ইলেকট্রনিক্স জানুন পর্ব (১) ইলেকট্রনিক্স কি ?

7
2026
এটি 4 পর্বের ইলেকট্রনিক্স এর দুনিয়া সিরিজ টিউনের 1 তম পর্ব
ইলেকট্রনিক্স জানুন পর্ব (১) ইলেকট্রনিক্স কি  ?

নতুন রুপকথা

আমি সাধারণ একজন মানুষ ।
প্রযুক্তি ভালোবাসি তাই প্রজুক্তির খবর রাখি এবং প্রজুক্তির কাছেই থাকি ।
আমি ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে পরি ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং এ ।
ইলেকট্রনিক্স জানুন পর্ব (১) ইলেকট্রনিক্স কি  ?

আসালামুলাইকুম ইলেকট্রনিক্স নিয়া কিছু পোস্ট করব আশা করি পাশে থাকবেন।

ইলেকট্রনিক্স কি

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

ইলেকট্রনিক্স (মূলতঃ ইংরেজি Electronics ইলেক্‌ট্রনিক্‌স্‌) তড়িৎ প্রকৌশলের একটি শাখা যেখানে ভ্যাকিউম টিউব অথবা অর্ধপরিবাহী(semi conductor) যন্ত্রাংশের মধ্য দিয়ে ইলেকট্রনের প্রবাহ আলোচিত হয়। এতে সাধারণত ক্ষুদ্র আকারের বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি যেমন কম্পিউটার, আই সি ইত্যাদি আলোচিত হয়। ১৯০৪ সালে জন অ্যামব্রোস ফ্লেমিং দুইটি তড়িৎ ধারক (electrodes) বৈশিষ্ট সম্পূর্ণ বদ্ধ কাঁচের এক প্রকার নল (vacuum tube) উদ্ভাবন করেন ও তার মধ্য দিয়ে একমুখী তড়িৎ পাঠাতে সক্ষম হন। তাই সেই সময় থেকে ইলেকট্রনিক্‌সের শুরু হয়েছে বলা যায়।starterkit ইলেকট্রনিক্স জানুন পর্ব (১) ইলেকট্রনিক্স কি  ?
ইলেকট্রনিক প্রকৌশল প্রধানত ইলেকট্রনিক বর্তনীর নকশা প্রণয়ন এবং পরীক্ষণের কাজে ব্যবহৃত হয়। ইলেকট্রনিক বর্তনী সাধারণত রেজিস্টর, ক্যাপাসিটর, ইন্ডাক্টর, ডায়োড প্রভৃতি দ্বারা কোন নির্দিষ্ট কার্যক্রম সম্পাদন করার জন্য তৈরি করা হয়। বেতার যন্ত্রেরটিউনার যেটি শুধুমাত্র আকাংক্ষিত বেতার স্টেশন ছাড়া অন্য গুলোকে বাতিল করতে সাহায্য করে, ইলেকট্রনিক বর্তনীর একটি উদাহরণ। পাশে আরেকটি উদাহরনের (নিউমেটিক সংকেত কন্ডিশনারের ) ছবি দেওয়া হলো।5x7_Display ইলেকট্রনিক্স জানুন পর্ব (১) ইলেকট্রনিক্স কি  ?
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে ইলেকট্রনিক্‌স প্রকৌশল রেডিও প্রকৌশল বা বেতার প্রকৌশল নামে পরিচিত ছিল। তখন এর কাজের পরিধি রাডার, বাণিজ্যিক বেতার (Radio) এবং আদি টেলিভিশনে সীমাবদ্ধ ছিল। বিশ্বযুদ্ধের পরে যখন ভোক্তা বা ব্যবহারকারী-কেন্দ্রিক যন্ত্রপাতির উন্নয়ন শুরু হল, তখন থেকে প্রকৌশলের এই শাখা বিস্তৃত হতে শুরু করে এবং আধুনিক টেলিভিশন, অডিও ব্যবস্থা, কম্পিউটার এবং মাইক্রোপ্রসেসর এই শাখার অন্তর্ভুক্ত হয়। পঞ্চাশের দশকের মাঝামাঝি থেকে বেতার প্রকৌশল নামটি ধীরে ধীরে পরিবর্তিত হয়ে দশকের শেষ নাগাদ ইলেকট্রনিক্‌স নাম ধারণ করে।
১৯৫৯ সালে সমন্বিত বর্তনী (integrated circuit or IC)আবিষ্কারের আগে ইলেকট্রনিক বর্তনী তৈরি হতো বড় আকারের পৃথক পৃথক যন্ত্রাংশ দিয়ে। এই সব বিশাল আকারের যন্ত্রাংশ দিয়ে তৈরি বর্তনীগুলো বিপুল জায়গা দখল করত এবং এগুলো চালাতে অনেক transmission-line-00 ইলেকট্রনিক্স জানুন পর্ব (১) ইলেকট্রনিক্স কি  ?
শক্তি লাগত। এই যন্ত্রাংশগুলোর গতিও ছিল অনেক কম। অন্যদিকে সমন্বিত বর্তনী বা আই সি অসংখ্য (প্রায়ই ১০ লক্ষ বা এক মিলিয়নেরও বেশি) ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র তড়িৎ যন্ত্রাংশ, যাদের বেশিরভাগই মূলত ট্রানজিস্টর দিয়ে গঠিত হয়। এই যন্ত্রাংশগুলোকে একটি ছোট্ট পয়সা আকারের সিলিকন চিলতে বা চিপের উপরে সমন্বিত করে সমন্বিত বর্তনী তৈরি করা হয়। বর্তমানের অত্যাধুনিক কম্পিউটার বা নিত্য দিনের প্রয়োজনীয় ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি সবই প্রধানত সমন্বিত বর্তনী বা আই সি দ্বারা নির্মিত।
সোর্স গুগল ,ইলেক্ট্রনিক্স বুক,উইকিপিডিয়া,

Series Navigation কম দামেই মিলবে ফোরজি স্মার্টফোন! >>
টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

7 মন্তব্য

  1. আপনাদের মন্তব্য ভাল লাগল , আমি শীগ্রই লিখব

  2. অসাম পোস্ট……। নিয়মিত চাই কিন্তু হারিয়ে যাবেন না আবার। :) আল দা বেস্ট

  3. দারুন্নন্নন্নন্নন্নন্নন্নন্নন্নন্নন্নন্ন পোস্ট ভাই ভাই ভাই চরম্মম্মম্মম্মম্মম আমি ফ্যান হয়ে গেছি আপনের

  4. সত্যি অসাধারণ পোস্ট, নিয়মিত ভাই এবং তারাতারি পরের পর্ব লিখুন

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

3 × 4 =