এসএমএসের দিন শেষ!

1
284

বহুবছরের পুরনো মোবাইলে মেসেজের দিন শেষ হতে চলছে। চলতি বছর থেকে টেক্সট বার্তা ছেড়ে ইনস্ট্যান্ট মেসেজিংয়ের দিকে ঝুঁকে পড়ছে বিশ্ব। বর্তমানে হোয়াটসঅ্যাপ ছাড়াও মোবাইলে ইনস্ট্যান্ট মেসেজিংয়ের ক্ষেত্রে স্ন্যাপচ্যাট ও ভাইবারের মতো অ্যাপ্লিকেশনগুলোর জনপ্রিয়তা সে ইঙ্গিতই দিচ্ছে। এছাড়াও এবার এক হাজার ৯০০ কোটি মার্কিন ডলারে হোয়াটসঅ্যাপকে কিনছে ফেসবুক।

ফেসবুক এক হাজার ৯০০ কোটি ডলার দিয়ে কিনতে চাওয়ায় হোয়াটসঅ্যাপকে আরও বেশি দাম দিতে রাজি ছিল গুগল। ফেসবুকের আগে মোবাইল মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন হোয়াটসঅ্যাপকে এক হাজার কোটি মার্কিন ডলারে কিনতে চায় গুগল।
হোয়াটসঅ্যাপকে কিনতে ফেসবুক শেষ পর্যন্ত এক হাজার ৯০০ কোটি ব্যয় করে। এই কেনার বিষয়টি চূড়ান্ত হয় গত বৃহস্পতিবার।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

কোনটি টিকে থাকবে এমন প্রশ্নে, বাজার-বিশ্লেষকেরা জানাচ্ছেন, মোবাইলে পয়সা খরচ করে প্রচলিত বার্তা পাঠানোর বিষয়টি এখন কমতির দিকে। ইনস্ট্যান্ট মেসেজিংয়ের কারণেই কমতে শুরু করেছে প্রচলিত বার্তা পাঠানোর পরিমাণ।

সিএনবিসির অনলাইনের খবরে বলা হয়, ফেসবুকের হোয়াটসঅ্যাপকে কিনে নেওয়ার ঘটনাটি এখন পর্যন্ত ফেসবুকের পক্ষে সবচেয়ে বেশি খরচে কোনো প্রতিষ্ঠান কেনার ঘটনা। এর আগে ১০০ কোটি ডলারে ইনস্টাগ্রাম কিনেছিল ফেসবুক।

বাজার-বিশ্লেষকদের মতে, মার্ক জাকারবার্গের এতো বেশি খরচ করে হোয়াটসঅ্যাপ কেনার উদ্দেশ্য হচ্ছে মোবাইল মেসেজিংয়ের বাজারে অন্যতম খেলোয়াড় হতে চাওয়া।

এবার প্রশ্ন হোয়াটসঅ্যাপের পেছনে এত খরচ কেন করল ফেসবুক? জাকারবার্গের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, প্রতিদিন ১০ লাখ মানুষ হোয়াটঅ্যাপ ডাউনলোড করছেন এবং এই অ্যাপটির ৪৫ কোটি ব্যবহারকারী রয়েছেন।

ফেসবুক দাবি করেছে, হোয়াটসঅ্যাপের ব্যবহার করে যত সংখ্যক বার্তা পাঠানো হচ্ছে তা সারা বিশ্বে টেলিকমে এসএমএসের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে।

মোবাইল ফোন অপারেটর আলেকট্রার ভাইস প্রেসিডেন্ট টেরো কুইটিনেন জানান, ইন্সট্যান্ট ম্যাসেজিংয়ের জনপ্রিয়তা সবচেয়ে দ্রুত বাড়ছে ইউরোপে। তুলনামূলকভাবে ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং ব্যবহারে ইউরোপ অঞ্চলের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য পিছিয়ে আছে।

কুইটিনন আরো জানান, দুই বছর আগে থেকে নেদারল্যান্ডস ও স্পেনে এসএমএস পাঠানোর হার কমতে শুরু করেছে। ইউরোপের অন্যান্য অঞ্চলেও এ ধারা শুরু হয়েছে।

স্পেনের টেলিকম গবেষক হোরাস দেদিও জানান, কয়েক বছরের মধ্যেই এসএমএসের দিন শেষ হয়ে যাওয়ার কথা বলছেন অনেক বিশ্লেষকই। তবে স্পেনের তথ্য বিশ্লেষণ করলে দেখা যাবে, বিশ্লেষকদের ধারণার চেয়েও দ্রুত সময়ে এসএমএসের দিন শেষ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

তিনি আরো জানান, যেসব দেশে মোবাইলে বার্তা আদান-প্রদানের জন্য খরচ বেশি, সেসব দেশে মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশনগুলো দ্রুত জনপ্রিয় হবে। যুক্তরাজ্যের মতো যেসব দেশে বার্তা আদান-প্রদান খরচ কম সেই দেশগুলোতে খুব বেশি প্রভাব পড়বে না।
বার্তা পাঠানোর খরচ বেশি হলেও এ বছর মোবাইলে বড় ধরনের পরিবর্তন এসেছে যুক্তরাষ্ট্র, স্পেন ও যুক্তরাজ্যে (গবেষণা তথ্য অনুযায়ী)।

২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে স্পেনের বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিতব্য মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে এবার বেশি ফোরজি প্রযুক্তির পণ্য দেখানো হতে পারে বলে জানা গেছে।

গার্টনারের প্রযুক্তি বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন, দ্রুতগতির ফোরজি নেটওয়ার্কের কল্যাণে ইনস্ট্যান্ট মোবাইল সেবা আরও বাড়বে, বড় ধরনের পার্থক্য চোখে পড়বে।

সিএনবিসির বিশ্লেষক জশ লিপটন জানিয়েছেন, এখন স্মার্টফোনের উপযোগী অনেক মেসেজিং অ্যাপ্লিকেশন বিদ্যমান। তার মধ্যে হোয়াটসঅ্যাপ ও স্ন্যাপচ্যাট যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এসব অ্যাপের উদ্ভাবনী ফিচারগুলোর কল্যাণে প্রচলিত মেসেজ বা বার্তা পাঠানো বাদ দিয়ে এই অ্যাপগুলোর দিকে ঝুঁকছেন অনেকেই।

ডিলোইটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মোবাইল এসএমএসের জনপ্রিয়তা কমে যাওয়া কিংবা ইনস্ট্যান্ট মেসেজিংয়ের জনপ্রিয়তা বেড়ে যাওয়ার মধ্যে সরাসরি কোনো সম্পর্ক নেই। যেমন এসএমএস পাঠানোর পরিমাণ জার্মানিতে বাড়ছে। এখানে ইনস্ট্যান্ট মেসেজিংয়ের বৃদ্ধির হার ৪৩ শতাংশ। এর অর্থ দাঁড়াচ্ছে এসএমএস ও ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং দেশভেদে সহাবস্থান করবে।

ফরেস্টার রিসার্চের গবেষক অ্যান্থনি মুলেন বলেন, “ডাটা বা তথ্য হচ্ছে গ্রাহকদের কাছে মূল বিষয় আর এ ক্ষেত্রে ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অনেক এগিয়ে। মোবাইল অপারেটর কতগুলো এসএমএস পাঠানোর সুযোগ দিচ্ছে তার চেয়ে গ্রাহকের কাছে এখন গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে কী পরিমাণ ডাটা বিনা মূল্যে পাঠানোর সুযোগ রয়েছে, সে বিষয়টি।”

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 + two =