জুমলা টিউটোরিয়াল ৮: সাইট মেন্যু

0
310
জুমলা টিউটোরিয়াল ৮: সাইট মেন্যু

ওয়েস্ট লাইফ

বয়স অনেক কম কিন্তু টেকনোলোজিকে অনেক অনেক ভালোবাসি। আমার ঘরে প্রযুক্তি সম্পর্কিত যন্ত্রসমুহ যেমন আইপ্যাড, আইপড, আইফোন, Play Station 3, ল্যাপটপ, ডেস্কটপ, Xbox ইত্যাদি প্রায় সবই আছে। আমার ইউজারনেম কেন তা আপনারা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন। কারণ আমি জনপ্রিয় হলিউড ব্যান্ড এর মস্ত বড় ফ্যান। আমি টিউনার পেজে আমার জানা সবকিছু শেয়ার করার চেষ্টা করব। আপনাদের সকলের সাথে প্রযুক্তির যাত্রা শেষ হবে না যতদিন পর্যন্ত আপনারা আমাকে সাপর্ট করবেন। আমি বেশিরভাগ সময় লেখাপড়া নিয়ে ব্যস্ত থাকি তাই চেষ্টা করব যতটা সম্ভব টিউনার পেজের সাথে থাকার।
জুমলা টিউটোরিয়াল ৮: সাইট মেন্যু

 

পর্ব ১: জুমলা টিউটোরিয়াল ১: প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ডাউনলোড

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

পর্ব ২:  জুমলা টিউটোরিয়াল ২: wamp সার্ভার ইনস্টল

পর্ব ৩: জুমলা টিউটোরিয়াল ৩: লোকালহোস্টে wampserver কনফিগারেশন

পর্ব ৪: জুমলা টিউটোরিয়াল ৪: ফ্রি ওয়েব সার্ভারে মাইএসকিউএল কনফিগারেশন

পর্ব ৫: জুমলা টিউটোরিয়াল ৫: জুমলা ইনস্টল

পর্ব ৬: জুমলা টিউটোরিয়াল ৬: configuration.php ফাইল ঠিকঠাক করা

পর্ব ৭: জুমলা টিউটোরিয়াল ৭: জুমলার বিভিন্ন মেন্যু বা অপশন পরিচিতি

 

 

জুমলা টিউটোরিয়ালের এই পর্ব থেকে আপনি জুমলা সাইট বানাতে শুরু করেছেন। সুতরাং এখন থেকে যা যা করবেন, তার সবগুলোই আপনার আগের থেকে পরিকল্পনা করে রাখা আছে বলে মনে করছি। এখন থেকে এবং পরবর্তী টিউটোরিয়ালগুলোতে সাইট বানানো সংক্রান্ত বিষয়গুলোই শুধু আলোচনা হবে।

এখানে একটি বিষয় বলে নেওয়া দরকার। যদিও আমি জুমলা টিউটোরিয়াল নিয়ে লিখছি, কিন্তু জুমলারই অনেক বিষয় আছে যা আমি জানি না। আমি নিজে জুমলার এক্সপার্ট নই, নিজে নিজে শিখতে গিয়ে যা শিখেছি, শুধু সেগুলোই আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। এই পর্বেও এমন কিছু বিষয় পাওয়া যাবে, যেগুলো আমার জানা নেই। সেই বিষয়গুলোতে এক্সপার্টরা যদি জানান, তাহলে তা কৃতজ্ঞতা স্বীকারসহ যুক্ত করে নেওয়া হবে। পাশাপাশি লেখায় কোনো ভুল থাকলে তাও ধরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করা হলো।

Control Panel
Site-এ মাউস রাখলে প্রথমেই আসবে Control Panel। এটি আর কিছুই না, লগইন করার পর প্রথম যে পেজটি আসে, সেটিই Control Panel। এখানে মূলত যে বিষয়গুলো নিয়ে বেশি কাজ হয়, সেগুলোর কয়েকটি আইকন রাখা আছে যাতে সহজেই প্রথম পৃষ্ঠা থেকেই কাজ শুরু করা যায়। যেহেতু প্রত্যেকটি আইকনই কোনো না কোনো মেন্যুর অধীনে, তাই এগুলো নিয়ে পরে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

User Manager
পরেরটি User Manager। এখানে ক্লিক করলে নিচের মতো একটি ছবি আসবে।

এখানে মূলত আপনার সাইটে যে সমস্ত ইউজার রেজিস্ট্রেশন করবেন, তাদের সবার তথ্য থাকবে। যিনি সুপার অ্যাডমিনিস্ট্রেটর, তিনি সবার স্ট্যাটাস ও অন্যান্য তথ্য পরিবর্তন করতে পারবেন। এছাড়া সাইট সম্পর্কিত বিভিন্ন দায়িত্বও তিনি সদস্যদের এখান থেকে ঠিক করে দিতে পারবেন।

কেউ যদি সাইটে রেজিস্ট্রেশন না করে, তাহলে আপনি Administrator নামে একটি অ্যাকাউন্ট দেখতে পাবেন। Administrator-এ ক্লিক করুন। নিচের পেজ ওপেন হবে।

এখানে বেশ কিছু অপশন আছে। সেগুলো খেয়াল করুন। প্রথমে দেখুন User Details অংশটি। নাম শুনেই বুঝা যাচ্ছে, এখানে ব্যবহারকারীর প্রোফাইল সম্পর্কিত বিভিন্ন অপশন থাকবে।

Name-এ আপনি ইচ্ছেমতো নাম দিতে পারেন।
User Name-এ যে নামে লেখক বা ব্যবহারকারী রেজিস্ট্রেশন করবেন, সেই নাম দেখা যাবে।
পরের ঘরটি ইমেইলের জন্য।
New Password-এ আপনি পাসওয়ার্ড বদলাতে পারবেন।
পরের ঘরে Password ভেরিফাই করতে হবে।
Group- এখানে দেখুন বেশ কয়েকটি অপশন আছে যেখানে সদস্য বা ব্যবহারকারী কোন গ্রুপে আছেন তা জানা যায়। যিনি সুপার অ্যাডমিনিস্ট্রেটর বা অ্যাডমিনিস্ট্রেটর থাকবেন, তিনি প্রয়োজনে সদস্যদের গ্রুপ বদলে দিতে পারেন। একেক গ্রুপের কর্মপরিধি একেক রকম। যেমন যিনি Author আছেন, তিনি শুধু লিখতে পারবেন, লেখা পোস্ট করতে পারবেন; কিন্তু অ্যাডমিনিস্ট্রটিভ কোনো কাজ করতে পারবেন না। আবার Super Administrator সবকিছুই করতে পারবেন। এমনকি প্রয়োজনে কোনো সদস্যকে বাদও দিতে পারবেন। Super Administrator-ই হলো সবচেয়ে বড় পোস্ট এখানে।
Block User- কোনো ইউজারকে ব্লক করতে চাইলে এখান থেকে করা যাবে।
পরের অপশনটি সিস্টেম ইমেইল পাওয়ার জন্য। এটি No-তে থাকলে কোনো সিস্টেম ইমেইল আসবে না।
সবশেষে রেজিস্ট্রেশনের তারিখ ও সর্বশেষ যেদিন ভিজিট করা হয়েছে, সেই তথ্য থাকবে।

পরের সেকশনে কিছু প্যারামিটার রয়েছে। প্রথম দুটো ঘরে আপনার ভাষা কী হবে, তা সিলেক্ট করতে পারবেন। তবে ইংরেজি ভাষা ডিফল্ট অবস্থায় থাকে।
User Editor-এ আপনার লেখার এডিটর কী হবে তা ঠিক করে দিতে পারেন। জুমলাতে সাধারণত দুটো এডিটর থাকে। আপনি চাইলে প্রয়োজনে পরে জুমলার এক্সটেনশন থেকে আরও এডিটর ইনস্টল করে নিতে পারবেন।
পরের দুটো অংশে হেল্প সাইট কী তা ঠিক করে নিতে পারেন। আর একদম শেষেরটিতে টাইমজোন ঠিক করে নিতে পারেন।

Media Manager
এই সেকশনে আপনার সাইটে যে সমস্ত ছবি, ব্যানার বা ইমেজ ব্যবহার করতে চান, সেগুলো আপলোড করে রাখতে পারেন। প্রয়োজনে নতুন ফোল্ডার বানিয়ে বা ফোল্ডার রিনেম করে ছবিগুলোকে সে অনুযায়ী সাজিয়েও রাখতে পারেন। কোন ছবি কোন ফোল্ডারে রাখছেন, সেটি জানতে পারবেন উপরের পাথ থেকে। উল্লেখ্য, এখানে আপনি সর্বোচ্চ ১০ মেগাবাইটের ছবি আপলোড করতে পারবেন। তবে এই সংখ্যাটা পরে বদলাতেও পারবেন। পরবর্তী অংশে এ নিয়ে আলোচনা আছে। মিডিয়া ম্যানেজারের আউটলুকটা এরকম।

Global Configuration
এই অংশে দেখুন তিনটি আলাদা পার্ট আছে- Site, System ও Server।
প্রথমে Site। এর প্রথম অংশেই রয়েছে Site Settings।

Site Settings-এ প্রথম অংশটিতে আপনার সাইট অনলাইন বা অফলাইনে থাকবে সেটি দেওয়া আছে। সাইটের সমস্ত কাজ হয়ে গেলে আপনি No বাটনটি চেক করে রাখবেন। সাইটের কাজ শেষ না হলে বা পরবর্তী সময়ে আপডেট বা অন্য কোনো কারণে কিছুক্ষণ সাইটের কাজ বন্ধ রাখতে হলে Yes বাটনটি চেক করবেন। সে সময় কেউ আপনার সাইটে প্রবেশ করলে এরকম একটি বার্তা দেখতে পাবে-
This site is down for maintenance.
Please check back again soon.

এই লেখাটি দেখুন ঠিক পরের ঘরেই Offline Message-এ আছে। আপনি চাইলে আপনার ইচ্ছেমতো বার্তা বদলাতে পারেন বা নিজস্ব বার্তা এখানে লিখে দিতে পারেন, যা সাইট অফলাইনে থাকলে দেখাবে।

পরের ঘরটিতে দেখুন Site Name লেখা আছে। এখানে আপনি যে নাম লিখবেন, সেটিই মূলত আপনার সাইটের নাম যা ব্রাউজারের উপরে প্রদর্শন করবে।

এর পরের অপশনটি এডিটরের। ডিফল্ট অবস্থায় TinyMCE পাবেন। এটি রাখাই ভালো।

পরের দুটো অপশন সম্পর্কে আমি ভালো জানি না। তাই সেগুলো নিয়ে আলোচনা করলাম না। তবে ওই দুটি অংশে কিছু না করেই আমার সাইট ভালোভাবেই চালাচ্ছি। এ সম্পর্কে অভিজ্ঞরা যদি কিছু জানান, তাহলে সেটি এখানে যুক্ত করে নেওয়া হবে।

Site Settings-এর পর Metadata Settings। এটি মূলত সার্চ ইঞ্জিনকে সাইট সম্পর্কে তথ্য সরবরাহ করে। সুতরাং যারা চান তাদের সাইটগুলো সার্চ ইঞ্জিন সহজেই খুঁজে পাক, তাহলে অবশ্যই এই ঘরগুলো পূরণ করতে হবে।

প্রথম ঘরে দেখুন আছে Global Site Meta Description। এখানে আপনার সাইটটি কী বিষয়ে সে সম্পর্কে দু-একটি বাক্য সংক্ষেপে লেখুন। সার্চ ইঞ্জিন এই বাক্যগুলোই পাঠকের কাছে হাজির করবে।

Global Site Meta Keywords-এ আপনার সাইটি যে বিষয়ে তৈরি, সে সম্পর্কিত কিছু শব্দ বা কি-ওয়ার্ড লিখুন। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি বাংলাদেশের ফুটবল সম্পর্কে সাইট বানান, তাহলে Football, Bangladesh Football ইত্যাদি শব্দ ব্যবহার করতে পারেন।

পরের দুটো অপশন Yes দেওয়া থাকে বাই ডিফল্ট। এগুলোর কাজ জানি না। কিন্তু যেহেতু ডিফল্ট থাকে, তাই আমিও সেগুলোকে সেভাবেই রেখেছি।

এ অংশের সর্বশেষ অংশ হচ্ছে SEO Settings।

আপনি তো সাইট বানালেন। এখন সাইটের কোনো পাতার লিংক http://www.yoursite.com/index.php?optio … ;Itemid=27 হলে ভালো লাগবে নাকি Click This Link হলে ভালো লাগবে। নিশ্চয়ই শেষেরটি। কারণ এতে ওই নির্দিষ্ট পেজটি কী বিষয়ে তা যেমন জানা যায়, তেমনি সার্চ ইঞ্জিনও সহজে এই ধরনের পাতা খুঁজে বের করতে পারে। আর এটা করতে হলে SEO Settings-এর প্রথম অংশটি Search Engine Friendly URLs-এ বক্সটি চেক করে রাখুন। পাশাপাশি নিচের অপশনটি অর্থাৎ Use Apache mod_rewriteটিও Yes রাখুন। না হলে প্রথম পৃষ্ঠায় টেমপ্লেট অর্থাৎ ডিজাইন ঠিকঠাকমতো দেখালেও বাকি পৃষ্ঠাগুলোতে দেখাবে না। আর শেষ অপশন অর্থাৎ Add Suffix to URLs-এর কাজ আমি নিজেও জানি না।

এবার System পার্ট নিয়ে আলোচনা। এতে মোট ছয়টি অংশ দেখা যাচ্ছে। প্রথমেই System Settings.

System Settings-এ প্রথমে সিক্রেট ওয়ার্ড পাবেন। এটি কাউকে জানাবেন না। এটি দিয়ে কী কাজ হয় জানি না, তবে সাইটের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে কাজে লাগে বলে শুনেছি। পরের তিনটি অংশের কাজ কী জানি না, যদি কেউ জানেন দয়া করে জানাবেন। পরবর্তী সময়ে যুক্ত করে নেওয়া হবে।

User Settings-এ আপনি সাইটে ইউজারদের রেজিস্ট্রেশন করাবেন কিনা সেটি নির্ধারণ করার অপশনটি প্রথমেই আছে। আপনি যদি চান রেজিস্ট্রেশন করে যে কেউ আপনার সাইটে কনটেন্ট যোগ করতে পারবে, তাহলে Yes সিলেক্ট করুন। আর যদি শুধু নিজের বা কোনো প্রতিষ্ঠানের জন্য বানান যেখানে ইউজারদের যুক্ত হওয়ার প্রয়োজন পড়বে না তাহলে No সিলেক্ট করে রাখুন।

নতুন ইউজারদের ধরন কী হবে, অর্থাৎ তারা লেখক, প্রকাশক বা সম্পাদক কী হবেন, সেটি আপনি নির্ধারণ করে দিতে পারেন New User Registration Type-এ। New Users Account Activation হবে কিনা সেটা পরবর্তী অপশন থেকে ঠিক করে দিতে পারেন। একবারে শেষের অপশনটি সম্পর্কে কিছু জানি না।

পরেরটি Media Settings. অর্থাৎ ইউজাররা ছবি বা মিডিয়া কীভাবে ব্যবহার করবে, সেই সেটিংস এখানে ঠিক করে দিতে পারবেন। এর প্রথম ঘরটিতে মিডিয়ার ফাইল টাইপ কী থাকবে, তা নির্ধারণ করে দেওয়া থাকে। তবে আপনি চাইলে আরও ফাইল টাইপ অ্যাড করে দিতে পারে। সেক্ষেত্রে কমা দিয়ে শুধু ফাইলের এক্সটেনশনটা লিখে দিলেই হবে।

মিডিয়ার ম্যাক্সিমাম সাইজ কী হবে, তা ঠিক করে দেওয়া যাবে পরের ঘরে। এখানে সাধারণত 10000000 বাইট দেওয়া থাকে। তবে আপনি আপনার প্রয়োজনানুযায়ী ঠিক করে নিতে পারেন।

পরের দুটো অংশে মিডিয়া ও ইমেজ কোথায় সংরক্ষিত হবে তা দেওয়া আছে। আপনি প্রয়োজনে আপনার সুবিধানুযায়ী সেগুলো বদলাতে পারেন। মিডিয়া ফাইল আপলোডের ক্ষেত্রে রেস্ট্রিকশন রাখতে চাইলে তা Restrict Uploads-এ ঠিক করে দিতে পারেন।

Legal Image Extensions (File Types)-এ আপনার ইমেজের ফাইলের ধরন কী হবে তা দেওয়া থাকে। এখানেও আপনি আপনার প্রয়োজনানুযায়ী ফাইলের ধরন ঠিক করে নিতে পারেন। Ignored Extensions-এ কোনো নির্দিষ্ট ফাইল টাইপ ইগনোর করতে চাইলে সেটির এক্সটেনশন এখানে টাইপ করে দিতে পারেন। Legal ও Illegal MIME Types সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই। Enable Flash Uploader-এ Yes থাকলে ফ্ল্যাশ ফাইল আপলোড করা যাবে।

Debug Settings, Cache Settings ও Session Settings-এর বিষয়গুলো আমি জানি না। তবে আমার নিজের সাইটে এগুলোতে হাত দিই নি। যেটা যেভাবে আছে, সেটাকে সেভাবে রেখে দিয়েছি। তবে ধারণা করি, Cache Settings-এ একটা নির্দিষ্ট সময় পরপর Cache পরিষ্কার করা যায়। Session Settings-এও তাই। অর্থাৎ এখানে সময় সিলেক্ট করে দেওয়া থাকলে একটা নির্দিষ্ট সময় পরপর সেই পেজগুলো রিফ্রেশ হবে। অভিজ্ঞরা এ ব্যাপারে কিছু বলবেন বলে আশা করছি।

ডিবাগ সেটিংস-এর চিত্র

ক্যাশ সেটিংস-এর চিত্র

সেশন সেটিংস-এর চিত্র

পরের অংশ Server.

এখানে প্রথম অংশেই Server Settings। টেম্পরারি ফাইলগুলো কোথায় জমা হবে তা এখান থেকে আপনি ঠিক করে দিতে পারবেন। এছাড়া Error Reporting কীভাবে হবে তাও এখানে ঠিক করে দেওয়া যায়।

Local Settings-এ আপনার সাইটের টাইম জোন ঠিক করে দিতে পারেন। ডিফল্ট হিসেবে UTC 0.00 সিলেক্ট করা থাকে। ঢাকার জন্য UTC +৬.00 ঠিক করে দিতে পারেন। বর্তমানে অবশ্য UTC +৬.00 ব্যবহার করতে হবে।

এফটিপি সেটিংসটা গুরুত্বপূর্ণ। এখানে আপনাকে এফটিপি সম্পর্কিত তথ্যগুলো দিতে হবে। শুরুতেই রয়েছে এফটিপি এনাবল করবেন কিনা। যদি না করেন তাহলে পরবর্তী ঘরে কিছু করতে হবে না। কিন্তু এনাবল করলে পরবর্তী ঘরগুলোতে FTP Host, port, username, password ও root সম্পর্কিত তথ্যগুলো দিতে হবে। এগুলো আপনি যাদের কাছে স্পেস কিনবেন, তারাই আপনাকে জানিয়ে দিবে।

Database settings-এ নতুন করে কিছু করার নেই। আপনি যদি আগের ধাপগুলো অনুসরণ করেন, তাহলে এই ঘরগুলোতে যা যা থাকার কথা, সেগুলো ঠিকঠাকমতোই আছে বলে আশা করি।

এখানকার শেষ অপশন Mail Settings. এটির ব্যাপারে আমি তেমন কিছু জানি না। সুতরাং আলোচনা থেকে বিরত রইলাম। এই কনফিগারগুলো শেষ করার পর উপরে দেখুন Save অপশনটি আছে। সেভ করে বেরিয়ে আসুন। পাশে দেখবেন আরেকটি Apply অপশন রয়েছে। Apply করলে আপনার সেটিংস সেভ হবে কিন্তু আপনি ওই পৃষ্ঠাতেই রয়ে যাবেন। কিন্তু Save করলে এই পৃষ্ঠা বন্ধ হবে আপনাকে প্রথম পৃষ্ঠায় নিয়ে যাবে। আর সেভ না করতে চাইলে Close করে দিন। সেক্ষেত্রেও আপনি প্রথম পৃষ্ঠায় চলে যাবেন।

Logout
এটার মানে তো বুঝতেই পারছেন। Login করে কাজ শুরু করেছিলেন, এখন কাজ শেষ। তাই Logout করে বেরিয়ে যান, এক কাপ চা খান, আর ঘুম দেন। এতো বেশি কাজ করা ভালো না!

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

four × two =