টুইটার (Twitter) – পর্বঃ ০১ [টুইটার সম্পর্কে প্রাথমিক ধারনা- ক]

0
542

আমরা সবাই কম বেশি টুইটার এর কথা শুনেছি এবং জানি। টুইটার একটি সামাজিক আন্তঃযোগাযোগ ব্যবস্থা ও মাইক্রোব্লগিংয়ের একটি ওয়েবসাইট, যেখানে ব্যবহারকারীরা সর্বোচ্চ ১৪০ অক্ষরের বার্তা আদান-প্রদান ও প্রকাশ করতে পারেন। ইদানিং টুইটার এতটাই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে যে, টুইটার নিয়ে সবার কৌতুহল দিনে দিনে আরও বাড়ছে। সবাই যেন এখন টুইটার নিয়ে মেতে উঠেছে। কিন্তু অন্যান্য দেশের তুলনাই বাংলাদেশে টুইটার এর ব্যবহার কম। অনেকেই টুইটারে অ্যাকাউন্ট খুলে আর ব্যবহার করেননা টুইটার সম্পর্কে বিস্তারিত জ্ঞান না থাকার জন্য। আমি আমার আগামি কিছু পোস্টে টুইটার নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো। টুইটার সম্পর্কে বিস্তারিত পোস্ট এর আজ ১ম পর্ব।

আজ আমি টুইটার কি ও টুইটারের ইতিহাস সম্পর্কে বলব।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

টুইটার কি?

টুইটার একটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সার্ভিস। সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা নিজের বন্ধু এবং আগন্তুকদের নিয়ে একটি কমিউনিটি বা বলা যেতে পারে একটি মিলনমেলা যেখানে সবাই দৈনন্দিন জীবন নিয়ে বা নিজের অবস্থান সম্বন্ধে ছোট ছোট এক বা দুই লাইনের বার্তা (আপডেট) দেয়। বার্তা ১৪০ শব্দ বা তার কম হয়, তাই এটাকে মাইক্রোব্লগিং সাইটও বলা হয়। টুইটারকে ইন্টারনেটের এসএমএস বলে অভিহিত করা হয়েছে।

টুইটারের ইতিহাসঃ

২০০৬ সালের মার্চ মাসে টুইটারের যাত্রা শুরু হয়। তবে ২০০৬ এর জুলাই মাসে জ্যাক ডর্সি আনুষ্ঠানিকভাবে এর উদ্বোধন করেন। টুইটার সারা বিশ্ব্জুড়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। ২০১০ সালের ৩১শে অক্টোবর নাগাদ টুইটারে ১৭৫ মিলিয়ন অর্থাৎ ১৭.৫ কোটিরও বেশি সদস্য ছিলো। অন্যান্য পরিসংখ্যান অনুসারে একই সময়ে টুইটারের ১৯০ মিলিয়ন বা ১৯ কোটি সদস্য ছিলো এবং দিনে ৬৫ মিলিয়ন বা সাড়ে ৬ কোটি টুইট বার্তা, এবং ৮ লাখ অনুসন্ধানের কাজ সম্পন্ন হতো।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

sixteen + 7 =