10টি Windows Commands, যা প্রত্যেক সিস্টেম Administrator ই জানা উচিত!

1
426
10টি Windows Commands, যা প্রত্যেক সিস্টেম Administrator ই জানা উচিত!

আহাদ মোশাররফ

Ahad Mosharraf is a Web developer, Graphic Designer, Video Editor, Animator, Network Administrator & Windows troubleshooter who is very much crazy about new invention & techs. Currently he is working at a renowned Ad firm in BD.
10টি Windows Commands, যা প্রত্যেক সিস্টেম Administrator ই জানা উচিত!

সবাইকে শুভেচ্ছা। আজ অনেক দিন পর আবার লিখতে বসলাম। আজ Windows এর সেরা, কার্যকরী এবং সহায়ক দশটি fundamental commands নিয়ে আলোচনা করবো।
শুরুতে যা বলতে চাই…

এই নিবন্ধটি কমান্ডের সাহায্যে কিছু দরকারী সমস্যা সমাধানের উদ্দেশ্যে লেখা হলো। যেখানে আপনি কমান্ডগুলির সংক্ষিপ্ত পরিচয় পাবেন মাত্র। আলোচিত সকল কমান্ডের বিস্তারিত জানতে আগ্রহীদের গুগল করার পারামর্শ রইল।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

1. System File Checker

সিস্টেমের নিয়ন্ত্রণ নিতে Malicious সফ্টওয়্যারগুলো কোর সিস্টেম ফাইকে অন্য একটি modified versions ফাইল এর সাথে প্রতিস্থাপন করে থাকে। এমতাবস্থায় System File Checker কমান্ড প্রয়োগ করে সিস্টেমের কোন ফাইল Malicious দ্বারা নিয়ন্ত্রিত কিনা তা যাচাই করে এর সমাধান করা যাবে। কমান্ডটি নিম্মরুপ:

sfc /scannow

 

2. File Signature Verification

সিস্টেম verification করার সহজ উপায় হচ্ছে সব সিস্টেম ফাইল ডিজিটালরূপে স্বাক্ষরিত কিনা তা নিশ্চিত হওয়া। File Signature Verification tool এর সাহায্যে এটি করা যায়। এই প্রকৃয়ায় কমান্ড লাইন প্রয়োগ করা হলেও প্রকৃতপক্ষে এটি একটি GUI ইন্টারফেস ব্যবহার করে Execute হয়। এটি আপনাকে সিস্টেমে অবস্থিত কিন্তু স্বাক্ষরিত নয় এমন ফাইলগুলোর রিপোর্ট দিবে। কমান্ডটি নিম্মরুপ:

sigverif

 

3. Driverquery

ভুল ডিভাইস ড্রাইভার সিস্টেমের সমস্যার কারন হতে পারে। আপনি উইন্ডোজ সিস্টেমের মধ্যে কোন ড্রাইভার ইনস্টল করেছেন তার বিস্তারিত তথ্য দেখতে নিচের driverquery টুল কমান্ড প্রয়োগ করুন:

driverquery

আপনি যদি আরও বেশি তথ্য জানতে চান তাহলে কমান্ডের পর -v ও -si switch add করতে পারেন। যা দেখতে নিম্মরুপ:

driverquery -v

driverquery -si

4. Nslookup

Nslookup tool এর সাহায্যে কোন হোস্টের DNS সঠিক ভাবে কাজ করছে কিনা তা জানতে পারবেন। কমান্ডটি নিম্মরুপ:

nslookup google.com

5. Ping

Ping একটি অতি পরিচিত কমান্ড। কোন হোস্টের সাথে TCP / IP-র সংযোগ যাচাই করার জন্য এটি ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ:

ping 192.168.1.1

জেনে রাখা ভালো যে ইন্টারনেট কন্ট্রোল মেসেজ প্রোটোকল (ICMP) ট্রাফিক দুটি মেশিনের মধ্যে পাস করার অনুমতি থাকলেই এই কমান্ডটি কাজ করবে। ICMP ট্রাফিকের কোন স্থানে ফায়ারওয়াল থাকলে পিং কমান্ড বিফল হবে।

6. Pathping

Ping দুইটি কম্পিউটারে TCP / IP এর মাধ্যমে একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে সক্ষম কিনা তা জানাতে পারে। কিন্তু যখন একটি পিং ব্যর্থ হয় তা কি কারনে ব্যর্থ হলো তার কোন তথ্য আপনি পাবেন না।

Pathping এর মাধ্যমে হোস্টের মধ্যবর্তী পথে বিদ্যমান এক বা একাধিক রাউটার এর তথ্য পাবেন। এই কমান্ড প্রতিটি রাউটারে একাদিক প্যাকেট প্রেরণ করে যার উত্তরে আপনি জানতে পারবেন হোস্টের সাথে সংযুক্ত সকল রাউটার এর মধ্যে কোনটি স্লো কাজ করছে এবং কোনটি কর্তৃক প্যাকেট ড্রপ হচ্ছে। কমান্ডটি নিম্মরুপ:

pathping 192.168.1.1

7. Ipconfig

কম্পিউটারের IP ঠিকানা দেখতে বা পরিবর্তন করতে Ipconfig কমান্ড প্রয়োগ করা হয়। আপনি একটি উইন্ডোজ কম্পিউটার সিস্টেমের পুরো IP কনফিগারেশন দেখতে নিম্নলিখিত কমান্ড ব্যবহার করতে পারেন:

ipconfig /all

কম্পিউটারের জন্য DHCP সার্ভার থেকে IP ঠিকানা পরিবর্তন/নবায়নের জন্য নিম্ম লিখিত কমান্ড প্রয়োগ করুন:

ipconfig /release

ipconfig /renew

DNS-র cache এর কারনে কখনো কখনো DNS address ঠিক ভাবে কাজ করেনা। এমতাবস্থায় DNS-র ক্যাশে ফ্লাশ করতে হয়। কমান্ডটি নিম্মরুপ:

ipconfig /flushdns

8. Repair-bde

BitLocker দিয়ে এনক্রিপ্ট করা কোন ড্রাইভে সমস্যা দেখা দিলে repair-bde কমান্ড টুলস ব্যবহার করে আপনার ডাটা রিকভার করতে পারেন। কমান্ডটি হলো:

repair-bde -rk | rp
আপনাকে অবশ্যই source drive এবং destination drive নির্ধারণ করে দিতে হবে।
এখানে rk=recovery key, rp=recovery password.

নিচে দুটি উদাহরণ দেখানো হল:

repair-bde c: d: -rk e:\recovery.bek

repair-bde c: d: -rp 111111-111111-111111-111111-111111-111111

 

9. Tasklist

Tasklist কমান্ড প্রয়োগ করে উইন্ডোজ সিস্টেমে চলমান সকল টাস্ক এর তথ্য পাবেন। এই ফ্যামিলির বেসিক কমান্ডটি নিম্মরুপ:

tasklist

Tasklist কমান্ডে রয়েছে অনেক ঐচ্ছিক সুইচ। এখানে আমি উল্লেখ করছি এদের মধ্যে অন্যতম দুইটিকে। একটি হলো -M সুইচ, যার মাধ্যমে DLL modules এর সাথে associated সকল টাস্ক এর রিপোর্ট করবে। অন্যটি হলো -svc switch, যা অন্যান্য সকল টাস্কের রিপোর্ট জেনারেট করবে।

tasklist -m

tasklist -svc

10. Taskkill

Taskkill কমান্ডের মাধ্যমে কোন টাস্ককে terminate করা যায়। কোন নির্দিষ্ট টাস্ককে বন্ধ করতে হলে ঐ নির্দিষ্ট টাস্ক এর -pid (process ID) অথবা -im (image name) taskkill এর সাথে যুক্ত করে প্রয়োগ করতে হয়। নিম্মে দুটি উদাহরণ দেওয়া হলো:

taskkill -pid 4104

taskkill -im iexplore.exe

এই পোস্টটি সর্বপ্রথম প্রকাশিত হয় techschoolbd.com -এ । তথ্যপ্রযুক্তির সাথে আপনাকে এগিয়ে রাখতে ফেসবুকের এই পেইজটিতে লাইক দিন। পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

one × 4 =