নতুন প্রজাতির মানুষের সন্ধান

0
321

মানুষের বিবর্তনের ইতিহাস বড়ই জটিল। সম্প্রতি ইথিওপিয়ায় আবিষ্কৃত আদিম মানুষের বেশ কিছু জীবাশ্ম পরীক্ষার পর এমনই সিদ্ধান্তে পৌঁছচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। আজ থেকে প্রায় ৩৪ লক্ষ বছর আগের এমন এক ধরনের মানুষের জীবাশ্মের খোঁজ মিলেছে, যার সন্ধান এর আগে পাওয়া যায়নি। এই জীবাশ্ম স্পষ্ট প্রমাণ করছে, মানুষের একাধিক প্রজাতি ছিল। আরও সহজ করে বললে, নতুন মানুষের আবিষ্কার। এখনও পর্যন্ত সন্ধান পাওয়া আদিম মানুষের আকৃতির সঙ্গে একেবারেই মিল নেই এই প্রজাতির।

প্রজাতির মানুষের সন্ধান নতুন প্রজাতির মানুষের সন্ধান

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

ইথিওপিয়ায় পাওয়া এই নতুন প্রজাতির মানুষের নাম দিয়েছেন অস্ট্রালোপিথেকাস ডেইরেমেডা। এই প্রজাতির মূল বৈশিষ্ট হল, দাঁত ও চোয়াল। বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, অস্ট্রালোপিথেকাস ডেইরেমেডা প্রজাতির মানুষদের মোটা ও শক্ত চোয়াল ছিল। সামনের দাঁতের সারি মুখের তুলনায় ছোট ও মোটা এনামেলের স্তর। এর আগে বিজ্ঞানীরা ‘লুসি’ নামে আদিম মানুষের জীবাশ্মের খোঁজ পেয়েছেন। তাঁদের দাবি, অস্ট্রালোপিথেকাস ডেইরেমেডার সঙ্গে লুসি প্রজাতির খানিকটা মিল হলেও, এরা একেবারে পৃথক প্রজাতি। এই প্রজাতির সন্ধান আগে মেলেনি। অস্ট্রালোপিথেকাস ডেইরেমেডা পৃথিবীতে বাস করত আজ থেকে ৩৫ লক্ষ বছর আগে। এদের খাদ্যভ্যাস ও জীবন ধারণের প্রকৃতিও অন্যদের তুলনায় ভিন্ন ছিল।

বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, সাধারণত আমরা জানি, শিপাঞ্জিই মানুষের পূর্বপুরুষ। কিন্তু আদতে বিষয়টি অতটা সহজ নয়। মানুষের বিবর্তনের অধ্যায় যথেষ্ট জটিল। বিশেষ করে আফ্রিকার বিস্তীর্ণ অঞ্চলে পাওয়া নানা জীবাশ্ম পরীক্ষা করে দেখা যাচ্ছে, মানুষের একাধিক প্রজাতি ছিল। এবং সেই প্রজাতিগুলি স্বতন্ত্র ভাবেই বসবাস করত আফ্রিকা ভূখণ্ডে। প্রাগৈতিহাসিক যুগে বর্তমান আফ্রিকাই নাকি ছিল বিশ্বের অন্যতম জনবহুল এলাকা।

 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্লেভল্যান্ড মিউজিয়াম অফ ন্যাচারাল হিস্ট্রি-র কিউরেটর ইওনেস হেইল-সেলাসির কথায়, ‘অস্ট্রালোপিথেকাস ডেইরেমেডা-কে আদিমতম প্রজাতিগুলির সিস্টার প্রজাতি বলাই যায়।’
টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

18 − one =