গ্রাফিকস ডিজাইন কর্মশালা

1
1268

গ্রাফিকস ডিজাইন কর্মশালাঅনেকে ছোটবেলা থেকে ক্রিয়েটিভ কিছু করার নেশা নিয়ে বড় হয়েছেন। তাদের মনের স্বপ্ন পুরন ও নেশা পুরন করার জন্য সবচেয়ে ভাল মাধ্যম হচ্ছে গ্রাফিকস ডিজাইন। এমন কেউ পাওয়া যাবে কিনা সন্দেহ আছে যার আকা ঝোকাতে ঝোক নাই। সুতরাং সবারই মনের একটি সুপ্ত ইচ্ছা হচ্ছে রং নিয়ে খেলা করা। অনেকে আবার পেশা হিসেবে এটিকে নিয়ে থাকে। কারন গ্রাফিক্স ডিজাইন জানা থাকলে তাদের কাজের অভাব থাকেনা। বরং সেই পরিমান লোকের অভাব আছে দেশে ও দেশের বাইরে। এটা অবশ্যই একটি সম্মানজনক আকর্ষনীয় পেশা। বর্তমান সময়ে সচরাচর পাওয়া বিভিন্ন টুলস ও লেআউট ব্যবহারের মাধ্যমে গ্রাফিক্স ডিজাইনার তার কাজকে আরো বেশি ক্রিয়েটিভ ও গ্রাহকের চাহিদা পূরণ করে বাড়তি তৃপ্তি দিতে পারছেন।

কাজের ক্ষেত্র

একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার গ্রাহকের চাহিদানুযায়ী বেশ কিছু কালার, টাইপফেস, ইমেজ এবং অ্যানিমেশন ব্যবহারের মাধ্যমে তার কাজ, পণ্য বা সেবার ওভারঅল লুক ও ভাবমূর্তি ভালোভাবে ফুটিয়ে তোলার মাধ্যমে দর্শকের ব্রেইনে একটি দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলতে পারে। এটার আউটপুট ডিজিটাল বা প্রিন্ট উভয়ই হতে পারে। সম্প্রতি দেয়া তথ্যমতে, বর্তমানে প্রায় ৩৫ শতাংশ গ্রাফিক্স ডিজাইনার আত্বনির্ভরশীল ও স্বাবলম্বী।

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

১) যেকোন ব্যবসার শুরুতে কোম্পানীর লোগো প্রয়োজন, আরও প্রয়োজন ভিজিটিং কার্ড, প্যাড, মানি রিসিট ইত্যাদি। সেগুলো করার দায়িত্ব গ্রাফিক্স ‍ডিজাইনারের। এই কাজ শুধু কোম্পানীর শুরুতেই প্রয়োজন সেটা ভাবলে ভুল হবে। যতদিন কোম্পানী জীবিত থাকবে ততদিনই প্রতিমাসে গ্রাফিক্সের কাজের জন্য বরাদ্দ থাকে।

২)  কোন ওয়েবসাইট করার জন্য আপনাকে অবশ্যই ডিজাইনের উপর ভাল দক্ষতা থাকা জরুরী। ওয়েবসাইট করার সময় আপনাকে ৩০% কাজের জন্য আপনাকে ফটোশপ ব্যবহার করতেই হবে।

৩) টিভি মিডিয়াতে কাজের ব্যপারে বলতে গেলে বলতে হবে, টিভি মিডিয়ার ২০% কাজ গ্রাফিক্স নির্ভর। ভিডিও এডিটিং, এনিমেশনের কাজের দরকার হয় সেখানে। সেই কাজ করার প্রথম শর্ত হচ্ছে গ্রাফিক্স জানা।

৪) আধুনিক ইন্টোরিয়োর ডিজাইনের ক্যারিয়ার শুরু করতে হলে আপনাকে গ্রাফিক্সের সফটওয়্যারের ব্যবহারগুলো জানতে হবে।

৫) অাউটসোর্সিংয়ের কাজের ক্ষেত্রেও গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের চাহিদা সবচাইতে বেশি। লোগো ডিজাইন, ভিজিটিং কার্ড, ক্লিপিং পাথের কাজগুলো অনলাইনে সবচাইতে বেশি।

লোকাল মার্কেট বা অনলাইন মার্কেটপ্লেস যেটাই বলি না কেনো প্রতিনিয়ত গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজের পরিমাণ বাড়ছে।

 গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে শিক্ষাগত যোগ্যতা

আসলে সত্যি বলতে কি, পেশা হিসেবে একজন গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে গেলে শিক্ষাগত যোগ্যতা প্রধান বিষয়  নয়। এখানে মূলত আপনার কাজের দক্ষতাই প্রধান বিষয়। আপনার ক্রিয়েটিভিটি ও অভিজ্ঞতা আপনাকে সফলতা উচ্চ শিখরে নিয়ে যেতে পারে। তবে যেসব প্রতিষ্ঠান শিক্ষাগত যোগ্যতা বিষয়টি বিবেচনা করে তাদের প্রত্যাশা মূলত গ্রাফিক্স ইনস্টিটিউট থেকে ডিপ্লোমা, ফাইন আর্টসে ব্যাচেলর ডিগ্রি বিষয়টি চান। তবে সব ক্ষেত্রেই তারা কাজের দক্ষতার বিষয়টি আগে গুরুত্ব দেন। তাই আপনাকে আগে কাজের ক্ষেত্রে যোগ্য হতে হবে।

গ্রাফিক্স ডিজাইনারের আয়

বাংলাদেশে গ্রাফিক্স ডিজাইনে ডিপ্লোমাধারীর বেতন মাসে সাধারণত ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকা। তবে ব্যাচেলর ফাইন আর্টসে ব্যাচেলর ডিগ্রিধারীদের বেতন মাসিক ১ থেকে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত হতে পারে। এছাড়া অনলাইন মার্কেটপ্লেসে আপনি একটি লোগো ডিজাইন করলে ৫00 থেকে শুরু করে ২ হাজার ডলার পর্যন্ত হতে পারে। তবে দক্ষতার ক্ষেত্রে ও বেশি ক্রিয়েটিভ কাজ হলে এটি ৫ হাজার ডলার পর্যন্তও হতে পারে। এছাড়া একটি ওয়েবসাইটটের ফাস্ট পেজ ডিজাইন করার ক্ষেত্রে ৫০ ডলার থেকে শুরু করে ৩ হাজার ডলার পর্যন্ত পেতে পারেন। ৯৯ডিজাইন’স ডটকম, ফ্রিল্যান্সার কনটেস্ট, ওডেস্কসহ অনেক ওয়েবসাইট বা অনলাইন মার্কেটপ্লেস রয়েছে যেখানে আপনি এই কাজগুলো পাবেন। মূলত কাজের মান ও ক্রিয়েটিভি এর উপরই ভিত্তি করে আপনার আয় নির্ভর করবে।

কোথায় শিখবেন?

প্রফেশন হিসেবে গ্রাফিক্স ডিজাইনকে নিতে অবশ্যই কোনো ভালোমানের ডিজাইনার বা প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ নেওয়া প্রয়োজন। সেই ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই দেখতে হবে প্রতিষ্ঠানটির পরিচিতি, সেখানকার শিক্ষকদের দক্ষতা, প্রতিষ্টানটির ক্লাশের পরিবেশ। এইসব বিবেচনাতে এইমুহুর্তে বাংলাদেশের সেরা গ্রাফিক্স ডিজাইন প্রশিক্ষন সেন্টার হিসেবে ক্রিয়েটিভ আইটি লিমিটেডের নাম সবার প্রথমে আসবে।

এই মুহুর্তে যাদের জন্য কোর্স করা সম্ভবনা, তাদের জন্য ক্রিয়েটিভ আইটি ইন্সটিটিউট থেকে দিনব্যপী গ্রাফিক্স কর্মশালার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

 কর্মশালাতে কি কি থাকছে?

বর্তমানের বাজার চাহিদা বোঝার জন্য একজন ডিজাইনারকে এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় জ্ঞান ও সফটওয়্যারের ব্যবহার জানা জরুরী। দিনব্যপী এই কর্মশালাতে যা যা শিখানো হবেঃ

ইলেকট্রনিক মিডিয়াঃ ওয়েব ডিজাইন, ক্লিপিং পাথ, ইমেজ রিটাচ

প্রিন্ট মিডিয়াঃ লোগো, পোস্টার, ভিজিটিং কার্ড, পেপার এ্যাড।

আউটসোর্সিংঃ অনলাইন গ্রাফিক্স প্রতিযোগিতাতে অংশগ্রহনের মাধ্যমে আয়।

রিসোর্স পারসন
১. মনির হোসেন, ম্যানেজিং ডিরেক্টর, ক্রিয়েটিভ আইটি লিমিটেড।

কর্মশালার বিস্তারিতঃ

তারিখ: ২৩ নভেম্বর’২০১২

সময়: সকাল ১০:০০টা থেকে বিকাল ৫:০০টা

ফি: ৫০০ টাকা

নিবন্ধনের শেষ তারিখ: ২২ নভেম্বর’২০১২।

নির্ধারিত সংখ্যক আসনে আগে আসলে আগে ভিত্তিকে নিবন্ধ করা হবে।

অংশগ্রহণকারী সকলের জন্য বিনামুল্যে লাঞ্চ ও বিকেলের নাস্তার ব্যবস্থা রয়েছে।

আরোও বিস্তারিত জানতে চাইলে বা কর্মশালা সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন থাকলে যোগ দিতে পারেন আমাদের অফিসিয়াল ফেসবুক গ্রুপে।

.         ফেসবুক গ্রুপ: https://www.facebook.com/groups/creativeit/

যোগাযোগ:

অফিস: ক্রিয়েটিভ আইটি লিমিটেড

অর্চিড প্লাজা, বাড়ি#২ (৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা), রোড# নতুন-১৫, পুরনো: ২৮,

ধানমন্ডি, ঢাকা, বাংলাদেশ।

ওয়েবসাইট: www.creativeit-inst.com

ফোন: ০১১৯৫৫০৩৩৮১

 

 

 

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

1 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

16 + fourteen =