উইন্ডোজ ৮.১ এ যা কিছু নতুন

2
384

গত বছরের আগস্টে মাইক্রোসফট উইন্ডোজ এইট রিলিজ দেবার পর এর নানা পরিবর্তিত ফিচার নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বয়ে যেতে থাকে। ব্যবহারকারীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। অনেকেই মডার্ণ ইউআই এর আগমনকে মেনে নিতে পারেনি।

w1 উইন্ডোজ ৮.১ এ যা কিছু নতুন

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

এদিকে উইন্ডোজ ৮ এর মার্কেট শেয়ারও খুব একটা স্বস্তি দিতে পারছে না টেক জায়ান্টকে। এই পরিস্থিতিতে মাইক্রোসফট দ্রুততম সময়ে উইন্ডোজের এইট এর আপডেটেড ভার্সন উইন্ডোজ ৮.১ প্রিভিউ পাবলিক ডাউনলোডের জন্য জুনের ২৬ তারিখে উন্মুক্ত করে। এই বছরের শেষের দিকেই ফাইনাল ভার্সন রিলিজ হবার কথা রয়েছে। উইন্ডোজ ৮ ব্যবহারকারীরা বিনামূল্যেই ওএস আপগ্রেড করতে পারবেন। চলুন ঝটপট দেখে নেই মাইক্রোসফট উইন্ডোজ ৮.১ প্রিভিউয়ে কি কি পরিবর্তন এনেছে।

১. পার্সোনালাইজড লক স্ক্রিণঃ

w2 উইন্ডোজ ৮.১ এ যা কিছু নতুন

লক স্ক্রিনে এখন থেকে আপনি আপনার পছন্দমতো ছবি সিলেক্ট করে তা স্লাইড শো হিসেবে চালাতে পারবেন। অর্থাৎ আপনি আপনার লক স্ক্রিনকেই ছবির অ্যালবাম ভিউয়ার ও ফটো ফ্রেম হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। আর বিভিন্ন অ্যাপ নোটিফিকেশন তো আছেই।

২. পার্সোনালাইজড স্টার্ট স্ক্রিনঃ

w3 উইন্ডোজ ৮.১ এ যা কিছু নতুন

উইন্ডোজ ৮ এর প্রধান বৈশিষ্ট্য এর স্টার্ট স্ক্রিন ও লাইভ টাইলস। এখানে মাইক্রোসফট কিছু পরিবর্তন এনেছে। যেমন – লাইভ টাইলসের আরো দু’টি সাইজ সাপোর্ট অ্যাড করা হয়েছে। ফলে লাইভ টাইলসকে এখন ছোট,মাঝারি,প্রশ্বস্ত ও বড় এই চার ক্যাটাগরিতে আপনি পরিবর্তিত করতে পারবেন। এছাড়াও স্টার্ট স্ক্রিনের জন্য আরো ব্যাকগ্রাউন্ড বিশেষ করে অ্যানিমেটেড ব্যাকগ্রাউন্ড যোগ করা হয়েছে এবং কালার থিম ও কাস্টোমাইজেশন অপশন আগের চেয়ে আরো উন্নত করা হয়েছে।

৩. ইউনিফাইড সার্চঃ

w4 উইন্ডোজ ৮.১ এ যা কিছু নতুন

ব্যবহারকারীর সার্চ এক্সপেরিয়েন্স কে আরো উন্নত করতে মাইক্রোসফট ইউনিফায়েড সার্চ অপশন অ্যাড করেছে। এখন আপনি প্রতিবার উইন্ডোজ সার্চ করার সাথে সাথেই আপনার পিসি,অ্যাপ ও ওয়েব থেকে প্রাপ্ত সমন্বিত রেজাল্ট দেখাবে। ওয়েব সার্চ রেজাল্ট দেখানোর জন্য বিং সার্চ ইঞ্জিন সংযুক্ত করা হয়েছে। ফলে আলাদা ব্রাউজার ওপেন না করেই আপনি উইন্ডোজ সার্চ করার সময়েই ওয়েব থেকেই প্রাপ্ত সার্চ রেজাল্ট দেখার পাশাপাশি ছবি , অনলাইন ভিডিও দেখা ও গান শুনতে পারবেন।

৪. স্টার্ট বাটনের আগমনঃ

w5 উইন্ডোজ ৮.১ এ যা কিছু নতুন

উইন্ডোজ এইটে বাদ দেয়া স্টার্ট বাটন ৮.১ ভার্সনে আবার ফিরে এসেছে । তবে স্টার্ট বাটন আগের মতো আর ক্লাসিক মেনু শো করে না। এর বদলে স্টার্ট বাটন ক্লিক করলে তা পুনরায় স্টার্ট স্ক্রিণেই ফিরে আসে মানে অনেকটা শর্টকাটের মতো যদিও তার কোন দরকার ছিল না। বাটনের উপর রাইট ক্লিক করলে অবশ্য পাওয়ার অপশন্স , সিস্টেম ম্যানেজার, ইভেন্ট ভিউয়ার, ডিভাইস ম্যানেজার সহ আরো কিছু অপশন শো করে। এই দিক দিয়ে উইন্ডোজ ৮.১ যারা পুরোনো স্টার্ট বাটন পছন্দ করতেন তাদের হতাশই করবে।

৫.মডার্ণ অ্যাপের Side by Side ভিউঃ

w7 উইন্ডোজ ৮.১ এ যা কিছু নতুন

আগের ভার্সনে ২টি উইন্ডোজ স্টোর অ্যাপ পাশাপাশি চালানো ও ভিউ করা যেত। এখন উইন্ডোজ ৮.১ এ সর্বোচ্চ ৪টি অ্যাপ পাশাপাশি ভিউ ও কাজ করার সুবিধা পাওয়া যাবে। এছাড়াও উইন্ডোজ স্টোর অ্যাপসের অনেকগুলো সমস্যার সমাধান করা হয়েছে।

৬.পিসি সেটিংস নিয়ে জটিলতার অবসানঃ

উইন্ডোজ ৮ ব্যবহারকারীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি অভিযোগ শোনা গেছে পিসি সেটিংস সংক্রান্ত জটিলতা নিয়ে। উইন্ডোজ ৮ এ মডার্ণ ইউআই ও ক্লাসিক কন্ট্রোল প্যানেল এই দুই জায়গায় পিসি সেটিংস চেঞ্জ করা যেত। এতে ব্যবহারকারীরা বিভ্রান্ত হয়ে পড়ত। এখন উইন্ডোজ ৮.১ এ এখন পিসির সব সেটিংস মডার্ণ ইউআই মোড এ নিয়ে আসা হয়েছে।

৭. স্কাইড্রাইভ ইন্ট্রিগ্রেশনঃ

w8 উইন্ডোজ ৮.১ এ যা কিছু নতুন

উইন্ডোজ ৮.১ এ স্কাইড্রাইভ ইন্টিগ্রেশনে মাইক্রোসফট বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে। এই ভার্সন থেকে ফাইল থেকে শুরু করে কিছু পিসি সেটিংসও লোকাল পিসির পাশাপাশি স্কাইড্রাইভে সেভ করা থাকবে। এরফলে ফাইল সিঙ্ক এর জন্য আলাদা কোন অ্যাপসের প্রয়োজন হবে না। আর সেটিংস সেভ করে রাখার ফলে অন্য পিসি দিয়ে একাউন্টে লগইন করলে খুব তাড়াতাড়ি পিসির সেটিংস আপনার হোম পিসির মতো অ্যাডজাস্ট হয়ে যাবে। এতে মনে হবে আপনি আপনার পিসিতেই কাজ করছেন। এছাড়াও ফটো এডিটিং টুলও স্কাইড্রাইভে যোগ করা হয়েছে।

৮. উইন্ডোজ স্টোরঃ

উইন্ডোজ স্টোরের ডিজাইনে মাইক্রোসফট কিছু চেঞ্জ এনেছে। ক্যাটাগরি ভিউ এর বদলে এখন ইউজার রিকমন্ডেশন,ট্রেন্ড ও ব্যক্তিগত ইচ্ছার উপর ভিত্তি করে অ্যাপসগুলো দেখাবে। অটো অ্যাপ আপডেট সুবিধা দেয়া হয়েছে এবং অ্যাপ ইন্সটলেশনের লিমিট তুলে নেয়া হয়েছে। মাইক্রোসফট উইন্ডোজ স্টোর ১৯১ টি দেশ থেকে অ্যাকসেস করার সুবিধাও এখন যুক্ত করা হয়েছে।

এগুলো ছাড়াও আরো কয়েকটি ডিফল্ট নতুন অ্যাপ উইন্ডোজ ৮.১ এ সংযুক্ত করা হয়েছে যেমন অ্যালার্ম, সাউন্ড রেকর্ডার, রিডিং লিস্ট ও ফাইল ম্যানেজার। ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ১১ ব্রাউজার হিসেবে রয়েছে যাতে ওয়েবজিএল সাপোর্ট সুবিধা দেয়া হয়েছে । NFC Printing,WiFi Direct Printing,DirectX 11.2 ও থ্রিডি প্রিন্টার সাপোর্টও উইন্ডোজ ৮.১ এর সাথে আসতে যাচ্ছে।

মাইক্রোসফট উইন্ডোজ এইটের অনেক অসুবিধা দূর করে এবং অনেক নতুন ফিচার নিয়েই উইন্ডোজ ৮.১ আপডেট নিয়ে আসছে। এখন দেখা যাক উইন্ডোজ এইটের নতুন ভার্সন পিসি মার্কেটের এই মন্দাভাব কাটাতে কতটুকু সাহায্য করতে পারে।
যদি আপনি উইন্ডোজ ৮.১ প্রিভিউ ডাউনলোড করতে চান তাহলেঃ
http://windows.microsoft.com/en-us/windows-8/preview-download

তবে মনে রাখবেন এইটা উইন্ডোজ ৮.১ এর ফাইনাল ভার্সন না। তাই এতে অনেক বাগ ও অন্যান্য সমস্যা থাকতে পারে। তাই ধৈর্য্য ধরে আর একটু অপেক্ষা করুন, ফাইনাল ভার্সন রিলিজ পাবার পরই পিসির ওএস আপগ্রেড করুন। আর তর সইতে না পারলে ডাউনলোড করেই ফেলুন।

তথ্যসূত্রঃ
মাইক্রোসফট,টেকক্রাঞ্চ

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

2 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 × one =