সহজেই প্রচুর কাজ পান ফাইভার মার্কেটপ্লেসে (২)

0
319

ফাইভার (fiverr.com) ইতিমধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস হিসেবে সবার কাছে পরিচিত হয়ে উঠেছে। এ মার্কেটপ্লেসে গিগ রেট ৫ ডলার দেখে অনেকে কাজ করতে কম উৎসাহিত হয়। আসলে বিষয়টি এরকম না। এ মার্কেটপ্লেসে কাজ করে অনেকে প্রতিমাসে গড়ে ১৫০০ ডলারও আয় করছে।যেহেতু বায়ার নয়, বড়ং ফ্রিল্যান্সাররাই কাজের অফার টিউন করে এবং বায়ার উক্ত অফার কিনে নেয়, প্রতিটি অফার বা গিগ (এখানে প্রতিটি কাজকে গিগ বলা হয়) এর মূল্য মাত্র ৫ ডলার হওয়ায় গিগগুলো দ্রুত সেল হতে থাকে। এজন্য দেখা যায়, অনেকে ওডেস্ক/ইল্যান্সে সুবিধা করতে পারছেন না, কিন্তু ফাইভার থেকে ভাল আর্ন করছেন।

যেভাবে সহজেই কাজ পেতে পারেন ফাইভারেঃ

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

১. যেসব কাজ দ্রুত সম্পন্ন করতে পারবেন সেই কাজ সম্পর্কিত গিগ তৈরী করুন

আপনি যদি ফাইভার থেকে অর্থ উপার্জন করতে চান তাহলে এমন গিগ তৈরী করুন যা আপনি খুব কম সময়ে সম্পন্ন করতে পারবেন। কেননা কোন কাজ খুব কম সময়ে করতে পারলে আপনি আপনার ক্লায়েন্টের কাছ থেকে ভালো ফিডব্যাক পাবেন, যা আপনাকে আরো কাজ পেতে সহায়তা করবে।

২.একই গিগের পুনরাবৃত্তি করুন

যখন আপনি এমন গিগ তৈরী করবেন যা আপনি খুব কম সময়ে সম্পন্ন করতে পারবেন, তখন দেখুন যে আপনার গিগের জনপ্রিয়তা কতটুকু অথবা এটা ভাল বিক্রী হয় কিনা!

যদি এমন করতে চান তাহলে, আপনার প্রথম গিগের মত আরো কয়েকটা গিগ তৈরী করুন যা প্রায় প্রথম গিগটার মতই।

যেহেতু বিভিন্ন ক্লায়েন্ট বিভিন্ন ধরনের কীওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করে তাই সে এক বিষয়ের উপর ভিত্তি করে কয়েকটি গিগ তৈরী করাটা ভাল।

৩. ক্লায়েন্টদের এক্সট্রা সুবিধা দিন

আপনি আপনার গিগে বলতে পারেন যে ক্লায়েন্ট যদি একসাথে ৫ টি জিনিস অর্ডার করেন, তাহলে আপনি তাকে আরেকটি জিনিস এমনিতেই দিয়ে দিবেন।এইভাবে ক্লায়েন্ট আপনার দিকে আকর্ষিত হবে, যা আপনার আয় বাড়িয়ে দিবে।

৪.গিগ এক্সট্রা ও এক্সটেন্ডেড কন্টেন্টের সঠিক ব্যবহার করুন।

যত আপনার সেলার লেভেল বাড়বে, তত বেশি এবং দামি গিগ এক্সট্রা  আপনি অফার করতে পারবেন।

আপনার আয় বাড়ানোর জন্য গিগ এক্সট্রার সঠিক ব্যবহার অত্যন্ত মূল্যবান।

আমার মতে এমন গিগ এক্সট্রা দেওয়া উচিত, যাতে অতিরিক্ত সময় না লাগে, যার ফলে ১ দিনের ৫ ডলারের অর্ডার হয়ে যেতে পারে ৫০ ডলার।

৫. আপনার রেসপন্স টাইম ও কাস্টম অফারের নজর রাখুন।

 

আপনারা অবশ্যই জানেন যে সার্চ রেসাল্টে আপনার গিগ দেখানোর সময় ফাইভার অত্যন্ত জটিল একটি অলগারিদম ব্যবহার করে। আপনার গিগটি কোন পজিশনে দেখাবে তা ঠিক হয় আপনার রেসপন্স টাইম অনুসারে।

এইজন্য প্রতিদিন ফাইভারে আসা মেসেজের রিপ্লাই দেওয়া এমন একটি বিষয়, যা আপনার গিগের র‍্যাঙ্কিং বাড়িয়ে দিবে।

সদ্য, ফাইভারে “কাস্টম অফার” নামে একটি সুবিধা চালু করা হয়েছে।

এতে ক্লায়েন্টরা নিজেদের ইচ্ছা-অনুযায়ী গিগ রিকোয়েষ্ট করে, এবং আপনার-আমার মত ফ্রীল্যান্সাররা অফার সেন্ড করে… এটা অনেকটা আপওয়ার্ক, ইল্যান্সে যেমন ভাবে কাজে বিড করা হয় তেমনি।

আপনি প্রতিদিন ১০ টি অফার সেন্ড করতে পারবেন। আপনি যদি সঠিকভাবে এই সুবিধা ব্যবহার করতে পারেন তাহলে এটি হতে পারে আপনার ফাইভার ফ্রীল্যান্সিং এর অন্যত্ম সহজ উপায়।

 

৬.সোস্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে আপনার গিগটি শেয়ার করুন

যদি ফ্রীল্যান্সিং-ই আপনার আয়ের একমাত্র উপায় হয়, তাহলে আপনি সোস্যাল  নেটওয়ার্কিং সাইটে আপনার গিগটি শেয়ার করতে পারেন।

এর উপকারিতা মূলত দুইটি। প্রথমত, আপনার এমন কোন বন্ধু আছে যার আপনার অফার করা সার্ভিসটি দরকার। এইভাবে আপনি পেতে পারেন বাড়তি একটি অর্ডার।

৭.নেগেটিভ রিভিউস,লেটে ডেলিভারি, অর্ডার কেন্সেল ইত্যাদি বিষয় এড়িয়ে চলুন

আসলে এই সাধারণ জ্ঞান মনে করি আপনাদের সবার আছে। নেগেটিভ রিভিউস,লেটে ডেলিভারি, অর্ডার কেন্সেল ইত্যাদি বিষয় আপনার ফ্রীল্যান্সিং ক্যারিয়ারের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর হয়ে ওঠতে পারে, হয়তবা এসবের জন্য আপনার ফ্রীল্যান্সিং ক্যারিয়ার অচিরেই নষ্ট নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

দেখে নিতে পারেন আমার গিগটিঃফাইভার

ফেসবুকে আমি

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

16 + 12 =