ক্লিক করলেই ডলার আর ডলার ! অনলাইনে প্রতারণার ফাঁদ

1
334

ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নিক্কন গুহ রায়। ‘ঘরে বসেই মাত্র ১০০টি ক্লিক করে আয় করুন এক ডলার’ ডুল্যান্সার নামে একটি প্রতিষ্ঠানের এমন বিজ্ঞাপন দেখে তিনি প্রতিষ্ঠানটিতে ছয় হাজার টাকার বিনিময়ে রেজিস্ট্রেশন করেন। তারপর আস্তে আস্তে নিক্কন বুঝতে পারেন এসবই প্রতারণা। তিনি কোনো টাকাই আয় করতে পারেননি। রংপুর কারমাইকেল কলেজের ছাত্রী বীথিকা বণিকও একই রকম প্রতারণা শিকার। তিনিও এমন বিজ্ঞাপন দেখে ছয় হাজার টাকা দিয়ে ভর্তি হন ডুল্যান্সারেই। যথারীতি তিনিও প্রতারিত হন। নিক্কন-বীথিকাদের মতো এমন প্রতারণার শিকার লাখো মানুষ। প্রযুক্তি সম্পর্কে সাধারণ মানুষের অজ্ঞতাকে পুঁজি করে কিছু প্রতারক এমন জমজমাট ব্যবসা ফেঁদে বসেছে। কিছুদিন আগে পুলিশ কলাবাগান এলাকা থেকে প্রতারণার দায়ে এরকম তথাকথিত ফ্রিল্যান্সার প্রতিষ্ঠানের কর্তাব্যক্তিদের গ্রেপ্তারও করেছে।

online income ক্লিক করলেই ডলার আর ডলার ! অনলাইনে প্রতারণার ফাঁদ
সে সময় এক প্রতারিত গ্রাহক পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন তিনি একাই দেড় লাখ টাকা খুইয়েছেন। তিনি প্রতিটি একাউন্ট ছয় হাজার টাকা করে মোট ২৫টি একাউন্ট খুলেছিলেন দেড় লাখ টাকা দিয়ে। কিন্তু তিনি কোনো টাকা পাননি। তবে পুলিশ মাঝে মাঝে অভিযান চালালেও এখনো বন্ধ হয়নি এই ‘অনলাইন প্রতারণা’। পুলিশি পদক্ষেপ সীমিত হওয়া এবং সাধারণ মানুষের সচেতনতার অভাব ও অজ্ঞতাকে পুঁজি করে এরা এখনো জমজমাট প্রতারণা করে যাচ্ছে। প্রতারক এসব প্রতিষ্ঠানের সেøাগানগুলোও খুব লোভনীয়। ‘ঘরে বসেই মাত্র ১০০টি ক্লিক করে আয় করুন এক ডলার’, ‘স্বল্প শিক্ষিতদের জন্য ঘরে বসে অনলাইনে আয়’, ‘ঘরে বসে মাসে ২১ হাজার ডলার আয়’, ‘ক্লিক করলেই টাকা’ এমনই চটকদার এসব বিজ্ঞাপনের ভাষা।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

অনুসন্ধানে জানা যায়, শুধুমাত্র ঢাকাতেই ৩০টির বেশি এ ধরনের প্রতিষ্ঠান প্রতারণা করে যাচ্ছে। ফ্রিল্যান্স কাজের জোগানদাতা হিসেবে দাবি করলেও আদতে এসব প্রতিষ্ঠানও এমএলএম কোম্পানিই। ছয় হাজার থেকে সাড়ে সাত হাজার টাকা দিয়ে ভর্তি হওয়ার পরই একজন গ্রাহককে বলা হয় আরো লোক আনতে। আরো লোক আনতে পারলে অর্থাৎ ‘ডান হাত-বাম হাত’ বাড়াতে পারলে সে কমিশন পাবে।

জানা যায়, বর্তমানে বাংলাদেশে এই অনলাইন প্রতারণায় নেতৃত্ব দিচ্ছে ডুল্যান্সার, ব্রাভো আইটি, ল্যান্সটেক, অনলাইন অ্যাড ক্লিক, পেইড টু ক্লিক, সেফটি ক্লিক, স্কাইল্যান্সার, পিটিসি ফর বিডি, অ্যাড সোর্সিং, ক্লিক টু পেইডসহ আরো কিছু প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানের কোনো আইনগত ভিত্তিও নেই। এসবের মধ্যে ডুল্যান্সার প্রতারণার ক্ষেত্রে সবাইকে ছাড়িয়ে গেছে। তবে বাংলাদেশে যে প্রতিষ্ঠানগুলো এই ডিজিটাল প্রতারণার সূচনা করে তাদের মধ্যে সিঙ্গাপুরভিত্তিক স্পিক এশিয়া অনলাইন অন্যতম। কোম্পানিটি ২০১০ সালের ১১ আগস্ট চট্টগ্রামে রেজিস্ট্রার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানিজ এন্ড ফার্মসে (আরজেএসসি) নিবন্ধিত হয়ে প্রথম এ ধরনের প্রতারণা শুরু করে।

বিশিষ্ট তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তফা জব্বার বলেন, বিশ্বের কোনো আউসোর্সিং প্রতিষ্ঠানই টাকা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করায় না। এটা ভুয়া। এটা প্রতিহত করতে সংশ্লিষ্টদের আরো

কঠোর হওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি। জানা যায়, ডুল্যান্সার গ্রাহকদের

কাছ থেকে প্রতারণা করে প্রায় ৫০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এখন তারা পালানোর চেষ্টা করছে। প্রতিষ্ঠানটির মালিক রোকন ইউ আহমেদ পলাতক। প্রতারিত গ্রাহকরা বলছেন, তবে বিভিন্ন সময় রোকন ও তার লোকজন বলেছেন ডুল্যান্সার যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিষ্ঠানের শাখা। কিন্তু সেটা ঠিক নয়। এছাড়া স্পিক এশিয়াও সম্প্রতি বাংলাদেশের প্রায় ১৫ লাখ গ্রাহককে প্রতারিত করে ২৫০ কোটি টাকা নিয়ে চলে গেছে।

জানা যায়, প্রতিষ্ঠানভেদে একটি প্রিমিয়াম একাউন্টের দাম ছয় থেকে সাত হাজার টাকা। এই সাত হাজার টাকা দিয়ে একাউন্ট খোলার পর গ্রাহককে ১০০টি ওয়েবসাইট লিংক দেয়া হয়। লিংকগুলোতে ক্লিক করলে প্রতিদিন এক ডলার করে পাওয়া যাবে। এভাবে একটা একাউন্টের বিপরীতে মাসে ৩০ ডলার। প্রতারিত অনেক গ্রাহক এ কারণে এক-দেড় লাখ টাকা খরচ করে ১০-১৫টি করে একাউন্ট খুলেছে বেশি ডলার কামানোর আশায়। এর বাইরে আরো গ্রাহক ধরে আনার ওপরেই আছে কমিশন। দেয়া হয় ডলারের লোভ। অর্থাৎ সেই মাল্টিলেভেল মার্কেটিং (এমএলএম)। গ্রাহকদের বলা হয়, এই টাকা বাংলাদেশের যে কোনো ব্যাংক থেকে তুলতে পারবেন তারা।

এসব প্রতারণাকারী প্রতিষ্ঠান তাদের প্রচারণা চালায় ফেসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগ সাইটে। এছাড়া ই-মেইল মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে, ব্লগে তারা গ্রাহকদের আকৃষ্ট করে। এছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে তারা এমএলএম পদ্ধতিতে মার্কেটিং করছে। এর বাইরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাসস্ট্যান্ড, রেলস্টেশনসহ লোকসমাগম হয় এমন সব জায়গায় এসব প্রতারণাকারী প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের প্রতিষ্ঠানের প্রচার সংবলিত পোস্টার-লিফলেট লাগিয়ে রাখে। এসব দেখে লোভে পড়ে ফাঁদে পা দেয় সাধারণ মানুষ।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

1 মন্তব্য

  1. এই আদিম জিনিস এত দিন পর ????? ভাই এখন এই জিনিস কি দিয়া আনলেন??? নাকি কপি পেস্ট কইরা বসিয়া দিছেন পোস্ট বাড়ানোর জন্যে ???

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

18 − 5 =