বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

3
635

পিসিটি যখন চালু করেন তখন কালো বা নীল যে স্ক্রীনটি চমকে উঠে সেটার নাম হল বায়োস মেনু। বায়োস এর পুর্ন অর্থ Basic Input Output System। ভার্চুয়ালি প্রতিটা পিসিতেই বিদ্যমান এটি, যার কাজ হল পিসির চিপগুলো বা বিভিন্ন হার্ডওয়ার যেমন হার্ড ডিস্ক ড্রাইভ সহ সকল পোর্ট থিক ভাবে কানেক্টেড কিনা বা কার্যক্ষম কিনা তা রিপর্ট করা বা নিশ্চিত করা। আমরা বায়োস মেনুকে পাশওয়ার্ড প্রটেক্টেড করে কিভাবে তা জানার চেষ্টা করবো।

2011-01-19_184347 বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

যেভাবে সেট/পরিবর্তন করবেন বায়োসের মেনুর গোপন সংকেতঃ

বায়োস একটি পার্সোনাল কম্পিউটারের সকল লোকাল সেটিংস সংরক্ষন করে রাখে, এমনকি পাওয়ার অপশান বুট অপশান এবং মেমোরি অপশান। বায়োস মেনুর সাহায্যে আপনি পাশওয়ার্ড বা গোপন সংকেত স্থাপন বা পরিবর্তন করতে পারবেন। এডমিনিষ্ট্রেশান পাশওয়ার্ড সেট করার মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন সুবিধা পেতে পারেন। যেমন পিসি এর অপ ব্যবহার রোধ বা বায়োস সেটিংস চেঞ্জ রোধে।

১. প্রথমে আপনার পিসি রিষ্টার্ট দিন।

২. F2 বা Del(একেক ব্যান্ডের জন্য একেকটা) কি চাপুন অপারেটিং সিষ্টেম লোড হবার আগে, এবং এটা আপনাকে বায়োস মেনুতে নিয়ে যাবে।

bios_main বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

৩. এরো কি ব্যবহার করুন কি বোর্ড থেকে এবং সিকিউরিটি সেটিংস এ গিয়ে এন্টার মারুন।

b_bios বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

৪. এডমিন পাশওয়ার্ড সেকশানে যান এবং এন্টার চাপুন

৫. এবার নতুন করে পাশওয়ার্ড সেট করতে হলে টাইপ করুন এবং এন্টার চেপে কাজ সমাধা করুন।

৬. Esc চেপে আগের মেনুতে মানে বায়োস মেনুতে ফিরে আসুন, এবং “Save and Exit” এর জন্য কি বোর্ড থেকে বাটন চেপে সংরক্ষন করে বেরিয়ে আসুন। সিষ্টেম রিষ্টার্ট নিবে আপনার সেটকৃত পাশওয়ার্ড সহ। এখন যে কেউ বায়োস মেনুতে ঢুকতে গেলে বা কোন সেটিংস পরিবর্তন করতে গেলেই পাশওয়ার্ড চাইবে।

৭. আর পাশওয়ার্ড মুছে ফেলতে চাইলে একই অপশানে গিয়ে ক্লিয়ার পাশওয়ার্ডে যেতে হবে।

Bios-Password-Change বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

গোপন সংকেত ভুলে গেলে যা করনীয়ঃ

বায়োস মেনু সেট করার পর দেখা গেল আপনি পাশওয়ার্ড ভুলে গিয়েছেন। কোন চিন্তা নেই নিচে পাশওয়ার্ড ভুলে গেলে করনীয় দেওয়া হল

অজানা পাশওয়ার্ড ভাঙ্গা বা ভুলে যাওয়া পাশওয়ার্ড ফিরে পাওয়াঃ

ধরুন আপনি বায়োসে প্রদত্ত পাশওয়ার্ড ভুলে গেছেন বা সেকেন্ড হ্যান্ড কম্পিউটার ক্রয় করেছেন। এখন বায়োস সেটিংস চেঞ্জ করবেন, উপায় কি ???

কিছু সহজ উপায়েই আপনি ঘরে বসেই এটা করতে পারবেন।

১. প্রথমে পিসির পাওয়ার আন-প্লাগ বা বিদ্যুত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করুন

২. তারপর স্বযত্নে সিপিইউ এর কেসিং খুলুন

৩. ভিতরে খুব ভাল ভাবে খেয়াল করলে দেখতে পাবেন যে ভিতরে মাদার বোর্ডের মধ্যে একটা পাতলা সিলভার কালারের CmoS ব্যাটারি আছে।

bios বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

সেখান থেকে সিমস ব্যাটারিটি খুলে আনুন, এবং ১৫-২৫ মিনিট এটাকে অন্যত্র রেখে দিন।

cmosbattery1 বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

৪. এরপর আবার একই ভাবে সিমস ব্যাটারিটি আগের যায়গায় সেট করে দিন

৫. আশা করি আপনার বায়োসের পাশওয়ার্ড রিসেট হয়ে গেছে। যদি না হয় সেক্ষেত্রে এটাকে ২৪ ঘন্টা পর্যন্ত ও রাখাওতে হয় কোম্পানি ও কেইস ভেদে

আর যদি সিমোস খুলার পদ্ধতি কাজ নাকরে তাহলে আপনাকে আরো কিছু পদ্ধতি প্রয়োগ করতে হতে পারে। যেমন ম্যানুফ্যাকচার কোম্পানি প্রদত্ত মাষ্টার পাশওয়ার্ড।

বায়োস পাসওয়ার্ড দেওয়া হয় সাধারনত কিছু অতিরিক্ত নিরাপত্তার জন্য। অনেকেই এটা ইউজ করেন বায়োস সেটিং রোধে বা বুটিং রোধে। কিন্তু মাঝে মাঝে এই অতিরিক্ত নিরাপত্তাই বিরক্তির কারন হতে পারে যদি আপনি পাশওয়ার্ড ভুলে যান বা কেউ উদ্দেশ্য প্রনীতভাবে এটা পরিবর্তন করে ফেলে। কিন্তু ত্যাতে ভয় পাবার কোন কারন নেআরো যে উপায়ে বায়সের পাশওয়ার্ড রেসেট/রিমোভ বা বাইপাশ করা যায় তা হলঃ

* CMOS খুলে
* মাদারবোর্ড এর jumper ব্যবহার করে
* MS DOS কমান্ড ব্যবহার করে
* সফটওয়ার ব্যবহার করে
* ব্যকডোর BIOS পাশওয়ার্ড ব্যবহার করে

বিঃদ্রঃ এই পোষ্টটটি অভিজ্ঞ ব্যবহারকারীদের জন্য। এটা সাধারন ব্যবহারকারী/হ্যাকারদের জন্য প্রযোজ্য নহে। অনুগ্রহ করে এটা প্রয়োগ করবেননা যদি আপনি হার্ডওয়ার এর কাজের সাথে পরিচিত না হন। কোন ধরনের সমস্যা বা ক্ষয়ক্ষতির জন্য লেখক দায়ী নন। তাই এটা অনুসরন করুন নিজ দায়িত্বে।

১. CMOS ব্যটারিঃ

remove-battery বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

সিমোস ব্যাটারি ইউজ করে কিভাবে বায়োস এর পাশওয়ার্ড বাইপাস করবেন তা জানতে এই পোষ্টটি পড়ুন।

২. মাদারবোর্ডের Jumper ব্যবহার করেঃ

jumper বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!কম বেশি সব মাদারবোর্ড এরই জাম্পার আছে যা সিমসের সব সেটিংস ক্লিয়ার করতে পারে বায়োস পাশওয়ার্ড সহ। মাদারবোর্ডের ব্র্যান্ডের উপর নির্ভর করে এই জাম্পারের অবস্থান নির্ভর করে। মাদারবোর্ডের ম্যানুয়াল পড়ে আপনি এটা জানতে পারেন বা নেটে সার্চ দিয়ে। আর ম্যানুয়াল না থাকলে আপনি ফিজিকালি দেখেতে পারেন সিমোস ব্যাটারির আশে পাশে। অধিকাংশ ম্যানুফেকচারার এরই CLR, CLEAR, CLEAR CMOS, ইত্যাদি দ্বারা লেভেল করে থাকে। জাম্পার খুজে পেলে সাবধানে এবং ভাল ভাবে খেয়াল করে দেখুন জাম্পারটি  ৩ পিন বিশিষ্ট একটা সেটের মাঝের পিনের সাথে অন্য ডানের বা বামের পিনের সাথে কানেক্ট করা।

computer-jumper-2 copy বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

আপনাকে যা করতে হবে জাম্পারটি খুলে নিয়ে ঠিক মাঝের পিনের সাথে বিপরীত পিন কানেক্ট করিয়ে দিন।যেমন ১ ২ ৩ টি পিন হয়, এবং প্রথমে যদি ১ ২ কানেক্টেড থাকে পরে খুলে আপনাকে ২ ৩ কানেক্ট করিয়ে দিতে হবে। এখন কিচুক্ষন(মিনিট খানেক) অপেক্ষা করুন। তারপর  আবার আগের মত লাগিয়ে দিন। তবে অবশ্যই খেয়াল করবেন যেপিসি খোলার পুর্বে এবং জাম্পার পরিবর্তনের সময় যেন পিসির পাওয়ায় সাপ্লাই ইউনিট বন্ধ থাকে।

৩. MS DOS কমান্ড ব্যবাহার করেঃ

এই পদ্ধতি কাজ করবে তখনই যখন আপনার সিষ্টেম চালু থাকবে, কারন এটা কাজ করতে হয় MS DOS এ। কমান্ড প্রম্পট ওপেন করুন ষ্টার্ট করুন START>>RUN>>cmd>>Enter। তারপর একে একে নিচের কমান্ড গুলো দিন।

debug
o 70 2E
o 71 FF
quit

dos বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

লক্ষ্য করুনঃ এখানে প্রথম লেটারটি ইংরেজি o কেউ ভুলেও এটাকে অংক 0 মানে শূন্য মনে করবেন না। উপরের কমান্ড গুলো দেবার পরে আপনার সিষ্টেম রিষ্টার্ট দিন। কাওরন এই কমান্ডগুলো আপনার সিমোস সেটিং রেসেট করে দিবে সাথে সাথে পাশওয়ার্ড ও। আপনি যদি জানতে চান কিভাবে এটা কাজ করছে তাহলে শুনুন।
এই পদ্ধতিতে আমরা MS DOS এর ডিবাগ টুলস ইউজ করি। o ক্যরেক্টারটি কমান্ডগুলোর প্রথমে বসে IO পোর্টের আউটপুট ভেলু বুঝায়। ৭০ ও ৭১ বুঝায় পোর্ট নাম্বার যা সিমোস মেমরিতে প্রবেশে ব্যবহৃত হয়। FF দ্বারা আমরা সিমোসকে বলি যে অখানে ইনভেলিড চেকসাম আছে, আর এই কমান্ডের সাথে এটাকে রেসেত করে যা বায়স পাশওয়ার্ডকেও রেসেট করে।

৪. সফটওয়ার ব্যবহার করেঃ

অনেক সফটওয়ার আছে যেগুলো সিমোসের সেটিংস বা পাশওয়ার্ড অথবা দুইটাই করতে পারে মুহুর্তের মধ্যেই। কিন্তু ঐ যে উপরে উল্লেখ করেছি, এটা করতে হলে আপনাকে পিসির এদমিন একাউন্টে ঢুকে থাকতে হবে যেখান থেকে এটা উইন্ডোজের ডসে কাজ করবে।

CmosPwd

 

৫. ব্যাকডোর বায়োস পাসওয়ার্ড দিয়েঃ

অনেক মাদারবোর্ড প্রস্তুতকারী কোম্পানি একটা পাশওয়ার্ড দিয়ে রাখে যা মাষ্টার পাশওয়ার্ড হিসেবে পরিচিত। এই মাষ্টার পাশওয়ার্ড শুধু মাত্র টেষ্ট ও ট্রাবলশুট করার জন্য তৈরী করা হয়। চলুন নিচে থেকে জেনে নিই বেশ কিছু কোম্পানির পাশওয়ার্ড।

AMI এর বায়োস পাসওয়ার্ডঃ

 

A.M.I.
AAAMMMIII
AMI?SW
AMI_SW
AMI
BIOS
CONDO
HEWITT RAND
LKWPETER
MI
Oder
PASSWORD

AWARD এর বায়োস পাশওয়ার্ড

01322222
589589
589721
595595
598598
ALFAROME
ALLy
aLLy
aLLY
ALLY
aPAf
_award
award
AWARD_SW
AWARD?SW
AWARD SW
AWARD PW
AWKWARD
awkward
BIOSTAR
CONCAT
CONDO
Condo
d8on
djonet
HLT
J64
J256
J262
j332
j322
KDD
Lkwpeter
LKWPETER
PINT
pint
SER
SKY_FOX
SYXZ
syxz
shift + syxz
TTPTHA
ZAAADA
ZBAAACA
ZJAAADC

PHOENIX এর বায়োস পাশওয়ার্ডঃ

BIOS
CMOS
phoenix
PHOENIX

Misc এর কমন পাশওয়ার্ডঃ

ALFAROME
BIOSTAR
biostar
biosstar
CMOS
cmos
LKWPETER
lkwpeter
setup
SETUP
Syxz
Wodj

unlocker বায়োস সেটিং বা পাসওয়ার্ড ভাঙ্গার অনেকগুলো উপায়। না দেখলে মিস করবেন!!!

অন্যান্য ম্যানুফেকচারারের BIOS পাশওয়ার্ডঃ

Biostar – Biostar
Compaq – Compaq
Dell – Dell
Enox – xo11nE
Epox – central
Freetech – Posterie
IWill – iwill
Jetway – spooml
Packard Bell – bell9
QDI – QDI
Siemens – SKY_FOX
TMC – BIGO
Toshiba – Toshiba
VOBIS &  IBM – merlin

পোস্টটা অনেক বড় হয়ে গিয়েছে আর আমার লিখতে লিখতে হাতও ব্যথা হয়ে গিয়েছে। তাই আর কথা বাড়াবো না। কেমন লাগলো জানাতে ভুলবেন না কিন্তু।

ভালো থাকবেন এই কামনা নিয়ে সবাইকে বিদায় জানাচ্ছি!!!

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

3 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

17 − two =