অনলাইন কেনাকাটা দেশের অর্থনীতিতে এই বাণিজ্য যোগ করছে নতুন মাত্রা

0
249

মার্কেটে ভিড়, রাস্তায় যানজট; তার ওপর আবার দর কষাকষি। সবকিছু মাথায় রেখে কয়েকদিন ধরেই বৌয়ের জন্য শাড়ি কেনার কথা ভাবছেন জামিল। কিন্তু সময় যেন তাকে ধরাই দিচ্ছে না। এই অফিস- এই বাসা; ছুটির দিনেও অফিসের অতিরিক্ত কাজ। ফলে এক শাড়ি কিনতে মাস পার। এমন সমস্যা শুধু জামিলের নয়, বর্তমানে ব্যস্ত নগরীতে বাস করা হাজারো মানুষের।

এ সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে সম্প্রতি অনলাইনে চালু হয়েছে কেনাকাটার বেশ কিছু ওয়েবসাইট; যেগুলো ধীরে ধীরে এগিয়ে যাচ্ছে। আর দেশের অর্থনীতিতে এই বাণিজ্য যোগ করছে নতুন মাত্রা। অনলাইনে ক্রয়-বিক্রয় করে এমন প্রতিষ্ঠান ও ক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, অনেকেই এখন ঝুঁকছেন ইন্টারনেটভিত্তিক অনলাইন কেনাকাটায়। ফলে দিন দিন চাঙ্গা হচ্ছে এই বাজার। অর্থনীতিতেও রাখছে অবদান।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

কেনাকাটা অনলাইন কেনাকাটা দেশের অর্থনীতিতে এই বাণিজ্য যোগ করছে নতুন মাত্রা

তারা বলছেন, মার্কেটে যেতে প্রচুর সময় ও অর্থ ব্যয় হয়। এছাড়া মার্কেট ও রাস্তায় ছিনতাইকারীদের উৎপাত সব সময় থাকেই। এসব ঝামেলা থেকে রেহাই পেতে অনলাইনে কেনাকাটা বাড়ছে। বর্তমানে জায়গা জমি থেকে শুরু করে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য, ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্রপাতি; এমনকি ট্রেন-বাস-প্লেনের টিকিট সবই পাওয়া যাচ্ছে অনলাইনে। বাসায় বসে নেটের দুনিয়ায় ঘুরে পছন্দমতো যেকোনো পণ্যই সহজে কেনা যাচ্ছে।

মহাখালীর বাসিন্দা এনাম নিয়মিত অনলাইনে পণ্য ক্রয় করেন। তিনি বলেন, বাজার ঘুরে ঘুরে জিনিস কেনা বিরক্তিকর। এছাড়া রাস্তায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থাকতে হয়। আর পথে ছিনতাইকারীদের উৎপাত তো আছেই।

কিন্তু অনলাইনে কেনাকাটা করলে আর এসব ঝামেলা পোহাতে হয় না। গৃহবধূ আরিফা রহমান বলেন, মাছ-মাংস-সবজি থেকে শুরু করে সব কিছুই ঘরে বসে পাওয়া যাচ্ছে অনলাইনে। বাস-ট্রেনের টিকিটও পাওয়া যায় এখন।

এছাড়া বাজারে গিয়ে কেনাকাটার করার মতো লোক নেই। তাই অনলাইনে কিনছি। ক্রেতাদের এমন সাড়ায় খুবই খুশি উদ্যোক্তারা।

তাদের মতে, মানুষের লাইফস্টাইলে পরিবর্তন এসেছে। সময় বাঁচানো ও নিরাপত্তাজনিত কারণে দিন দিন ক্রেতারা অনলাইন কেনাকাটায় আগ্রহী হচ্ছেন। এতে ক্রেতারা যেমন উপকৃত হচ্ছেন তেমন পাচ্ছেন আধুনিকতার ছোঁয়াও। সেই সাথে এগিয়ে যাচ্ছে অর্থনীতি।

তবে ইন্টারনেট খরচ কমানো হলে অনলাইন বা ই-কমার্সের ব্যবসা আরও বেশি জমজমাট হবে বলে মনে করছেন অনলাইনে পণ্য কেনা-বেচায় জড়িতরা।

অনলাইনে কেনাকাটা করা যায় এমন শীর্ষ কয়েকটি ওয়েব পোর্টাল হচ্ছে বিক্রয় ডটকম, এখনই ডটকম, আজকেরডিল ডটকম, চালডাল ডটকম, রকমারি ডটকম, সেলবাজার, ক্লিকবিডি, বাংলাদেশ ব্র্যান্ড, ব্যাপারি ডটকম, বিপণিড টকম, বাইমিব্র্যান্ড ডটকম, বাই২৪ ডটকমবিডি, এসো ডটকম ও আইফেরিডটকম।

সাড়া পাওয়া যাচ্ছে কেমন- জানতে চাইলে অনলাইন শপ সেন্টার এখনই ডটকমের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) শামীম আহসান বলেন, অনলাইনে কেনাকাটা প্রতি মাসে ১০ শতাংশ হারে বাড়ছে। হরতাল-অবরোধের আগে এই হার ছিল ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ।

প্রিয় ডটকমের প্রধান নির্বাহী আশিকুল আলম খান বলেন, দিন দিন অনলাইনে বেচাকেনা বাড়ছে। সাম্প্রতিক হরতাল-অবরোধে মার্কেটগুলোতে বেচাকেনা কম হলেও অনলাইন ব্যবসায় খুব একটা নেতিবাচক প্রভাব পড়েনি।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসের (বেসিস) তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে দেশে অনলাইন শপের সংখ্যা আড়াই হাজারের মতো। আর অনলাইনে শপিং করা মানুষের সংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। এসব মাধ্যমে প্রতিবছর লেনদেন হয় ২০০ কোটি টাকার বেশি।

 

বেসিসের সভাপতি শামীম আহসান বলেন, বর্তমানে অনলাইন খাত দেশের জিডিপিতে ১ শতাংশ হারে অবদান রাখছে। ক্রমান্বয়ে দেশের অর্থনীতিতে এই হার আরও বাড়বে।

তিনি বলেন, এই খাতে দ্রুত প্রসারে অন্তত ১০ বছরের জন্য এর উপর থাকা মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট প্রত্যাহার করা দরকার। একই সাথে এ সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে হবে বলে মনে করেন তিনি।

উল্লেখ, অনলাইনে সাধারণত দুইভাবে বেচাকেনা হয়। কিছু কিছু ওয়েব পোর্টালে পণ্যের ছবি, দাম, যোগাযোগের নম্বরসহ বিস্তারিত তথ্য দেওয়া থাকে। আগ্রহী ক্রেতারা সেই বিজ্ঞাপন দেখে বিক্রেতার সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

আবার কিছু ওয়েব পোর্টাল রয়েছে তারা নিজেরাই পণ্য বিক্রি ও সরবরাহ করে। এক্ষেত্রে ক্রেতার কাজ শুধু পণ্য পছন্দ করে অর্ডার দেওয়া। পরবর্তীতে ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে অনলাইনে পণ্যের মূল্য পরিশোধ করলেই পৌঁছে দেওয়া হয় পণ্য।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

মন্তব্য দিন আপনার