পেনড্রাইভ ভাইরাস মুক্ত করতে ৪টি ট্রিক্স

0
376

পেনড্রাইভ হল সহজে বহনযোগ্য একটি ইউএসবি ফ্লাশ মেমরী ডিভাইস যেটা অডিও, ভিডিও ও বিভিন্ন ধরনের ডাটা ফাইল এক কম্পিউটারের হার্ডডিস্ক থেকে অন্য কম্পিউটারে আনা নেয়ার জন্য ব্যাবহৃত হয়। আকারে এটা এত ছোট যে আমরা সহজে একে পকেটে বয়ে নিতে পারি। এটাতে করে অনেক ডাটা আনানেয়া করা যায় এর ধারণক্ষমতার উপর নির্ভর করে। এটা পুরানো ফ্লপি ডিস্ক ও নতুন কম্পেক্ট ডিস্কের উন্নত সংস্করণ। এটিতে করে ছবি, স্প্রেডশিট, ওয়ার্ডপ্রেস ডকুমেন্টস, মুভিক্লিপ, গান ও অন্যান্য সব ধরণের ফাইল কপি করা যায়। পেন ড্রাইভ ব্যাবহার করা খুব সোজা তাই আমরা অনেকেই এটা ব্যাবহার করে থাকি।

ইদানিং লক্ষ্য করছি, প্রায় সকলের পেন ড্রাইভেই ভাইরাস থাকে। এর প্রধান কারণ হচ্ছে, এই সকল ভাইরাস নেট থেকে খুব দ্রুত ছড়ায় এবং আপডেট হয়; অথচ এন্টিভাইরাস সফট্‌ওয়ার সে তুলনায় আপডেট না হওয়ায় ভাইরাস গুলোকে ধরতে পারে না। অথচ, আমারা একটু সচেতন হলেই এই সকল ভাইরাসের হাত থেকে মুক্তি পেতে পারি। তবে, আসুন জেনে নেই কিভাবে এইসব ভাইরাস গুলো থেকে দূরে থাকা যায়।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

১নং উপায়:
সাধারণত, আমারা মাই কম্পিউটারে ডাবল ক্লিক করি, তারপর পেন ড্রাইভ আইকনে আবার ডাবল ক্লিক করে তা ওপেন করি। এবং ‍আমাদের অজান্তে ঠিক এই সময়েই ভাইরাস এ্যাক্টিভেট হয়ে যায়। তাই ভাইরাস থেকে বাঁচতে নীচের পদ্ধতি অনুসরণ করুন-
* প্রথমে “মাই কম্পিউটার”-এ রাইট ক্লিক করে “এক্সপ্লোর”-এ ক্লিক করুন অথবা ‍কীবোর্ড থেকে ‍“উইন কী + ই” চাপুন।
* এবার বাম পাশের চিত্র-১ মতো যে ট্রি দেখতে পাচ্ছেন, সেখান থেকে ‍আপনার পেন ড্রাইভের ‍আইকনে ক্লিক করুন
* এখন ‍আপনি ডান পার্শ্বের উইন্ডোতে ‍আপনার পেন ড্রাইভের কনটেন্ট দেখতে পাবেন।

২নং উপায়:
*আপনার পেনড্রাইভের অটোপ্লে/অটোরান ফাংশানটি ডিজাবল করে দিন।
* টুলসে গিয়ে ফোল্ডার অপশন সিলেক্ট করুন। সেইসাথে ‘Hide Extension for known file types’ ও ‘Hide Protected OS files’ আনচেক করুন। এখন এপ্লাই ও ওকে বাটনে ক্লিক করুন, ফোল্ডারটি বন্ধ করুন।
* এখন ডেক্সটপে এসে উইন্ডো স্টার্ট বাটনে ক্লিক করুন ও Search for files & folders সিলেক্ট করুন। সার্চ ডায়লগবক্স আসলে ”All Files & Folders’ এ ক্লিক করুন। এখন মোর এডভান্স অপশনে গিয়ে ‘সার্চ হিডেন ফাইলস এন্ড ফোল্ডার’ সিলেক্ট করুন। এখন আগে যান ও লুকইন অপশনে গিয়ে পেনড্রাইভ সিলেক্ট করুন (যেমন E: অথবা G: )।
* এখন আপনি যদি কোন অপরিচিত .Exe ফাইল দেখেন তাহলে সেটা মুছে ফেলুন।

৩নং উপায়:
* ইউএসবি পোর্টে পেনড্রাইভটি লাগালে অটোরান উইন্ডো আসবে পেনড্রাইভে ওপেন হওয়ার জন্য প্রোগ্রাম পছন্দ করতে। কেনসেল বাটনে ক্লিক করুন এটাকে এড়িয়ে যেতে।
* এখন স্টার্ট এ গিয়ে রান এ যান, cmd টাইপ করুন কমান্ড প্রম্প উইন্ডো ওপেন করার জন্য।
* মাই কম্পিউটারে গিয়ে পেনড্রাইভটির ড্রাইভ লেটার চেক করুন( যদি Kingston(I: ) লেখা থাকে তবে ড্রাইভ হবে I: ।
* কমান্ড উইন্ডোতে I: টাইপ করে এন্টার চাপুন।
* এবার dir/w/o/a/p টাইপ করে এন্টার চাপুন।
* এখন আপনি পেনড্রাইভের ফাইল লিস্ট দেখতে পাবেন। নীচের ফাইলগুলো আছে কিনা লক্ষ্য করুন:
১. Autorun.inf
২. New Folder.exe
৩. Bha.vbs
৪. Iexplore.vbs
৫. Info.exe
৬. New_Folder.exe
৭. Ravmon.exe
৮. RVHost.exe অথবা অন্য কোন ফাইল .exe এক্সটেনশনের.
* যদি এরমধ্যে কোনটা পেয়ে যান তবে attrib -h -r -s -a *.* কমান্ডটি রান করুন ও এন্টার চাপুন।
* এখন প্রতিটা ফাইল মুছুন ডেলেট কমান্ড ব্যাবহার করে- del filename
* এবার এন্টিভাইরাস ইউজ করে পেনড্রাইভটি স্ক্যান করুন।

৪নং উপায়:
সবচেয়ে সহজ বু্দ্ধিটা হলো এড্রেসবারে ড্রাইভ লেটার টাইপ করে ঢুকে যাওয়া। সিস্টেমটা হলো ড্রাইভ লেটার + : লিখে এন্টার মারাল যেমন পেনড্রাইভের লেটার যদি H হয় তাহলে এড্রেসবারে H: লিখে এন্টার মারতে হবে। নিচের ছবির মত-
ভাইরাস পেনড্রাইভ ভাইরাস মুক্ত করতে ৪টি ট্রিক্স

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

seven + twelve =