সেলফোনে দীর্ঘ সময় চার্জ ধরে রাখার কৌশল

0
387

সেলফোন ব্যবহারে মধ্যে ব্যাটারি নিয়ে ঝামেলা পোহাতে হয়নি এমন উদাহরণ বিরলই বটে। সেলফোন বিশেষ করে স্মার্টফোন ব্যবহারে ব্যাটারির সমস্যা অনেক সময় প্রকট আকার ধারণ করে। জরুরি কাজের সময় হয়তো ব্যাটারির চার্জ নিঃশেষ হয়ে যায়! আবার ব্যাটারি চার্জিংয়ে দিলে দ্রুত চার্জ পূর্ণ হলেও খানিক ব্যবহারের পর হ্যান্ডসেট বন্ধ হয়ে যায়। এরকম হরেক সমস্যায় আক্রান্ত হতে হয় ব্যবহারকারীদের। কিন্তু একটু সতর্ক হলেই এসব সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া যায়।

ব্লুটুথ, ইনফ্রারেড এবং ওয়াইফাই বন্ধ রাখা ডাটা প্রসেসিংয়ের পর অনেকেই স্মার্টফোনের ব্লুটুথ অথবা ইনফ্রারেড বন্ধ করতে ভুলে যান। ব্লুটুথ অথবা ইনফ্রারেড চালু থাকলে সেলফোনের চার্জ খরচ হতে থাকে। তাই ডাটা প্রসেসিংয়ের পর ইনফ্রদ্ধারেড এবং ব্লুটুথ বন্ধ করে রাখতে হবে।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

মোবাইল ডিসপ্লের উজ্জ্বলতা কমানো : মোবাইল ফোনের ডিসপ্লের ঔজ্জ্বল্য বেশ ভালো পরিমাণেই ব্যাটারি চার্জ খরচ করে। প্রায় সব ধরনের স্মার্টফোনেই এমনকি ফিচারফোনেও ডিসপ্লের ব্রাইটনেস কন্ট্রোল অপশন থাকে। এ অপশনটির মাধ্যমে ব্রাইটনেস কমিয়ে নেওয়া যেতে পারে। নকিয়ার স্মার্টফোনগুলোতে লাইট সেন্সর ব্যবহার করা হয়, যাতে একেক ধরনের আলোতে ব্রাইটনেসের পরিবর্তন হতে পারে। ব্রাইটনেস মিডিয়াম নির্বাচন করে রাখলে চার্জ বেশ কম খরচ হবে। আর বাইরে আছেন এবং হাতের কাছে চার্জারটিও নেই, এমন হলে মোবাইলের ব্রাইটনেস মিনিমাম করে রাখতে পারেন। পাশাপাশি চার্জ সেভ করতে মোবাইলের কলিং অপশনের ব্যাকলাইটের টাইম কমিয়েও রাখতে পারেন।

ভাইব্রেশন নিয়ন্ত্রণ : ব্যাটারি চার্জ ধরে রাখতে ভাইব্রেশন মোড বন্ধ রাখা ভালো। প্রয়োজনের বাইরে যেমন_ কনফারেন্স রুমে, হাসপাতাল অথবা ক্লাসরুমের বাইরে যতটা সম্ভব ভাইব্রেশন বন্ধ রাখাই ভালো। সেলফোনের রিংটোনের লেভেল কমিয়ে রাখলেও চার্জ সঞ্চয় হবে।

প্রয়োজনমতো ইন্টারনেট : সেলফোনে সামাজিক যোগাযোগের ব্যবহার বাড়ছে। এ কারণে অধিকাংশ ব্যবহারকারীই সেলফোন থেকে ফেসবুকে যুক্ত থাকেন। পাশাপাশি মেইল চেক ছাড়াও অন্যান্য কাজে ইন্টারনেট ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তবে ব্যাটারি চার্জিং শেষ হতে চললে নেট ব্রাউজ থেকে বিরত থাকা ভালো। আর এ সময় গেমস, ভিডিও এবং এমপিথ্রি উপভোগ থেকেও বিরত থাকা বাঞ্ছনীয়।

নেটওয়ার্ক না থাকলে : যে এলাকায় আপনার ব্যবহার করা মোবাইল অপারেটরের নেটওয়ার্ক সেবা নেই সেসব এলাকায় সেলফোন বন্ধ রাখাই বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ এ অবস্থায় মোবাইলে কোনো ধরনের কল সিগন্যালই পেঁৗছাতে পারে না। তখন সেলফোন অনবরত অপারেটরের সিগন্যাল খুঁজতে থাকে, যা অনেক দ্রুত ব্যাটারি শেষ হতে সহায়তা করে। এ সময়গুলোতে আপনি আপনার মোবাইলকে খানিকটা সময়ের জন্য বিশ্রামে রাখতে পারেন।

চার্জিং এবং ডিসচার্জিং : আমরা অনেকেই ইচ্ছেমতো ব্যাটারি চার্জ করি। আবার অনেকে অর্ধেক ব্যাটারি ব্যবহার হয়ে যাওয়ার পর চার্জ করি। আসলে মোবাইলের লম্বা জীবনের জন্য এ দুটি কাজই ক্ষতিকর। বিশেষজ্ঞদের মতে, তখনই ব্যাটারি চার্জ করা উচিত যখন ব্যাটারি লেভেল অনেক নিচে নেমে আসে। আর ব্যাটারির লম্বা জীবন নিশ্চিত করতে সপ্তাহ অথবা মাসে অন্তত একবার ফুল ব্যাটারি ব্যবহারের পর চার্জ করা উচিত।

ব্যাটারি রক্ষণাবেক্ষণ : সেলফোনের ব্যাটারিকে আর্দ্রতা ও তাপ থেকে নিরাপদে রাখুন। বর্ষাকালে ব্যাটারির বিশেষ যত্ন নিন। যদি অনেক দিন ধরে দেশের বাইরে থাকেন অথবা কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে মোবাইল ব্যবহার করতে না পারেন তাহলে মোবাইল ব্যাটারিটি খুলে কোনো শুকনো জায়গায় সাবধানে রেখে দিন।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

thirteen − nine =