অনলাইনে কাজ করতে চান বা বিড করেই যাচ্ছেন কিন্তু কোন কাজ পাচ্ছেন না । সময় এসেছে নিজের যোগ্যতার…

6
1610

বাংলাদেশের পত্র পত্রিকা গুলোতে ইদানিং এ নিয়ে বেশ লিখালিখি হয় – যার কল্যাণে তরুন সমাজ আগ্রহী হয়ে উঠছে- যা অবশ্যই দেশের জন্য ভালো। কারন এখানে কাজ করতে হয় বিশ্বের নানা দেশের কোম্পানি গুলোর সাথে – যার দরুন রেমিটেন্স আসে।
অনেকেই জানতে চান, কিভাবে ওডেস্কে কাজ করা যাবে অথচ কোন স্কিল নেই।
আসলে অনেকের ধারনা ওডেস্ক এ গেলেই কাজ করা যাবে। যারা নতুন নিজের দক্ষতা কে যে ওডেস্কে ব্যাবহার করে কাজ করতে হবে, তা অনেকেই জানেন না। আর অনেকে ওডেস্কে একাউন্ট করে বেশ কিছুদিন চেষ্টা করে ব্যার্থ হয়ে এসে জানতে চান যে এখন কি করা যাবে? কিভাবে কাজ পাওয়া যাবে?
তাই আগে ওডেস্ক সম্পর্কে ধারনা টা আরেকটু পরিষ্কার করা প্রয়োজন মনে করছি। ওডেস্ক হচ্ছে একটা মার্কেট প্লেস। এখানে জব পাওয়া যাবে , জব দেয়া যাবে।
যেমন অনেকে বিডি জবস এর সাথে পরিচিত। যেখানে বাংলাদেশের অনেক কাজ পাওয়া যায়। কোম্পানি গুলো অনেক জব পোস্ট করে । ওডেস্ক তেমনি। কিন্তু এর মান অনেক উন্নত – আন্তর্জাতিক। আর সারা পৃথিবীর অনেক বড় বড় কোম্পানি ও এখানে জব পোস্ট করে।(যেমন গুগল) তাই অবশ্যই আপনার দক্ষতা থাকতে হবে – এবং যদি হয় আন্তর্জাতিক মানের – তবে আপনি বেশ ভালো করতে পারবেন।
কারন সারা পৃথিবী থেকে আন্তর্জাতিক মানের কনট্রাক্টর রা ওডেস্কের মত নামী মার্কেট প্লেস গুলোতে কাজের জন্য বিড করে বা এপ্লাই করে।
তো আশা করি বুঝতে পারছেন আপনি কোন না কোন স্কিল তৈরি করতে হবে। যেমন ওয়েব ডেভেলপার, একাউন্টিং, গ্রাফিক ডিজাইন, ইমেইল মার্কেটিং ইত্যাদি। তবে আপনার যদি কোন স্কিল থেকে থাকে পূর্বে থেকেই (যেমন একাউন্টিং, ইত্যাদি) তবে আপনি তা দিয়েও শুরু করতে পারেন।
আসলে হ্যাঁ। এমন অনেক অনেক কাজ আছে যা আমরা জানি ই না। ইন্টারনেট আসার পর থেকে ওয়েব বেসড অনেক কাজ তৈরি হয়েছে। আরো হবে। যেমন সামাজিক যোগাযোগ এর ওয়েব সাইট ফেইসবুক বিপুল জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর স্বাভাবিক ভাবেই সাইট এর ইউজার গেছে অনেক বেড়ে। কোম্পানি গুলো তাই তাদের প্রোডাক্ট কে ইউজার কাছে পৌছানোর জন্য এই রকম সাইট গুলো তে মার্কেটিং করছে। এমন আরো কিছু সাইট হলো – টুইটার, পিন্টারেস্ট, কোরা, পলিভর, লিঙ্কডিন ইত্যাদি।
আরেকটি কাজ হলো ইমেইল মার্কেটিং। ইমেইল এর মাদ্ধমে প্রোডাক্ট এর বিস্তারিত পাঠানো হচ্ছে সম্ভাব্য ক্রেতার কাছে। কিন্তু যখন ওয়েব ছিলো না – এর কথা কল্পনা করা যেত না। এসেছে সার্চ ইঞ্জিন এ রেঙ্কিং পাওয়ার কাজ – এস ই ও (সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন)। কোম্পানি গুলো সার্চ ইঞ্জিন এ সার্চ রেজাল্ট এর প্রথম দিকে তাদের নাম নিয়ে আসার জন্য এস ই ও এর কাজ করাচ্ছে। ওডেস্কের সুত্র মতে- বাংলাদেশে ওডেস্কের কাজের বেশিরভাগ হয়েছে এস ই ও এর কাজ। তো দেখা যাচ্ছে এই কাজ গুলোর অস্তিত্ত আজ থেকে ৩০ বছর আগেও ছিলো না।
তাই বর্তমান প্রেক্ষাপট এর আলোকে বলা চলে প্রথিবী হতে যাচ্ছে প্রজুক্তিময়। একসময় ঘরে ঘরে চলে যাবে ইন্টারনেট (উন্নত বিশ্বে এখনি চলে গেছে)।
বাংলাদেশে এস ই ও বা গ্রাফিক ডিজাইন ইত্যাদি এখন খুব প্রচলিত। আপনি করতে পারেন। কিন্তু যদি নতুন ধর নের কাজ চান, তবে একটু খুজুন। অনেক ভালো স্কিল আছে যার চাহিদা অনেক।
কি কি স্কিল?

• সর্বপ্রথম আপানাকে অবশ্যই অবশ্যই SEO এর উপর জ্ঞান থাকতে হবে
• বেসিক HTML
• ওয়েব ডিজাইনিং
• গ্রাফিক ডিজাইন
• ওয়েব রিসার্স
• সফটওয়্যার ডেভেলপিং
• রাইটিং
• কাস্টমার সাপোর্ট
• সাপোর্ট দেয়া
এবং আরো অনেক।
অনেক স্কিল এর ডিমান্ড বেশি (অর্থাৎ ইনকাম বেশি) । কিন্তু তা বেশ সময় দিয়ে শিখতে হয়। ধৈর্যের কিছু পরীক্ষা দিতে হয়। আর কিছু সহজে হয়তো শেখা যাবে কিন্তু চাহিদা কম আর থাকলেও বেশ কম্পিটিশন। কারন এটা সহজ (যেমন ডাটা এন্ট্রি) ।
এবার আপনি সিদ্ধান্ত নিন কি শিখতে চান। সিনিয়ার অভিজ্ঞ কনট্রাক্টর দের সাথে কন্সাল্ট করুন।
আর এরপর যা লাগবে –
১। ইংরেজির দক্ষতা – অন্তত লিখে যেন মনের ভাব প্রকাশ করতে পারেন এবং যব পোস্ট দেখে বুঝতে পারেন যে কি লিখা হয়েছে। ব্যাকরণের কিছু ভুল হলে প্রব নেই তবে না হলেই বেটার। আর ভালো হলে তো কথাই নেই। আউটসোর্সিং এ ফিলিপাইন উঠে এসেছে এই কারনেই।
২। আপনার নিজের পি সি / ইন্টারনেট
পাশাপাশি একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার আছে।
আগামি বছরের ভেতর শুনেছি ৬০% ফ্রিলেন্সার যারা বেশ সহজ কাজ গুলো করেন – ঝরে যাবেন আর কিছু করবেন ধুকে ধুকে। যারা ভালো স্কিল নিয়ে কাজ করছেন, তারা কাজ করে যাবেন দাপটের সাথে।
তথ্য প্রযুক্তির স্রোত বেশ পরিবর্তন শীল। যেমন আগামি বছরের ভেতর এন্ড্রেয়েড এর ইউজার হবে ১ বিলিয়ন।
তাই এখন সময় এসে গেছে আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতাতে নিজেকে সামনে নিয়ে যাবার।
ভালো স্কিল ডেভেলপ করতে হয়তো একটু বেশি সময় যাবে, একটু কস্ট হবে – কিন্তু ফল পাবেন সুদুর প্রসারি। আপনার আজকের পদক্ষেপ – ভবিষ্যতের আপনি।
পরামর্শের জন্য যোগাযোগ করতে পারেন kader6508@gmail.com
আপনি জেনে নিতে পারেন, ফ্রিলেন্সার দের এগিয়ে নেয়ার জন্য সারা বাংলাদেশ ব্যাপী এ “অনলাইন স্কুল বিডি” শুরু করছে স্কিল ডেভেলপমেন্ট কোর্স। ফী নিয়ে কোন চিন্তা করবেন না। এখানে কাজ শিখতে লাগবে মাত্র ৩৫০ টাকা।
কোর্স গুলোর বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যাবে এই সাইট থেকে।
সময় এসেছে নিজেকে বদলানোর। চলুন নিজেকে পাল্টাই।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

টিউনটি পড়ার জন্য সবাইকে অনেক ধন্যবাদ।

শুরু করুন আপনার অনলাইন ক্যারিয়ার। সম্পূর্ণ নতুন ভাবে শুরু হোক এবার ফ্রীল্যান্সিং। নতুন এবং পুরনো সবারই কাজে লাগবে।

আপনি কি নতুন করে শুরু করতে চাচ্ছেন ফ্রীল্যন্সিং ? বা কাজ পাচ্ছেন না ?? নতুন এবং যারা এখনও দক্ষ হয়ে উঠতে পারেন নি তারা অবশ্যই দেখুন।

আসসালামু আলাইকুম ভাই। আশা করি পরম করুণাময় আল্লাহ্‌র রহমতে সবাই ভাল আছেন, আমিও তার রহমতে আলহামদুলিল্লাহ্‌ ভালই আছি। আসলে বাংলাদেশে এখন বলতে পারেন ফ্রীল্যান্সিং এর জোয়ার বইছে। কিন্তু এই জোয়ারের টানে সবাই পাগলের মত ছুটোছুটি করছে। কিন্তু বেশিরভাগ লোকই আগাচ্ছে ভুল রাস্তায়। এর জন্য বেশ কিছু কারনও আছে। তার মধ্যে প্রথম যে কারণটি দায়ী তা হল- অল্প দিনে বড় হওয়ার চিন্তা। অমুক বড় ভাই মাসে অনেক ইনকাম করে- এই কথা শুনে মাথা যায় নষ্ট হয়ে, টাকার স্বপ্নে বিভোর হয়ে ভাবে- এই তো দুই মাসের মধ্যেই মাসিক ইনকাম বানিয়ে ফেলব ৫০ হাজার টাকা। কিন্তু পরে আক্যাউন্ট খুলে বিড করতে করতে যখন আর কাজ পায় না তখন হতাশ হয়ে বলে- নাহ, আর হবে না। এই কাহিনী অনেকেরই। তো কেন আপনি সফল হবেন না- কখনও ভেবেছেন ? না ভেবে থাকলে একবার ভাবুন। আগে একবার ভেবে দেখুন আপনি কি জানেন? আপনি যতটুকু জানেন তা কি প্রযাপ্ত? অবশ্যই আপনি ভাবতে পারেন আমি তো কন্টেন্ট লিখতে পারি, তাহলে কেননা আমি কন্টেন্ট রাইটিং এর কাজ করব? হ্যাঁ আপনি অডেস্ক এ ডাটা এন্ট্রি বা লেখালেখির কাজও করতে পারেন। কিন্তু কখনও ভেবেছেন কি- আপনি নতুন বলে চাইছেন লেখালেখি করে আয় করতে, কিন্তু প্রতিদিন যে কয়টা নতুন আক্যাউন্ট ওডেস্ক বা ফ্রীল্যান্সার সাইটে যোগ হয় তার প্রায় ৯০ শতাংশ লোকই এই লেখালেখি করে আয় করার চিন্তা নিয়ে ঢোকে। তাহলে এবার আপনিই বুঝবেন যে, ডাটা এন্ট্রির সেক্টরে কি পরিমাণ প্রতিযগিতা। আবার যারা এই সেক্টরে পুরাতন তারা তো আছেই। এই ভাবে ডাটা এন্ট্রিতে কাজ করা এখন অনেক কষ্টকর হয়ে পড়েছে।

তাহলে এইবার কি করব??

স্বাভাবিক ভাবেই মনে প্রশ্ন জাগে, আমি তো নতুন বা আমার তেমন কোন অভিজ্ঞতা নেই, তাহলে আমি এবার কি করব? হ্যাঁ, এর একটা মহা উপায় আছে। আর তা হল এসইও এর কাজ শিখুন। এই কাজ খুবই সোজা। একটু মনোযোগ দিলে আপনি ১০-১৫ দিনেই বেশ ভাল দক্ষ হয়ে উঠতে পারবেন। আর সবচেয়ে বড় যে বেনিফিট আপনি পাবেন এই খাতে যে, এর কাজের পরিমাণ অনেক অনেক বেশি। প্রায় ১০-১৫ হাজার কাজ আপনি পাবেন ওডেস্ক এবং ফ্রীল্যান্সিং সাইটে। কাজ প্রচুর আর আয়ও মোটামুটি বেশ ভাল করা স্মভব এই এসইও থেকে। এটি আপনি বিভিন্ন ব্লগ পড়ে পড়ে শিখতে পারেন তবে যারা নতুন তারা একেবারেই হয়ত বুঝবেন না যে কি কিভাবে করতে হবে। আবার অনেক কোম্পানি এসইও শিখাতে ৫-১০ হাজার টাকাও নেয়। অনেকে টাকার অভাবে আবার অনেকে সময় আবার ঢাকার বাইরে এই ধরনের সুযোগ সুবিধা না থাকার কারনেও শিখতে পারে না কাজ। তো একান্তই তাদের কথা বিবেচনা করে অনলাইন স্কুল বিডি আপনাদের জন্য এনেছে এসইও শেখার এবং এসইও শিখে কিভাবে কাজ করে আয় করবেন তার উপর ভিডিও টিউটোরিয়াল। এখানে প্রত্যেকটি কাজ করে করে দেখানো। ভিডিও গুলো HD কোয়ালিটির ফলে আপনি খুব সহজে স্পষ্ট ভাবে সবগুলো কাজ দেখতে এবং একই সাথে শুনতে পাবেন। এটার দাম বৈশাখ মাস উপলক্ষে ৩৫০ টাকা করা হয়েছে। এটি সম্পর্কে আর জানতে অনলাইন স্কুল এর ব্লগ থেকে ঘুরে আসতে পারেন।

একটি কথা সব সময় মনে রাখবেন- আপনি যদি কাজ না শিখে আয় করতে চান তাহলে ফ্রীল্যান্সিং এর কথা ভুলে যান। আবার আপনার প্রোফাইল এরও একটা ব্যাপার থাকে। এর উপর সঠিক গাইডলাইন এর অভাবেও আপনি ব্যর্থ হতে পারেন। হতাশাও একটা বিশাল বাধা। সঠিক টেকনিক অবলম্বন করলেই কেবল স্বল্প দিনে আয় করা স্মভব।

অনলাইন স্কুল এর সাইট ।

SEO এর ব্যাপারে যে কোন সমস্যায় আমদের সাপোর্ট পেতে যোগ দিন আমাদের ফেসবুক গ্রুপ এ।

 

সবশেষে একটা উপদেশ ঃ অনলাইনে আয় করতে চাইলে অবশ্যই কাজ শিখতে হবে তা আপনি যেভাবেই শিখুন না কেন। কাজ না শিখে আয়ের কথা ভুলে যান। তবে কাজ শিখতে গিয়ে আবার হাজার হাজার টাকা অকালে নষ্ট করবেন না। আর হ্যাঁ অবশ্যই আগে নিজের মনোবলকে শক্ত করুন। ধৈর্য্যও কিন্তু দরকার কাজ করার জন্য। নইলে কিন্তু সব শেষ।

সবাইকে অনেক ধন্যবাদ পোস্টটি পরার জন্য।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

6 মন্তব্য

  1. ভাই কি ব্যবসা করতে পোস্ট দিলেন? আপনার কাছে এটি আসা করি নাই। ধন্যবাদ।

    • ভাই ব্যাবসা বললে বলতে পারেন আবার এর মাধ্যমে অনেকে উপকৃতও হতে পারেন। যাই হোক কমেন্টের জন্য ধন্যবাদ।

    • আপনার প্রফাইল এর দুর্বলতা এবং সঠিক টেকনিক এর অভাব কাজ না পাওয়ার কারন হতে পারে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

seven − two =