ইতিহাসের ভয়াবহ ভূমিকম্প; নিহত হয় ২,৩০,০০০ মানুষ

0
470

ভূমিকম্প এমন একটি অবস্থা যা বিজ্ঞানীরা ভবিষ্যদ্বাণী করতে পারলেও একে অরোধ্য করার ক্ষমতা কারও নেই। ভূমিকম্পকে রোধ করার এখনও কোন কার্যকরী উপায় তৈরি হয় নি। ভূমিকম্প মানব জীবনে এবং দেশে বিশাল ক্ষতি করে যা পুনরুদ্ধার করার জন্য অনেক সময়ের প্রয়োজন হয়। ভূতাত্ত্বিক ফল্ট এর কারনে ভূমিকম্পের সৃষ্টি হয়। এছাড়া অগ্ন্যুৎপাত, পারমাণবিক পরীক্ষা ও মাটি ক্ষয়ের কারনেও ভূমিকম্পের সৃষ্টি হয়।

ভয়াবহ ভূমিকম্প; নিহত হয় ২,৩০,০০০ মানুষ ইতিহাসের ভয়াবহ ভূমিকম্প; নিহত হয় ২,৩০,০০০ মানুষ

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

ভূমিকম্পের ব্যাপারে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার জন্য বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নানা রকম প্রচার অভিযান করে থাকেন। শিক্ষা মানুষকে ভূমিকম্পের ব্যাপারে অনেক সচেতন করে তোলে।

পৃধীবির ইতিহাসে অন্যতম ভয়াবহ ও বৃহত্তম ভূমিকম্প হল ভারত মহাসাগরে। ভারত মহাসাগরের ভূমিকম্প ও সুনামির ফলে প্রায় ১০ বিলিয়ন ডলার সম্পত্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ১৪ টি দেশ হতে ২,৩০,০০০ জন মানুষ মারা যান। ৫০,০০০ মানুষ আহত এবং ৫ মিলিয়ন মানুষ তাদের বাড়িঘর হারিয়ে ফেলে।

এই ভূমিকম্পটি ২০০৪ সালের ২৬শে ডিসেম্বর রবিবারে ভারত মহাসাগরের পাশে ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপে আঘাত হানে। এটি ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ ও প্রাণঘাতী প্রাকৃতিক দুর্যোগ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। সুনামিটি ভারত, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড ও ইন্দোনেশিয়ায় আঘাত হানে। কিন্তু ইন্দোনেশিয়া সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই দীর্ঘতম ভূমিকম্পটি ৮.৩ মিনিট থেকে ১০ মিনিট পর্যন্ত স্থায়ী ছিল।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 − 8 =