গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

0
331
এটি 283 পর্বের গেমস জোন সিরিজ টিউনের 181 তম পর্ব
গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

গেমওয়ালা

হ্যালো! আমি ফাহাদ! গেমওয়ালা হয়ে টিউনারপেজে রয়েছি অনেকদিন ধরেই। আমি একজন পুরোনো টিউনার এই টিউনারপেজের। গেমস নিয়ে রয়েছি আমি তোমাদেরই সাথে। আশা করি আরো বেশ কিছুদিন থাকতে পারবো।
গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

বলেছিলাম সিরিজভিক্তিক টিউন করবো, তাই কিছুদিন ধরে নিড ফর স্পিড এবং অন্যান্য রেসিং গেমসগুলো নিয়ে পর্যায়ক্রমে টিউন করে যাচ্ছিলাম। এখন এসাসিনস ক্রিড সিরিজটি নিয়ে করবো। শুরু করছি সিরিজের প্রথম গেমটি দিয়ে। এসাসিনস ক্রিড সিরিজ টি টাইপ করতে সবচেয়ে কষ্ট হয়েছে আমার। কি কঠিন শব্দরে বাবা!

এসাসিনস ক্রিড একটি ঐতিহাসিক একশক-এডভেঞ্চার ওপেন ওয়ার্ল্ড স্টেলথ ভিডিও গেম। নির্মাণ করেছে ঊবিসফট মন্টিয়াল। গেমটি প্রথমে ২০০৭ সালে প্লে-স্টেশন ৩ এবং এক্সবক্স ৩৬০ এর জন্য মুক্তি পায়, পরে ২০০৮ সালে পিসিতে গেমটি বাজারে আনা হয়। গেমটির অধিকাংশ অংশ তৃতীয় ক্রুসেইড এ রয়েছে যেখানে সিক্রেট অর্ডার অফ হাশাশিন নামে গ্রুপ বা Sect এর প্লট ছিল।  গেমটিতে প্লেয়ার চরিত্রে থাকছে মর্ডান ম্যান “ডেসমন্ড মাইলস”। যে “এনিমস” নামের মেশিনের সাহায্যে তার পরিবারের আগের অতীতের সময়ে ফিরে যায়।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

গেমটির কাহিনী চক্রে দেখা যায় যে, গেমটি নাইট টেম্পলার এবং দ্যা এসাসিনস এর মধ্যে স্ট্রাগলগুলো তুলে ধরেছে। স্ট্রাগলগুলো একটি আর্টিফেক্ট কে নিয়ে। যার নাম “পিইস অফ ইডেন” এটি একটি অতি পুরাতন আর্টিফেক্ট যার দ্বারা মাইন্ড কনট্রোল করা যায়। গেমটির পটভূমি ১১৯১ সালে হলি ল্যান্ডে সেট করা হয়েছে।

এসাসিন্স ক্রিড

 গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

নির্মাতা:

ঊবিসফট মন্টিয়াল

প্রকাশক:

ঊবিসফট

সিরিজ:

এসাসিন্স ক্রিড

ইঞ্জিণ:

সাইমিটার,

হ্যাভোক (ফিজিক্স ইঞ্জিণ)

খেলা যাবে:

প্লে-স্টেশন ৩,

এক্সবক্স ৩৬০,

মাইক্রোসফট উইন্ডোজ

মুক্তি পেয়েছে:

নভেম্বর, ২০০৭ এবং এপ্রিল, ২০০৮ সালে যথাক্রমে প্লে-স্টেশন, এক্সবক্স ৩৬০ এবং পিসির জন্য

ধরণ:

একশন এডভেঞ্চার,

স্টেলথ

খেলার ধরণ:

সিঙ্গেল প্লেয়ার

সিস্টেম রিকোয়ারমেন্টস:

কমপক্ষে:

পেন্টিয়াম ডি ২.৪ গিগাহার্জ গতির প্রসেসর,

১ গিগাবাইট র‌্যাম,

২৫৬ মেগাবাইট গ্রাফিক্স কার্ড,

৪ দশমিক ৮ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

ডাইরেক্ট এক্স ৯.০সি সাথে শেডার মডেল ৩.০,

উইন্ডোজ এক্সপি সার্ভিস প্যাক ২,

 

ভালো ভাবে খেলতে হলে:

কোয়াড কোর ২.৮ গিগাহার্জ গতির প্রসেসর,

২ গিগাবাইট র‌্যাম,

৫১২ মেগাবাইট গ্রাফিক্স কার্ড

৯ গিগাবাইট ফ্রি হার্ডডিক্স স্পেস,

উইন্ডোজ সেভেন (৬৪বিট),

ডাইরেক্ট এক্স ১০.০

 গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

কাহিনীচক্র:

((বিশাল কাহিনী থেকে ছোট করে লেখা হয়েছে))

ডেসমন্ড মাইলস। একজন মদের দোকানের পরিবেশক। যাকে এবস্টারগো ইন্ড্রাস্টিস কিডন্যাপ করে নিয়ে যায়। সেখানে মাইলকে বাধ্য করা হয় এনিমাস এর টেস্ট করাতে। এনিমাস একটি ডিভাইস যার দ্বারা ইউজারের জেনেরিক মেমোরি রিপ্লে করা যায়। মাইলস এর কেইসে, তারা মাইলসের পূর্বসুরি আলটাইয়ার ইবনে লা আহাদ যে একজন এসাসিন্স তৃতীয় ক্রুসেইডের যুগের। এনিমসের সাহায্যে, আলটাইয়ারের মেমোরিতে দেখা যায় যে সে রবার্ট ডি স্যাবলকে বাঁধা দিতে যাচ্ছিল একটি মন্দির থেকে একটি আর্টিফেক্ট নিবার সময়। তবে বাকি তিনটি এসাসিন্স ব্রাদারহুডের বিশ্বাস ভেঙ্গে দিয়ে। এতে ব্রাদারহুডের লিডার আল মুয়ালিম, আলটাইয়ারকে তার পদ হতে বহু নিচে নামিয়ে দেয়। এছাড়া তাকে নয়জন লোকের হত্যার আদেশ দেয় তার পূর্বের পদ ফিরে পাবার জন্য।

হত্যাযঞ্জ চালানোর সময় আলটাইয়ার জানতে পারে যে মন্দিরের প্রত্যেকেই “পিইস অফ ইডেন” নামের একটি আর্টিফেক্ট খুঁজছিল। পরে আলটাইয়ার ডি স্যাবল এর অবস্থান জানতে পারে এবং তাকে ধরে নিয়ে আসে রাজা রির্চাডের কাছে। সেখানে ডি স্যাবল এর বেঈমানীর জন্য আলটাইয়ার এবং স্যাবল এর মধ্যে যুদ্ধ করার জন্য রাজা হুকুম দেন। অতপর আলটাইয়ার স্যাবলকে হত্যা করে এবং মরে যাবার আগে স্যাবল আল মুয়ালিম মন্দিরের সত্যতা নিশ্চিত করে মরে যায়।

পরে আল মুয়ালিমে পৌছিয়ে আলটাইয়ার আল মুয়ালিমকে হত্যার করতে সক্ষম হয় যদিও আল মুয়ালিম “পিইস অফ ইডেন” এর যাদুকরি ক্ষমতায় প্রবল শক্ত শত্রু ছিল। মুয়ালিমকে মেরে আর্টিফেক্ট টির কাছে যেতে এটি পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গার ছবি দেখায়।

এই পয়েন্টে মাইলসকে এনিমাস এর ভেতর হতে বের করে নেওয়া হয়। কারণ মাইলসের কাজ তখন শেষ। পরে মাইলস জানতে পারে যে এবস্টারগো রা আধুনিক জগতের মন্দিরে উপাসক এবং এবস্টারগো আলটাইয়ারের দেখা পৃথিবীর জায়গাগুলো অভিযান চালাবে আরো “পিইস অফ ইডেন” পাবার জন্য। এবস্টারগোরা বিশ্বাস করে যে সমস্ত “পিইস অফ ইডেন” একত্র করে তারা পৃথিবীর জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবে যাতে মায়ান সভ্যতার অনুসারে ২০১২ সালে পৃথিবী যাতে না ধ্বংস হয়ে যায়।

পরে মাইলসকে নিরাপদে সরিয়ে নেয় লুসি স্টিলম্যান। লুসি একজন এসাসিন্স স্পাই তবে এখানে সে বিজ্ঞানীর ছদ্মবেশে রয়েছে। গেমটি শেষ হয় মাইলসের দেয়ালে রক্ত দিয়ে “পৃথিবীর শেষ” লেখা দেখে . . . . .

গেম-প্লে:

এসাসিন্স ক্রিড একটি একশন-এডভেঞ্চার ভিডিও যাতে মাইলসের মেমোরিতে আলটাইয়ারের হয়ে প্লেয়ারকে খেলতে হবে। গেমটির প্রাথমিক উদ্দেশ্য হচ্ছে এসাসিন্স এর লিডার আল মুয়ালিমের কাছ থেকে প্রাপ্ত হত্যার নির্দেশে হত্যাযজ্ঞ চালানো। এটা করার জন্য প্লেয়ারকে অবশ্যই ব্রাদারহুডস এর হেডকোয়াটার ম্যাসইয়াফ থেকে হলি ল্যান্ড ক্রস করে তিনটি শহর দিয়ে যেতে হবে এবং শহরে ব্রাদারহুড এজেন্টদের খুঁজে বেঁর করতে হবে। এজেন্টরা তোমারে টার্গেট সম্পর্কে ধারণা, সেইফ হাউসের ঠিকানা ইত্যাদি তথ্যাবলি সরবরাহ করবে।

গেমটিরে মূল স্টোরিলাইন মিশন ছাড়াও রয়েছে সাইড মিশন। যেমন উঁচু উঁচু বিল্ডি বেয়ে উঠা, সিটি গার্ডের হাত থেকে নির্দোশ সিটিজেনদের রক্ষা করা ইত্যাদি।

প্রিন্স অফ পারসিয়া: দ্যা স্যান্ডস অফ টাইম গেমটির মুক্তির পর পরিচালক পরবর্তী প্রিন্স অফ পারসিয়া গেমটি নির্মাণের জন্য ব্যস্ত হয়ে পড়েন। নাম দেন “প্রিন্স অফ পারসিয়া: এসাসিন্স” তবে চরিত্র হিসেবে গেমটিতে প্রিন্সকে তেমন মানানসই হচ্ছিল না দেখে গেমটি নতুন একটি পরিচয় পায়।

গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

ডাউনলোড:

এই সমস্ত লিংকগুলো মোটেই আমার নয় এবং আমি এই সমস্ত ফাইলগুলি আপলোড করিনি। তাই পাসওর্য়াড এবং অন্যন্যা সমস্যার জন্য আমি মোটেই দায়ী নই এবং থাকবোও না। আমি চেয়েছিলাম ডাউনলোড সেকশনটা বাদ দিতে তবে ডাউনলোড ব্যাতিত গেমস জোন অপূর্ণরয়ে যায়। তাই ডাউনলোড নিজ দায়িত্বে এবং নিজ ঝুঁকিতে করবেন। ডাউনলোড লিংক সংক্রান্ত কোনো ধরণের সার্পোট আমি দিতে পারবো না।

http://www.skidrowgames.net/assassins-creed-repack-reloaded.html

or

http://www.fullysoftware.com/assassins-creed-1-download-full-pc-game-free/

or

http://windowsgamesroom.blogspot.com/2013/04/assassins-creed-1-2008-free-download.html

or

http://downloadgammes.blogspot.com/2013/03/assassins-creed-1-pc-game-full-version.html

একটা কথা স্পষ্ট করে বলে রাখছি, আমার লেখা গেমস জোন শুধুমাত্র ফেসবুকে আমার নিজস্ব এবং গেমস জোনের আসল পেজ www.facebook.com/games.zone.bd এই পেজটাতে আমি শেয়ার করে থাকি। বাকি কোনো পেজে আমার গেমস জোনের পোষ্ট শেয়ার করা হয় না। যদি করে থাকে তাহলে তারা আমার পারমিশন ছাড়াই এ কাজ টি করেছে। আপনারা যদি ফেসবুকে আমার গেমস জোনের পোষ্ট সমূহ অন্যান্য পেজে পেয়ে থাকেন তাহলে একটু কষ্ট করে আমাকে জানিয়ে দেবেন প্লিজ। বহু কষ্ট করে বহু সময় খরচ করে গেমস জোনের এক একটি পর্ব লিখি আমি।

গেমস জোন মুলত টিউনারপেজ (www.tunerpage.com) ব্লগে আমি নিয়মিত এবং প্রথম থেকে লেখা আরম্ভ করেছিলাম। সেখানে গেমস জোনের মোট পর্বের সংখ্যা এখন পর্যন্ত ১৯৩টি। আমি নিজে টিউনারপেজ, টেকটিউনস এবং বাংলা ফ্যামিলি ব্লগে গেমস জোন টিউন করে থাকি। আগে পিসি হেল্পলাইনে করতাম এখন করি না। তাই আপনারা যদি নিচের ৩ টি ব্লগের বাইরে অন্য কোনো ব্লগে আমার গেমস জোনের কপি দেখে থাকেন তাহলে দয়া করে কমেন্টে জানান অথবা ফেসবুকেও আমাকে জানাতে পারেন (fb.com/talented.fahad)

www.tunerpage.com

www.techtunes.com.bd

www.banglafamily.com

>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>>><<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<<

গেমস জোন :: Assassin’s Creed (২০০৭)

Series Navigation << গেমস জোন :: Burnout Paradise (২০০৮/রেসিং/ডুয়াল কোর)গেমস জোন :: Aliens VS Predator 2 (২০০১) >>
টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

16 − eight =