অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং: আর্টিকেল/কনটেন্ট রাইটিং বা লেখালেখি করে আয়-পর্ব ২

3
446
এটি 12 পর্বের আর্টিকেল রাইটিং সিরিজ টিউনের 2 তম পর্ব

আর্টিকেল রাইটিংয়ে অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সিং লেখালেখি শুরু করার আগে প্রথমে কয়েকটি শর্ত পূরণ করতে হবে। প্রথমত, ইংরেজি বানান এবং ব্যাকরণ সঠিকভাবে জানা থাকতে হবে, বিশেষ করে কমপ্লেক্স ও কম্পাউন্ড বাক্য ঠিকভাবে লেখার যোগ্যতা থাকতে হবে। দ্বিতীয়ত, এখানে পারিশ্রমিক হিসেবে ঘণ্টায় ন্যূনতম ১ ডলার থেকে ৩ ডলার পাবেন। তৃতীয়ত, কোনো কোনো মাসে হয়তো প্রতিদিন ১-২ ঘণ্টার কাজ, আবার কখনো হয়তো দিনে ৮-৯ ঘণ্টার কাজও করতে হতে পারে।

online income অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং: আর্টিকেল/কনটেন্ট রাইটিং বা লেখালেখি করে আয়-পর্ব ২

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

কী পরিমাণ আয় হতে পারে?


আয় নির্ভর করবে ৩টি বিষয়ের ওপর :

০১. কতটা কাজ পাচ্ছেন,
০২. কাজের রেট কেমন এবং
০৩. আপনি প্রতিদিন কত ঘণ্টা সময় দিতে পারছেন।

ধরুন, রিরাইটং কাজের কথা। প্রায় প্রতিদিনই এমন কাজের বিজ্ঞপ্তি থাকে। ধরুন, নিম্নতম রেট ৫০০ শব্দের রিরাইটিং ৫০ সেন্ট বা হাফ ডলার। একটি কাজ করতে প্রথম প্রথম আধাঘণ্টা বা বেশি সময়ও লাগবে। আপনার ভাষাজ্ঞান ভালো ও টাইপিং স্পিড বেশি হলে ৩টি বা প্রায় ৪টি করতে পারেন এক ঘণ্টায়। তবে এই কাজ ১ ডলার রেটেও বেশ থাকে। কখনো তা দেড় বা দুই ডলার রেটে থাকে।

ঘণ্টায় ২ ডলারের কাজ করলে, ৩ ঘণ্টায় ৬ ডলার অর্থাৎ মাসে ১৫০ ডলার (১৮০ নয়, কারণ সপ্তায় একদিন বাদ দিয়ে ধরলে হিসাবটি বাস্তব) হবে। এটি হচ্ছে ন্যূনতম আয়। যদি আপনি ভাষাগত দক্ষতা প্রমাণ করতে পারেন। আর হ্যাঁ, ভালো রেটে কাজ পেলে তা অবশ্যই বেশি হবে। যেমন, একজন কাজ পেল ৬ মাসের জন্য প্রতিদিন ৪ আর্টিকেল গুণ ৩ রিরাইটিং = 4x$3 এর। তাহলে এই এক কাজেই প্রতিদিন ৪ ঘণ্টা খেটে ১২ ডলার গুণ ৩০ = ৩৬০ ডলার পাবে। আমেরিকান এমপ্লয়ারও সপ্তায় একদিন হয়তো কাজ করবে না, হয়তো কাজ দিয়ে রাখবে।

তাহলে যা দাঁড়ালো : প্রতিদিন ৩-৪ ঘণ্টা সময় দিলে ১৫০-৪০০ ডলার আয় করতে পারেন। ফুলটাইম সময় দিলে হাতে কাজ থাকলে ২.৫ ডলার গুণ ৮ ঘণ্টা গুণ ২৮ দিন = ৫৬০ ডলার হতে পারে। এসব হলো কম রেটের রিরাইটিংয়ের কথা। ৫০০-৬০০ শব্দের আর্টিকেল রাইটিংয়ের রেট গড়ে ২.৫ ডলার এবং প্রায়ই ৩-৫ ডলারও হয়ে থাকে। ভালো মানের আর্টিকেল রাইটিংয়ের কাজ পারলে মাসে ৮০০-র বেশি ডলার আসতে পারে।

তবে সব মাসে একইভাবে কাজ থাকবে না- একথা মাথায় রাখতে হবে। কোনো মাসে প্রতিদিন এক-দুই ঘণ্টার বেশি পরিমাণ কাজ না থাকতে পারে, আবার কোনো মাসে দিনে ১৫ ঘণ্টা কাজ করার মতো কাজ পেতে পারেন। কতটুকু পারবেন এবং করবেন, কতখানি কাজ করলে কোয়ালিটি ধরে রাখতে পারবেন, কতটুকু লাভ করবেন- সব নির্ভর করে আপনার ওপর।

কতটুকু শ্রম দিতে হবে?


লেখাটি ইংরেজিতে দক্ষ হয়েও যারা বেকার তাদের জন্য। আপনাকে ধরে নিতে হবে আপনি এক ঘণ্টায় ১৫০০ বা আরো বেশি শব্দ টাইপ করতে পারবেন। দ্রুত একটি লেখা পড়ে আরেকটি লেখা লিখতে পারবেন। ক্লান্তি কতখানি সামাল দিতে পারবেন, কত ঘণ্টা এভাবে কাজ করবেন, তা নির্ভর করছে আপনি কতখানি কাজ পাচ্ছেন এবং নিজে কতক্ষণ করতে পারছেন, তার ওপর। আর শ্রম কতটুকু দিতে হতে পারে তা আগের বর্ণনা থেকে নিশ্চয় বুঝে ফেলেছেন।

আগামি পর্বে থাকছে “টাকা পাওয়ার নিশ্চয়তা কতখানি?”

Series Navigation << অনলাইন ফ্রিল্যান্সিং: আর্টিকেল/কনটেন্ট রাইটিং বা লেখালেখি করে আয়-পর্ব ১<< Facebook এ আটো লাইক নিন আপনার স্ট্যাটাস, ফটো, ভিডিওতেফ্রিল্যান্সিং: আর্টিকেল/কনটেন্ট রাইটিং বা লেখালেখি করে আয়-পর্ব ৩ >>
টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

3 মন্তব্য

মন্তব্য দিন আপনার