আমি হ্যাকার তাঞ্জিমকে কিছুই বলিনি আমি ল্যামার তাঞ্জিমকে যা বলার তা বলেছি, বলছি ! এই জিনিসটা মাথায় রাখবেন ! অনেকেই আমাকে জিজ্ঞেস করেছেন! তাঞ্জিম কি হ্যাকিং এর কিছুই পারে না ? আমার উত্তর ছিল ! ‘পারে’ না এটা আমি বলব না ! তবে ল্যমিং করে এটা প্রমানিত !

একটা সিম্পাল তত্ত্ব আপনাদের দিয়ে রাখি।

জ্ঞানের তিনটি স্তরঃ

1. যে প্রথম স্তরে প্রবেশ করবে, সে অহংকারী হয়ে উঠবে, যেন সব কিছুই সে জেনে ফেলেছে।
2. দ্বিতীয় স্তরে প্রবেশ করার পর সে বিনয়ী হবে।
3. আর তৃতীয় স্তরে প্রবেশ করার পর সে নিজের অজ্ঞতা উপলদ্ধি করতে পারবে।”
এই তিনটি স্তর থেকে আপনি আমাকে বিচার করবেন আমি কোন স্তরের ! আপনি আপনাকে বিচার করবেন আপনি কোন স্তরের। আর “তাহাদেরকে” বিচার করবেন তাহারা কোন স্তরের !

তাদের প্রতিদিনের স্টেটাস দেখে বুঝেবেন তিনি কোন স্থরের !।

আজ এখানেই বিদায় নিলাম !

লেখাটি প্রকাশিত হয়েছে গ্রিনওয়েব। Tunerpage । যুগটেক। ITprotidin  ।

(পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি !

(I am filled up ! আমারে মেসেজ কইরেন তাইলে বুঝবো যে আপনি টেকটিউনসস থেকে এসেছেন, নাইলে একসেপ্ট করার ওয়ারেন্টি নাই :-P (পার্ট টু) একজন হ্যাকারের আত্মকাহিনি ! এবং আমাদের ল্যামার বাহিনি ! )
[বানান অনেক ভুল আমি যানি, এখন রাত ৪টা বাঝে, আমি ঘুমাবো প্রুফ দেখার টাইম নাই সরি ! ]

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

20 − 18 =