SEO বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কত ধরনের? পর্ব ১

2
414

এসইও ২ ধরনের। যথা- ‘অন পেজ এসইও’ এবং ‘অফ পেজ এসইও’। এগুলোকেও আবার বিভিন্ন উপভাগে ভাগ করা যায়।  একটি ওয়েবসাইডের ভেতরে অন এবং অফ পেজ এসইও’র মধ্যে পরিসংখ্যান তুলনা করলে দেখা যায় শতকরা ৭৫ ভাগ কাজই অন পেজ সংশ্লিষ্ট, আর বাকি শতকরা ২৫ ভাগ অফ পেজ সম্পর্কিত। তবে ফ্রিল্যান্সিংয়ের সাইডগুলোতে যারা কাজ করেন, তাদের কাজের ৮০ শতাংশই অফ পেজসংশ্লিষ্ট। কারণ, অন পেজ এসইও’র কাজ যেহেতুওয়েবসাইট ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টের সাথে জড়িত, তাই ভালো মানের ওয়েব ডিজাইন প্রতিষ্ঠানগুলো এ কাজের বেশিরভাগ অংশই তার ক্লায়েন্টকে করে দেয়। বাংলাদেশে অবশ্য এই ধারা এখনও খুব একটা গড়ে ওঠেনি। যদিও কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান ইদানীং এ বিষয়টির ওপর লক্ষ রেখে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে, তবে তা হাতেগোনা।

SEO types SEO বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কত ধরনের? পর্ব ১

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

নিচে অন পেজ ও অফ পেজ এসইও’র বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

অন পেজ

ডব্লিউ থ্রি কমপ্লায়েন্স :

W3 অর্থ হলো ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব কনসোর্টিয়াম। এটি একটি আন্তর্জাতিক কমিউনিটি, যেখানে বিভিন্ন পেশা ও সংস্থার লোকজন একসাথে মিলিত হয়ে ওয়েবের একটি প্রমিত মান বা স্ট্যান্ডার্ড গঠন করার কাজে নিয়োজিত। এরা এখানে একটি ওয়েবসাইট ভালোভাবে কাজ করার জন্য বিভিন্ন গাইডলাইন ও প্রটোকল তৈরি করেন। যখন কোনো ওয়েবপেজ তৈরি করতে যাব, তখন যেনো এই গাইডলাইন মোতাবেক তা তৈরি করা হয়, সেদিকে যেমন লক্ষ রাখতে হবে, ঠিক তেমনি যাতে কোনো এইচটিএমএল ধরনের ‘এরর’ পেজে না থাকে, তাও লক্ষ রাখতে হবে। ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে খুব সহজেই এ জাতীয় ওয়েবপেজ তৈরি করা যায়। আপনি খুব সহজেই W3c’s Validator টুল ব্যবহার করে আপনার ওয়েবসাইটকে পরীক্ষা করে দেখতে পারবেন। ঠিকানা-http ://validator.w3.org

Head Tags : Head Tags-কে ৩ ভাগে ভাগ করা যায় :

টাইটেল ট্যাগ :
Title Tag হচ্ছে সেই ট্যাগ, যা গুগল তার সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্টে প্রদর্শন করে। একে সংক্ষেপে SERPS বলা হয়। আপনি যদি টাইটেল ট্যাগ পেজে সেট করতে চান, তাহলে তা অবশ্যই ৬৪ ক্যারেক্টারের ভেতরে হতে হবে এবং এর মধ্যে আপনার প্রাইমারি ‘কীওয়ার্ড’ থাকতে হবে।

ডেসক্রিপশন মেটা ট্যাগ :
আমরা যখন গুগল, ইয়াহু বা বিং সার্চ ইঞ্জিনে কোনো কীওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করি, তখন টাইটেলের সাথে সাথে নিচে ওয়েবসাইটের একটি ছোট Description প্রদর্শিত হয়, যা দেখে আমরা বুঝতে পারি সাইটটির ভেতরে আসলে কোন ধরনের তথ্য আছে। এই বিবরণীতে অবশ্যই প্রাইমারি কীওয়ার্ডটি সংযুক্ত থাকতে হবে। ভাষা হতে হবে সুশৃঙ্খল, সহজপাঠ্য ও ১৬০ ক্যারেক্টারের ভেতরে।

কীওয়ার্ড মেটা ট্যাগ :
কীওয়ার্ড মেটা ট্যাগ কতগুলো সম-ধরনের শব্দের সমষ্টি, যা সাধারণত ওয়েবসাইটকে বা তার কোনো একটি পেজকে rank বাড়াতে সাহায্য করে। এটি অবশ্যই কনটেন্টসংশ্লিষ্ট হতে হবে।

এইচটিএমএল স্ট্রাকচার :
আপনি যদি ওয়েবসাইটকে ওয়ার্ডপ্রেস বা জুমলা দিয়ে তৈরি করেন, তাহলে এইচটিএমএলের গঠন আনুপাতিক হারে সুন্দর হবে। এক্ষেত্রে আপনার দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই। তবে যদি তা না করেন তাহলে-Div tag ব্যবহার করুন ছক সংহত করতে। লেখাকে বোল্ড করতে শক্তিশালী ট্যাগ ব্যবহার করুন।

SEO বা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কত ধরনের? পর্ব ১

কখনই সিএসএস ব্যবহার করে কোনো কনটেন্ট লুকাতে যাবেন না। এসইও সম্পর্কে আরো কিছু জেনেন নিন এখান থেকে।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

2 মন্তব্য

  1. চমৎকার লিখা আপনার সন্দেহ নেই কিন্তু কিছু উপুযুক্ত ছবি ব্যবহার করলে দেখতে ভালো লাগবে। ধন্যবাদ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 × 1 =