সুখবর – মোবাইলে ইন্টারনেট খরচ কমছে

0
401

আরেক দফা ইন্টারনেটের দাম কমাচ্ছে মোবাইলফোন অপারেটরগুলো। দেশে ইন্টারনেট (মোবাইল) ব্যবহারকারী বৃদ্ধি এবং মোবাইলফোন অপারেটরগুলোর আয়ের উল্লেখযোগ্য অংশ ইন্টারনেট সেবা থেকে আসায় অপারেটরগুলো ইন্টারনেট বা ডাটা সার্ভিস নিয়ে নতুন করে হিসাব-নিকাশ করতে শুরু করেছে।

দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইলফোন অপারেটর গ্রামীণফোন সম্প্রতি ইন্টারনেটের দাম কমিয়েছে। আরেক অপারেটর রবি নতুন প্যাকেজ পরিকল্পনা করছে। জানা গেছে, রাষ্ট্রায়াত্ত মোবাইল অপারেটর টেলিটক হালে সবচেয়ে কম দামে ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে। অন্যদিকে বাংলালিংক ও এয়ারটেলের দাবি, অন্যান্য অপারেটরের চেয়ে তারা সাশ্রয়ী মূল্যে আগের তুলনায় বেশি ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

প্রসঙ্গত, দেশের মোবাইলফোন অপারেটরগুলো ৯ বছর পরে বিভিন্ন সংগঠনের আন্দোলনের মুখে প্রথমবারের মতো ইন্টারনেটের দাম কমায়। অপারেটরগুলো ২০০৪ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত প্রতি কিলোবাইট ডাটার জন্য ২ পয়সা করে চার্জ করে। অথচ এই ৯ বছরে কয়েক দফায় ব্যান্ডউইথের দাম কমানো হলেও অপারেটররা একই দামে গ্রাহকদের কাছে ইন্টারনেট বিক্রি করে। মূলত ২০১৩ সালের জুলাই মাসে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি ইন্টারনেটের দাম কমানোর বিষয়ে নির্দেশনা জারি করলে অপারেটরগুলো দাম কমায়।

বর্তমানে দেশে (২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত) মোবাইলফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১২ কোটি ২৬ লাখ ৫৬ হাজার। এর মধ্যে মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৪ কোটি ১৯ লাখ ৫৯ হাজার। আর মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ৪ কোটি ৩৪ লাখ ১৯ হাজার।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গ্রামীণফোনের মোট আয়ের ১০-১৫ (কখনও কখনও ২০ শতাংশ পর্যন্ত)। গ্রামীণফোন তার ইন্টারনেট ফর অল কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে। এ অপারেটরটির লক্ষ্য নিজস্ব ৫ কোটি ইন্টারনেট গ্রাহক।

আয়ের ক্ষেত্রে বাংলালিংকের ৬, রবির ৫ এবং এয়ারটেলে ১০ শতাংশ আসে ইন্টারনেট সেবা থেকে। প্রতি প্রান্তিকের আর্থিক বিবরণী প্রকাশের সময় রাজস্ব আয়ের ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধির কথা উল্লেখ করতে গিয়ে অপারেটরগুলো ভয়েসের পাশাপাশি টুজি এবং থ্রিজি ডাটা ব্যবহারের কথা বলে।

সিটিসেল মোবাইল এখন টিকে আছে ইন্টারনেট সেবা বিক্রি করে। আর টেলিটকের নব জন্ম হয়েছে থ্রিজি চালুর পরে। এ দুটি অপারেটরের ইন্টারনেট থেকে আয়ের সঠিক পরিমাণ জানা না গেলেও সংশ্লিষ্টরা মনে করেন, অপারেটর দুটি টিকেই আছে ডাটা সেবা দিয়ে। অপারেটর দুটোর গ্রাহক সংখ্যা যথাক্রমে ১২ লাখ ৬৩ হাজার এবং ৩৯ লাখ ২ হাজার।

গত ৩০ মার্চ ইন্টারনেটের দাম কমানোর ঘোষণা দেয় গ্রামীণফোন। এক গিগা ইন্টারনেটের দাম ৩০০ টাকা থেকে কমিয়ে ২৭৫ এবং দুই গিগার দাম ৪০০ থেকে কমিয়ে ৩৫০ টাকা নির্ধারণ করে। সব ধরনের গ্রাহককে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধা দিতে এ দুটি প্যাকেজসহ মোট সাতটি প্যাকেজ পুনর্বিন্যাস করে অপারেটরটি।

এদিকে মোবাইল অপারেটর রবির একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, বাজারে প্রচলিত বিভিন্ন ইন্টারনেট প্যাকেজের চেয়ে আরও কম দামে ব্যবহারকারীদের ইন্টারনেট সেবা দিতে ‘নতুন প্যাকেজ’ পরিকল্পনা করছে রবি। বিষয়টি একেবারে পরিকল্পনা পর্যায়ে থাকায় অপারেটরটির কেউই উদ্ধৃত হয়ে কথা বলতে রাজি হননি।

বাংলালিংকের জ্যেষ্ঠ পরিচালক তাইমুর রহমান জানান, তাদের মোট আয়ের ৬ শতাংশ আসে ডাটা সার্ভিস থেকে। তার মতে, বিনামূল্যের ওটিটি (ওভার দ্য টপ) সেবা তাদের আয় অনেকাংশে খেয়ে ফেলছে। এই সেবাগুলো ভবিষ্যতে আয়ের ওপর বড় প্রভাব ফেলবে। তিনি বলেন, ডাটার দাম কমানো হলে মানুষ বেশি-বেশি ইন্টারনেট ব্যবহার করবে। ফলে তখন ও‌‌‌টিটি সেবা (ভাইবার, হোয়াটসঅ্যাপ, লাইন, স্কাইপে) বেশি বেশি ব্যবহার হলেও এখাতের আয়ে ততটা প্রভাব ফেলবে না।

এয়ারটেলের জনসংযোগ বিভাগের প্রধান শমিত মাহবুব শাহাবুদ্দীন জানান, এমনিতেই তাদের ইন্টারনেট প্যাকেজ অন্যান্য যেকোনও অপারেটরের চেয়েও ‘স্মার্ট’। তিনি বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত গ্রাহকদের জন্য স্মার্ট এবং ইনোভেটিভ ডাটা সার্ভিস নিয়ে আসছি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক অপারেটরের দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা বলেছেন, অপারেটরগুলো মূলত একে অন্যের দিকে তাকিয়ে থাকে। তারা ‌‌ দেখে বাজারে কে নতুন কী ডাটা প্যাকেজ ছাড়ছে। একজন একটি প্যাকেজ বাজারে ছাড়লেই অন্য অপারেটর সেই প্যাকেজের ‌‌‌ চেয়ে কম দামে ‘প্যাকেজ ডিজাইন’ করে দ্রুত বাজারে ছাড়ে। এমনও দেখা যায়, দাম কমানো হয়নি কিন্তু ডাটার পরিমাণ বাড়িয়ে গ্রাহকের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করে অপারেটররা। আর এর সুফল পায় মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

twenty + seventeen =