কোডইগনিটার – CodeIgniter চেইন টিউন [পর্ব-০১] :: কোডইগনিটার (CodeIgniter) ও ফ্রেমওয়ার্ক পরিচিতি

1
2077
কোডইগনিটার – CodeIgniter চেইন টিউন [পর্ব-০১] :: কোডইগনিটার (CodeIgniter) ও ফ্রেমওয়ার্ক পরিচিতি

Nazmul Hasan Nero

নাজমুল হাসান নিরো, গণনা টেকনোলজিস লিমিটেড এ প্রোগ্রামার হিসেবে কর্মরত। পোর্টফোলিও সাইট: http://hanabookbd.com ইমেইল এবং ফেসবুক: cknazmul_mde@yahoo.com
কোডইগনিটার – CodeIgniter চেইন টিউন [পর্ব-০১] :: কোডইগনিটার (CodeIgniter) ও ফ্রেমওয়ার্ক পরিচিতি

কোডইগনিটার – CodeIgniter চেইন টিউন [পর্ব-০১] :: কোডইগনিটার (CodeIgniter) ও ফ্রেমওয়ার্ক পরিচিতি

টিউনটি শুরু করার আগে প্রথমেই ধরে নিচ্ছি আপনি HTML এবং CSS মোটামুটি জানেন, PHP বেসিক জানেন, MySQL এর বেসিক কাজগুলো যেমন: insert, update, delete এগুলো জানেন।
তাহলে চলুন আমরা শুরু করি। আর আগেই বলে নিই CodeIgniter তেমন জটিল বা কঠিন কিছু না, একটু চেষ্টা করলেই শিখে ফেলা সম্ভব।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

কিন্তু প্রথমেই আমাদের কিছু প্রশ্নের উত্তর জানা দরকার। তাহলে প্রশ্নগুলো নিয়েই প্রথমে আলোচনা শুরু করি।

কোডইগনিটার(CodeIgniter) কী?

কোডইগনিটার(CodeIgniter) হল পিএইচপির একটা ফ্রেমওয়ার্ক। এরকম আরো বেশ কিছু ফ্রেমওয়ার্ক আছে পিএইচপির। যেমন: CakePHP, Yii, Symphony, Zend, Laravel প্রভৃতি। এখান থেকে আরো তথ্য পাবেন:

http://ellislab.com/codeigniter

নতুন প্রশ্ন, ফ্রেমওয়ার্ক কী?

ধরুন আপনি কোন সাবজেক্টের উপর দশটা বই সংগ্রহ করলেন, দশটা বই পুরোপুরি ষ্টাডি করলেন এবং ষ্টাডি শেষে সবগুলো বইয়ের ভাল অংশগুলো যাচাই বাছাই করে একটা নোট তৈরী করলেন; এবং সবশেষে নোটটা আপনার ছাত্রকে দিলেন।

এখন আপনার ছাত্রকে কিন্তু ভাল রেজাল্ট করার জন্য আর দশটা বই-ই পড়তে হচ্ছে না। কারণ সে কাজটা আপনি আগেই করে ফিল্টারড একটা নোট তাকে দিয়ে দিয়েছেন। এখন সে ঐ নোটটা দিয়ে খুব অল্প সময় ষ্টাডি করেই ভাল রেজাল্ট করতে পারবে। এবং প্রত্যেকটা টপিকের বেটার সলিউশন তার কাছে আছে।

কোডইগনিটার – CodeIgniter চেইন টিউন [পর্ব-০১] :: কোডইগনিটার (CodeIgniter) ও ফ্রেমওয়ার্ক পরিচিতি

ফ্রেমওয়ার্ক বিষয়টা মূলত এই রকমই। ফ্রেমওয়ার্কে অনেক কিছুই রেডি করা থাকে। আপনার কাজ হল জাস্ট সেগুলো ব্যবহার করা। সলিউশনগুলো করা থাকে ক্লাশ আকারে। আপনাকে শুধু ক্লাশগুলো ব্যবহার করতে হবে, ফ্রেমওয়ার্কের নিয়ম অনুসরণ করে। যার কারণে Raw পিএইচপিতে আপনি যে কাজটা করতে ন্যুনতম ৫০টি লাইন লিখতে হবে সেখানে ফ্রেমওয়ার্কে সে কাজটি করতে মাত্র এক লাইন লিখলেই অনেক ক্ষেত্রে যথেষ্ট।

আরেকটি প্রশ্ন, ফ্রেমওয়ার্ক ব্যবহার করবেন কেন?

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই উত্তরটা হল ফাস্টার ডেভেলপমেন্ট। ফ্রেমওয়ার্ক ব্যবহার করে অনেক দ্রুত অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপ করা সম্ভব, যেহেতু লিখতে হয় অনেক কম। আগেই বলেছি Raw পিএইচপিতে ৫০ লাইন লেখার কাজ ফ্রেমওয়ার্কে এক লাইন লিখলেও চলে। যেটার কারণে বেশিরভাগ ডেভেলপমেন্ট ফার্মের পছন্দের শীর্ষে থাকে ফ্রেমওয়ার্ক এবং Raw পিএইচপি এখন কেউ পছন্দ করে না বললেই চলে।
সিকিউরিটি ইস্যুও অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা ব্যপার। সাধারন Raw পিএইচপির চেয়ে ফ্রেমওয়ার্কে করা এ্যাপ্লিকেশনে সিকিউরিটি অনেক বেশি থাকে। ফ্রেমওয়ার্কের সুবিধাগুলো ব্যবহার করে ইউজার ফেজে অনেক সহজেই সিকিউরিটি নিশ্চিত করা যায়।

এছাড়া এ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপ করাটা অনেক সহজ করে দিয়েছে ফ্রেমওয়ার্ক। Raw পিএইচপির চেয়ে অনেক সহজেই আপনি এ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপ করতে পারেন ফ্রেমওয়ার্ক ব্যবহার করে।

কিন্তু সবগুলো ফ্রেমওয়ার্ক ছেড়ে কোডইগনিটার কেন?

প্রথম কারণটা হল অন্যান্য ফ্রেমওয়ার্কের চেয়ে কোডইগনিটার অনেক সহজ। এটা শিখতে অনেক কম সময় লাগবে আপনার অন্যান্য ফ্রেমওয়ার্কের চেয়ে। যার কারণে বিগিনারদের জন্য যে কোন ফ্রেমওয়ার্কের চেয়ে কোডইগনিটারে শুরু করাটা সুবিধাজনক। আর রিসোর্স এর সহজলভ্যতা। কোডইগনিটার বহুল ব্যবহৃত একটা ফ্রেমওয়ার্ক। কোডইগনিটারের হেল্প, গাইড, টিউটোরিয়াল, লাইব্রেরী, রিসোর্স পাওয়া যায় খুব সহজে। যেটা অন্য ফ্রেমওয়ার্কের ক্ষেত্রে পাওয়াটা অনেক কঠিন হয়ে যায়।

এবার আসি শুরু করার আগে আপনাকে কী কী জানতে হবে?

আগেই বলেছি HTML, CSS, PHP এবং MySQL চারটা জিনিস মোটামুটি জানতে হবে। এক্সপার্ট হতে হবে তা না। মোটামুটি জানলেই চলবে। যদি একেবারেই না জেনে থাকেন তবে কোথাও থেকে ঝটপট শিখে নিন। আর বাকী জিনিসগুলো এই টিউটোরিয়ালেই ধীরে ধীরে আলোচনা করা হবে। এছাড়াও লোকালহোষ্টে XAMPP, LAMP বা WAMP এর সাহায্যে কিভাবে কাজ করতে হয় সে ব্যাপারেও ধারনা থাকতে হবে। আর যদি MVC সম্পর্কে কিছুটা ধারনা থাকে তাহলে খুবই ভাল। কারণ কোডইগনিটার কাজ করে MVC সিস্টেমে। যদি না থাকে তাহলে কোন সমস্যা নাই, আমরা পরের পর্বেই MVC নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

চলুন এবার তাহলে মূল কাজে হাত দিই

প্রথমে আপনাকে কোডইগনিটার ফ্রেমওয়ার্কটি ডাউনলোড করতে হবে। নিচের লিংক থেকে কোডইগনিটার ডাউনলোড করে নিন: http://ellislab.com/codeigniter

ডাউনলোড করার পর ZIP ফাইলটি আনজিপ করুন, ফোল্ডারটি পেলেন সেটিকে আপনার লোকাল সার্ভারে রাখুন। যেমন: XAMPP এ htdocs বা WAMP এর www ফোল্ডারে।
আপনার প্রজেক্টের একটা নাম দিন, মানে ফোল্ডারটি Rename করে codeigniter_practice বা এরকম একটা কিছু নাম দিন। এবার ব্রাউজার থেকে localhost এর প্রজেক্ট যেভাবে রান করান সেভাবে রান করুন।

যেমন: http://localhost/codeigniter_practice । সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে কোডইগনিটারের ওয়েরকাম ভিউটি দেখতে পাবেন। এই পেজটি মূলত কোডইগনিটারের Default View পেজ। এছাড়া এতে একটি ডিফল্ট Controller আছে। এই ডিফল্ট Controller ই ডিফল্ট View টাকে লোড করছে। কথাগুলো একটু শক্ত লাগতে পারে MVC সম্পর্কে ধারনা না থাকলে। দুশ্চিন্তার কিছু নাই। পরের টিউনেই আমরা MVC নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব।

আমরা এখন মূলত কোডইগনিটার শেখা শুরু করার জন্য প্রস্তুত হলাম। অর্থাত আমাদের এনভাইরনমেন্ট এখন রেডি। আমরা ষ্টেপ বাই ষ্টেপ টিউটোরিয়ালের মাধ্যেমে কোডইগনিটারের মাধ্যমে একটা এ্যাপ্লিকেশন তৈরী করব।

আগামী টিউনে আমরা কোডইগনিটার Configuration এবং MVC সম্পর্কে আলোচনা করব। ততক্ষণ পর্যন্ত শুভরাত্রি।

কোন বিষয় না বুঝলে আমাকে নক করতে পারেন। আমার সব কন্ট্যাক্ট ইনফরমেশন http:www.hanabookbd.com এ গেলেই পাবেন। শুধু অনুরোধ করছি অফিস টাইমে নক না করার জন্য।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

three × 3 =