২৩শে জুন, রবিবারের ভোর ৫:৩০ এর দিকে দেখা যাবে বিস্ময়কর এক চাঁদ

0
249

যারা আকাশের পানে চোখ রাখেন তাদের হয়তো জানা আছে, কিন্তু যারা জানেন না তারা ২৩শে জুন ভোররাতে আকাশের দিকে চেয়ে ভয় পেতেই পারেন। নাহ আকাশ থেকে কিছু ভেঙ্গে পড়বে না। তবে এ সময় আকাশে চোখ রাখলে দেখা মিলবে অসাধারন এক চাঁদের। অন্য সব দিনের মত চাঁদ নয়, সে চাঁদ হবে সুপার মুন বা বিস্ময়কর চাঁদ।

২৩শে জুন, রবিবারের ভোর ৫:৩০ এর দিকে আমাদের দেশের আকাশে দেখা মিলবে বিশালকার এই চাঁদের। এই দিনে চন্দ্র তার Perigee বা কক্ষপথে ভ্রমন করার সময় পৃথিবীর সবথেকে কাছ দিয়ে অতিক্রম করবে। শুধু তাই নয়, অতিক্রম করার সময়ে থাকবে তার পূর্ণ অবস্থা। সাধারণত চাঁদ প্রতি মাসে একবার তার ডিম্বাকার কক্ষপথে ভ্রমন করে। এই অতিক্রম করার সময়ে একবার করে সে পৃথিবী থেকে সব থেকে কম দূরত্বে অবস্থান করে। এভাবে প্রতি মাসেই চাঁদ একবার করে পৃথিবী থেকে সল্পতম দূরত্বে অবস্থান করে। কিন্তু প্রতি বছরে একবারই এমন সময় আসে যখন চাঁদ তার Perigee দিয়ে অতিক্রম করার সময়ে পূর্ণ অবস্থায় থাকে। এই অবস্থায় চাঁদ কে বলা হয় সুপার মুন।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

দৃশ্যত সুপার মুন সাধারন পূর্ণ অবস্থায় থাকা চাঁদের তুলনায় প্রায় ১৬ শতাংশ বড় হয়ে থাকে। সেই সাথে এর উজ্জ্বলতাও বৃদ্ধি পায় সাধারণত ৩০ শতাংশ। এর কারণ একটাই পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব কমে এসে দাঁড়াবে মাত্র ৩৫৬,৯৯০ কিলোমিটার বা ২২১,৮২৩ মাইলে। এটি পৃথিবী থেকে চাঁদের সব থেকে কম দূরত্ব। সেই সাথে যদি চাঁদের Apogee বা পৃথিবী থেকে চাঁদের দীর্ঘতম দূরতে অবস্থান দেখতে চান তবে তার জন্য অপেক্ষা করুন জুলাই মাসের ৭ তারিখ পর্যন্ত। এ সময় চাঁদের দূরত্ব পৃথিবী থেকে দাঁড়াবে ২৫২,৫৮১ মাইলে।

দুঃখের বিষয় হল, গত কয়েক বছর ধরে সংবাদ মাধ্যমগুলোতে যথেষ্ট গুরুত্ব পেলেও সুপার মুন আদতে তেমন উত্তেজনা ছড়াতে পারেনি সাধারন মানুষের মনে। এর কারণ হল চাঁদকে এই দিনে যত বড় দেখাবে বলে মনে হয়েছিলো সাধারন পূর্ণ চাঁদের তুলনায়, ঠিক ততটা বড় হতে দেখা যায়নি। ২০১১এবং ২০১২ সালের সুপার মুন সাধারন চাঁদের তুলনায় খুব একটা অসাধারন ছিলনা বললেই চলে। তবে ১৯৯৩ সালে দেখা যাওয়া সুপার মুন এখন পর্যন্ত সব থেকে অবিস্মরণীয় চাঁদ হিসেবে খ্যাতি পেয়ে যাচ্ছে। ১৯৯৯৩ সালের সুপার মুন প্রায় ২০ শতাংশ পরিমাণে উজ্জ্বল এবং ১৫ শতাংশ বড় দেখা গেছে সাধারন চাঁদের তুলনায়।

এ বছরের সুপার মুনকে দেখে যেন হতাশ হতে না হয় আপনাকে তাই আপনার জন্য ছোটো একটা টিপস দিচ্ছি। সুপার মুন খালি পটভূমিতে না দেখে কোন কিছুর পেছনে রেখে দেখার চেষ্টা করুন। যেমন উঁচু বিল্ডিং বা পাহাড় চুড়া। তবেই বুঝতে পারবেন সুপার মুনকে কেমন সুপার মুন বলা হয়ে থাকে। সেই সাথে চেষ্টা করুন চন্দ্র উদয় বা অস্ত হবার সময়ে দেখার। তখনই বুঝতে পারবেন সুপার মুনের আসল মহত্ত্ব। আর যদি বুঝতেও না পারেন তাহলেও চোখ রাখুন সুপার মুনের পানে। বছরে একবার ঘটা এই ঘটনার সাক্ষী হয়ে থাকাও কি কম অবিস্মরণীয়?

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

2 × four =