মানুষের ব্রেইন বা মস্তিষ্ক সম্পর্কে ২৩ টি চমৎকার অজানা তথ্য

2
1657

কেমন আছেন সবাই? আমরা সবাই জানি মানুষের ব্রেইন খুব বিচিত্র একটি জিনিস। কিন্তু আমরা এই বিচিত্র জিনিসের অনেক অজানা রহশ্য এখনো জানিনা বা জানার সুযোগ হয়নি এখুনি। ইন্টারনেট থেকে খুজে পাওয়া চমৎকার কিছু তথ্য নিয়ে এই পোস্ট টি কপি পেস্ট করলাম। এখানে মানুষের ব্রেইন বা মস্তিষ্ক সম্পর্কে ২৩ টি অজানা তথ্য রয়েছে।

durniti.thumbnail মানুষের ব্রেইন বা মস্তিষ্ক সম্পর্কে ২৩ টি চমৎকার অজানা তথ্য

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

১. মানুষের মস্তিকের প্রতি সেকেন্ডে ১০১৫টি হিসাব করার ক্ষমতা আছে।
২ .একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ প্রতিদিন প্রায় ৭০০০০ বিষয় নিয়ে চিন্তা করতে সক্ষম |
৩. মস্তিষ্কে একশবিলিয়ন নিউরন রয়েছে। মানুষের নিউরনে তথ্য চলাচলের সর্বনিম্ন গতিবেগ হলো প্রায় ২৫৮.৪৯০ মাইল/ঘণ্টা।
৪. মানব মস্তিষ্ক তথ্য আদান-প্রদান করতে পারে ন্যূনতম ০.৫ মিটার সেকেন্ড থেকে সবচেয়ে বেশি ১২০ মিটার সেকেন্ড পর্যন্ত।
৫. একশ মাইল লম্বা শিরা রয়েছে মানব মস্তিষ্কে।
৬. হাতির মস্তিষ্ক মানুষের মস্তিষ্কের অপেক্ষা বৃহৎ হলেও হাতির মস্তিষ্ক তার দেহের ০.২৫ ভাগ যেখানে মানুষের মস্তিষ্ক তার দেহের ওজনের দুই ভাগ। এতে বোঝা যাচ্ছে মানুষের মস্তিষ্কই সবচেয়ে বড়।
৭. একজন মানুষের ব্রেইন অন্যান্য স্তন্যপায়ী প্রানীর চেয়েপ্রায় ৩ গুন বড়।
৮. ব্রেইন মানুষের দেহের মোট আয়তনের মাত্র ২% হলেও দেহে উৎপন্য মোট শক্তির ২০ ভাগেরও
বেশী খরচ করে সে একাই।
৯. দেহের মোট অক্সিজেনের প্রায় ২০ ভাগ মস্তিষ্ক ব্যবহার করে থাকে।
১০. অক্সিজেনের মতো প্রায় ২০ ভাগ রক্তই মস্তিষ্ক আদান-প্রদান করে।
১১. মস্তিষ্কের ওজনের প্রায় দ্বিগুণ ওজন হচ্ছে মস্তিষ্কের আবরণ বা চামড়ার।
১২ .মানব মস্তিস্কের প্রায় ৭৫ ভাগই পানি ।
১৩. বাচ্চা অবস্থায় একটি মানুষের মস্তিস্কের ওজন থাকে ৩৫০-৪০০ গ্রাম। প্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় যা বেড়ে হয় ১৩০০-১৪০০ গ্রাম!

১৪. জন্মের সময় থেকে মানব মস্তিষ্ক পূর্ণাঙ মানুষের মস্তিষ্কের আকৃতি নিয়ে আসে এবং মস্তিষ্কের প্রায় পূর্ণাঙ্গ কোষ নিয়েই আসে।
১৫. মস্তিষ্ক ১৮ বছর বয়সের পর বৃদ্ধি হয় না।

১৬. জাগ্রত থাকা অবস্থায় মস্তিস্ক প্রায় ২৫ ওয়াট পাওয়ার সৃষ্টি করে,যা একটি লাইট বাল্ব জালানোর জন্য যথেষ্ট
১৭. যখন আপনি জ্বরে আক্রান্ত হবেন তখন মনে রাখবেন মানুষের মস্তিষ্কের সর্বোচ্চ তাপ সহনীয় ক্ষমতা ১১৫.৭ ডিগ্রি ফারেনহাইট এবং ততক্ষণ পর্যন্ত মানুষ বাঁচতে পারে।
১৮ .যখন মানুষকে অত্যধিক চাপ সহ্য করতে হয় তখন মস্তিষ্কের কোষ, গঠন বা আকার এবং কাজ বাধাগ্রস্ত হয়।
১৯. অক্সিটোক্সিন নামক হরমোন মস্তিষ্ক থেকে ক্ষরিত হয় এবং ভালোবাসা এবং আত্মসংবরণের জন্য দায়ী।
২০. যদি মস্তিষ্ক ৮ থেকে ২০ সেকেন্ড রক্ত না পায় তবে মানুষ জ্ঞান হারায়।
২১. মস্তিষ্কে ব্যথা সংগ্রাহক কোনো অঙ্গ নেই তাই মস্তিষ্ক কখনো ব্যথা অনুভবকরে না।
২২ .একজন প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের মস্তিষ্ক অক্সিজেন ছাড়া মাত্র ৫ মিনিট টিকতে পারবে | ৫ থেকে ১০ মিনিট অক্সিজেন না থাকলে মস্তিষ্কের স্থায়ী সমস্যা দেখা দেয়।
২৩. মৃত্যুর ৫ মিনিটের মধ্যেই মস্তিষ্কের কোষগুলির মৃত্যু ঘটে।

সুত্র-  ICT HeadQuarters

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

2 মন্তব্য

মন্তব্য দিন আপনার