মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)

0
268
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)

গেমওয়ালা

হ্যালো! আমি ফাহাদ! গেমওয়ালা হয়ে টিউনারপেজে রয়েছি অনেকদিন ধরেই। আমি একজন পুরোনো টিউনার এই টিউনারপেজের। গেমস নিয়ে রয়েছি আমি তোমাদেরই সাথে। আশা করি আরো বেশ কিছুদিন থাকতে পারবো।
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)

ছবিগুলার নামকরণ দেখেই তো আমার . . . . .! দ্যা আই! এইটা চ্যানেল আই না! এটি একটি সুপারন্যাচরাল হরর ফিল্ম। ছবিটি ২০০২ সালের এই নামের একটি জাপানি ছায়াছবির রিমেক। ছবিটি ২০০৮ সালে ১২ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের ছোট্ট বাজেটে মুক্তি পায় আর আয় করে নেয় ৫৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

পরিচালকঃ

ডেভিট মোরিআউ

জাভিয়ার পালুদ

প্রযোজকঃ

ডন গ্রানজার

মাইকেল ম্যানিং

পওলা ওয়ানার

চিত্রনাট্যঃ

সাবাস্টিয়ান গুটিরেজ

ভিক্তিঃ

দ্যা আই (২০০২)

মিউজিকঃ

মার্কো বেলট্রামি

স্টুডিওঃ

ভারটিগো এন্টারটেইমেন্ট

ডিস্ট্রিবিউটরঃ

প্যারামাউন্ট ভ্যানটেইজ

মুক্তি পেয়েছেঃ

ফেব্রুয়ারী, ২০০৮

দৈর্ঘ্যঃ

৯৮ মিনিট

দেশঃ

আমেরিকা

ভাষাঃ

ইংরেজি

বাজেটঃ

১২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার

বক্স অফিসঃ

৫৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার

**ছবিতে কোনো ১৮+ দৃশ্য, আকার-ইঙ্গিত এবং গালিগালাজ নেই**

সিডনি ওয়েলস। পাঁচ বছর বয়সে সে তার চোখের দৃষ্টি হারায়। ১৫ বছর পর বর্তমানে তিনি একজন সফল ভায়োলিনিষ্ট।

অন্ধত্বের প্রায় ১৫ বছর পর তিনি তার চোখের কর্নিয়া ট্রান্সপ্ল্যাট করাচ্ছেন এবং এর মাধ্যমে ডাক্তারা আশা করছেন যে তিনি তার দৃষ্টি শক্তি ফিরে পেতে পারেন যেহেতু তিনি জন্মগত অন্ধ নন। হ্যাঁ! তিনি প্রথম প্রথম ঝাঁপসা দেখলেও কয়েকদিনের মধ্যেই তিনি ক্লিয়ার দেখতে পান সবকিছু।

কিন্তু হাসপাতাল থেকেই তিনি তার চোখে এমন কিছু অদ্ভুত জিনিস দেখলে লাগলেন যেগুলো অন্যরা দেখতে পারে না । সে স্বপ্নে বার বার দেখতে থাকে আগুন এবং মানুষ আগুনে পুড়ে মারা যাচ্ছে।

কিন্তু তার কথা কেউই বিশ্বাস করে না এবং তাকে সবাই পাগলী ভাবতে লাগলো এবং সিডনি একজন মনোবিজ্ঞানী পাউলের সাহায্য নেয়।

একদিন আয়নায় নিজের চেহারা দেখে ভয় পেয়ে যায় সিডনি। কারণ চেহারটি তার নয়! সিডনি খোঁজ নিয়ে জানতে চায় তার চোখ কে দান করেছে। তবে ডাক্তারা তাকে জানাতে চায় না কারণ এটি নাকি বলা হয় না রোগীদের।

যাই হোক, অনেক কষ্টের পর সিডনি জানতে পারে যে, তার চোখটি মেক্সিকোর একজন নারী আত্মহত্যার করার পর তাকে দান করে দেয় ওই নারীর মা।

মেক্সিকো তে ওই নারীর বাসায় যেতে থাকে সিডনি। তবে সেখানে গিয়ে সে দেখে আরেক দৃশ্য! মেক্সিকোর ওই গ্রামের সবাই ওই নারীকে ডাইনি বলে ডাকতো। কারণ উনি সবার মৃত্যুর আগেই বলে দিতে পারতেন কে কে মরবে। পরে এই অপমান সহ্য না করতে পেরে তিনি আত্মহত্যার পথ বেঁছে নেন।

সিডনি কি পারবে তার এই রহস্যের উন্মোচন করতে? জানতে হলে এখনই দেখে ফেলুন চমৎকার ছায়াছবিটি। পরিবার সহ দেখতে পারেন কোনো আপত্তিকর দৃশ্য নেই ছায়াছবিতে।

মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)
এসবের জন্য চোখের দৃষ্টির প্রয়োজন নেই!
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)
অন্ধ হলেও বোকা নন সিডনি
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)
অপারেশনের পর
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)
আয়নায় নিজেকে দেখতে যেয়ে . . .
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)
দেখেন যে তিনি আসলে “তিনি” নন!
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)
খোঁজ নেন তার চক্ষু দাতার ব্যাপারে
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)
সাহায্য নেন তার মনোবিজ্ঞানী বন্ধুর
মুভিস জোন [পর্ব-৯] :: The Eye (২০০৮)
দেখতে লাগলেন ভুত!

ডাউনলোডঃ

http://kickass.to/the-eye-2008-dvdrip-axxo-t835927.html

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

13 − 5 =