Home কী কেন কীভাবে ভিডিও গেমস খেলার বিস্ময়কর উপকারিতা!

ভিডিও গেমস খেলার বিস্ময়কর উপকারিতা!

ভিডিও গেমস খেলার বিস্ময়কর উপকারিতা!

ভিডিও গেমসের নাম শুনলেই ছোট থেকে যুবক বয়সী সবাই যেমন লাফিয়ে উঠেন ঠিক তেমনি অভিভাবকরা ভ্রু কুঁচকে ফেলেন। ভিডিও গেমস ভক্ত সবার অভিভাবকদের একই অভিমত কি লাভ হয় ভিডিও গেমস খেললে? কোন উপকারে আসে ভিডিও গেমস? পড়ালেখা কাজকর্ম করলেও তো উপকার পাওয়া যায়! কিন্তু সম্প্রতি গবেষণায় দেখা গিয়েছে ভিডিও গেমস খেলারও আছে কিছু উপকারিতা। তবে আসুন জেনে নিই ভিডিও গেমস খেলার উপকারিতা গুলো।

সৃজনশীলতা বাড়ায়

গবেষণায় দেখা গিয়েছে ভিডিও গেমস খেলোয়াড়দের সৃজনশীলতা অন্যান্যদের তুলনায় অনেক বেশি। ভিডিও গেমসের কল্যাণে খেলোয়াড়দের মস্তিষ্ক সচল থাকে। গেমসের বিভিন্ন ধাপ পার হওয়ার জন্য বুদ্ধি খাটিয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হয়। পরবর্তিতে এই ক্ষমতা বাস্তব জীবনেও কাজে লাগে।

আত্মবিশ্বাসী করে তোলে
ভিডিও গেম খেলার সময় গেম জেতার প্রবল ইচ্ছা খেলোয়াড়দের আত্মবিশ্বাসী করে তোলে। নিজের বুদ্ধিতে জিতে যাওয়ার কারণে নিজের চিন্তা ভাবনার ও সিদ্ধান্তের উপর বিশ্বাস বাড়ে।

লক্ষ্য স্থির করার ক্ষমতা বাড়ে
গেমসের কোন ধাপ কিভাবে খেললে জেতা যাবে, কোন ধাপ কিভাবে পার করলে লক্ষ্যে পৌছানো যাবে এসব চিন্তার মাধ্যমে বাস্তব জীবনের লক্ষ্য স্থির করার ক্ষমতা আরও উন্নত হয়।

ভিডিও গেমসের মাধ্যমে ফিজিওথেরাপি

দুর্ঘটনায় শারিরিকভাবে আহত অনেক রোগীর চিকিৎসা ভিডিও গেমসের মাধ্যমে করা হয়ে থাকে। বর্তমানে অনেক ফিজিওথেরাপি হাসপাতালে এই ধরণের চিকিৎসা দেয়া হয়। এই চিকিৎসায় রোগীদের বস্তুর উপর নিয়ন্ত্রণ ক্ষমতা এবং হাত, পা ও মস্তিস্কের সমন্বয় ক্ষমতা উন্নত করা হয়।

বিষণ্ণতা, মানসিক চাপ ও ব্যথানাশক
ভিডিও গেমস মানসিক ব্যথা ভুলিয়ে দিতে সহায়তা করে। ২০০৯ সালের “এনুয়াল রিভিউ অফ সাইবারথেরাপি অ্যান্ড টেলিমেডিসিন” এ প্রকাশিত হয় যে গবেষণায় পাওয়া গিয়েছে যারা মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় ভুগছেন (যেমন মানসিক চাপ, বিষণ্ণতা ইত্যাদি) তাদের জন্য ভিডিও গেমস অনেক উপকারী। গেমস খেলার সময় মানসিক চাপ ও বিষণ্ণতা অনেকাংশেই কমে যায়।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

internal_server_error <![CDATA[WordPress &rsaquo; Error]]> 500