হ্যাকিং কী ?হ্যাকার কারা? কুন পরজায় এর হ্যাকার ,এদের কাজ কুনগুলো মুটা মুটি বিস্তারিত লেখতে চেস্তা করলাম ।

0
527

আজকে আমি যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো তা হল হ্যাকিং/হ্যাকার এবং ক্র্যাকিং/ক্র্যাকার সম্পর্কে এছাড়াও জানবো হ্যাকারদের বৈশিষ্ট গত শ্রেনী বিভাগ সম্পর্কে।

হ্যাকিং-হ্যাকারঃ সাধারণ অর্থে হ্যাকিং বলতে বোঝায় অন্যের অনুমতি ছাড়া কারও ব্যক্তিগত কোন তথ্য বা ব্যক্তিগত কোন প্রোফাইলে প্রবেশ করা বা নজরদারই করা। ধরা যাক আপনি একটি ঘর তালা দিয়ে রেখেছেন এবং অপর কোন ব্যক্তি তা ভেঙ্গে আপনার ঘরে প্রবেশ করলো, ব্যাপারটি আসলে এরকম। যে ব্যক্তি হ্যাকিং করতে পারেন এবং এ বিষয় সম্পর্কে অভিঙ্গতা রাখেন তাকে হ্যাকার বলে।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

ক্র্যাকিং-ক্র্যাকারঃ ক্র্যাকিং বলতে বোঝায় অনুমতি ছাড়া কপি রাইট প্রটেক্ট সফটওয়্যার এর কোড ভেঙ্গে ফেলা। ধরা যাক আপনি একটি ঘর তালা দিয়ে রেখেছেন এবং অপর কোন ব্যক্তি তালা না ভেঙ্গে আপনার ঘরের পাশে মাটি খুঁড়ে একটি পথ বেড় করলো যাতে তালা না ভেঙ্গে আপনার ঘরে অনায়াসে প্রবেশ করা যায়। যে ব্যক্তি ক্র্যাক করতে পারেন এবং এ বিষয় সম্পর্কে অভিঙ্গতা রাখেন তাকে ক্র্যাকার বলে। বিভিন্ন প্যাচ, O/S পাইরেট উইন্ডোজ সিডি, প্রফেশনাল অ্যান্টি ভাইরাসের ফ্রি সিরিয়াল কি এর পিছনে ক্র্যাকিং-ক্র্যাকার এর সংশ্লিষ্টতা রয়েছে।

আবার,
বৈশিষ্টগত দিক থেকে সাধারণ ভাবে সকল হ্যাকারকে পাঁচ ভাগে ভাগ করা যায়।
যথা: –

১. নিউবি
২. সাইবারপান্ক
৩. কোডার
৪. সাইবার টেররিস্ট
৫. সিকিউরিটি প্রফেশনাল

১. নিউবিঃ এদের হ্যাকিং সম্পর্কে স্বল্প ধারণা থাকে। অন্য হ্যাকারদের তৈরি কৃত সফটওয়্যার ও বিভিন্ন টিকস খাটিয়ে এরা হ্যাকিং করে থাকে।
উদাহরনঃ পিশিং বা কি-লগার ব্যবহার করতে পরেন এরকম হ্যাকার।

২. সাইবারপান্কঃ নিউবি শ্রেণীর হ্যাকারদের উপরের স্তরের হ্যাকারদের কে সাইবারপান্ক শ্রেণীর হ্যাকার হিসাবে চিহ্নিত করা হয়।
উদাহরনঃ রিমটি কি-ইলগার বা অ্যাডমিনেস্টর রিমটি ইলগার ব্যবহার করতে পরেন এরকম হ্যাকার।

৩. কোডার: কোডার শ্রেণীর হ্যাকাররা হলো প্রোগ্রামার। এদের তৈরিকৃত বিভিন্ন সফটওয়্যার নিউবি ও সাইবারপান্ক শ্রেণীর হ্যাকারা ব্যবহার করে।
উদাহরনঃ প্রোগ্রামার এবং ওয়েব হ্যাকিং এ পারদর্শীব্যবহার এরকম হ্যাকার।553322_192584870879722_1505464550_n হ্যাকিং কী ?হ্যাকার কারা? কুন পরজায় এর হ্যাকার ,এদের কাজ কুনগুলো মুটা মুটি বিস্তারিত লেখতে চেস্তা করলাম ।

৪. সাইবার টেররিস্টঃ এ শ্রেণীর হ্যাকারা সবচেয়ে উচ্চ শ্রেণীর হ্যাকার। এদেরকে প্রফেশনাল হ্যাকারও বলা হয়। এরা সব ধরনের হ্যাকিং এ পারদর্শী। ডাটাবেস বা নেটওয়ার্কে অনুপ্রবেশে এদের ভাল ধারনা থাকে। এরা বেশিরভাগ সময় আনইথিক্যাল হয়ে থাকে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এদের তৈরি কৃত ওয়েব হ্যাকিং এ প্রয়োজনীয় এক্সপ্লোইট /Exploit উচ্চ মূল্যে বিক্রয় করা হয়।
উদাহরনঃ প্রোগ্রাম, হ্যাকিং, ক্রাকিং এবং এক্সপ্লোইট /Exploit তৈরিতে পারদর্শী এরকম হ্যাকার।

৫. সিকিউরিটি প্রফেশনাল: সাইবার টেররিস্ট শ্রেনীর হ্যাকারদের ইথিক্যাল রূপকে সিকিউরিটি প্রফেশনাল শ্রেণীর হ্যাকার বলা হয়।
উদাহরনঃ প্রোগ্রাম, হ্যাকিং, ক্রাকিং এবং এক্সপ্লোইট /Exploit উদ্ভাবনে পারদর্শী এরকম হ্যাকার।

হ্যাকিং নিয়ে সামনে আরো পোস্ট করব সেই পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন ফেসবুক এ আমি এবং হ্যাকিং নিয়ে সাজানো আমার সাইট

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

17 − seven =