একটি হারিকেন এর আত্ন কাহিনি

3
394
একটি হারিকেন এর আত্ন কাহিনি

সত্যের খলিফা

প্রথমেই বলে নিচ্ছি আমি মহান আল্লাহর এক ক্ষুদ্র সৃষ্টি ছারা আর কিছু নই।

আর এ ছারা যদি বলতে হয় তবে আমি খুব ছোট একটি ছেলে , যে কিনা এখনো স্কুলে পড়ে । স্কুল পালিয়ে বিভিন্ন বাসার গাছ থেকে ফুল ফল চুরি করেআর নিজে নিজে গান গায়,
“আমাকে আমার মতো পড়তে দাও
আমি পড়াকে নিজের মতো ছোটো করে নিয়েছি
যা পরিনি পরিনি তা না পড়াই থাক”
আর! হ্যাঁ! যে কিনা দুপুর হতে হতেই ব্রম্মাপুত্রের পানিতে গোছোলের জন্য বন্ধুদের নিয়ে ঝাপ দেয় । আর!.....................।
একটি হারিকেন এর আত্ন কাহিনি

অনিকেরই তো কোন না কোন কাহিনি থেকে । আজ আপনাদের কাছে একটি হারিকেনের কাহিনি বলবো, বলবো তার মনের কথা ! ;-)

_____________________________________________

Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

আমি একটি হারিকেন । আমাকে তৈরি করার পর যখন বাজারে নিয়ে আসা হয়েছিল তখন আমার খুব ভয় করছিলো। ভাবছিলাম আমাকে কেও কিনবে তো। হ্যাঁ! আমাকে কিনলো তবে সবগুলো হারিকেন থেকে কম দামে। দামটা কম বলে আমার মন অল্প খারাপ হয়েছিলো। যাই হোক আমাকে কিনে যে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিলো সেই বাসায় খুব দুষ্ট দুইটি ছেলে ছিল। তারা স্কুলে পড়তো। তাদের স্কুলের পড়াশোনা শেষ করতো আমার আলো দিয়ে যখন আমি জলতে জলতে চিমনি কালো করে ফেলতাম তখন তারা দুইজন খুব যত্ন করে আমার চিমনি পরিস্কার করে দিত। তারা আমাকে এত যত্ন করে রাখতো যে তা বলে শেষ করা যাবে না। দিনগুলি ভালোই কাঠছিলো। আর ছেলে দুইটি লেখাপড়া করে শিক্ষিত হয়ে উঠছিলো। কিন্তু আমার ভালো থাকা কেনো জানি সৃষ্টিকর্তার কাছে সইলো না তিনি তাদের বাড়িতে বিদুৎ আনার ব্যবস্থা করে দিলেন। আর ঐ দুই ছেলে তখন অনেক বড় কয়েছে। তারা ঐ শয়তান বিদুৎ বাল্বকে পাওয়ার কিছুদিন পর যেন আমাকে ভুলেই গেল। তাদের যত্ন না পেয়ে আমি আস্থে আস্থে অসুস্থ হয়ে পড়ছিলাম আর খোদার কাছে দোয়া করছিলাম  “হে খোদা তুমি এত নির্দয় হও কি করে। তুমি আজ ওদের এমন বানালে কেনো তারা আজ এই কয়েকদিনের ডিজিটাল দেশ পেয়ে আমাদের পুরানো সবকিছুকেই ভুলে গেলো। এখনো মনে পরে তারা আমাকে জালিয়ে আমার আলো দিয়ে বড় হলো। আর আজ!-এই তার প্রতিদান !” আমি মনে মনে ঐ দুই ছেলেকে অভিসাপ দিতে থাকলাম । আর ভাবতে থাকলাম তারা নতুন জিনিস পেয়ে পুরানকে কি এত সহযেই ভুলে গেলো ? তারা আজ আমাকে জন্ডাল মনে করে ঘরে এক কোনায় ফেলে রাখে। সেদিন তারা বলছিলো যে আমাকে ফেরিওলার কাছে বিক্রি করে দিবে। শুনে আমার যে কি খারাপ লাগছিলো তা বুঝা তে পারবো না। আস্তে আস্তে আমি নিস্তেজ হয়ে আসছিলাম আমার চিমনি ও মনে হয় ভাঙার পথে চলছিলো। এমনি এক দিনে খোদা যেনো আমাকে আবার সবার কাছে সরন করার সুযোগ দিলো। তখন ছিলো বৈশাখ মাস, অন্ধকার এক রাত্রিতে বাহিরে প্রচন্ড ঝর। হটাৎ করে বিদ্যুৎ চলে গেল অর্থাৎ লোডশেটিং হলো আর কি । তখন তারা মোম জালালে বাতাসে তা নিবে যাচ্ছিল্ল তখন একজন আমাকে দেখে বল্ল বা! আমাদের তো হারিকেনই আছে আর তাই তারা আমাকে জন্ডাল থেকে বের করে কেরাসিন দিয়ে আবার জালানোর চেষ্টা করলো। কিন্তু ততদিনে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে এবং তাই আমাকে জালানো মাত্রই আমার ফাটা চিমনি শব্দ করে ভেঙে আমার মৃত্যু হয়।

তাই আজ আমি সবাইকে বলি কেও যেন নুতুনকে পেয়ে পুরাতনকে ভুলে না যায় । হয়তো বা পুরাতনকে কখনো দরকার নাও লাগতে পারে । কিন্তু তাই বলে পুরানকে ভুলে গেলে তুমি যেন নিজেকেই ভুলতে থাকবে কারন শুধু বর্তমান বা ভবিষ্যৎ হিসাব কোরে তোমাকে চিনতে পারা যায় না তোমাকে পরিপূর্ণ ভাবে চেনার জন্য দরকার হয় তোমার অতিত !

আর পুরান কিছুকেই ভিত্তি করে গরে উঠে নতুন কিছু । তাই নতুন কিছু পেয়ে পুরানের মর্যাদা ক্ষূন্ন করা উচিত নয়।

টিউনারপেজের নতুন টিউন আপনাকে ইমেইল করব?
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting
Unlimited Web Hosting

3 মন্তব্য

    • ভাই কি বুজা তে চাচ্ছেন তা বুজতে পারলাম না ……

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

10 − eight =