এইচ এস সি সাজেশন_২০১৪

0
1097
এইচ এস সি সাজেশন_২০১৪

nur_shuvo

আমি নিজের সম্পর্কে জানি না তবে মহা বিজ্ঞানি নিউটনকে যদি বলা হত তিনি অনেক জানেন তাহলে তিনি বলতেনঃ"আমি জ্ঞান সমুদ্রের বালুকা তটে বালুকণা খুঁটছি মাত্র ।"
এইচ এস সি সাজেশন_২০১৪

এইচএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি-২০১৪
জীববিজ্ঞান প্রথম পত্র

অধ্যায়-২ : উদ্ভিদ দেহের সংগঠন
পরিচ্ছেদ-১ : কোষ ও কোষের গঠন

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

প্রিয় শিক্ষার্থীরা, আজ তোমাদের জন্য
রয়েছে জীববিজ্ঞান প্রথম পত্রের ২ নম্বর
অধ্যায়ের প্রথম পরিচ্ছেদ ‘কোষ ও কোষের
গঠন’ থেকে একটি সৃজনশীল প্রশ্নোত্তর।

প্রশ্ন: ক. প্রোটোপ্লাজম কাকে বলে?

প্রশ্ন: খ. লিউকোপ্লাস্ট বলতে কী বুঝায়?

প্রশ্ন: গ. প্রাককেন্দ্রিক কোষে চিত্র- Q এর
গঠন কীরূপ হবে? চিত্রসহ ব্যাখ্যা কর।

প্রশ্ন: ঘ. পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় চিত্র-p-
এর ভূমিকা যুক্তিসহ বিশ্লেষণ কর।

উত্তর: ক. কোষের অভ্যন্তরে স্বচ্ছ,
আঠালো এবং জেলির ন্যায় অর্ধতরল,
কলয়ডালধর্মী সজীব পদার্থকে প্রোটোপ্লাজম
বলে।

উত্তর: খ. বর্ণহীন প্লাস্টিডকে লিউকোপ্লাস্ট
বলে। এতে কোন রঞ্জক পদার্থ থাকে না। আলোর
সংস্পর্শে এলে নিউকোপ্লাস্ট,
ক্রোমোপ্লাস্ট, বিশেষ করে ক্লোরোপ্লাস্ট
ে রূপান্তরিত হতে পারে। মূল, ভূনিম্নস্থ
কাণ্ডে লিউকোপ্লাস্ট অবস্থান করে। লিউকোপ্লাস্টের কাজ খাদ্য সঞ্চয় করা।

উত্তর: গ. চিত্র Q হলো একটি সুগঠিত
নিউক্লিয়াস। যে নিউক্লিয়াসে নিউক্লিয়ার
মেমব্রেন ও নিউক্লিওলাস থাকে তাকে সুগঠিত
নিউক্লিয়াস বলে যা প্রকৃত কোষের বৈশিষ্ট্য।
প্রাককেন্দ্রিক কোষে নিউক্লিয়াস সুগঠিত নয়।
নিম্নে একটি প্রাককেন্দ্রিক কোষের চিত্র অংকন করা হলো:

প্রাককেন্দ্রিক কোষে নিউক্লিয়ার মেমব্রেন ও
নিউক্লিওলাস থাকে না।
ক্রোমোসোমে শুধুমাত্র DNA থাকে।
রাইবোসোম ছাড়া সাধারণত অন্যান্য অঙ্গানু
থাকে না। অ্যামাইটোসিস প্রক্রিয়ায় কোষ
বিভাজন হয়ে থাকে।

উত্তর: ঘ. চিত্র- p হলো ক্লোরোপ্লাস্ট।
যে সব প্লাস্টিডে ক্লোরোফিল নামক সবুজ বর্ণ
কণিকা অধিক
পরিমাণে থাকে তাকে ক্লোরোপ্লাস্ট বলে।
এই ক্লোরোপ্লাস্ট উদ্ভিদের খাদ্য
তৈরিতে সাহায্য করে। সবুজ উদ্ভিদ ক্লোরোপ্লাস্টের সাহায্যে সালোকসংশ্লেষণ
প্রক্রিয়ায় খাদ্য তৈরি করে। এই খাদ্য
উদ্ভিদের বিভিন্ন জৈবিক কাজ করার
শক্তি যোগায়। ফলে উদ্ভিদের
বৃদ্ধি ঘটে এবং বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়ে ফুল ফোটে।
পরাগায়ন ও নিষেকের মাধ্যমে ফুল থেকে ফল ও বীজ উত্পন্ন হয়। এই ফল ও বীজ প্রাণীকুল খাদ্য
হিসেবে গ্রহণ করে। বীজ থেকে নতুন গাছ
জন্মে এবং উদ্ভিদ সম্প্রদায় দীর্ঘদিন
পৃথিবীতে টিকে থাকে। আবার উদ্ভিদ খাদ্য
তৈরি করার সময় বায়ু থেকে Co2 গ্রহণ
করে এবং O2 ত্যাগ করে। এই O2 প্রাণীকুল গ্রহণ করে বেঁচে থাকে। এতে পরিবেশে O2 ও Co2 এর
ভারসাম্য বজায় থাকে। ফলে গ্রীন হাউস
প্রতিক্রিয়াসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ
থেকে পৃথিবী রক্ষা পায়। সুতরাং উপরিউক্ত
আলোচনা হতে প্রতীয়মান হয় যে, চিত্র p
উদ্ভিদের খাদ্য তৈরিতে সাহায্য করে প্রাণী ও উদ্ভিদ সম্প্রদায়কে বাঁচিয়ে রেখে, পরিবেশের
ভারসাম্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন
করে থাকে।

admin:www.nurshuvo.com
site:www.techmasterteam.com

আর সাজেশান পেতে লাইক করুনঃ <a href=”http://facebook.com/techmasterbd”>টেক মাস্টার</a>

টিউন টি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

twelve + two =