আপনার উইন্ডোজ ভিস্তা কে চরম দ্রুতগতিসম্পন্ন করুন !!!

0
233
আপনার উইন্ডোজ ভিস্তা কে চরম দ্রুতগতিসম্পন্ন করুন !!!

শোভিক চৌধুরী

আমার নাম শোভিক চৌধুরী। আমি এইচ.এস.সি. প্রথম বর্ষের ছাত্র। আমি যখন দ্বিতীয় শ্রেণীতে পড়তাম তখন থেকে আমার কম্পিউটারের সাথে পরিচয়। আসলে আমার একটি অপারেশন হয়েছিল যার ফলে আমি বাহিরে খেলতে যেতে পারতাম না। বাসায় বসে কম্পিউটার ঘাটতে ঘাটতে এখন মোটামুটি জানি। পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ার সময় একটি ২ মেগাবাইট এর গেমও বানিয়েছিলাম। গেমটির মূল চরিত্র একটি মেয়ে ছিল তাই শুধু আমার বান্ধবিরা আর আমার বোন খেলেছিল :) ...উইন্ডোজ এবং লিনাক্স দুটো অপারেটিং সিস্টেম নিয়েই আমি লিখব। এন্ড্রয়েড সম্পর্কেও ধারণা আছে আমার, তাই এন্ড্রয়েড নিয়েও লিখব।আশা করি আমার লেখাগুলো আপনাদের কাজে আসবে...ধন্যবাদ
আপনার উইন্ডোজ ভিস্তা কে চরম দ্রুতগতিসম্পন্ন করুন !!!

আমি অনেকদিন থেকে উইন্ডোজ ৭ ব্যাবহার করি। কিন্তু কিছুদিন আগে আমার ৭ ক্র্যাশ করায় আমি ভিস্তা ইন্সটল করি। আমি ইন্টারনেট থেকে Windows Vista এর সর্বশেষ সংস্করণ Windows Vista Ultimate SP 2 নামিয়েছিলাম। ইন্সটল করার পর আমি দেখলাম যে এটি প্রচণ্ড স্লো। তাই আমি ঠিক করলাম রেগিস্ট্রি আর অন্যান্য কিছু জিনিসে পরিবর্তন এনে এটিকে ফাস্ট করব। আমি সফল হয়েছি আর আমার পিসি এখন মাত্র ২০-২৫ সেকেন্ডে অন হয়। আর বন্ধ হয় মাত্র ৪-৫ সেকেন্ডে। পারফরমেন্সও ফাটাফাটি। তাহলে শুরু করি।

১ – প্রথমে নিচের লিঙ্ক থেকে রেজিস্ট্রি ফাইল টি নামিয়ে নিন ও ইন্সটল করে নিন।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

http://www.mediafire.com/?n21lq7nnv97npof

২ – এবার আপনি আপনার Computer আইকন এ রাইট ক্লিক করে Properties এ ঢুকুন। বাম পাশে Advanced system settings এ যান। Performance সেকশন এর Settings বাটন টিতে ক্লিক করুন।

আপনার উইন্ডোজ ভিস্তা কে চরম দ্রুতগতিসম্পন্ন করুন !!!

এবার যে উইন্ডো টি ওপেন হবে তাতে নিচের অপশনগুলো ছাড়া সবগুলো বন্ধ করে দিন মানে টিক চিহ্ন তুলে দিন।

  • Enable desktop composition (If you want to use Windows Aero theme)
  • Enable transparent glass (If you want to use transparency in Windows)
  • Show preview and filters in folder (If you use Details Pane in Explorer)
  • Show thumbnails instead of icons (If you want to show thumbnails in Explorer)
  • Show window contents while dragging (If you want windows to show content while moving them)
  • Smooth edges of screen fonts (If you want to show smooth fonts)
  • Use drop shadows for icon labels on the desktop (If you want to show shadows under desktop icon labels)
  • Use visual styles on windows and buttons (If you want to use Windows Aero or Basic theme.)

৩ – এবার Control Panel এ যান এবং Folder Options এ ঢুকুন। সেখানে নিচের অপশনগুলো বন্ধ করে দিন মানে টিক চিহ্ন তুলে দিন।

  • Display file size information in folder tips
  • Hide extensions for known file types
  • Show encrypted or compressed NTFS files in color
  • Show pop-up description for folder and desktop items

৪ – এবার স্টার্ট মেনু থেকে Run এ গিয়ে services.msc লিখে এন্টার চাপুন। এবার নিচের সারভিসগুলোকে Manual করে নিন।

  • Application Experience
  • Computer Browser (If your computer is not connected to any network)
  • Desktop Window Manager Session Manager (If you don’t use Aero theme)
  • Diagnostic Policy Service
  • Distributed Link Tracking Client
  • Indexing service (If you don’t use Windows Search feature frequently)
  • Offline Files
  • Portable Device Enumerator Service
  • Print Spooler (If you don’t have Printer)
  • ReadyBoost (If you don’t use ReadyBoost feature)
  • Remote Registry (Always disable it for Security purposes)
  • Secondary Logon
  • Security Center
  • Server (If your computer is not connected to any network)
  • System Restore (If you don’t use System Restore)
  • Tablet PC Input Service
  • TCP/IP NetBIOS Helper Service (If you are not in a workgroup network)
  • Windows Error Reporting Service
  • Windows Media Center Service Launcher
  • Windows Search (If you don’t use Windows Search feature frequently)
  • Windows Time (If you don’t want to update system tray clock time automatically)

কিছু সারভিস আগে থেকেই Manual করা থাকে, অগুলো নাড়াচাড়া করার দরকার নেই।

৫ – আবার Run এ যান এবং msconfig লিখে এন্টার চাপুন। Startup এ গিয়ে অপ্রয়োজনীয় সফতওয়ারগুলো যেমন গ্রাফিক্স কার্ড ও সাউন্ড কার্ড সম্পরকিত সফটওয়্যার গুলো বন্ধ করে দিন।

৬ – নিয়মিত ডিফ্রাগমেন্ট করুন

৭ – এন্টিভাইরাস হালনাগাদ করুন

৮ – অপ্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ইন্সটল করা থেকে বিরত থাকুন

 

এবার আপনার পিসি রিস্টার্ট করে দেখুন ফাস্ট হয় কি না…

 

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

ten − 2 =