ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনার পূর্বে যে বিষয় গুলো জানার প্রয়োজন

0
508

বর্তমান যুগ প্রযুক্তির যুগ। এখন সবার এ একটা না একটা ওয়েবসাইট আছে। সবাই এখন ডোমেইন হোস্টিং কিনছেন। কিন্তু তাদের মদ্য অনেকেই সঠিক ডোমেইন হোস্টিং প্রভাইডার সিলেক্ট করতে না পারার কারণে প্রতারণার স্বীকার হচ্ছেন । যাই হোক ডোমেইন হোস্টিং এর ব্যাপারে আমি আমার ছো্ট্ট অভিজ্ঞতা আপনাদের মাঝে শেয়ার করছি। ডোমেইন হোস্টিং গ্রুপে যোগ দিন এখানে ক্লিক করুন

ডোমেইন

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

সবাই চায় তার নিজের একটা টপ লেভেল ডোমেইন থাকুক তবে ভালো ডোমেইন প্রভাইডার নির্বাচনে যেই বিষয়গুলো খেয়াল রাখবেন:

==>ডোমেইন কন্ট্রোল প্যানেল: আমাদের দেশে অনেক ডোমেইন প্রভাইডার আছেন যারা আপনাকে ডোমেইন কন্ট্রোল প্যানেল দিবেনা কিন্তু ডোমেইন এর ক্ষেত্রে ডোমেইন কন্ট্রোল প্যানেল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আপনি পরবর্তীতে ডোমেইন ট্রান্সফার করতে আপনার ডোমেইন কন্ট্রোল লাগবে। অনেকেই এর প্রয়োজনীয়তা মনে করেনা কিন্তু এর প্রয়োজনীয়তা অনেক।

==>ডোমেইন এর মুল্য: আমাদের প্রায় সবার অভ্যাস কম দামের দিকে ঝুঁকা। এটা আমার নিজেরও অভ্যাস। তবে ডোমেইন কিনার সময় কম মুল্য ডোমেইন ক্রয় দেখে লোভান্নিত হবেন না। অনেকেই ২০০ টাকা ৩০০ টাকা তে ডোমেইন অফার করে এসব ডোমেইন কিনবেন না জানেন তো সস্তার কয় অবস্থা।

==>ডোমেইন প্রভাইডার নির্বাচন: আমাদের দেশে ভুয়া ডোমেইন হোস্টিং প্রভাইডার এর অভাব না থাকলেও ভালো প্রভাইডার এর অভাব আছে। বাংলাদেশে অনেক ভালো ডোমেইন হোস্টিং প্রভাইডার আছে যেমন: Dream Line IT Solution, HostPair, HostMight ইত্যাদি। তবে ব্যাক্তিগতভাবে আমি Dream Line IT Solution সাজেস্ট করব। আপনি যেকোন ডোমেইন প্রভাইডার থেকে ডোমেইন কিনার পূর্বে পারলে ঐ ডোমেইন প্রভাইডার এর কিছু ক্লাইন্ট এর সাথে কথা বলে নিবেন।

হোস্টিং

ডোমেইন হোস্টিং গ্রুপে যোগ দিন এখানে ক্লিক করু

ডোমেইন তো হল এবার আসুন হোস্টিং নিয়ে আলোচনা করা যাক

==>সার্ভার অপারেটিং সিস্টেমঃ সার্ভার অপারেটিং সিস্টেম প্রধানত windows এবং linux এর হয়। তবে বেশীরভাগ linux ই ব্যবহার করা হয়। অপারেটিং সিস্টেম আপনার হোস্টিং এ তেমন কোনো প্রভাব ফেলবেনা।

==>স্পেস: স্পেস বলতে বুঝায় আপনার সাইট এর জন্য কত টুকু জায়গার প্রয়োজন ততটুকু নেওয়া। সাধারণত একটি নরমাল সাইট এর জন্য ২৫০ এমবি স্পেস ই যথেষ্ট। তবে বেশিরভাগ হোস্টিং প্রভাইডার ৫০০ এমবি থেকে হোস্টিং প্যাকেজ তৈরী করে। আপনি আপনার চাহিদা আনুযায়ী স্পেস কিনতে পারেন যেমন ৫০০ এমবি, ১ জিবি, ২ জিবি ইত্যাদি।

==> ব্যান্ডউইথ: প্রথমে জানি আসলে ব্যান্ডউইথ টা কি? ব্যান্ডউইথ হল আপনার সাইট এর ভিসিটরের কম্পিউটারের সাথে সাইট এর সার্ভার এর আদান প্রদানক্রিত ডাটা। ধরুন আপনাকে ১ জিবি স্পেস এর সাথে মান্থলি ১০ জিবি ব্যান্ডউইথ দেওয়া হল। এখন আপনার সাইট এর একটি পেজ এর সাইজ ২০ কেবি এখন কোনো ভিসিটর আপনার ঐ পেজটি ভিসিট করলে আপনার ব্যান্ডউইথ থেকে ২০ কেবি মাইনাস হয়ে যাবে এইভাবে ধরুন ১০০ জন উক্ত পেজটি ব্রাউজ করল সুতরাং ২ এমবি ১০ জিবি ব্যান্ডউইথ থেকে কাটা যাবে। ব্যান্ডউইথ সাধারণত মান্থলি হিসাবে হিসাব করা হয়।

==>সার্ভার আপটাইম: আপনি একটি জিনিশ খেয়াল করলে দেখবেন প্রায় সব হোস্টিং প্রভাইডার ৯৯% সার্ভার আপটাইম দেখায়। এখন জেনে নেওয়া যাক সার্ভার আপটাইম কি সার্ভার আপটাইম হল আপনার সাইট কতটা সময় ধরে আপ এন্ড রানিং থাকবে। আপটাইম যত বেশি হবে তত ভালো হবে।

==>হোস্টিং প্রকারভেদ: হোস্টিং মুলত তিন ধরনের জথাঃ ১. শেয়ার্ড ২. ভিপিএস ৩. ডেডিকেটেড সব চেয়ে কম মূল্যের হোস্টিং হল শেয়ার্ড হোস্টিং। একটি নরমাল সাইট চালানোর জন্য শেয়ার্ড হোস্টিং ই যথেষ্ট। শেয়ার্ড হোস্টিং এর ভিসিটর ধারন খমতা প্রায় চল্লিশ হাজার। তবে যদি সাইট খুব লোড হয় এবং ট্রাফিক বেশি হয় তাহলে ভিপিএস অথবা ডেডিকেটেড হোস্টিং এ সরিয়ে নিতে হয়।

==>আনলিমিটেড বৈশিষ্ট অনেকেই আনলিমিটেড হোস্টিং , ব্যান্ডউইথ, ইমেইল দেখেই উল্লাসিত হয়ে পরে তবে বলে রাখা ভাল আনলিমিটেড বলতে কিছু নেই। এর নির্দিষ্ট একটি লিমিট আছে। আর আনলিমিটেড ইমেইল এর ক্ষেত্রে একি কথা ইমেইল গুলো কিন্তু আপনার হোস্টিং স্পেস দখল করবে। তবে ইমেইল এর ক্ষেত্রে গুগল অ্যাপ ব্যবহার করা যেতে পারে এতে আপনি প্রত্যক একাউন্ট এর জন্য ৫ জিবি করে জায়গা পাবেন।

আমি নিজে জা জানি তাই আপনাদের মাঝে তুলে ধরলাম । ভুল হলে ক্ষমা করে দিবেন। সামনে আমার এসএসসি পরীক্ষা সবাই আমার জন্য দুয়া করবেন । ডোমেইন হোস্টিং গ্রুপে যোগ দিন এখানে ক্লিক করুন

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

11 − eight =