ডায়নোসর কি বর্তমান পাখিদের পূর্ব পুরুষ?

0
896

বর্তমান সময়ে দ্বিপদী জীবের মধ্যে প্রধান হলো মানুষ ও পাখি। যদিও এদের উভয়ের পায়ের গঠন পুরোই আলাদা। মানুষের পা একদম সোজা, যা তার পুরো শরীরের ভার বহন করে। কিন্তু পাখিদের পা আঁকাবাঁকা । যে কারণে পাখিদের বসার ভঙ্গি অনেকটা মানুষের উপুড় হয়ে শুয়ে মাথা তুলে রাখার মতো। আর এজন্য পাখির পায়ের মাংসপেশিগুলোকে অনেক বেশি সক্রিয় থাকতে হয়।

মানুষের পা সোজা অবস্থায় দাঁড়িয়ে থাকে। এই পদ্ধতিতে শরীরের পুরো ভার বহন করা খুব সহজ। কিন্তু যখন আপনি উপুড় হয়ে শুয়ে থেকে মাথাটিকে উঁচু রাখতে চাইবেন আপনাকে পৃথিবীর অভিকর্ষ টানের বিরুদ্ধে তা করতে হবে। তাই একটি কাজ দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় করা যতটা সহজ, শুয়ে থাকার ভঙ্গিতে ততটা সহজ নয়।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

বিজ্ঞানীরা কম্পিউটার প্রযুক্তির মাধ্যমে আর্কিওসোরাস গ্রুপের বিলুপ্ত প্রাণীদের ফসিল থেকে এদের ত্রিমাত্রিক কঙ্কাল তৈরি করেন। বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া ডায়নোসর ও বর্তমান সময়ের অনেক প্রজাতির পাখি এই আর্কিওসোরাস থেকেই এসেছে।

tirannoszaurusz1337670967 ডায়নোসর কি বর্তমান পাখিদের পূর্ব পুরুষ?

এরপর তারা গ্রাফিক ডিজাইনের মাধ্যমে এই ত্রিমাত্রিক কঙ্কালের উপর পালক আর মাংসের কৃত্রিম বিন্যাস ঘটান। এর জন্য তারা আর্কিওসোরাস দলভুক্ত বর্তমান সময়ে টিকে থাকা প্রাণীদের শরীরের গঠন বিন্যাস থেকে ধারণা নেন। সবশেষ, তারা বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া আর্কিওসোরাস সদস্যদের শারীরিক গঠন কেমন ছিল তা উপস্থাপন করতে চেষ্টা করেন।

নকশা তৈরি হয়ে যাবার পর বেশ চমকপ্রদ সব প্রাণীর দেখা মিললো। আর বিজ্ঞানীরা ধারণা পেলেন, কিভাবে প্রাণীদের মাঝে বিভিন্ন বায়োমেডিকেল পরিবর্তন হয়েছে। এই বিলুপ্ত প্রাণীদের মাঝে ছিল ২৪৫ মিলিয়ন বছর আগের চারপেয়ে কুমির। তাদের কাছ থেকে বিবর্তনের মাধ্যমে আসে পালক আর পাখাযুক্ত ডায়নোসর আর্কিওপেট্রিক্স । এরা পৃথিবীতে উড়ে বেড়াতো ১৫০ মিলিয়ন বছর আগে। এদের থেকে আসে বর্তমান সময়ের লাল বন মোরগ(red junglefowl).। এছাড়া এসেছে টাইরানোসোরাস। এদের কাছ থেকে বিবর্তনের মাধ্যমে এসেছে পাতলা আর ছোট লেজের প্রাণীরা।

archaeopteryx_1 ডায়নোসর কি বর্তমান পাখিদের পূর্ব পুরুষ?

বিজ্ঞানীরা আগে থেকেই ডায়নোসর থেকে পাখিদের আবির্ভাবের সম্ভাবনার ব্যপারটি চিন্তা করে আসছিলেন। তাই বিবর্তনের ধারায় পাতলা ও আর ছোট লেজের প্রাণীরা আসায় আরা অবাক হন নি। কিন্তু কিছু বিজ্ঞানীর মতে, ডায়নোসর থেকে পাখিদের আসার মূল ধারণাটি পেতে হলে লেজের চেয়েও আমাদের বেশি লক্ষ্য করতে হবে কিভাবে ডায়নোসরদের শরীরের সামনের অংশ পরিবর্তিত হয়ে গেল। যেমন ডায়নোসোরদের শরীরের সামনের পা দুটি ধীরে ধীরে ছোট হতে থাকে এবং এক সময় তা বিলুপ্ত হয়ে যায়। আবার অনেক ডায়নোসরের সামনের অঙ্গ বিশাল ডানায় রূপ নেয়। যে কারণে আমরা পরবর্তীতে মাইক্রোরেপ্টর ও আর্কিওপ্যাট্রিক্সদের মতো উড়ন্ত ডায়নোসরের দেখা পাই।

অতীতের গবেষণাগুলো ডায়নোসরের বিবর্তনের ধারায় এদের লেজের পরিবর্তন নিয়ে আলোকপাত করেছে। কিন্তু বর্তমান গবেষণাটি ডায়নোসরদের চলাফেরার ভঙ্গির উপর তাদের দেহের অঙ্গ গুলোর প্রভাব কি তা নিয়ে আলোচনা করেছে। এর ফলে উড়ন্ত ডায়নোসর ও তাদের মাধ্যমে বিবর্তনের ধারায় আসা প্রাচীন পাখিদের ব্যপারে ধারণা পাওয়া যেতে পারে। এছাড়া কখন ডায়নোসররা প্রথম উড়তে শুরু করলো আর কিভাবেই বা তাদের কাছ থেকে বিবর্তনের ধারায় পাখিরা এলো সেই প্রশ্নের উত্তরের জন্য আমাদের আরো কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে হয়তো।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

twelve + 17 =