সামধান অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহারকারিরা

0
334

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ফ্যাক্টরি রিসেট দিয়ে তথ্য মুছে ফেললেও সেই তথ্য একেবারে মুছে যায় না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফ্যাক্টরি রিসেটেও এক ধরনের সফটওয়্যার ত্রুটিআছে যা কাজে লাগিয়ে ওই তথ্য আবারও উদ্ধার করা যায়। এ কারণে শীর্ষ ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোন যেমন স্যামসাং, এইচটিসি সহ প্রায় অর্ধ কোটি অ্যান্ড্রয়েডমোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর পাসওয়ার্ড, কন্টাক্ট, ইমেইল, মিডিয়া ফাইল, টেক্সট মেসেজের মতো স্পর্শকাতর তথ্য ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে।

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহারকারিরা সামধান অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ব্যবহারকারিরা

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

সম্প্রতি কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা অ্যান্ড্রয়েডের ফ্যাক্টরি রিসেট নিয়ে একটি গবেষণা করেন। তাঁদের দাবি, যদি ফুল ডিস্ক-এনক্রিপশন করেও রাখা হয় তারপরও স্পর্শকাতর তথ্য উদ্ধার করা যায় কারণ ফ্যাক্টরি রিসেট প্রক্রিয়াটি তথ্য পুরোপুরি মুছে ফেলতে পারে না এর পরিবর্তে একটি ডিক্রিপশন কী রেখে দেয়।

গবেষণার জন্য গবেষকেরা এলজি, মটোরোলা, স্যামসাং, নেক্সাস, এইচটিসিসহ ২১টি মডেলের পুরোনো ফোন কেনেন।
এই ফোনগুলোতে অ্যান্ড্রয়েড ২.২ বা ফ্রয়ো থেকে শুরু করে অ্যান্ড্রয়েড ৪.৩ জেলিবিন পর্যন্ত বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম ছিল। গবেষণায় দেখা যায়, ব্যক্তিগত তথ্য মুছে ফেলা হলেও আসলে এই ফোনগুলো ডিস্ক পার্টিশন মুছতে পারে না।

গবেষকেরা দাবি করেন, ৬৩ কোটি ডিভাইস রয়েছে যেগুলোতে ইন্টারনাল স্টোরেজ কার্ডের তথ্য পুরোপুরি মুছে ফেলা যায় না; ফলে ব্যক্তিগত ছবি বা ভিডিওর মতো মিডিয়া ফাইল থেকে যায়। এসব তথ্য সহজেই উদ্ধার করা যায় কারণ হচ্ছে অথেনটিকেশন টোকেন যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ বা জিমেইলের মতো অ্যাপগুলোতে ঢুকতে ব্যবহারকারীকে সাহায্য করে। এই অথেনটিকেশন টোকেন ফ্ল্যাশ স্টোরেজে জমা থাকে যা মুছে ফেলা খুবই জটিল।
গবেষকেরা বলেন, পরীক্ষার সময় আমরা ফোনকে ফ্যাক্টরি রিসেট দিলাম এরপর মাস্টার টোকেনটি উদ্ধার করলাম। এরপর ফোনটিকে রিবুট করার পর ফোনে কন্টাক্ট, মেইলের মতো বিষয়গুলো ফেরত পেলাম। ত্রুটিপূর্ণ ফ্যাক্টরি রিসেট থাকায় আমরা গুগল টোকেন উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছিলাম এবং ৮০ শতাংশ ক্ষেত্রেই মাস্টার টোকেন বের করা সম্ভব।

অ্যান্ড্রয়েড সিকিউরিটির প্রধান প্রকৌশলী অ্যাড্রিয়ান লুডউইগ ফ্যাক্টরি রিসেটের ত্রুটি বের করার জন্য গবেষকেদের ধন্যবাদ দিয়ে বলেছেন, ডিভাইস এনক্রিপশন প্রযুক্তির কারণে একবার ডেটা মুছে দিলে তা উদ্ধার করা অনেক জটিল হয়ে যায়। এ কারণেই আমরা নেক্সাস ৬ ও ৯ এর ক্ষেত্রে আমরা এনক্রিপশন ব্যবহার করেছি। আমরা অন্যান্য নির্মাতাদেরও এনক্রিপশন প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ দিই।

লুইস ইনফরমেশন সিকিউরিটি সিস্টেমসের পরিচালক মাইক থম্পসনও এনক্রিপশন প্রযুক্তির ওপর জোর দিতে বলেছেন তবে এই প্রযুক্তি শতভাগ নিরাপত্তার নিশ্চয়তা যুক্ত নয় বলেও জানিয়েছেন তিনি। তাঁর পরামর্শ হচ্ছে, ব্যবহারকারীরা নিরাপদ থাকবেন যদি তাঁরা ফোনের ইন্টারনাল মেমোরি কার্ডের পরিবর্তে এক্সটার্নাল এসডি কার্ডে তথ্য সংরক্ষণ করতে পারেন। পুরোনো ফোন বাতিল করলেও এসডি কার্ডটি নিরাপত্তার জন্য সংরক্ষণ করতে পারেন।এর নিরাপত্তা ত্রুটি বের হওয়ার পর অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের দুটি হালনাগাদ এনেছে গুগল।

এদিকে, বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান গার্টনার জানিয়েছে, বর্তমানে স্মার্টফোন বাজারের ৮০ শতাংশ অ্যান্ড্রয়েডের দখলে। পুরোনো বা ব্যবহৃত স্মার্টফোন কেনাবেচার ক্ষেত্রেও অ্যান্ড্রয়েড এগিয়ে। ৬৪ শতাংশ ব্যবহৃত অ্যান্ড্রয়েড ফোন কেনা বেচা হয়। ২০১৭ সাল নাগাদ ১২ কোটি ইউনিট পুরোনো ফোন কেনা বেচা হবে বলে গার্টনার পূর্বাভাস দিয়েছে।

ফ্যাক্টরি রিসেট ফাংশানটি সব ফাইল মুছে ফেলা ও সেটিংস ফ্যাক্টরি থেকে বের করার আগে যেভাবে ছিল তা ঠিক করে দেওয়ার জন্য নকশা করা হয়।

সাধারণত ফোন কাউকে দেওয়ার আগে বা বিক্রি করার আগে ফ্যাক্টরি রিসেট দেওয়া হয়।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

two + 9 =