অনলাইনে আয় করার হাজার উপায় কোনটা বেছে নিবেন আপনি দেখুন এই পর্বে।

0
448

টাকা টাকা টাকা ,অনলাইনে অর্থ আয় একটি অবাস্তব স্বপ্নের মত মনে হতে পারে অনেকের কাছেই, কিন্তু অনেকেই আছেন যারা এই অবাস্তব স্বপ্নটিকে বাস্তবতায় রূপ দিয়েছেন। আপনিও ঐ সকল সফল মানবের একজন হতে পারেন যদি অনলাইনে আয়ের জন্য যেসকল পদক্ষেপ নিতে হয় তা আপনি যথাযথ ভাবে নিতে পারেন। তবে সফল হতে চাইলে একটি কথা সবসময়েই মনে রাখা উচিত, আর তা হল “আপনি অনলাইন অর্থ উপার্জনের ক্ষেত্রে ঐ পেশাটিকেই বেছে নিন যেটি আপনি করতে ভালবাসেন এবং যেটির উপরে আপনার পূর্নাঙ্গ জ্ঞান আছে যা আপনি ভাল পারেন”

অনলাইনে আয়ের কমন কিছু মাধ্যম…

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

১. ক্রয় এবং বিক্রয় ইন্টারনেট বাজারের একটা বড় অংশ তাই আপনি আপনার নিজের কোন ফিজিক্যাল বা ডিজিটাল প্রডাক্ট বা সার্ভিস বিক্রির মাধ্যমে অনেক পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারেন। পৃথিবীব্যাপী নিজের প্রডাক্ট বিক্রির জন্য যেসকল পদ্ধতি বা মাধ্যম অনেক বেশি জনপ্রিয় ও ইফেক্টিভ তা হল ইমেইল মার্কেটিং, অনলাইন এডভারটাইজিং, সোস্যালমিডিয়া ও অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং।বর্তমানে বাংলাদেশের বেশির ভাগ মানুষ Affiliate marketing নিয়ে কাজ করছে এবং সঠিক ভাবে করতে পারলে এটা আপনার কেরিয়ার গড়ে দেবে।মার্কেটিং নিয়ে কারো জানার থাকলে বা শিখতে চাইলে আমাকে পারসনালি নক করবেন আমি লিঙ্ক দিয়ে TOS নষ্ট করতে চাইনা।

২. আপনি যদি ওয়েব সাইট ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট জানেন তবে এর মাধ্যমেও আপনি বেশ ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন। ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টের মাধ্যমে আপনি দুভাবে অর্থ উপার্জন করতে পারেন আর তা হল আপনার নিজের জন্য ওয়েব সাইট তৈরি করে এবং অন্যটি হল ক্লায়েন্টদের জন্য ওয়েব সাইট তৈরি করে। আপনি যদি আপনার নিজের জন্য ওয়েব সাইট তৈরি করেন তবে সেখান থেকে ওয়েব এডভ্যারটাইজমেন্ট, ডিজিটাল পণ্য বা সার্ভিস বিক্রি এবং এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে অর্থোপার্জন করতে পারেন। অন্যথায় আপনি যদি আপনার ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট ট্যালেন্টকে কাজে লাগিয়ে অর্থোপার্জন করতে চান এক্ষেত্রে আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। ফ্রিল্যান্সিং করতে আপনি oDesk.com, FreeLancer.com, Fiverr.com,  PeoplePerHour.com সাইট গুলোতে ট্রাই করতে পারেন।

৩. আপনার যদি ইংরেজির উপর ভালো দক্ষতা থাকে এবং আপনি যদি ইংরেজিতে ভালো কনটেন্ট বা আর্টিকেল লিখতে পারেন তাহলেও আপনি বেশ ভালো পরিমাণ অর্থপর্জন করতে সক্ষম হবেন। আর্টিকেল লিখে অর্থ উপার্জনের জন্য আপনি উপরোক্ত ফ্রিল্যান্সিং সাইটগুলোতে ট্রাই করতে পারেন। কিন্তু এখানে প্রতিদ্বন্দ্বী অনেক হওয়া এবং মূল্যমান কম থাকার কারণে আপনি হালও ছেড়ে দিতে পারেন। আর্টিকেল লেখার মাধ্যমে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অর্থ উপার্জনের জন্য আপনি ট্রাই করে দেখতে পারেন http://www.iwriter.com এবং http://www.HireWriters.com সাইট দুটোতে। প্রথম সাইটিতে পৃথিবীর সকল দেশ থেকেই রেজিষ্ট্রেশন করা যায় কিন্তু দ্বিতীয় টিতে শুধুমাত্র আমেরিকা থেকে রেজিস্ট্রেশন করাযায়। এরা দুটোতেই পেমেন্টে দেয়ার মাধ্যম হিসেবে পেপাল ব্যাবহার করে, যা অনেকের কাছেই হতাশাজনক হলেও যারা পেপালের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে টাকা উঠাবার পদ্ধতি জানেন তাদের অনেক কাজে লাগবে। সাইট দুটোর সবথেকে বড় সুবিধা হল এখানে কাজের জন্য কোন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে হবে না, কাজরে জন্য আপনার যোগ্যতাই সবথেকে বড় ভূমিকা পালন করবে।

৪. আপনি যদি ব্লগিং পারেন তাহলে একটি ভাল ব্লগের কারনা আপনি মাসে ১০০০ডলার এর উপর ব্লগ থেকে আয় করতে পারেন তার জন্য আপনাকে ভাল ব্লগ আর্টিকেল লিখতে হবে এবং পপুলারিটি বাড়াতে হবে,কারন এডসেন্স পাওয়া অনেক সহজ আবার না,তবে এডসেন্স এর বিকল্প এখন অনেক আছে তো আপনি শুরু করতে পারেন।

৫.যারা শর্টকাট উপায়ে আয় করতে চান তাদের জন্য আবার অনেক উপায়ে আছে যেখানে সময় নিয়ে কাজ করলে অনেক ভাল পরিমান টাকা আয় করতে পারবেন,এই উপায় সমুহ আমি এই পোষ্ট এ আলোচনা করব না।শরটকাট আয় নিয়ে আমি আমার ব্লগে ৫টি পোষ্ট করেছি এখান থেকে দেখতে পারেন চাইলে এবং কাজ শুরু করতে পারেন।

এছাড়াও অনলাইনে অনেক কাজের মাধ্যম আছে যা আজ সময়ে জন্য লিখতে পারলাম না, এজন্য আমি আপনাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থী, নিজগুণে ক্ষমা করবেন। আবার যদি অবসর সময় পাই তবে অবশ্যই সেগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

four + ten =