কম্পিউটার ভাইরাস??? জেনে নিন প্রয়োজনীয় কিছু টিপস

1
485

কম্পিউটার ভাইরাস একটি আতঙ্কের নাম। এ নীরব ঘাতক চুপিসারে কম্পিউটারে আক্রমণ করে ও নষ্ট করে দেয় গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এবং সফটওয়্যার। অনেক সময় হার্ডওয়্যারও বিকল করে ফেলে। সেজন্য ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রেও সতর্ক থাকতে হবে, অপ্রয়োজনীয় কোন মেইল ও লিঙ্কে ক্লিক করা উচিত নয়। একটু সচেতন হলে ভাইরাস প্রতিরোধ করা সম্ভব। জেনে নিন প্রয়োজনীয় কিছু টিপস-

* সাধারণত ইন্টারনেট থেকে কম্পিউটারে ভাইরাস সংক্রমণ হয় বেশি। ফাইল ডাউনলোড করার সময় ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে কম্পিউটারে। অনেক ভাইরাস নিজেরাই নিজেদের কপি তৈরি করতে পারে। পেনড্রাইভ, ডিস্ক, মেমোরি কার্ড ও অন্যান্য এক্সটারনাল ডিভাইসের মাধ্যমেও কম্পিউটারে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। পেনড্রাইভ থেকে যেন ভাইরাস ছড়াতে না পারে সেজন্য কম্পিউটারে সংযোগ দেওয়ার পর তা সরাসরি ওপেন না করাই ভালো। স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হওয়া ডিভাইসগুলোর ক্ষেত্রে অটোরান বন্ধ করে দিন।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

* কম্পিউটারকে ভাইরাসমুক্ত রাখতে যে কোনো শক্তিশালী অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারেন। পেনড্রাইভ খোলার আগে অ্যান্টিভাইরাস দিয়ে স্ক্যান করে তারপর খুলুন।

* কম্পিউটারের অপ্রয়োজনীয় ফাইলগুলো মুছে ফেলুন। এজন্য স্ক্যানডিস্ক ব্যবহার করতে পারেন।

* অপরিচিত কারোর কাছ থেকে পাওয়া ই-মেইল হুট করে খুলবেন না।

* ইন্টারনেটের কোনো সাইটে যাওয়া এবং ফাইল ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে সচেতনতা জরুরি।

* অনেক সময় এক্সটারনাল ড্রাইভগুলো থেকে কম্পিউটারে তথ্য স্থানান্তরের সময়েও ভাইরাস ঢুকে পড়তে পারে। তাই ড্রাইভগুলো না খুলেই তথ্য আদান-প্রদান করার ব্যবস্থা করতে হবে। এজন্য ডাউনলোড করে নিতে পারেন প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার এপ্লিকেশন ।

* কম্পিউটারে কখনও একের অধিক অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার রাখবেন না। এতে এক অ্যান্টিভাইরাস অপর অ্যান্টিভাইরাসকে ভাইরাস মনে করে তা ধ্বংস করার জন্য চেষ্টা করে।

* অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার নিয়মিত আপডেট করা জরুরি।

* কম্পিউটারের ভাইরাস ডাটা কেবলের মাধ্যমে মোবাইল বা অন্য ডিভাইসেও ছড়িয়ে পড়তে পারে। তাই পিসি থেকে ফাইল আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে সচেতন থাকুন।

* অনেক ভাইরাস কম্পিউটারে ঘাপটি মেরে থাকে। ক্লিক না করলে এগুলো সক্রিয় হয় না। তাই কোনো ফাইলে ক্লিক করার আগে জেনে-বুঝে তারপর করুন।

* ভাইরাস যদি আক্রমণ করেই ফেলে তবে নতুন করে অপারেটিং সিস্টেম ইনস্টল করতে হবে।

মনে রাখবেন, অ্যান্টিভাইরাস কম্পিউটারের সব ভাইরাস চিহ্নিত করতে ও মুছে ফেলতে পারে না। আবার অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার অনেক সময় কম্পিউটারকে ধীরগতির করে ফেলে। তাই কম্পিউটার ব্যবহারে সচেতন থাকার কোনো বিকল্প নেই।যারা উন্মুক্ত সফ্টওয়ার, বিশেষ করে উন্মুক্ত অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করেন তারা এখনো পর্যন্ত অনেক ক্ষেত্রেই ভাইরাসের মতো অনাকাঙ্খিত সমস্যা হতে নিরাপদ দূরত্বে রয়েছেন। সুতরাং ভাইরাসমুক্ত কম্পিউটার ব্যবহার করতে চাইলে উন্মুক্ত সফ্টওয়ার ব্যবহারের বিষয়েও গুরুত্ব দেয়া উচিত। এতে করে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়াসহ কম্পিউটার ব্যবহারের ক্ষেত্রে ভাইরাসমুক্ত থাকা সম্ভব অনেকক্ষেত্রেই।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

1 মন্তব্য

  1. অটোরান কিভাবে বন্ধ করতে হবে জানালে উপকৃত হব।
    ধন্যবাদ

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen − eleven =