বাংলাদেশ এ সবই সম্ভব………… শুধু মাত্র বাস্তবায়ন এর অভাব।

2
292

দেশের প্রধান মোবাইল অপারেটর জিপি-র একটিভ গ্রাহক যদি ২ কোটি হয়, আর এই ২ কোটি গ্রাহক প্রতিদিন যদি ১টি কল করে ১ …মিনিট করেও কথা বলেন, তাহলে ১৫% ভ্যাট হিসেবে দৈনিক সরকারী রাজস্ব আয় হবার কথা (২কোটি*১মিনিট*১৫%=) ৩ কোটি টাকা, সে হিসেবে মান্থলি আয় হওয়া উচিত (৩ কোটি*৩০দিন=) ৯০ কোটি টাকা। দেশে আরও চারটি প্রাইভেট মোবাইল অপারেটর আছে এবং তাদের একটিভ গ্রাহক যদি জিপি-র একটিভ গ্রাহকের অর্ধেকও হয় (অনেকে একাধিক সিম কার্ড ইউজ করেন) সে হিসেবে এসব অপারেটর থেকেও মান্থলি আয় হওয়া উচিত (৩*৪৫ কোটি টাকা=) ১৩৫ কোটি টাকা। তাহলে মান্থলি হিসেবে শুধুমাত্র মোবাইল সেক্টর থেকেই মিনিমাম আয় হওয়া উচিত (১৩৫+৯০=)২২৫ কোটি টাকা। সারচার্জ হিসেবে প্রতিকলে ২৫ পয়সা হিসেবে মোট আয় হবার কথা (২২৫+২২৫*২৫=)২৮২ কোটি টাকা। সুতরাং শুধুমাত্র মোবাইল সেক্টর থেকে মিনিমাম ইয়ারলি ইনকাম (২৮২ কোটি*১২মাস=) ৩,৩৭৫ কোটি টাকা!

(পুনশ্চ ১- কেউ নিশ্চয়ই মাত্র এক মিনিট কথা বলেন না!)

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

মোবাইল ফোনের মতই বর্তমানে আমাদের আরেকটি অবিচ্ছেদ্য অনুষংগ হল সিগারেট। ব্যাট বাংলাদেশের হিসেব অনুযায়ি শুধুমাত্র ঢাকা শহরেই এক দিনে বেনসন লাইটস্ এর প্যাকেট বিক্রি হয় প্রায় ৫ লাখের মত। প্রতিটি সিগারেটের জন্য ব্যাট কে টিডিএস (ট্যাক্স ডিডাক্টেড এট সোর্স বা উৎস কর) দিতে হয় ৬ পয়সা করে, সে হিসেবে এক প্যাকেট অর্থাৎ ২০ টি সিগারেটের জন্য প্যাকেট প্রতি টিডিএস জমা পড়ে ১ টাকা ২০ পয়সা, দৈনিক হিসেবে (৫ লাখ*১.২০ টাকা=) ৬ লাখ টাকা, মান্থলি হিসেবে (৬ লাখ*৩০ দিন=)১ কোটি ৮০ লাখ, ইয়ারলি হিসেবে (১ কোটি ৮০ লাখ*১২ মাস=) ২১ কোটি ৬০ লাখ টাকা। ব্যাট এর ওয়েবসাইট অনুযায়ি বেনসন লাইটস্ ছাড়া তাদের আরও ৯ প্রকারের প্রোডাক্ট রয়েছে, এবং সেসব প্রোডাক্ট থেকে কম করে হলেও সব মিলিয়ে যদি বেনসন লাইটস্ এর সমান-ও টিডিএস জমা পড়ে সেক্ষেত্রে শুধু ঢাকা থেকেই রাজস্ব আয় হবার কথা ইয়ারলি (২১ কোটি ৬০ লাখ টাকা*২=) ৪৩ কোটি ২০ লাখ।

(পুনশ্চ ২ – দেশে আরো ৬৩ টি জেলা শহর আছে এবং বেনসন লাইটস্ এর মত বেনসন রেগুলার, গোল্ড লিফ বা ব্রিস্টল, স্টার ও কিন্তু স্ট্যাটাস ভেদে কম জনপ্রিয় নয়!)

আনুষ্ঠানিক ভাবে সিদ্ধান্ত হয়ে যাওয়ায় একটি প্রশ্ন ঘুরপাক হওয়াই স্বাভাবিক নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব কি না। নিজস্ব অর্থায়ন বা সরকারের একমাত্র আর্নিং সোর্স হল ট্যাক্স ও ভ্যাট কালেকসন। যাবতীয় বাজেট ও ব্যয় ভাবনা এই ট্যাক্স আর ভ্যাট কে ঘুরেই আবর্তিত হয়। বাস্তবতা হচ্ছে ট্যাক্স ও ভ্যাটের আয় ক্ষেত্র এতটাই বিশাল যে, সঠিক পদ্ধতিতে ট্যাক্স ও ভ্যাট কালেকসন করা হলে দেশীয় সব প্রয়োজন-ই মেটানো সম্ভব।

কোর্স কারিকুলামের অংশ হিসেবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ওয়েবসাইট ঘেটে লক্ষ্য করার মত মজার ব্যাপার হল দেশে প্রায় ৪৮ লাখ করদাতার প্রেক্ষিতে মাত্র ১০ লাখ লোক ট্যাক্স জমা দেন। শুধু তাই না, যে সমস্ত কোম্পানি ট্যাক্স জমা দেন, তাদের জমাকৃত অর্থ কালেকসনের ক্ষেত্রেও ব্যাপক ঘাটতি রয়েছে।

বিশ্ব ব্যাংকের চুক্তি ভংগে দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ায় সরকারী সিদ্ধান্ত টি ‘আবেগীয়’ না ‘যৌক্তিক’ তা হয়ত সময়-ই বলে দিবে, কিন্তু তত্ত্বীয় ভাবে সিদ্ধান্তটি যে খুবই সম্ভব তা দু-একটি উদাহরণ দিয়ে সহজেই বুঝা যায়। সঠিক পদ্ধতিতে ট্যাক্স ও ভ্যাট কালেকসন করা হলে সব মিটিয়ে শুধু পদ্মা কেন, মেঘনা, সুরমা সব সেতুই করা সম্ভব। এজন্য একবেলা কম খেয়ে বা কম বাজার করার প্রয়োজন নেই, প্রয়োজন শুধুমাত্র সততা ও দেশের প্রতি ভালবাসা।”

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

2 মন্তব্য

  1. নাইচ পোষ্ট!!!
    কিন্তু এই টাকা দিয়ে যে দুর্নিতিবাজ
    (যেখানে আমাদের অর্থ মন্ত্রির উক্তি
    “সর কার এর প্রত্যেক টি
    সেক্টরেই কম বেশী দুর্নীতি রয়েছে।”) সর কারের পকেট
    ভরানো হবে না সেটার কি কোন নিশ্চয়তা আপ নি দিতে পার বেন?
    আমি জানি আপ নি পার বেন না কারন যে মন্ত্রি পরিষদের
    প্রায় সব কয়জন দুর্নীতির
    অভিযোগে অভিযুক্ত।
    সয়ং অর্থমন্ত্রি নিজেও,বাদ পরেন নি প্রবীন নেতা সুরঞ্জিত সেন ও।
    এখন আপ নি বলেন আম রা কেন সর কার এর অর্থ সংগ্রহের এই পদক্ষেপ সমর্থন কর ব?

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

fourteen + sixteen =