গরম গরম ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের সংবিধান।

10
3321
গরম গরম ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের সংবিধান।

শিক্ষানবিস

আমি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগে পড়াশুনা করছি।
প্রযুক্তির বিশেষতঃ কম্পিঊটারের বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানা আমার Passion ।ভাল লাগে গল্পের বই পড়তে। নিজেকে অনেক ভালবাসি । আর ভালবাসি আমার পরিবারের সবাইকে।
গরম গরম ডাউনলোড করুন বাংলাদেশের সংবিধান।

আমি ব্লগে ঘোরাঘুরি করলেও খুব একটা লেখা হয় না। আমি ভালো জানিও না। ভালো লিখতেও পারি না…। যাইহোক, আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব বাংলাদেশের সংবিধান। যারা চাকরি-বাকরি নিয়ে চিন্তা করছেন তারা তো জানেনই যে বাংলাদেশের সংবিধান থেকে প্রতি পরীক্ষাতেই কিছু না কিছু প্রশ্ন আসে। আর বিসিএস পরীক্ষা যারা দিবেন তারা জানেন বাংলাদেশ বিষয়াবলী দ্বিতীয় পত্রের জন্য বাংলাদেশের সংবিধান জানা বাধ্যতামূলক।  আসুন সংবিধান নিয়ে Wikipedia.com এর কিছু তথ্য জানি।

বাংলাদেশের সংবিধান স্বাধীন রাষ্ট্র বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইন। ১৯৭২ সালের ৪ঠা নভেম্বর বাংলাদেশের জাতীয় সংসদে এই সংবিধান প্রণীত হয়, এবং একই সালের ১৬ই ডিসেম্বর হতে এটি কার্যকর হয়। ২০১১ খ্রিস্টাব্দের ১৫ম সংশোধনী সহ এটির মোট ১৫টি সংশোধনী রয়েছে।এই সংবিধান পরিবর্তনের জন্য কিংবা সংশোধনের প্রয়োজন হলে সংসদ সদস্যদের দুই তৃতীয়াংশ ভোটের প্রয়োজন হয়।

সংবিধান প্রণয়নের ইতিহাস

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

সংবিধান প্রণয়নের উদ্দেশ্যে ১৯৭২ সালের ১১ই এপ্রিল ড. কামাল হোসেনকে সভাপতি করে ৩৪ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। একই বছরের ১৭ই এপ্রিল থেকে ৩রা অক্টোবর পর্যন্ত এই কমিটি বিভিন্ন পর্যায়ে বৈঠক করে। জনগণের মতামত সংগ্রহের জন্য মতামত আহবান করা হয়। সংগ্রহীত মতামত থেকে ৯৮টি সুপারিশ গ্রহণ করা হয়। ১২ই অক্টোবর, ১৯৭২ তারিখে তৎকালীন আইনমন্ত্রী ড. কামাল হোসেন সংবিধান বিল গণপরিষদে উত্থাপন করেন। এরপর ৪ঠা নভেম্বর, ১৯৭২ সালে বিলটি পাস হয় এবং আইনে পরিণত হয়।

সংবিধান লেখার সময় খসড়া পর্যালোচনার জন্য ড. আনিসুজ্জামানকে আহবায়ক, সৈয়দ আলী আহসান এবং মযহারুল ইসলামকে ভাষা বিশেষজ্ঞ হিসেবে একটি কমিটি গঠন করে পর্যালোচনার ভার দেয়া হয়।

গণপরিষদ ভবন, যা বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীর সরকারী বাসভবন, সেখানে সংবিধান প্রণয়ন কমিটির বৈঠকে সহযোগিতা করেন ব্রিটিশ আইনসভার খসড়া আইন-প্রণেতা আই গাথরি।

সংবিধান ছাপাতে ১৪ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছিলো। শিল্পী হাশেম খান অলংকরণের দায়িত্বে ছিলেন। ১৯৪৮ সালে তৈরী ক্র্যাবটি ব্রান্ডের দুটি অফসেট মেশিনে সংবিধানটি ছাপা হয়।

মূল সংবিধানের কপিটি বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরে সংরক্ষিত আছে।

 

ডাউনলোড করে রাখুন। এটি পঞ্চদশ সংশোধনীর পরে সংকলন করা হয়েছে। সুতরাং  সম্পূর্ণ নতুন চকচকে সংবিধান নিয়ে নিন।

মিডিয়াফায়ার লিঙ্ক

বাংলাদেশের সংবিধান

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

10 মন্তব্য

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

3 × 5 =